X
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪
২১ ফাল্গুন ১৪৩০

রেমিট্যান্সে প্রণোদনা ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব বাফেদার

 বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৬ মে ২০২২, ০৩:০০আপডেট : ০৬ জুন ২০২২, ১৭:২২

ডলা‌রের সংকট কাটা‌তে বাংলাদেশ ব্যাংককে সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলারস অ্যাসোসিয়েশন (বাফেদা)। গত ১৯ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে লেখা চিঠিতে বাফেদার পক্ষ থেকে এসব প্রস্তাব জানানো হয়েছে। এ নি‌য়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের স‌ঙ্গে বৃহস্পতিবার (২৬ মে) বিকালে বৈঠ‌কে বস‌বে বাফেদা।

সংগঠনটির প্রস্তাবে মধ্যে অন্যতম হলো, বৈধভাবে পাঠানো রেমিট্যান্সের প্রণোদনা আড়াই শতাংশ থেকে বা‌ড়ি‌য়ে পাঁচ শতাংশ করা, বাজারের চাহিদা বিবেচনা করে ডলার সরবরাহ করা, বাজারের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে ডলার ক্রয়-বিক্রয়ে আন্ত-ব্যাংক বিনিময় হার পুনর্নির্ধারণ করা।

আর সব অনুমোদিত ডিলার (এডি) ব্যাংক বিদেশি এক্সচেঞ্জ হাউজগুলো থেকে ‘একক বিনিময় হারে’ লেনদেন করারও প্রস্তাব দিয়েছে সংগঠনটি। তারা বলছে, সেই হার আন্তব্যাংকের মধ্যে লেনদেনের থেকে কমপক্ষে শূন্য দশমিক এক শতাংশের কম হবে। এই একক বিনিময় হার কঠোরভাবে তদারকি করবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাফেদার প্রস্তাবে আরও বলা হয়, এডি ব্যাংকগুলো রফতানির ক্ষেত্রে নিয়ম অনুযায়ী কর্তনমূল্যের সুযোগ নিশ্চিত করবে এবং রফতানির কাগজপত্র যাচাই করবে। এছাড়া একমাত্র বাংলাদেশ ব্যাংক আমদানির এলসি বিল ও সরকারি বাধ্যতামূলক পাওনা পরিশোধে বৈদেশিক মুদ্রার বাড়তি চাহিদার তারল্য সরবরাহ করবে। আর রাষ্ট্রায়ত্ত এডি ব্যাংকগুলো নিজস্ব উৎস থেকে কেবল সরকারের বাণিজ্য ও বাধ্যতামূলক পাওনা বড় জোড় তিন মাসের জন্য পরিশোধ করবে। তবে এসব ব্যাংক সরকারের আন্তব্যাংক বাজার পদ্ধতিতে বৈদেশিক মুদ্রার উৎস হিসেবে ব্যবহার হবে না।

বাফেদার চেয়ারম্যান ও সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধান সাংবাদিকদের জানান, দেশে এখন আমদানির জন্য যে পরিমাণ অর্থ বা ডলার খরচ হচ্ছে, তা রফতানি ও প্রবাসী আয় দিয়ে মিটছে না। এর ফলে সংকট তৈরি হয়েছে। এজন্য বাজারে ডলারের সংকট দেখা দিচ্ছে। বাংলাদেশ ব্যাংক যে পরিমাণ ডলার বিক্রি করছে, সেটি চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত নয়। ফলে প্রতি মাসে প্রায় ১০০ কোটি ডলার ঘাটতি তৈরি হয়েছে।

/জিএম/ইউএস/
সম্পর্কিত
কোথাও যাতে ভোক্তাদের হয়রানি না হয়, নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
দুর্নীতিমুক্ত অর্থব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কাজ করবো: অর্থ প্রতিমন্ত্রী
সিআইপি’র স্মার্ট নীতিমালা হবে কবে?
সর্বশেষ খবর
সাংবাদিক নজরুল ইসলামের মায়ের মৃত্যু, মির্জা ফখরুলের শোক
সাংবাদিক নজরুল ইসলামের মায়ের মৃত্যু, মির্জা ফখরুলের শোক
ছাত্রকে শিক্ষকের গুলি: ঢাকা থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এলো তদন্ত দল
ছাত্রকে শিক্ষকের গুলি: ঢাকা থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এলো তদন্ত দল
৪২০ কোটি টাকা ফেরত পাবেন ইউনিপে টু ইউ’র গ্রাহকরা
৪২০ কোটি টাকা ফেরত পাবেন ইউনিপে টু ইউ’র গ্রাহকরা
যে কারণে সোভিয়েত আমলের বিমান ঘাঁটি আবারও চালু করলো আলবেনিয়া
যে কারণে সোভিয়েত আমলের বিমান ঘাঁটি আবারও চালু করলো আলবেনিয়া
সর্বাধিক পঠিত
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র
রাশিয়ায় হামলার পরিকল্পনা করছে জার্মানির সেনারা?
রাশিয়ায় হামলার পরিকল্পনা করছে জার্মানির সেনারা?