X
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯

উল্টো পথে শেয়ার বাজার, মূলধন কমলো চার হাজার কোটি টাকা

গোলাম মওলা
২২ অক্টোবর ২০২২, ২৩:৫৯আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২২, ২৩:৫৯

ভালো পণ্যের ভালো দাম, এই নিয়ম খাটে না দেশের শেয়ার বাজারে। মৌলভিত্তির দিক বিবেচনায় এই বাজারে ভালো শেয়ারগুলোতে বিনিয়োগে তেমন আগ্রহ নেই বিনিয়োগকারীদের। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গিয়ে দাঁড়িয়েছে যে গ্রামীণফোন, বেক্সিমকো ফার্মা, স্কয়ার ফার্মার শেয়ার ফ্লোর প্রাইসে পড়ে থাকলেও যেন কেউ কিনতে চাইছে না। সবার ঝোঁক এখন অপেক্ষাকৃত খারাপ শেয়ারের দিকে। শুধু তাই নয়, এখনও হুজুগের বা গুজবের লেনদেন থেকে বের হতে পারছে না দেশের এই শেয়ার বাজার। এতে করে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের  নানামুখী নেওয়া উদ্যোগেরও সুফল মিলছে না।

তথ্য বলছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক গত সপ্তাহে কমেছে ৩০ দশমিক ৪১ পয়েন্ট বা এক দশমিক ৩২ শতাংশ। আগের সপ্তাহেও এই সূচকটি কমেছিল ৫৩ দশমিক ৫১ পয়েন্ট বা দুই দশমিক ২৭ শতাংশ।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তালিকাভুক্ত দুই-তৃতীয়াংশ কোম্পানির শেয়ার এখন ফ্লোর প্রাইসে নেমেছে। দর হারানোর ভয় না থাকার পরও এসব শেয়ারে বিনিয়োগে আগ্রহ নেই কারও। ফলে নির্দিষ্ট দিনে ফ্লোর প্রাইসে থাকা এসব শেয়ারের কেনাবেচাও মোট লেনদেনের ৩ থেকে ৮ শতাংশে ওঠানামা করেছে। ফ্লোর প্রাইসের ফাঁদে আটকা পড়া কোম্পানির মধ্যে রয়েছে গ্রামীণফোন, স্কয়ার ফার্মা, ব্র্যাক ব্যাংকসহ স্বনামধন্য বেশ কিছু কোম্পানি।

বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ব্যাংক খাতে ব্র্যাক ব্যাংক ভালো মৌলভিত্তির কোম্পানি অথচ গেল সপ্তাহের ৫ হাজার ৮০১ কোটি টাকার লেনদেনের মধ্যে এ ব্যাংকের লেনদেন হওয়া শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল মাত্র ১৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা। এছাড়া সপ্তাহজুড়ে বিএটি বাংলাদেশের কেনাবেচা হওয়া শেয়ারের বাজার মূল্য ছিল ২ কোটি ৮২ লাখ টাকা। অথচ গত সপ্তাহে আনোয়ার গ্যালভানাইজিংয়ের মতো স্বল্প মূলধনি কোম্পানির শেয়ারের প্রায় ২১৭ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

যদিও ডিএস-৩০ সূচকে অন্তর্ভুক্ত শেয়ারগুলোর বড় অংশই দেশের শেয়ার বাজারের সবচেয়ে ভালো শেয়ার বলে বিবেচিত বেক্সিমকো ফার্মা, স্কয়ার ফার্মা, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, ইসলামী ব্যাংক, গ্রামীণফোন, বিএসআরএম লিমিটেড, আইডিএলসি ফিন্যান্স, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন, রেনাটা লিমিটেড, পাওয়ার গ্রিড, সিঙ্গার বাংলাদেশ এবং ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ার।

এর মধ্যে বেক্সিমকো ফার্মা ছাড়া বাকি শেয়ারগুলো লেনদেনের একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। গত সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে ডিএস-৩০ ভুক্ত কোম্পানিগুলোর মোট ১ হাজার ১৬৬ কোটির টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে বেক্সিমকো লিমিটেডেরই ৪৫৩ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে, যা ডিএসইর পুরো সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৭ দশমিক ৮১ শতাংশ এবং ডিএস-৩০ এর মোট লেনদেনের প্রায় ৩৯ শতাংশ।

তথ্য বলছে, গত সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে প্রধান শেয়ার বাজার ডিএসইতে সর্বমোট ৫ হাজার ৮০১ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। অর্থাৎ দৈনিক গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১৬০ কোটি টাকার বেশি শেয়ার। তালিকাভুক্ত ৩৮৮ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ফ্লোর প্রাইসে শেয়ার ছিল ২৪৫টি। অবশ্য গত বুধবার এ সংখ্যা ছিল ২৪৮টি। এভাবে প্রতিদিনের হিসাবে গত সপ্তাহে ফ্লোর প্রাইসে পড়ে থাকা শেয়ারগুলোর ৩৪০ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়।

বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে চার দিনই দেশের শেয়ার বাজারে দরপতন হয়েছে। এর ফলে সপ্তাহজুড়ে লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। এতে এক সপ্তাহেই প্রধান শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের  বাজার মূলধন চার হাজার কোটি টাকা কমে গেছে।

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৬৯ হাজার ৯০৭ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৭ লাখ ৭৩ হাজার ৯৩৯ কোটি টাকা। অর্থাৎ গত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ৪ হাজার ৩২ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন কমার পাশাপাশি গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে তার তিনগুণের বেশি। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মাত্র ৪১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৭১টির। আর ১৭৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এতে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১০১ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমেছিল ৭৫ দশমিক ২৬ পয়েন্ট। আর বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক গত সপ্তাহে কমেছে ৩০ দশমিক ৪১ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ৫৩ দশমিক ৫১ পয়েন্ট। গত সপ্তাহে কমেছে ইসলামি শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ সূচকও। গেলো সপ্তাহে এই সূচকটি কমেছে ১২ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমেছিল ২৩ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট। এছাড়া গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ১৬০ কোটি ২৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় এক হাজার ২০৮ কোটি ২৩ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ৪৭ কোটি ৯৯ লাখ টাকা বা ৩ দশমিক ৯৭ শতাংশ।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৫ হাজার ৮০১ কোটি ২৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৪ হাজার ৮৩২ কোটি ৯২ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৯৬৮ কোটি ৩২ লাখ টাকা। মোট লেনদেন বাড়ার কারণ গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহে শেয়ার বাজারে এক কার্যদিবস কম লেনদেন হয়।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবথেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩৮৬ কোটি ৪১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

এদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)। বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইর সার্বিক সূচক ৩১০ পয়েন্ট কমে ১৮ হাজার ৮০০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এসময়ে লেনদেন হয়েছে ১৪৯ কোটি ৩৮ লাখ ৮৯ হাজার ৮১৬ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৭৩ কোটি ১৭ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭৫ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৯৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৩৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের, কমেছে ১২৯টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৩১টির দাম।

/এমআর/
সর্বশেষ খবর
বিএনপির দুর্নীতি নিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ফেসবুক স্ট্যাটাস
বিএনপির দুর্নীতি নিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ফেসবুক স্ট্যাটাস
ডাকসু নয়, জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলোর
ডাকসু নয়, জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলোর
চট্টগ্রামকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সাকিবের বরিশাল
চট্টগ্রামকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সাকিবের বরিশাল
বাবা হওয়ার পরদিন মাদ্রাসাশিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
বাবা হওয়ার পরদিন মাদ্রাসাশিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
সর্বাধিক পঠিত
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার