X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবস

আর্থ্রাইটিসের চিকিৎসায় অবহেলা নয়

আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ১৪:২২

আর্থ্রাইটিস তথা বাতরোগ হলো এক বা একাধিক জয়েন্টের ফোলা ও ব্যথা। এর প্রধান লক্ষণ হল জয়েন্টে ব্যথা এবং তা শক্ত হওয়া। সাধারণত বয়সের সঙ্গে সঙ্গে এর প্রকোপ বাড়ে। আর্থ্রাইটিসের সবচেয়ে সাধারণ ধরন হলো অস্টিওআর্থ্রাইটিস এবং রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস। এ ছাড়াও গাউট, সোরিয়াটিক আর্থ্রাইটিস, এনকাইলোজিং স্পন্ডাইলাইটিস, রি-একটিভ-আর্থ্রাটিস, এন্টারোপ্যাথিক-আর্থ্রাইটিসসহ শতাধিক বাতরোগ আছে।

আজ ১২ অক্টোবর ‘বিশ্ব আর্থ্রাটিস দিবস’। বাতরোগের ব্যাপারে মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে ১৯৯৬ সাল হতে প্রতি বছর দিনটি পালিত হচ্ছে। এই বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘আর নয় দেরি, সম্পৃক্ত হই আজই: এখন সময় কাজের’।

অস্টিওআর্থ্রাইটিস একটি জয়েন্টের কার্টিলেজের ক্ষয়জনিত রোগ। কার্টিলেজ হাড়ের প্রান্তসমূহে অস্থিসন্ধির অভ্যন্তরে থাকে। এটি সন্ধির হাড়সমূহের ঘর্ষণ রোধ করে। কিন্তু জয়েন্ট কার্টিলেজের পর্যাপ্ত ক্ষতির ফলে হাড় সরাসরি হাড়ের ওপর পিষে যেতে পারে, যা ব্যথা তৈরি করে ও রোগীর চলাচলকে সীমাবদ্ধ করে।

এই প্রক্রিয়া অনেক বছর ধরে ঘটতে পারে। অথবা কোনও আঘাত বা সংক্রমণের দ্বারা ত্বরান্বিত হতে পারে। অস্টিওআর্থ্রাইটিস হাড়ের পরিবর্তন এবং সংযোগকারী টিস্যুর অবনতি ঘটায়। এটি হাড়ের সঙ্গে পেশী সংযুক্ত করে এবং জয়েন্টকে একসঙ্গে ধরে রাখে। যদি জয়েন্টে কার্টিলেজ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তবে জয়েন্টের আস্তরণ ফুলে যেতে পারে।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, পূর্ণবয়স্ক বাংলাদেশিদের মধ্যে অস্টিওআর্থ্রাইটিসের প্রাদুর্ভাব ১০ শতাংশ। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এটি বাড়ে। রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিসে, শরীরের ইমিউন সিস্টেম যৌথ ক্যাপসুলের আস্তরণ আক্রমণ করে, এটি হলো একটি শক্ত ঝিল্লি যা সমস্ত যৌথ অংশকে ঘিরে রাখে। এই আস্তরণ (সিনোভিয়াল মেমব্রেন) ফুলে যায়। এ রোগ শেষ পর্যন্ত জয়েন্টের মধ্যে কার্টিলেজ ও হাড় ধ্বংস করতে পারে।

 

আর্থ্রাইটিসের ঝুঁকির কারণ

পারিবারিক ইতিহাস: কিছু আর্থ্রাইটিস বংশানুক্রমিক। বাবা-মা বা ভাইবোনদের হলে আপনারও বাতের আশঙ্কা থাকবে।

বয়স: অস্টিওআর্থ্রাইটিস, রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস এবং গাউটসহ অনেক ধরনের বাতের ঝুঁকি বয়সের সঙ্গে বাড়ে।

লিঙ্গ: নারীদের রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস হওয়ার আশঙ্কা পুরুষদের তুলনায় বেশি। আবার গাউট ও অন্য ধরনের আর্থ্রাইটিস আছে যেগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পুরুষের হয়।

আঘাত: যেসব ব্যক্তি জয়েন্টে আঘাত পেলে সেখানেও আর্থ্রাইটিস হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

স্থূলতা: অতিরিক্ত ওজন বহন করলে জয়েন্টগুলোতে, বিশেষ করে হাঁটু, নিতম্ব এবং মেরুদণ্ডে চাপ পড়ে। এ কারণে তাদের আর্থ্রাইটিস হওয়ার ঝুঁকি বেশি। ওজন বহনকারী জয়েন্টের আর্থ্রাইটিস আপনাকে আরামে হাঁটতে দেবে না, ঠিকমতো সোজা হয়ে বসতেও দেবে না। কিছু ক্ষেত্রে, জয়েন্টগুলো ধীরে ধীরে স্বাভাবিক কার্যক্ষমতা হারাতে পারে। অস্থিসন্ধির আকৃতি হারাতে পারে। এমনকি যথাযথ চিকিৎসা না করালে আক্রান্ত ব্যক্তিকে পঙ্গুও হয়ে যেতে পারে।

 

সাধারণত ১০০-এর বেশি অস্থিসন্ধির প্রদাহজনিত রোগের সন্ধান পাওয়া গেছে। এদের কারণ ও চিকিৎসা পদ্ধতি ভিন্ন। প্রচলিত রোগগুলো হচ্ছে রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস, স্পন্ডাইলো আর্থ্রাইটিস ও অস্টিও আর্থ্রাইটিস।

লক্ষণগুলো হচ্ছে— ব্যথা,অস্থিসন্ধির জড়তা এবং প্রদাহ। সময়মত পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসার অভাবে অস্থিসন্ধি বাঁকা হতে পারে। এতে রোগীর কাজ-কর্ম ও স্বাভাবিক জীবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এক্ষেত্রে সমন্বিত চিকিৎসা পদ্ধতি দারুণ সুফল বয়ে আনতে পারে।

একজন বাতরোগ বিশেষজ্ঞ ফিজিয়াট্রিস্ট এই সমন্বিত চিকিৎসা কার্যক্রম দক্ষতার সঙ্গে সম্পন্ন করতে পারেন। এ ছাড়া ফিজিওথেরাপিস্ট, অকুপেশনাল থেরাপিস্ট, রিহ্যাবিলিটেশান নার্স, প্রসথেটিস্ট ও অর্থোটিস্ট, নিউট্রিশনিস্ট, সমাজকর্মী, মেডিক্যাল সাংবাদিক ও কেয়ার গিভার গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারেন।

সমন্বিত চিকিৎসা ব্যবস্থা আর্থ্রাটিস রোগীদের ব্যথামুক্ত সময় পার করতে, স্বাভাবিক কর্মক্ষম জীবনে ফিরে আসতে এবং বিকলাঙ্গতা প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম।

isdf

বাতরোগের চিকিৎসা, পুনর্বাসন ও গবেষণার লক্ষ্যে ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়-এর ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহাবিলিটেশন বিভাগে  রিউম্যাটোলজি রিহ্যাবিলিটেশন ক্লিনিকের যাত্রা শুরু। প্রতি মঙ্গলবার সকাল ৯টা হতে দুপুর ১২:৩০টা পর্যন্ত বিনামূল্যে বাতরোগীদের সামগ্রিক চিকিৎসা ও পুনর্বাসন সেবা প্রদান করা হয়।

এই বিশেষায়িত ক্লিনিকে ইতোমধ্যে তিন হাজারের বেশি বাতরোগীর চিকিৎসা হয়েছে। ইতোমধ্যে ৬টি গবেষণা সম্পন্ন হয়েছে। আরও ৬টি গবেষণা চলমান। এই ক্লিনিকের গবেষণা প্রবন্ধ আন্তর্জাতিক জার্নালেও প্রকাশিত হয়েছে।

 

মানুষকে বাতরোগ ও অস্থিসন্ধির প্রদাহজনিত রোগের ব্যাপারে সচেতন করতে আজকের দিনটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে। রোগী, চিকিৎসক, সংবাদকর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী, রোগীর স্বজন, ও নীতিনির্ধারক—সকলের সম্মিলিত প্রয়াস বাতরোগের জটিলতা মোকাবিলায় কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

 

লেখক: সহযোগী অধ্যাপক ও সমন্বয়ক, রিউম্যাটোলজি রিহ্যাবিলিটেশন ক্লিনিক, ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহাবিলিটেশন বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়।

/এফএ/

সম্পর্কিত

পান্তা, মাছ ভাজা আর ভর্তা নিয়ে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে কিশোয়ার

পান্তা, মাছ ভাজা আর ভর্তা নিয়ে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে কিশোয়ার

শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ সংগ্রহশালা উন্মুক্ত হলো

শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ সংগ্রহশালা উন্মুক্ত হলো

লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশোর সঙ্গে সাকিব-বাঁধন

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

ট্রেন্ডি ফার্নিচার ও লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশো’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন দেশের জনপ্রিয় দুই তারকা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন।

আসবাব শিল্পে প্রতিনিয়ত নতুন কিছু উপহার দেওয়ার প্রত্যয়ে কাজ করে চলেছে ইশো। পণ্যের নকশা, গুণগত মান ও কারিগরি দক্ষতার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী নিজেদের অবস্থান পোক্ত করছে প্রতিষ্ঠানটি। এ কারণেই ইশোর সঙ্গে নির্দ্বিধায় যুক্ত হয়েছেন এ দুই তারকা। ট্রেন্ডি কালেকশন এনে প্রতিষ্ঠানটি বরাবরই গ্রাহকদের নতুন কিছু উপহার দিয়েছে। তেমনই একটি ফিচার এআর, যা গ্রাহকদের জন্য সম্পূর্ণ নতুন। 

ইশোর প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক রায়ানা হোসেন বলেন, ‘সাকিব ও বাঁধনকে পাশে পেয়ে আমরা আনন্দিত। আমাদের ভিশন ও ব্র্যান্ডের প্রতি তারা দুজনই আস্থাশীল। দুই তারকাই তাদের ব্যক্তিগত ক্যারিয়ারে ট্রেন্ড-সেটার। এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি ঘরে ইশো পণ্য পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য বাস্তবায়িত হবে বলে আমি আশাবাদী।’

সাকিব আল হাসান বলেন, ‘স্বল্পসময়ের মধ্যেই ইশো অনলাইন বিক্রিতে এক নম্বর ফার্নিচার ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে। এ থেকে বোঝা যায় তারা কেন অনন্য এবং ভবিষ্যৎ কেমন হবে। আমি নিজেও ইশোর ভক্ত। পছন্দের ব্র্যান্ডে যুক্ত হতে পেরে আনন্দিত।’

আজমেরী হক বাঁধন বলেন, ‘ইশোর সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমি আনন্দিত। এর কিছু কারণও রয়েছে। তাদের পণ্যগুলো অন্য ব্র্যান্ডের নেই। আর ব্যক্তিগতভাবে আমি এগুলে পছন্দ করি। ইশো দেশের মানুষের আসবাবপত্র বাছাইয়ে পছন্দ ও রুচি পরিবর্তনে সক্ষম হয়েছে।

/জিএম/এফএ/

জিন্স-টি শার্টে ঝলমলে কারিনা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৪২

দুই সন্তানের মা হলেও কারিনা কাপুর ওরফে বেবোর মাঝে হালফ্যাশনে ঘাটতি খুঁজে পাবে না কেউ। যখনই কারিনা কোনও অনুষ্ঠান বা টুকটাক কাজে বাইরে বের হন, তখনই তাকে বেশ স্টাইলিশ দেখা যায়।

গত বুধবার তথা ২০ অক্টোবর সকালে শ্যুটিংয়ের কাজেই হয়তো বের হয়েছিলেন। সকালের নীরবতার মাঝেও পাপারাজ্জিদের হাত থেকে রক্ষা পাননি। তাদের ক্যামেরাবন্দি কারিনাকে দেখা গেছে সকালের চায়ের পেয়ালা হাতে নিয়ে বের হতে। এগিয়ে যাচ্ছিলেন নিজের গাড়ির দিকে।

ডার্ক ব্লু ডেনিম জিন্স ও ন্যুড পিংক টি শার্টে কারিনা (ছবি: পিংকভিলা)

স্লিভলেস টি শার্ট পরেছিলেন বেবো। ডার্ক ব্লু ডেনিম জিন্স আর  ন্যুড পিংক টি শার্টে বেশ আবেদনময়ী লাগছিল বটে। চোখে বরাবরের মতো ছিল সানগ্লাস। আর পায়ের হিলজোড়া যেন গ্ল্যামারটাকেও তুলে দিয়েছিল খানিকটা।

দুপাশে খোলা চুল আর মেকআপ ছাড়া কারিনাকে দেখে কে বলবে ৪১ পেরিয়েছেন তিনি!

 

সূত্র: পিংকভিলা

/এফএ/

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

কোরিয়ার জনপ্রিয় খাবার 'বুলগগি'। বুলগগি কোরিয়ান শব্দ। বুল শব্দের অর্থ গ্রিল করা বা ভাজা। আর গগি মানে মাংস। বাসায় অতিথি এলে কোরিয়ানদের পাতে বুলগগি থাকবেই৷ কারণ এটার রেসিপি বেশ সহজ হলেও খেতে সুস্বাদু।

 

কোরিয়ান বুলগগি বানাতে যা যা লাগবে

  • দেড় থেকে দুই পাউন্ড হাড়ছাড়া গরুর মাংস
  • ২-৩ টেবিল চামচ সয়াসস
  • বড় করে কাটা দুই-তিনটি পেঁয়াজ
  • ৩-৪টা রসুনের কোয়া
  • ১ চা চামচ ভিনেগার
  • আধা চা চামচ আদাবাটা
  • আধা চা চামচ বা পরিমাণমতো গোলমরিচ গুঁড়া
  • ১ চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার
  • ১-২ চা চামচ মরিচ গুঁড়া
  • ১-২ চা চামচ চিনি
  • তিল ভাজা
  • স্বাদমতো মধু

 

প্রস্তুত প্রণালী

  • প্রথমে মাংসের টুকরোগুলো পাতলা করে কেটে নিন। এরপর পেঁয়াজ আর রসুন বড় বড় করে কেটে একটি বাটিতে ঢালুন।
  • মধু আর তিল বাদে সবগুলো উপকরণ একসঙ্গে ম্যারিনেট করে একটি বাটিতে রেখে ঢাকনা দিয়ে ৩০ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন। ভালো হয় যদি পুরো রাত ফ্রিজে রাখা হয়।
  • এবার একটি নন-স্টিকি ফ্রাইপ্যানে অল্প তেল গরম করুন। তেল গরম হলে ম্যারিনেটেড মাংসটা প্যানে দিন। আস্তে আস্তে মাংসটা কষাতে হবে, যতক্ষণ না পানি বের হয়ে শুকিয়ে আসে। মাংস শুকিয়ে মচমচে বাদামি হয়ে যাওয়ার পর এর ওপর তিল ও মধু ছড়িয়ে দিন। ব্যস, হয়ে গেল কোরিয়ান বুলগগি।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

রেসিপি : মজার স্ন্যাকস আলু চিলা

রেসিপি : মজার স্ন্যাকস আলু চিলা

রেসিপি : এলাচ নারিকেলের বরফি

রেসিপি : এলাচ নারিকেলের বরফি

রেসিপি : আলু জিরার রোল

রেসিপি : আলু জিরার রোল

রেসিপি : পুষ্টিতে ভরা সাউথ-ওয়েস্ট পাস্তা

রেসিপি : পুষ্টিতে ভরা সাউথ-ওয়েস্ট পাস্তা

ফুলেল লেহেঙ্গায় অনন্য ক্যাটরিনা

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ১৪:২৮

‘ফ্লাওয়ার পাওয়ার’ বলে একটা কথা আছে। ফুল মানে নরম-সরম কিছু নয়, ফুলে আছে শক্তি। আর সেটাই মনে করিয়ে দিলেন বলিউড গ্ল্যামার কন্যা ক্যাটরিনা কাইফ।

ক্যাটরিনার এ পোশাকে যেন লেগেছে সূর্যের ছটা

সব্যসাচীর নকশায় এ লেহেঙ্গায় স্পষ্টতই সূর্যের রক্তিম ছটার ইঙ্গিত। ফুল স্লিভ লাল ব্লাউজের সঙ্গে মাল্টিকালার ফ্লোরাল লেহেঙ্গায় একেবারে নতুন অবতারে ক্যাটরিনা।

ফুলের বিশুদ্ধতায় ক্যাটরিনা কাইফ

এ লেহেঙ্গার ভাঁজে ভাঁজে পাওয়া যাবে তরতাজা নিশ্বাস। বড় দুই ঝুমকো এনে দিয়েছে আরও বেশি ইনোসেন্ট লুক।

কালো লেহেঙ্গার সঙ্গে মানানসই চোকার

এটাও সব্যসাচীর নকশায়। সম্প্রতি নিজের সিনেমার প্রচারে কালো লেহেঙ্গাটাই পরতে দেখা গিয়েছিল ৩৮ বছর বয়সী এ নায়িকাকে। লুকটাকে আরও দশাসই করতে পরেছেন বড় আকারের চোকার।

নীলের ছটায় একাকার

নীলের এ রঙের ছটায় যেন আকাশের সঙ্গে মিলেমিশে একাকার। পোশাকটির নকশাকার হলেন আনিতা ডোংরে।

 

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশোর সঙ্গে সাকিব-বাঁধন

লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশোর সঙ্গে সাকিব-বাঁধন

জিন্স-টি শার্টে ঝলমলে কারিনা

জিন্স-টি শার্টে ঝলমলে কারিনা

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

বারান্দায় বাগান করার আগে জেনে রাখুন

বারান্দায় বাগান করার আগে জেনে রাখুন

বারান্দায় বাগান করার আগে জেনে রাখুন

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৭

সবুজের সংস্পর্শ শরীর ও মনকে করে প্রফুল্ল। বিশেষ করে শহরের ফ্ল্যাটবন্দি জীবন যাদের, তাদের জন্য দম ফেলতে এক চিলতে বারান্দাই ভরসা। কিন্তু গাছ কিনে টবে লাগালেই বাগান হয় না। কতটা আলো-বাতাস আসছে, কোন গাছে কেমন মাটি বা সার লাগবে, টবটা কেমন হবে, জানতে হয় এসবও।

 

বারান্দায় কোন গাছ লাগাবেন

ছোট পরিসরে মাঝারি টবের জন্য উপযোগী গাছই বারান্দায় যুৎসই। ফলের গাছ বারান্দায় লাগালে সেগুলো ঠিকঠাক বেড়ে উঠতে পারে না। বারান্দায় আলো কম থাকলে উপযোগী হলো পাতা খাওয়া যায় এমন সবজি, এবং যেগুলোতে ফুল বা ফল কোনোটাই হয় না। সরাসরি সূর্যের আলো থাকলে ফুল গাছ লাগানো যায়।

অল্প কিছুক্ষণ সূর্যের আলো পড়লে যেগুলো লাগানো যায়-লেবু, মরিচ, জুঁই, অর্কিড, ক্যাকটাস, অ্যাডেনিয়াম, মানিপ্লান্ট, বাগান বিলাস, স্নেক প্লান্ট, লাকি ব্যাম্বু্ ইত্যাদি। এ ছাড়া মৌসুমি ফুলগাছ, রেইন লিলি, কয়েন প্লান্ট, ইঞ্চ প্লান্ট, বেবি টিয়ার্স, নয়নতারা, সন্ধ্যামালতী, পর্তুলিকা, পিটুনিয়া, বেলি, গোলাপ, টগর, পাতাবাহারও লাগাতে পারেন।

 

বারান্দার গাছের যত্ন

কোন গাছ কীভাবে পটিং করবেন, মাটি কীভাবে প্রস্তুত করবেন, কোন গাছের কতটুকু আলো ও পানি দরকার এসব জেনে রাখা চাই।

প্রথমেই আসা যাক পটিং প্রসঙ্গে। পটিং হচ্ছে কী ধরনের টবে গাছ লাগাবেন এবং কোন গাছের জন্য কোন সাইজের টব লাগবে সেটা ঠিক করা। গাছের আকার অনুযায়ী পট বাছাই করতে হবে। বড় আকারের টবে গাছ বেশি পুষ্টি পাবে। শিকড় বাড়ার পর্যাপ্ত জায়গাও পাবে। আবার যেসব গাছ ধীরে বাড়ে সেগুলোর ক্ষেত্রে ছোট টব নেওয়া যায়। লেবু, ক্যাপসিকাম বা ফুল গাছের জন্য বড় টব বাছাই করা ভালো।

এ বিষয়ে বৃক্ষপ্রেমী জারিন তাসমিন বললেন, ‘টবে গাছ লাগানোর ক্ষেত্রে অবশ্যই আগে টবের নিচে ছোট করে কয়েকটি ছিদ্র করে নিতে হবে। খোলা মাটিতে প্রাকৃতিকভাবে পানি নিষ্কাশন হলেও টবের পানি নিষ্কাশনের জন্য আলাদা ব্যবস্থা থাকা চাই। না থাকলে টবে পানি আটকে শিকড় পচে যেতে পারে।’

 

মাটি তৈরি

শুরুতে এটাকে অনেকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চান না। বাইরের খোলা পরিবেশে মাটিতে গাছ লাগালে সেখানে শেকড় অনেক দূর ও গভীরে ছড়াতে পারে। তাই গাছ সহজে পুষ্টি নিতে পারে। বারান্দার টবে সেই সুযোগ নেই। তাই মাটিতেই থাকতে হবে দরকারি সব পুষ্টি। এক্ষেত্রে কোকোপিট, কেঁচো সার এগুলোর মিশ্রণটা বেশ কাজের। সাধারণত তিন ভাগ কোকোপিটের সঙ্গে এক ভাগ কেঁচো সার তথা ভারমি কম্পোস্ট মেশাতে হয়। সেই অল্প পরিমাণে খৈল ও গাছের ক্যালসিয়ামের চাহিদানুযায়ী হাড়ের গুঁড়াও মেশানো যায়।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ ও মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ নূর হৃদয় জানালেন, ‘বারান্দায় হাসনাহেনা, মানিপ্লান্ট, পাতাবাহার, গোলাপ ও আরও কিছু গাছ লাগিয়েছি। পরিবেশ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী হিসেবে আমি জৈব সারই ব্যবহার করেছি। ছোট পরিসারে সাধারণত জৈব সার ব্যবহার করাই ভালো। মাটি যদি শক্ত বা এঁটেল মাটি বেশি থাকে, তবে তাতে রাসায়নিক সার মানানসই হয় না।’

 

গাছের খাবার-পানি

সাধারণত সব গাছে সমান রোদ লাগে না। এমনকি সবগাছে একই পরিমাণ খাবার বা পানিও লাগে না। ফুল ও ফলগাছে রোদের প্রয়োজন হয় বেশি। আবার মানিপ্লান্ট, কয়েন প্লান্ট, লাকি ব্যাম্বু, স্নেক প্লান্ট জাতীয় গাছে বেশি রোদ লাগে না। পানি গাছের জন্য জরুরি। তবে কিছু গাছে বেশি পানি দিলে গাছ মারাও যেতে পারে। এক্ষেত্রে কিছুটা মাটি হাতে নিয়ে দেখতে হবে সেটা স্যাঁতস্যাঁতে কিনা। যদি মাটির আর্দ্রতা ঠিক থাকে তবে পানির প্রয়োজন নেই। শুকনো ও গুঁড়ো মনে হলে পানি দিতে হবে। গাছের পাতায়ও পানি স্প্রে করে দিতে হবে দুই তিন দিন পর পর। আর যে কোনও ধরনের গাছের জন্যই একটি উপকারী বস্তু হলো এপসম সল্ট। এক গ্যালন পানিতে ২ চা চামচ ভালো করে মিশিয়ে ১৫ দিন অন্তর স্প্রে করলেই গাছের ম্যাগনেসিয়ামের অভাব দূর হবে। এতে ফুলের সংখ্যা বাড়ে, পাতাও সতেজ হয়।

তবে গাছের অতিরিক্ত যত্ন নিতে গিয়ে আমরা অনেক সময় কিছু ভুল করি। যেমন অনেক বেশি পুষ্টি উপাদান কিংবা সার ব্যবহার করে ফেলি। এটি কখনোই উচিত নয়। বেশি সার দিলে গাছ বেশি দ্রুত তো বাড়বেই না, উল্টো সেটা মারা যেতে পারে। আবার অনেক সময় গাছ লাগিয়ে দায় সারা ভাব দেখাই। গাছের মরা বা আক্রান্ত পাতা নিয়মিত ছেঁটে দিতে হবে।

 

গাছের কেমন দাম?

এখন স্থানীয় নার্সারিগুলোতেই অনেক নামিদামি গাছ পাবেন। রাজধানীর দোয়েল চত্বরেও অনেক গাছের সমারোহ। আবার ফেসবুকে সার্চ করলেও পেয়ে যাবেন অনেক অনলাইন নার্সারি। সাধারণত দেশীয় ফুল গাছগুলোর দাম পড়বে ৩০-১০০ টাকা। ফলগাছ পাওয়া যাবে ২০০-৪০০ টাকায়। তবে বড় আকারের গাছ যদি ছোট টবে বিক্রি করতে দেখেন, সেটা না কেনাই ভালো। আবার দামি অর্কিডের দামই শুরু হয় সাধারণত হাজার-দুই হাজার টাকা থেকে।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশোর সঙ্গে সাকিব-বাঁধন

লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ইশোর সঙ্গে সাকিব-বাঁধন

জিন্স-টি শার্টে ঝলমলে কারিনা

জিন্স-টি শার্টে ঝলমলে কারিনা

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

রেসিপি : কোরিয়ান বুলগগি

ফুলেল লেহেঙ্গায় অনন্য ক্যাটরিনা

ফুলেল লেহেঙ্গায় অনন্য ক্যাটরিনা

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পান্তা, মাছ ভাজা আর ভর্তা নিয়ে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে কিশোয়ার

পান্তা, মাছ ভাজা আর ভর্তা নিয়ে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে কিশোয়ার

শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ সংগ্রহশালা উন্মুক্ত হলো

শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ সংগ্রহশালা উন্মুক্ত হলো

সর্বশেষ

জাতিসংঘ দিবস আজ

জাতিসংঘ দিবস আজ

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

ফেসবুকের ‘ভুয়া খবরেই’ দেশের সব সাম্প্রদায়িক হামলা

ফেসবুকের ‘ভুয়া খবরেই’ দেশের সব সাম্প্রদায়িক হামলা

বিশ্বের বৃহৎ ১০ অর্থনীতির একটি হবে তুরস্ক: এরদোয়ান

বিশ্বের বৃহৎ ১০ অর্থনীতির একটি হবে তুরস্ক: এরদোয়ান

© 2021 Bangla Tribune