X
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

পতিতা নয়, খদ্দেরদের শাস্তির বিধান রেখে ফ্রান্সে আইন পাস

আপডেট : ০৭ এপ্রিল ২০১৬, ১৫:০৯
image

ফ্রান্সে পতিতাবৃত্তির খদ্দেরদের শাস্তির বিধানের বিরুদ্ধে যৌনকর্মীদের প্রতিবাদ পতিতাবৃত্তি নয়, বরং অর্থের বিনিময়ে যৌন সম্পর্ক প্রতিষ্ঠাকে অবৈধ উল্লেখ করে এবং খদ্দেরদের জরিমানার বিধান রেখে ফ্রান্সের পার্লামেন্টে আইন পাস হয়েছে। দুই বছর ধরে বিতর্কিত এ আইনটি পাসের চেষ্টা চললেও পার্লামেন্টের দুই কক্ষের মতবিরোধ থাকার কারণে এতোদিন তা পাস করা যাচ্ছিলো না।
বুধবার পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষে চূড়ান্ত ভোটাভুটিতে ৬৪-১২ ভোটে আইনটি পাস হয়। ১১জন ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকেন। তবে চূড়ান্ত বিতর্কের দিনেও আইনটির বিরোধিতা করে পার্লামেন্টের সামনে বিক্ষোভ করেছেন যৌনকর্মীরা।
নতুন আইনে যারা কোন যৌনকর্মীর কাছ থেকে সেবা নেবেন, সেই ক্রেতা বা খদ্দেরদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে দেড় হাজার ইউরো জরিমানা আদায় করা হবে। বার বার একই কাজ করলে যৌনক্রেতাদের কাছ থেকে ৩ হাজার ৭৫০ ইউরো পর্যন্ত জরিমানা আদায় করা হতে পারে। জরিমানার পাশাপাশি যৌনকর্মীদের নানা সমস্যার বিষয়ে এই দণ্ডপ্রাপ্তদের বাধ্যতামূলক ক্লাসেও অংশ নিতে হবে।
উল্লেখ্য, সুইডেন হলো প্রথম দেশ যারা পতিতাবৃত্তিকে অবৈধ ঘোষণা না করে অর্থ দিয়ে যৌনসম্পর্ক প্রতিষ্ঠাকারীদের সাজার বিধান জারি করেছিল। সুইডেনের দাবি, এরফলে তাদের দেশে যৌনকর্মীদের সংখ্যা কমেছে। এই ধারাবাহিকতায় ফ্রান্সে পাস হওয়া নতুন আইনের সমর্থনে দেশটির সমাজতান্ত্রিক দলের এমপি মাউদ অরিভার বার্তা সংস্থা এপিকে বলেন, ‘এই আইনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো আমরা যৌনকর্মীদের পাশে দাঁড়াতে চাই। আমরা তাদের পরিচয়পত্র দিতে চাই, কেননা আমরা জানি যারা এই পেশায় যুক্ত তাদের অধিকাংশই মানবপাচারের শিকার।’

তবে আইনের বিরুদ্ধে যৌনকর্মীদের একটি দল পার্লামেন্টের বাইরে সমাবেশ করেছে। তাদের হাতে থাকা ব্যানারে লেখা ছিল, 'আমাকে নিয়ে চিন্তা করার কিছু নাই। আমি নিজেই নিজের দেখভাল করতে পারবো।' স্ট্রস সেক্স ওয়ার্কার’স ইউনিয়ন নামে যৌনকর্মীদের এক সংগঠনের অভিযোগ, ‘আইনটি বাস্তবায়িত হলে ৩০ হাজার থেকে ৪০ হাজার যৌনকর্মী জীবিকা নষ্ট হবে।’

তবে আইনটির সমর্থকদের দাবি, এ আইন কার্যকর হলে যেসব যৌনকর্মী এই পেশা ছেড়ে যেতে চান, তারা তা করার সুযোগ পাবেন। বিদেশি কোনও যৌনকর্মী যদি যৌনপেশা ছেড়ে অন্য কাজ করতে চান তারাও এ আইনের আওতায় ফ্রান্সে সাময়িক বসবাসের সুযোগ পাবেন। তাছাড়া্ মানব পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনটি সহায়ক হবে বলেও দাবি করেন তারা। সূত্র: বিবিসি

/এফইউ/বিএ/

সম্পর্কিত

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে ভেড়াচ্ছে আইএস!

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২০:৫৪

জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ইসলামিক স্টেটের ইরাক ও লেভান্ত-খোরাসান (আইএসআইএল-কে) ইউনিটের নেতারা মার্কিন ও আফগান-তালেবান শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে নেওয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অ্যানালাইটিক্যাল সাপোর্ট অ্যান্ড স্যাংকশন্স মনিটরিং টিমের ২৮তম প্রতিবেদনে আফগানিস্তানের ভঙ্গুর পরিস্থিতি উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদনে, পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা করা হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস এখবর জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আইএস কাবুলের আশেপাশে নিজেদের অবস্থান সংহত করছে। এখান থেকেই তারা সংখ্যালঘু, অ্যাক্টিভিস্ট, সরকারিকর্মী এবং আফগান সেনা ও গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা চালাচ্ছে।

এতে উল্লেখ করা হয়েছে, আইএস-এর ইউনিটটি এখন অন্য প্রদেশে চলে গেছে। তারা  নুরিস্তান, বাদঘিছ, সারি পুল, বাঘলান, বাডাখশান, কুন্দুজ ও কাবুলে স্লিপার সেল গড়ে তুলেছে। ২০২০ সালে কুনার ও নাঙ্গারহার প্রদেশে এলাকা, নেতৃত্ব, লোকবল ও আর্থিক ক্ষতির পরও তারা এসব সেল গড়ে তুলতে পেরেছে।

নিরাপত্তা পরিষদের এই টিমের প্রতিবেদনে গুরুত্ব দিয়ে উল্লেখ করা হয়েছে, আইএস(এল-কে) পুনরায় সংগঠিত ও নতুন সমর্থকদের সংগ্রহ ও প্রশিক্ষণে জোর দিয়েছে।

প্রতিবেদন অনুসারে, গোষ্ঠীটির নেতারা আশাবাদী আফগানিস্তানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যকার চুক্তির বিরোধিতাকারীদের দলে ভেড়ানোর বিষয়ে। এছাড়া তারা সিরিয়া, ইরাক ও অন্যান্য সংঘাতপূর্ণ অঞ্চল থেকে যোদ্ধা সংগ্রহ করতে চাইছে।

ইসলামিক স্টেট ইরাক ও লেভান্ত খোরাসানের ৫০০ থেকে ১৫০০ যোদ্ধা রয়েছে রয়েছে জাতিসংঘের একটি সদস্য রাষ্ট্র জানিয়েছে। তবে আরেকটি দেশের মতে এই সংখ্যা ১০ হাজারের মতো। অপর একটি দেশ বলেছে, গোষ্ঠীটি আত্মগোপনে থেকে চোরাগুপ্তা হামলা চালাচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আল-সাদিক কার্যালয়ের প্রধান শেখ তামিমের সঙ্গে সহযোগিতা করছে শাহাব আল-মুহাজির। তামিমের এই কার্যালয়ের দায়িত্ব হলো মূল আইএসের সঙ্গে আইএস লেভান্ত-খোরাসানের নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা।

/এএ/

সম্পর্কিত

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৯:২২

চীনকে মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার ভারত সফরে আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে ভারতে ব্লিনকেনের এসফরটি হবে প্রথম। বুধবার তিনি ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামনিয়াম জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠক করবেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর জানিয়েছে।

২৬ থেকে ২৯ জুলাই ভারতে অবস্থান করবেন ব্লিনকেন। এরপর তিনি কুয়েত সফরে যাবেন।

এশিয়া ও এশিয়ার বাইরে চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাব মোকাবিলায় মার্কিন উদ্যোগে সহযোগিতাকারী দেশ হিসেবে ভারতকে বিবেচনা করে ওয়াশিংটন। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই সফরে তার এজেন্ডা হবে ইন্দো-প্রশান্তীয় অঞ্চলে সক্রিয়তা, দ্বিপক্ষীয় আঞ্চলিক নিরাপত্তা স্বার্থ, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও জলবায়ু সংকট মোকাবিলা। এছাড়া করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলাও থাকবে এজেন্ডায়া।

খবরে বলা হয়েছে, তথাকথিত কোয়াডের স্বশীরের একটি সম্মেলন আয়োজন নিয়ে আলোচনা করবেন ব্লিনকেন। চীনের প্রভাব মোকাবিলায় ভারত, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র কোয়াড গ্রুপে একত্রিত হয়েছে।

কূটনীতিকরা বলছেন, এই বৈঠকটি সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের সময় অনুষ্ঠিত হতে পারে। চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের পাল্টা আঞ্চলিক অবকাঠামো গড়ে তোলার উপায় নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা রয়েছে।

শুক্রবার ব্লিনকেন বলেছেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারত একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ। এখন তারা অভ্যন্তরীণ সংকটে আছে। কিন্তু একবার উৎপাদন পূর্ণ গতি পেয়ে গেলে বিশ্বকে তারা আবার টিকা দিতে শুরু করবে। যা বড় পার্থক্য গড়ে দেবে।

/এএ/

সম্পর্কিত

শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে ভেড়াচ্ছে আইএস!

শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে ভেড়াচ্ছে আইএস!

বৃহস্পতির ‘চাঁদে’ রকেট পাঠাবে নাসা

বৃহস্পতির ‘চাঁদে’ রকেট পাঠাবে নাসা

প্রবল বর্ষণে মহারাষ্ট্রে মৃত বেড়ে ১১০

প্রবল বর্ষণে মহারাষ্ট্রে মৃত বেড়ে ১১০

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৪২

ফ্রান্স সরকারের করোনাভাইরাস মহামারি বিষয়ক শীর্ষ উপদেষ্টা শুক্রবার সতর্ক করে বলেছেন, এই বছরের শীতে ভাইরাসটির নতুন ভ্যারিয়েন্টের আত্মপ্রকাশ হতে পারে। বিএফএম নিউজ চ্যানেলকে ফরাসি সরকারের বৈজ্ঞানিক কাউন্সিলের প্রধান জ্যেন-ফ্রান্সোয়েস দেলফ্রেইজি এই সতর্কতার কথা জানিয়েছেন।

ফরাসী বিশেষজ্ঞ বলেন, শীতের সময় হয়ত আমরা আরেকটি ভ্যারিয়েন্ট দেখতে পাব।

ফ্রান্সে নতুন করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। এই সংক্রমণের জন্য অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টকে দায়ী করা হচ্ছে।

তিনি জানান, নতুন ভ্যারিয়েন্টের প্রভাব সম্পর্কে কোনও পূর্বানুমান করতে পারছেন না বা এটি আরও বিপজ্জনক হবে কিনা তাও জানাননি। শুধু বলেছেন, এটির চরিত্র বদলের ক্ষমতা প্রায় সীমিত থাকবে।

ফরাসী সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ফ্রান্সের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক পরার জন্য। তিনি বলেছেন, মহামারি পূর্ব স্বাভাবিকতায় ফিরতে ২০২২ বা ২০২৩ সাল লাগতে পারে।

দেলফ্রেইজি বলেন, আগামী কয়েক বছরের বড় চ্যালেঞ্জ হলো কীভাবে আমরা সহাবস্থান করব দুটি বিশ্বের মধ্যে: টিকা নেওয়া দেশগুলো এবং যেসব দেশে টিকা পুরোপুরি দেওয়া হয়নি।

করোনার চতুর্থ ঢেউ নিয়ন্ত্রণে রাখতে ফরাসী সরকার ‘হেলথ পাস’ ব্যবস্থা চালু করেছে। জনসমাগমস্থলে প্রবেশের ক্ষেত্রে টিকা নেওয়ার বা করোনা নেগেটিভ হওয়ার প্রমাণ দেখাতে হবে।

বুধবার থেকে চলচ্চিত্র প্রেক্ষাগৃহ, যাদুঘর, সুইমিং পুল ও ক্রীড়াক্ষেত্রে হেলথ পাস বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় অনেকেই সমালোচনা করছেন। সমালোচকরা বলছেন, এতে করে টিকা না নেওয়া মানুষদের স্বাধীনতা খর্ব করা হচ্ছে। সূত্র: এনডিটিভি

/এএ/

সম্পর্কিত

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

করোনারোধী পোশাক বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়ে বড় অংকের জরিমানা

করোনারোধী পোশাক বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়ে বড় অংকের জরিমানা

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

ব্রিটে‌নে জা‌লিয়া‌তির দা‌য়ে বাংলা‌দেশি সমকামীর কার‌াদণ্ড

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:০৩

ব্রিটেনে জালিয়াতি করে বসবাসের চেষ্টার দায়ে সাইফুল আ‌লম (৩৮) না‌মের এক বাংলা‌দেশি নাগ‌রিক‌কে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। গত সপ্তা‌হে সাইফুল‌কে হাল ক্রাউন কো‌র্টে হা‌জির করা হ‌য়।

আদাল‌তের উদ্ধৃতি দি‌য়ে ব্রিটে‌নের হাল লাইভ ওপেরা নিউজসহ সংবাদপত্রগু‌লো জানায়, আদ‌াল‌তে মিথ‌্যা তথ‌্য উপস্থাপন ও জাল প‌রিচয়পত্র রাখার দু‌টি অভিযোগে এই দণ্ড দেওয়া হয়েছে তাকে।   

আদ‌ালত‌কে সাইফুল জানান, তাকে বাংলা‌দে‌শে ফেরত পাঠা‌নো হ‌লে যাবজ্জীবন কারাদ‌ণ্ড দেওয়া হতে পারে। এই শঙ্কা থেকে তি‌নি প্রতারণা ও জা‌লিয়া‌তির আশ্রয় নি‌য়ে‌ছি‌লেন। সাইফুল আরও ব‌লেন, জাল ন‌থিপত্র কেনার সিদ্বান্তটি তার ভুল ছিল। এ জন‌্য তিন‌ি গভীর অনু‌শোচনা কর‌ছেন‌।

সাইফুল ২০০৪ সা‌লে এক বছ‌রের ভিসায় ব্রিটে‌নে আসেন। তার আইনজী‌বী ব‌্যারিস্টার জু‌লিয়া বাগস আদালত‌কে জানান, সাইফুল একজন সমকামী। তাই তি‌নি সামা‌জিক কুসংস্কার ও সহিংসতায় ভ‌য় পে‌য়ে‌ছি‌লেন।

ব্রিটে‌নে গত এক দশ‌কে বিপুল সংখ‌্যক মানুষ নি‌জে‌দে‌র সমকামী দাবি ও দে‌শে ফেরা সম্ভব নয়  উল্লেখ ক‌রে বসবাসের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। এদের ম‌ধ্যে ভারতীয়, বাংলা‌দেশি ও পা‌কিস্তানিরাও র‌য়ে‌ছেন। শুরু‌তে ব্রিটে‌নের হোম অফিস ও আদালত সহানুভু‌তিশীল হ‌য়ে ভিসা দি‌লেও একপর্যা‌য়ে প্রতারণার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।  এরপর থেকে এমন আবেদন অনুমোদনের ক্ষেত্রে কড়াক‌ড়ি আরোপ করা হয়।

ইউকে বাংলা প্রেসক্লা‌বের কার্যনির্বাহী সদস‌্য সাংবা‌দিক মাহবুব সু‌য়েদ শ‌নিবার বাংলা ট্রিবিউনকে ব‌লেন, শুরু‌তে প্রচুর মানুষ নি‌জে‌দের সমকামী দাবি ক‌রে ব্রিটে‌নে অভিবাসন সু‌বিধা নি‌য়ে‌ছেন। অনেকে গে বা লেস‌বিয়া‌নের অধিকারে ব্রিটে‌নে বসবা‌সের সু‌যোগ পে‌য়ে দেশ থে‌কে স্বামী বা স্ত্রী এনেছেন। অনেকে নতুন ক‌রে বি‌য়ে ক‌রে‌ছেন‌। এসব কার‌ণে প‌রে সরকার এ ব‌্যাপা‌রে কড়াক‌ড়ি আরোপ ক‌রে।

উল্লেখ‌্য, ব্রিটেনে শুধু ২০১৯ সা‌লে বাংলা‌দেশসহ যেসব দে‌শে সমলি‌ঙ্গের সম্পর্ক বা বি‌য়ে বৈধ নয়, সেসব দে‌শের কমপ‌ক্ষে ৩ হাজার ১০০ জনের গে, লেস‌বিয়না, বাই সেক্সুয়াল ও ট্রান্সসেক্সুয়াল দাবি ক‌রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয়েছে।  আর ২০১৬ থে‌কে ২০১৯ পর্যন্ত কমপ‌ক্ষে ১ হাজার ১৯৭ জন পা‌কিস্তানি ও ৬৪০ জন এল‌জি‌বি‌টি দাবি‌দা‌রের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে বলে হোম অফিসের পরিসংখ্যানে জানা গেছে।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকা থেকে বাদ লিভারপুল

ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকা থেকে বাদ লিভারপুল

বাংলাদেশের বন্ধু সায়মন ড্রিং মারা গেছেন

বাংলাদেশের বন্ধু সায়মন ড্রিং মারা গেছেন

সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য বাংলাদেশি পরিবারকে দায়, সেই প্রধান শিক্ষিকার পদত্যাগ

সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য বাংলাদেশি পরিবারকে দায়, সেই প্রধান শিক্ষিকার পদত্যাগ

বৃহস্পতির ‘চাঁদে’ রকেট পাঠাবে নাসা

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৬:৪৫

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা বৃহস্পতি গ্রহের চাঁদ ইউরোপাতে এলন মাস্ক-এর স্পেস এক্স-এর রকেট পাঠানোর জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। ইউরোপাতে বরফের নিচে তরল পানি রয়েছে কিনা তা জানতে বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের জন্য এই রকেট পাঠানো হবে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ এখবর জানিয়েছে।

ইউরোপা ক্লিপার মিশনের চুক্তি অনুসারে রকেটি ২০২৪ সালের অক্টোবরে উৎক্ষেপণ করা হবে। চুক্তিটির অর্থমূল্য ১৭ কোটি ৮০ লাখ ডলার। এই মিশনে ব্যবহার করা হবে স্পেস এক্সের তৈরি ফ্যালকন হেভি রকেট। শুক্রবার নাসা এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানিয়েছে।

বৃহস্পতি গ্রহের এই চাঁদ পৃথিবী থেকে ৬৩০ মিলিয়ন কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে পৌঁছাতে পাঁচ বছরের বেশি সময় লাগবে।

নাসা’র শীর্ষ বৈজ্ঞানিক উদ্যোগের একটি ইউরোপা। বরফের আস্তরণের নিচে বিপুল পরিমাণে লবন পানি রয়েছে বলে ধারণা করা হয়। ইউরোপা ক্লিপার মহাকাশ যানটি উপগ্রহটির উচ্চ রেজ্যুলেশনের ছবি তুলবে যাতে করে চাঁদটির গঠন ও ভূতাত্ত্বিক ক্রিয়া সম্পর্কে জানা যাবে। এছাড়া এটি হ্রদসহ সমুদ্রের গভীরতা ও লবণাক্ততা জানার চেষ্টা করবে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক স্পেস এক্স নাসার পছন্দের ঠিকাদারে পরিণত হয়েছে। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে কার্গো ও ক্রুদের পরিবহন করার কাজে কোম্পানিটির সঙ্গে একাধিক চুক্তি করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে বিমানযাত্রীর লাগেজে ১৫টি দৈত্যকার শামুক

যুক্তরাষ্ট্রে বিমানযাত্রীর লাগেজে ১৫টি দৈত্যকার শামুক

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

সর্বশেষ

এলপিজির মূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারি ‍উদ্যোগ থামাতে চায় লোয়াব, বিইআরসির না

এলপিজির মূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারি ‍উদ্যোগ থামাতে চায় লোয়াব, বিইআরসির না

গৃহযুদ্ধ থেকে অলিম্পিক, সিরিয়ার এক কিশোরীর বিস্ময়কর যাত্রা

গৃহযুদ্ধ থেকে অলিম্পিক, সিরিয়ার এক কিশোরীর বিস্ময়কর যাত্রা

শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে ভেড়াচ্ছে আইএস!

শান্তিচুক্তির বিরোধিতাকারী তালেবান যোদ্ধাদের দলে ভেড়াচ্ছে আইএস!

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

ট্রলারডুবির ১৮ ঘণ্টা পর ১৬ জেলে জীবিত উদ্ধার

ট্রলারডুবির ১৮ ঘণ্টা পর ১৬ জেলে জীবিত উদ্ধার

কৃষকের ঘর থেকে জাতীয় দল, কেমন চলছে শরিফুলের দিনকাল

কৃষকের ঘর থেকে জাতীয় দল, কেমন চলছে শরিফুলের দিনকাল

২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত

২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে রশিতে বেঁধে পেটানোর অভিযোগ

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে রশিতে বেঁধে পেটানোর অভিযোগ

লকডাউন অমান্য: রাজধানীতে গ্রেফতার ৩৮৩ জন

লকডাউন অমান্য: রাজধানীতে গ্রেফতার ৩৮৩ জন

কমলাপুর বিআরটিসি ডিপোতে হঠাৎ আগুনে পুড়লো বাস

কমলাপুর বিআরটিসি ডিপোতে হঠাৎ আগুনে পুড়লো বাস

প্রতিদ্বন্দ্বী ইসরায়েলের, খেলতে না চাওয়ায় শাস্তি

প্রতিদ্বন্দ্বী ইসরায়েলের, খেলতে না চাওয়ায় শাস্তি

শরীরে ক্যামেরা নিয়ে চলবে চট্টগ্রামের ৪ থানার পুলিশ

শরীরে ক্যামেরা নিয়ে চলবে চট্টগ্রামের ৪ থানার পুলিশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

পেগাসাস কেলেঙ্কারি: ফাঁস হওয়া তথ্যে ম্যাক্রোঁ, ইমরান খান

পেগাসাস কেলেঙ্কারি: ফাঁস হওয়া তথ্যে ম্যাক্রোঁ, ইমরান খান

মহানবী (সা.)-এর কার্টুন আঁকা ডেনিশ শিল্পীর মৃত্যু

মহানবী (সা.)-এর কার্টুন আঁকা ডেনিশ শিল্পীর মৃত্যু

তালেবানের উচিত আফগানিস্তানে দখলদারিত্ব বন্ধ করা: এরদোয়ান

তালেবানের উচিত আফগানিস্তানে দখলদারিত্ব বন্ধ করা: এরদোয়ান

কোভিশিল্ড গ্রাহকদের জন্য দরজা খুললো ইউরোপের ১৬ দেশ

কোভিশিল্ড গ্রাহকদের জন্য দরজা খুললো ইউরোপের ১৬ দেশ

© 2021 Bangla Tribune