X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কমনওয়েলথ অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকের সভাপতি হলেন আ হ ম মু্স্তফা কামাল

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫১

কমনওয়েলথ অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মু্স্তফা কামাল।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এবারের কমনওয়েলথ অর্থমন্ত্রীদের বৈঠক বা ফাইনান্স মিনিস্টারস মিটিংয়ে (সিএফএমএম) মালয়েশিয়ার আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব এবং ব্রুনেইয়ের সমর্থনে ২০২২ এর মিটিংয়ের সভাপতি নির্বাচিত হন বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী।

এর আগে বিশ্বব্যাংক–আইএমএফের বার্ষিক সভা ২০২১ এর সাইড লাইনে গত ১২ অক্টোবর সন্ধ্যায় কমনওয়েলথ অর্থমন্ত্রীদের একটি ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় কমনওয়েলথভুক্ত ৫৪টি দেশের অর্থমন্ত্রী এবং উচ্চ পদস্থ প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মু্স্তফা কামাল বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন।

অর্থমন্ত্রী সভায় অবহিত করেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে গত এক দশক গড়ে ৭.৪% অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। এমনকি অপ্রত্যাশিত অভিঘাত কোভিড-১৯ মহামারিকালে গত বছর যেখানে বৈশ্বিক অর্থনীতি ৩% সংকুচিত হয়েছে, এমন ক্রান্তিকালেও বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশ শীর্ষ পাঁচটি সহনশীল অর্থনীতির মধ্যে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, গত মাসে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ সভার টেকসই উন্নয়নে আন্তর্জাতিক সম্মেলন ২০২১-এ আমাদের উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে এসডিজি প্রগ্রেস অ্যায়ার্ডে ভূষিত করেছে।

সভায় অ্যান্টিগুয়া এবং বার্বুডার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউনের সভাপতিত্বে কমনওয়েলথ সচিবালয় মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ডসহ সভায়যুক্ত প্রতিনিধিরা টেকসই এবং অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে ঋণ, বৈশ্বিক ন্যূনতম ট্যাক্স চুক্তি এবং কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে এর প্রভাব, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত হুমকী মোকাবেলায় ঋণ এবং কমনওয়েলথ ক্লাইমেট ফাইন্যান্স অ্যাক্সেস হাবসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন।

/জিএম/এমএস/

সম্পর্কিত

রেমিট্যান্স প্রবাহ ধীরে ধীরে বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

রেমিট্যান্স প্রবাহ ধীরে ধীরে বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

এডিবির সঙ্গে সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে: অর্থমন্ত্রী

এডিবির সঙ্গে সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে: অর্থমন্ত্রী

বেসিক ব্যাংক ও পদ্মা ব্যাংক একীভূতকরণের পক্ষে অর্থমন্ত্রী

বেসিক ব্যাংক ও পদ্মা ব্যাংক একীভূতকরণের পক্ষে অর্থমন্ত্রী

নতুন বছরের বই ছাপা ও বাঁধাইয়ের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

নতুন বছরের বই ছাপা ও বাঁধাইয়ের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ১৭ অক্টোবরের ঘটনা।)

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালের এদিন জাপান সফরে রওয়ানা দেওয়ার আগে বলেন, ‘বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপান যাচ্ছি।’ এদিন সন্ধ্যায় সপ্তাহব্যাপী রাষ্ট্রীয় সফরে টোকিওর পথে ঢাকা ত্যাগের প্রাক্কালে বঙ্গবন্ধু তেজগাঁও বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বাংলাদেশ ও জাপানের মাঝে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। এই সফরের ফলে দু'দেশের সম্পর্ক আরও জোরদার হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। বঙ্গবন্ধু জানান, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সহযোগিতাসহ সব ব্যাপারেই তিনি জাপান সরকারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করবেন। জাপানি জনগণের শুভেচ্ছা নিয়েই তিনি দেশে ফিরে আসবেন।

সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বাংলাদেশ বিমানের ৭০৭ বোয়িং প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যাত্রা করে। তেজগাঁও বিমানবন্দরে তাকে এক সংক্ষিপ্ত ও আন্তরিকতাপূর্ণ বিদায় সম্বর্ধনা জানানো হয়। সংবর্ধনা জানাতে জাতীয় সংসদের স্পিকার মাহমুদুল্লাহ, অস্থায়ী প্রধানমন্ত্রী সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, মন্ত্রিসভার পরিষদের সদস্য, জাতীয় সংসদ সদস্য, বিদেশি কূটনীতিক, আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি কোরবান আলী, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, দফতর সম্পাদক আনোয়ার চৌধুরী, সমাজকল্যাণ ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোস্তফা সারোয়ারসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ঢাকায় বসবাসকারী বেশ কিছু জাপানি নাগরিক জাতীয় পতাকা নেড়ে বঙ্গবন্ধুকে সম্বর্ধনা জানান। দুটি জাপানি মেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ফুলের তোড়া উপহার দেন।

দৈনিক বাংলা, ১৮ অক্টোবর ১৯৭৩

বঙ্গবন্ধুকে বেশ উৎফুল্ল দেখাচ্ছিল

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন, পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব তোফায়েল আহমেদসহ পরিবারের সদস্যরা এই সফরে যান। এসময় বঙ্গবন্ধুকে বেশ উৎফুল্ল দেখাচ্ছিল বলে প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়। বিমানে ওঠার সময় বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা ও তার সন্তানকে প্রধানমন্ত্রী আদর করে দেন। ২৪ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঢাকা ফিরে আসার কথা।

এদিকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী এই দিন সকালে পৌঁছালে তাকে বিপুল সম্বর্ধনা জ্ঞাপন করা হবে। জাপান বেতারের খবরের উদ্ধৃতি দিয়ে বিপিআই জানায়, জাপানের প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিসভার এবং বাংলাদেশের নাগরিকরা অভ্যর্থনা জানানোর প্রস্তুতি নিয়েছে।

ডেইলি অবজারভার, ১৮ অক্টোবর ১৯৭৩

স্বাধীন বলেই আরবদের পাশে দাঁড়াতে পারছি

‘আরব ভাইয়েরা সাম্রাজ্যবাদ ও সম্প্রসারণবাদী শক্তির বিরুদ্ধে তাদের ন্যায়সঙ্গত লড়াইয়ে বিজয়ী হবেন অবশ্যই।’ প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এইদিন পুনরায় তাঁর দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। বঙ্গবন্ধু বলেন, আরবরা তাদের ন্যায়সঙ্গত স্বার্থ ও আইনানুগ অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করছেন। তাই এ লড়াইয়ে তাদের সাফল্য অবধারিত। বাসসের খবরে বলা হয়, ইসরায়েলের বিরুদ্ধে লড়ছেন যেসব ভাইয়েরা, তাদের সাহায্যের জন্য বাংলাদেশের মেডিক্যাল টিম সিরিয়া যাচ্ছে।

গণভবনে তাদের সমাবেশে ভাষণ দিচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেনাবাহিনীর মেডিক্যাল কোর-এর লোকদের নিয়ে গঠিত এই মেডিক্যাল টিম বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য গণভবনে যান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন, আওয়ামী লীগের সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট কোরবান আলীসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।

সাতজন ডাক্তার, কয়েকজন জেনারেল ডিউটি অ্যাসিস্ট্যান্ট ও ল্যাবরেটরি টেকনিশিয়ান-এর মাধ্যমে টিম গঠন করা হয়েছে। যুদ্ধক্ষেত্রে ছোট আকারের একটি অপারেশন থিয়েটার চালু উপযোগী সরঞ্জাম নিয়ে যাবেন তারা। টিমটি এই অঞ্চলের দেশের মধ্যে প্রথম মেডিক্যাল টিম।

বঙ্গবন্ধু বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটেছে সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে। সত্য ও ন্যায়ের জন্য যে আরব লড়ছে বাংলাদেশ সব সময় তার পাশে থাকবে। তাদের জয় সুনিশ্চিত। এটা ইতিহাসের নজির যারা তাদের ন্যায়সঙ্গত সত্যের জন্য লড়াই করে অবশেষে জয় হয় তাদেরই। তাদের ক্ষেত্রেও এটা সত্য হবে।

বঙ্গবন্ধু পুনরায় আরবের প্রতি সংহতি ঘোষণা করে বলেন, যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে তাদের জন্য ভালোবাসা দেওয়া সম্ভব, এ ছাড়া আর কিছু দেওয়ার নেই। প্রধানমন্ত্রী মেডিক্যাল টিমের সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, তাদের জন্য বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষের ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা নিয়ে যাচ্ছেন আরবভূমিতে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, তারা তাদের সেবা ও আন্তরিকতা দিয়ে যেন বাংলাদেশের পতাকা সমুন্নত করেন।

বঙ্গবন্ধু বলেন, পাকিস্তানের দাসত্বের বন্ধনে থাকলে আমাদের পক্ষে এ কাজ করা সম্ভব হতো না। মেডিক্যাল টিমের সাফল্য কামনা করে বঙ্গবন্ধু আশা প্রকাশ করেন, তারা যেন দেশে ফেরেন জয়ের মালা নিয়ে।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে সিরিয়ায় চিকিৎসক দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে সিরিয়ায় চিকিৎসক দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত

বিশ্ব খাদ্য দিবস আজ

বিশ্ব খাদ্য দিবস আজ

ব্রয়লার মুরগির কেজি ২০০ টাকা কেন?

ব্রয়লার মুরগির কেজি ২০০ টাকা কেন?

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাখোঁর বৈঠক

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৫

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্যরাষ্ট্র ফ্রান্স সফরের সময় ওই দেশের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। আগামী নভেম্বর মাসের ৯ তারিখ লন্ডন থেকে প্যারিস যাবেন প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘ফ্রান্স আমাদের অন্যতম বৃহৎ বাণিজ্যিক অংশীদার, উন্নয়ন সহযোগী। বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা রয়েছে ওই দেশটির সঙ্গে। ফ্রান্সের সঙ্গে যে বহুমুখী সহযোগিতা রয়েছে সে তুলনায় রাজনৈতিক যোগাযোগ কিছুটা কম।’

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্য বের হয়ে যাওয়ার পরে ফ্রান্সের গুরুত্ব আরও বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বহুপাক্ষিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা হলেও ঢাকা ও প্যারিসের মধ্যে শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠক সাম্প্রতিক সময়ে আর হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘ফ্রান্সের সঙ্গে সব ধরনের সম্পৃক্ততা বাড়াতে চাই এবং সাম্প্রতিক সময়ে ফ্রান্সেরও আগ্রহ দেখা যাচ্ছে।’

বাংলাদেশের আগ্রহ

জলবায়ু পরিবর্তন, সন্ত্রাসবাদ দমন, উগ্রবাদ মোকাবিলা, সাইবার সিকিউরিটিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে বাংলাদেশ অন্যান্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করছে।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, একইভাবে আমরা ফ্রান্সের সঙ্গে কাজ করতে চাই, কারণ প্রযুক্তিগত দিক থেকে তারা অনেক এগিয়ে রয়েছে।’

বাণিজ্যিক যোগাযোগ আরও বৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, দুদেশের বেসরকারি খাত এক্ষেত্রে বড় আকারে কাজ করতে পারে।

বিভিন্ন বৈশ্বিক বিষয়ে দুই পক্ষ এখন আলোচনা করার অবস্থায় রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনেক বিষয়ে ঢাকা ও প্যারিস একসঙ্গে কাজ করেছে এবং করছে।

জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে বাংলাদেশ ও ফ্রান্স উভয়ের আগ্রহ রয়েছে। ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের চেয়ারম্যান বাংলাদেশের কাছ থেকে ফ্রান্স এ বিষয়ে জানতে চাইবে বলে তিনি জানান।

জাতিসংঘে শান্তিরক্ষী বাহিনীর আন্ডার সেক্রেটারি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ফরাসি হয়ে থাকে এবং তাদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনার অনেক সুযোগ রয়েছে বলে তিনি জানান।

ফ্রান্সের আগ্রহ

বাংলাদেশে যে অর্থনৈতিক সুযোগ তৈরি হচ্ছে সেটি নিতে ফ্রান্স আগ্রহী বলে পররাষ্ট্র সচিব জানান।

তিনি বলেন, ন্যাটোর গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ফ্রান্স। দেশটি সমরাস্ত্র তৈরিতে অভিজ্ঞ। বাংলাদেশের যে ডিফেন্স সক্ষমতা এবং ফোর্সেস গোল ২০৩০ ‑ সেখানে প্যারিসের আগ্রহ আছে।

উল্লেখ্য, গত বছর মার্চে কোভিড পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার ঠিক আগে ফ্রান্সের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের মন্ত্রী ফ্লোরেন্স পারলি ঢাকা সফর করেন এবং সমরাস্ত্র বিক্রয়ের বিষয়ে তাদের আগ্রহের কথা রাজনৈতিক নেতৃত্বকে জানান।

আফ্রিকায় আগ্রহ

আফ্রিকার অনেক দেশ আগে ফ্রান্সের উপনিবেশ ছিল এবং ওইসব ফ্রেঞ্চ ভাষাভাষীর দেশে প্যারিসের প্রভাব রয়েছে।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের আরেকটি আগ্রহের জায়গা হচ্ছে আফ্রিকা। কারণ সেখানকার অনেক দেশই আগে ফরাসি উপনিবেশ ছিল।’

বাংলাদেশ আফ্রিকাতে ফুটপ্রিন্ট রাখতে চায় ‑ জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের যে দূতাবাসগুলো রয়েছে সেগুলোর বেশিরভাগই ইংরেজি ভাষাভাষীর দেশে। ফ্রেঞ্চ ভাষাভাষীর দেশগুলোতে আমাদের যোগাযোগ কিছুটা কম।

এছাড়া, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে আমাদের বেশিরভাগই ওই সমস্ত দেশে নিয়োজিত রয়েছে যেগুলোতে ফ্রেঞ্চ ভাষায় কথা বলা হয়।

তিনি বলেন, ওই সমস্ত দেশে সফল হতে গেলে তাদেরকে বুঝতে হবে এবং ফ্রান্স এক্ষেত্রে আমাদের সহযোগিতা করতে পারে।

/এসএসজেড/এমএস/

সম্পর্কিত

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩০

১৯৭১ সালে নিহত যেসব মুক্তিযোদ্ধাকে পশ্চিমবঙ্গ ত্রিপুরায় দাফন করা হয়েছে, তাদের কবর ও দেহাবশেষ শনাক্ত করে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমির নাট্যশালায় ডকু-ড্রামা ‘দুটি যুদ্ধের একটি গল্প’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই তথ্য জানান। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কবর শনাক্ত ও পরবর্তী কার্যক্রমের বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তবে করোনাকালে এ সংক্রান্ত কাজ পিছিয়েছে। করোনা সংক্রমণ আরেকটু কমে গেলে আমি নিজে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবো।’

এরপর মুক্তিযোদ্ধাদের শনাক্ত এবং দেশে ফিরিয়ে আনার কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৩

কুমিল্লার ঘটনা কী কারণে ঘটেছে, সে প্রশ্ন খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের। তিনি বলেছেন,  এ ঘটনার পেছনের কারণ খোঁজা হচ্ছে। যারা এ ঘটনায় জড়িত শিগগিরিই তাদের চিহ্নিত করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমির নাট্যশালায় আয়োজিত   ডকু ড্রামা ‘দুটি যুদ্ধের একটি গল্প’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

এ ঘটনার কারণে যারা ক্ষুব্ধ হয়েছে তাদেরকে ধৈর্য ধরার পরামর্শ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সবাইকে চিহ্নিত করে সবার সামনে হাজির করা হবে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, পবিত্র কোরআন আমরা মুসলমানরা হৃদয়ে ধারণ করি। কোরআনের অবমাননা যেভাবে দেখানো হয়েছে আমি বিশ্বাস করি সেরকম ঘটেনি।

এ ঘটনার পর যারা অহেতুক ভাঙচুরে জড়িয়ে পড়ছে তাদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

/আরটি/এমআর/

সম্পর্কিত

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কারাগারে বন্দি বেশিরভাগই মাদক মামলার আসামি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কারাগারে বন্দি বেশিরভাগই মাদক মামলার আসামি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

সরকার আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে আনার চূড়ান্ত নির্দেশনা দিয়েছে। আমদানির চাল বাজারে আনার সময় আর না বাড়ানোরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ সিদ্ধান্ত জানিয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সরকারি সাপ্তাহিক ছুটির দিনে চিঠিটি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে- বেসরকারিভাবে চাল আমদানির জন্য বরাদ্দপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যেসব আমদানিকারক এলসি খুলেছেন কিন্তু এখনও চাল বাজারজাত করতে পারেননি তাদের এলসিকৃত চাল বাজারজাত করার লক্ষ্যে আগামী ৩০ তারিখ পর্যন্ত সময়সীমা বাড়ানো হলো। এই সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না। 

উল্লেখ্য, চালের বাজারের লাগাম টানতে শুল্ক কমিয়ে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। চাল আমদানিতে শুল্ককর কমানোর অনুরোধ জানিয়ে গত ৬ জুলাই এনবিআরকে চিঠি দেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়। এরপর গত ১২ আগস্ট চাল আমদানির শুল্ক কমিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। চালের আমদানি শুল্ক ৬২ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করে এনবিআর। এ সুবিধা ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বহাল থাকবে।

গত ১৭ থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত মোট ৪১৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ১৬ লাখ ৯৩ হাজার টন সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির অনুমতি দেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ লাখ টন চাল আমদানি করা হয়েছে। 

/এসআই/এমআর/

সম্পর্কিত

‘বিলাসিতা’য় বছরে নষ্ট হয় ৬ লাখ টন চাল

‘বিলাসিতা’য় বছরে নষ্ট হয় ৬ লাখ টন চাল

১৭ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি

১৭ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি

খাদ্য ঘাটতি ঠেকাতে প্রয়োজনে চাল আমদানির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

খাদ্য ঘাটতি ঠেকাতে প্রয়োজনে চাল আমদানির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বেসরকারি পর্যায়ে ১০ লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

বেসরকারি পর্যায়ে ১০ লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রেমিট্যান্স প্রবাহ ধীরে ধীরে বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

রেমিট্যান্স প্রবাহ ধীরে ধীরে বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

এডিবির সঙ্গে সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে: অর্থমন্ত্রী

এডিবির সঙ্গে সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে: অর্থমন্ত্রী

বেসিক ব্যাংক ও পদ্মা ব্যাংক একীভূতকরণের পক্ষে অর্থমন্ত্রী

বেসিক ব্যাংক ও পদ্মা ব্যাংক একীভূতকরণের পক্ষে অর্থমন্ত্রী

নতুন বছরের বই ছাপা ও বাঁধাইয়ের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

নতুন বছরের বই ছাপা ও বাঁধাইয়ের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

পিপিপিতে মাতারবাড়ি-মদুনাঘাট ট্রান্সমিশন লাইন বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত বাতিল

পিপিপিতে মাতারবাড়ি-মদুনাঘাট ট্রান্সমিশন লাইন বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত বাতিল

জিডিপিতে এশিয়ায় সবার ওপরে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

জিডিপিতে এশিয়ায় সবার ওপরে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

মানবতার জয় হোক: অর্থমন্ত্রী

মানবতার জয় হোক: অর্থমন্ত্রী

বাজেট নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর বক্তব্য আমারও বোধগম্য নয়: অর্থমন্ত্রী

বাজেট নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর বক্তব্য আমারও বোধগম্য নয়: অর্থমন্ত্রী

সেরাম টিকা না দিলে টাকা ফেরত দেবেই:  অর্থমন্ত্রী

সেরাম টিকা না দিলে টাকা ফেরত দেবেই:  অর্থমন্ত্রী

সর্বশেষ

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফরিদা মজিদের কথা

ফরিদা মজিদের কথা

© 2021 Bangla Tribune