X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে নীলফামারীতে ২০২ জনকে সহায়তা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে নীলফামারীর ১৫ ইউনিয়নের ২০২ দুস্থ ও গরিবের মাঝে হুইল চেয়ার, রিকশা-ভ্যান, সেলাই মেশিন, বাইসাইকেলসহ বিভিন্ন খেলা ও সাংস্কৃতিক চর্চার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে জেলার সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব সামগ্রী বিতরণ করেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী ও নীলফামারী সদর আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর। সংসদ সদস্যদের ব্যক্তিগত তহবিল এবং এডিপির (২০২০-২১) অর্থায়নে এসব সামগ্রী বিতরণের আয়োজন করে সদর উপজেলা পরিষদ।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন সংগ্রাম করেছিলেন বাঙালি জাতির জন্য। তাঁর রাজনীতির স্বপ্ন ছিল, গরিব দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো। তাঁর নেতৃত্বে বাঙালি জাতি একটি স্বাধীন ভূখণ্ড পেয়েছে। কিন্তু ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে আমাদের সেই স্বপ্নকে দুঃস্বপ্নে পরিণত করেছিল। যে পাকিস্তানকে আমরা বর্জন করেছিলাম, যে পাকিস্তানি শাসন থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করা হয়েছিল, সে পাকিস্তানকে আবারও ফেরানোর একটা চেষ্টা করা হয়েছিল।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপির নেতা জিয়াউর রহমান মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, সেটা আমরা স্বীকার করি। কিন্তু একজন মুক্তিযোদ্ধা কি পারেন, রাজাকার-আলবদরদের সঙ্গে নিয়ে চলতে? তার দলের দিকে তাকান, তার মন্ত্রীরা কারা ছিলেন, প্রত্যেকটা লোক স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ছিলেন। এরপর ওনার স্ত্রী খালেদা জিয়া যখন ক্ষমতায় এলেন, তিনিও জামায়াতকে সঙ্গে নিলেন। যে জামায়াতে ইসলাম ১৯৭১ সালে আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরুদ্ধেই ছিল না, তারা বাঙালিদের হত্যা করেছে, আমাদের মা বোনদের ধর্ষণ করেছে বাড়িতে আগুন দিয়েছে লুটতরাজ করেছে।’

সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাফিজুর রশীদ মঞ্জু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দীপক চক্রবর্তী, সান্ত্বনা চক্রবর্তী প্রমুখ।

সদর উপজেলা পরিষদ সূত্র জানায়, দুস্থ প্রতিবন্ধীদের জন্য হুইল চেয়ার ৪৬, শিক্ষার্থীদের জন্য বাইসাইকেল ৩৩, কর্মসংস্থানের জন্য রিকশা ১৪, ভ্যান ১৮, সেলাই মেশিন ৪০, নলকূপ ২০, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ফ্যান ৫৪, দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য সাদাছড়ি ৩৫, ক্রীড়া চর্চার জন্য ফুটবল ৩৬০, ভলিবল ৫০, ক্রিকেট ব্যাট ৪, ব্যাডমিন্টন ১৬ সেট, সাংস্কৃতিক চর্চায় হারমোনিয়াম ৮ ও ৮ জোড়া তবলা বিতরণ করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

চট্টগ্রাম মেডিক্যালে চালু হলো বিশেষ স্ট্রোক ইউনিট

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩২

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্ট্রোকের রোগীদের চিকিৎসা সেবায় বিশেষায়িত ইউনিটের কাজ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালের নিউরোলজি বিভাগে সম্মেলন কক্ষে এক বণার্ঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে ইউনিটটির উদ্বোধন করা হয়। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম হুমায়ুন কবির এর উদ্বোধন করেন। সম্প্রতি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত নিউরোলজি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মো. ওয়াহিদুর রহমানের নামে (ওয়াহিদুর রহমান মেমোরিয়াল স্ট্রোক ইউনিট) নতুন এই ইউনিটটির নামকরণ করা হয়।

বিশেষ এই ইউনিট বিষয়ে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার এস এম হুমায়ুন কবির বলেন, স্ট্রোক ইউনিটের মাধ্যমে চট্টগ্রামের রোগীরা অত্যাধুনিক চিকিৎসা পাবেন। ঢাকার নিউরোসায়েন্স ইনস্টিটিউটের পর বাংলাদেশে সরকারিভাবে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এই ইউনিট সংযোজিত হলো। এখানে বিশেষায়িত সেবা দেওয়ার জন্য হাসপাতালের ওয়ান স্টপ জরুরি সেবা কেন্দ্রে একটি নতুন সিটিস্ক্যান মেশিন খুব শিগগিরই সংযোজন করা হবে।

 তিনি আরও বলেন, নিউরোলজি ওয়ার্ডে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেক সময় লিফটের পাশে বারান্দায় রোগী ভর্তি দিতে হয়, এটি অমানবিক। আমরা এই ওয়ার্ডের একটি বর্ধিত ওয়ার্ড খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। 
 
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. হাসানুজ্জামান বলেন, স্ট্রোক ইউনিটটি গঠনের মূল উদ্দেশ্য হলো খুব দ্রুত সময়ে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া। তাদেরকে থ্রম্বোলাইটিক থেরাপির মাধ্যমে একটি বিশেষায়িত চিকিৎসা প্রদান করার চেষ্টা থাকবে। এই থেরাপি স্ট্রোক রোগীর হাত ও পায়ের প্যারালাইসিস হওয়া রোধ করবে। থেরাপি এমন একটি সেবা যার প্রাপ্তির সময়সীমা খুবই সীমিত। স্ট্রোক হওয়ার সর্বোচ্চ সাড়ে ৪ ঘণ্টার মধ্যে আমরা যদি এই সেবা দিতে পারি তাহলে ভালো ফল মিলবে।

অনুষ্ঠানে বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. ফারহানা মোছলেহউদ্দিন। প্রবন্ধে বলা হয়, স্ট্রোক ইউনিটের মাধ্যমে অত্যাধুনিক থ্রম্বোলাইসিস চিকিৎসার মাধ্যমে স্ট্রোকজনিত মৃত্যুহার এবং শারীরিক অক্ষমতা অনেকাংশে কমে আসবে।

নিউরোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মাহবুবুল আলম খন্দকারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আক্তার, মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. এম এ হাছান চৌধুরী, রেডিওলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. সুভাষ মজুমদার, নিউরো সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. এস এম নোমান খালেদ চৌধুরী, ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. শওকত হোসেন প্রমুখ বক্তব্য প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে হাসপাতালের উপ-পরিচালক আফতাবুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক ডা. মো. সাজ্জাদ হোসেন, ডা. রাজিব পালিত, নিউরোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. প্রদীপ কুমার কায়স্থগীর, ডা. শিউলি মজুমদার, ডা. পঞ্চানন দাশ, সহকারী অধ্যাপক ডা. মশিহুজ্জামান আলফা, ডা. মো. তৌহিদুর রহমান, ডা. মো. আনোয়ারুল কিবরিয়া,  ডা. জামান আহম্মদ, ডা. মো. একরামুল আযম শাহেদ, কনসালটেন্ট ডা. সীমান্ত ওয়াদ্দাদার, বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. পীযুষ মজুমদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৪:০৩

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে পূজামণ্ডপ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরও আট জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ জানান জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃতরা হলো—সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. সুমন (৩৩), চৌমুহনী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইমরান হোসেন নিশান (২০), একই ওয়ার্ডের মো. রনি (২০), চৌমুহনী পৌরসভার মীরওয়ারিশ গ্রামের বিএনপির সমর্থক মো. ইউসুফ (৩০), চৌমুহনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আক্তারুজ্জামান (৫০), সোনাইমুড়ী উপজেলার রবিউল হোসেন ওরফে রনি (৩২), লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার সাহেদুল ইসলাম (২২) ও হাতিয়া উপজেলার হাতিয়া পৌর বিএনপির প্রচার সম্পাদক ছেরাজুল হক বেচু (৪২)।

শহীদুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ইমরান হোসেন নিশান নামের একজন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন, হামলার দিন চৌমুহনী ব্যাংক রোডের রাম ঠাকুর মন্দির থেকে এক লাখ ৩৫ হাজার টাকা লুট করে ভাগ-বাটোয়ারা করে নেয়। নিশান ভাগে পায় ৮ হাজার টাকা। এর মধ্যে পাঁচ হাজার ৫০০ টাকা খরচ করে। বাকি আড়াই হাজার টাকা তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদেরকে আজ নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

এর আগে হামলার ঘটনায় ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ১০ জনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে। তাদের মধ্যে আজ আলী আজগর, নুরুল ইসলাম সুমন ও নুরুল ইসলাম জীবনের রিমান্ডের শুনানি হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৫৫

মানিকগঞ্জে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত এক মাস ১৭ দিনে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল ৮৬ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ৯ জন রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়। 

মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ( আরএমও) ডা. কাজী একেএম রাসেল এ তথ্য  নিশ্চিত করেছেন।

ডা. কাজী একেএম রাসেল বলেন, ৯ সেপ্টেম্বর থেকে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) পর্যন্ত মোট ৮৬ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। এছাড়া ৯ জন রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকি ৭০ জন রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ছয় জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। 

এদিকে হাসপাতালটির তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশাদ উল্লাহ বলেন, এখন হাসপাতালে করোনার বাড়তি চাপ কমে গেছে। তবে গত এক মাসে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩৬

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পদ্মায় জেলের জালে ১৬ কেজি ওজনের কাতলা মাছ ধরা পড়েছে। মাছটি ১৭০০ টাকা কেজি দরে ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকালে দৌলতদিয়া ৭ নম্বর ফেরিঘাট এলাকায় ইসহাক হালদারের জালে মাছটি ধরা পড়ে।

জানা গেছে, হালদার মাছটি বিক্রির জন্য দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটে নিয়ে আসলে ১ হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ২৬ হাজার ৪০০ টাকায় কিনে নেন শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের মালিক সম্রাট শাহজাহান শেখ। পরে সম্রাট ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে ১ হাজার ৭০০ টাকা কেজি দরে মাছটি ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করেন।

জেলে ইসহাক হালদার বলেন, গত ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ ছিল। সোমবার মধ্যরাত থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল হওয়ায় দল নিয়ে পদ্মায় ইলিশ ধরতে বের হয়েছিলাম। কিন্তু ইলিশ না পেয়ে ১৭ কেজি ওজনের বড় কাতলা পেয়েছি।

মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাহজাহান শেখ বলেন, মাছটি উন্মুক্ত নিলামে ১ হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ২৬ হাজার ৪০০ টাকাই কিনি। পরে ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করি।

রাজবাড়ী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, বর্তমানে পদ্মায় ইলিশের আকাল থাকলেও জেলেদের জালে বড় বড় রুই, কাতলা, চিতল, বোয়াল ও পাঙাশসহ বিভিন্ন মাছ পাওয়া যাচ্ছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

চাপাতি দিয়ে প্রেমিকাকে কোপানোর অভিযোগ

চাপাতি দিয়ে প্রেমিকাকে কোপানোর অভিযোগ

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩১

নভেম্বরের ১ তারিখ থেকে দুবলার চরের শুটকি মৌসুমের শুরু। উপকূলের জেলেপল্লিগুলোতে চলছে শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা। সাগরে যেতে যে যার মতো প্রস্তুত করছেন জাল, দড়ি, নৌকা-ট্রলার। কেউ কেউ গড়ছেন নতুন ট্রলার, আবার কেউ পুরাতনটিকে মেরামত করে নিয়েছেন। সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে ইতোমধ্যে অনেকে চলে এসেছেন মোংলা ও পশুর নদীতে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বনবিভাগের পাস নিয়েই তারা রওনা হচ্ছেন সাগর পাড়ের দুবলার চরে। সাগরে এখন আর দস্যুদের উৎপাত না থাকলেও ঝড়-জলোচ্ছ্বাসে প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি মাথায় নিয়েই দুবলায় যাত্রা শুরু করেছেন জেলেরা।

বঙ্গোপসাগর পাড়ে সুন্দরবনের দুবলার চরে ১ নভেম্বর থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শুটকি মৌসুমে ব্যস্ত সময় পার করবেন জেলেরা। টানা পাঁচ মাস সেখানে থাকতে হবে জেলেদের। তাই সাগর পাড়ে গড়তে হবে অস্থায়ী থাকার ঘর, মাছ শুকানোর চাতাল ও মাচা। সেসব তৈরিতে ব্যবহার করা যাবে না সুন্দরবনের কোনও গাছপালা-লতাপাতা। তাই বনবিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী চরের উদ্দেশে যাত্রার প্রস্তুতি নেওয়া জেলেরা তাদের ট্রলারে করে সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন প্রয়োজনীয় সামগ্রী। আর এ সব প্রস্তুতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বাগেরহাটসহ উপকূলের কয়েক জেলার জেলে-মহাজনেরা। যাওয়ার পথে সুন্দরবনের কোনও নদী-খালে প্রবেশ ও অবস্থান করতে পারবেন না সমুদ্রগামী এ জেলেরা। এছাড়া দুবলার চরে অবস্থানকালে সাগর ছাড়া সুন্দরবনের খালে প্রবেশ ও সেখানে মাছ ধরতেও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। 

জাতীয় মৎস্যজীবী সমিতির মোংলা শাখার সভাপতি বিদ্যুৎ মন্ডল ও সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল শেখ বলেন, এবার দুবলার চরে শুটকি করতে মোংলার আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ ট্রলারে জেলেরা যাচ্ছেন। ওই সব ট্রলারে জেলেরা এখান থেকে সব ধরনের সরঞ্জাম নিয়ে যাচ্ছেন। 

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, শুটকি মৌসুমকে ঘিরে এবারও উপকূলের বিভিন্ন এলাকার প্রায় ১০ হাজার জেলে সমবেত হবেন দুবলার চরে। আর এ মৌসুমেও দুবলার চরের যাচ্ছে প্রায় দেড় হাজার মাছ ধরার ট্রলার। ট্রলার নিয়ে গভীর সাগর থেকে আহরিত বিভিন্ন প্রজাতির মাছ বাছাই করে শুটকি করবেন তারা। এ বছরও চরে জেলেদের থাকা ও শুটকি সংরক্ষণের জন্য ঘর এবং ডিপো স্থাপনের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। দুবলার চরে জেলেদের নিরাপত্তায় বনবিভাগের পাশাপাশি থাকবে র‌্যাব ও কোস্ট গার্ডের টহল।

তিনি আরও বলেন, গত শুটকির মৌসুমে দুবলার চর থেকে বনবিভাগের রাজস্ব আদায় হয়েছিল তিন কোটি ২২ লাখ টাকা। এবারও আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সমপরিমাণ কিংবা তার চেয়েও বেশি রাজস্ব আদায় সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।

দুবলা ফিসারম্যান গ্রুপের নেতা কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গোপসাগর ও সুন্দরবনে এখন আর দস্যুতার ভয় নেই। তাই অনেকটা স্বস্তি নিয়েই সাগরে যাচ্ছেন জেলেরা। আবহাওয়া ভালো থাকলে লাভের পাল্লা ভারী করেই মৌসুম শেষে বাড়িতে ফিরতে পারবেন উপকূলীয় বিভিন্ন এলাকার এ জেলে-বহাদ্দাররা।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

নীলফামারীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ক্ষতি ১৫ কোটি টাকা

নীলফামারীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ক্ষতি ১৫ কোটি টাকা

পুঁজি হারানোর আশঙ্কা পান চাষিদের

পুঁজি হারানোর আশঙ্কা পান চাষিদের

সর্বশেষ

চট্টগ্রাম মেডিক্যালে চালু হলো বিশেষ স্ট্রোক ইউনিট

চট্টগ্রাম মেডিক্যালে চালু হলো বিশেষ স্ট্রোক ইউনিট

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় একযোগে কাজ করবে অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ 

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় একযোগে কাজ করবে অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ 

সহিংসতায় ইন্ধনদাতাদের নাম শিগগিরই প্রকাশ করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সহিংসতায় ইন্ধনদাতাদের নাম শিগগিরই প্রকাশ করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

আফগানিস্তান ইস্যুতে সিরিজ বৈঠকে অংশ নেবে রাশিয়া

আফগানিস্তান ইস্যুতে সিরিজ বৈঠকে অংশ নেবে রাশিয়া

© 2021 Bangla Tribune