X
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪
৮ বৈশাখ ১৪৩১

মুক্তিযোদ্ধা ও প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের জন্য পুলিশের ‘প্রায়োরিটি চেয়ার’

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
২২ আগস্ট ২০২৩, ২০:২৯আপডেট : ২২ আগস্ট ২০২৩, ২০:৩২

জাতির সূর্যসন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের সম্মানে নিজেদের সব স্থাপনায় ‘প্রায়োরিটি চেয়ার’ স্থাপন করেছে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ। মঙ্গলবার পুলিশ সুপারের কার্যালয়সহ জেলা পুলিশের কয়েকটি স্থাপনায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আসন গ্রহণের মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে স্থাপিত প্রায়োরিটি চেয়ারে বসে এই কার্যক্রমের শুভ সূচনা করেন কুড়িগ্রামে প্রথম বিজয়ের পতাকা উত্তোলনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকার (বীর প্রতীক)। এ ছাড়াও কুড়িগ্রাম সদর সার্কেল অফিসে প্রায়োরিটি চেয়ারের সূচনা করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন সরকার এবং কুড়িগ্রামের সদর থানায় প্রায়োরিটি চেয়ারের সূচনা করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মহির উদ্দিন।

মুক্তিযোদ্ধা ও প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের জন্য বিশেষ এ ব্যবস্থার বিষয়ে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়– বীর মুক্তিযোদ্ধারা, সিনিয়র সিটিজেন, প্রতিবন্ধী নাগরিক, গর্ভবতী নারী ও শিশু প্রাধিকারভুক্ত নাগরিক। রাষ্ট্রীয় সেবা প্রাপ্তিতে তারা অগ্রাধিকার পাবেন এটাই স্বাভাবিক। পুলিশ বিভাগ মুক্তিযোদ্ধাসহ প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে চায়। এটি তারই একটি প্রয়াস।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের সম্মানে ‘প্রায়োরিটি চেয়ার’ জেলা পুলিশ আরও জানায়, জমিজমা ও সন্তান-সন্তানাদি সংক্রান্তসহ নানাবিধ কাজে মুক্তিযোদ্ধারা প্রায়ই পুলিশের কাছে বা থানায় আসেন। পুলিশের স্থাপনায় এসে তারা যাতে গর্বিত অনুভব করেন সে জন্য পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সব সার্কেল অফিস, সব থানা ও ফাঁড়িতে এই  প্রায়োরিটি চেয়ার সংরক্ষিত থাকবে। একই সঙ্গে সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে জ্যেষ্ঠ নাগরিক, প্রতিবন্ধী নাগরিক, গর্ভবতী নারী, শিশুসহ প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকরা অবস্থাভেদে এই প্রায়োরিটি চেয়ার ব্যবহার করবেন। প্রায়োরিটি চেয়ারের যথাযথ ব্যবহারের জন্য জেলা পুলিশ প্রটোকল নিশ্চিত করবে।

বীরপ্রতীক আব্দুল হাই সরকার জেলা পুলিশের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে আমি গর্বিত। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য পুলিশের ইতিবাচক কার্যক্রম এই বয়সেও আমাদের আশান্বিত করে, অনুপ্রাণিত করে। আমি পুলিশ সুপারসহ জেলার সব পুলিশ সদস্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।’

পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম বলেন,‘ বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ রাষ্ট্রের প্রাধিকারভুক্ত নাগরিকদের আমরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সেবা দিতে চাই। শোকের এই মাসে এক ধরণের দায় থেকে প্রায়োরিটি চেয়ার সেবা ব্যবস্থা চালু করিছি।’

/এমএএ/
সম্পর্কিত
জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পেশাদারত্বের সঙ্গে কাজ করছে পুলিশ: আইজিপি
বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি, নতুন যোগ হচ্ছে স্বাধীনতা দিবসের ভাতা
অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় বাধ্যতামূলক অবসরে পুলিশ সুপার
সর্বশেষ খবর
ট্রেনিং নেই তবু মাস্টার ট্রেইনার
ট্রেনিং নেই তবু মাস্টার ট্রেইনার
ট্রেনে পায়ের আঙুল কাটা পড়েছে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদের
ট্রেনে পায়ের আঙুল কাটা পড়েছে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদের
হিট স্ট্রোক কেন জরুরি অবস্থা? আক্রান্ত হলে কী করবেন?
হিট স্ট্রোক কেন জরুরি অবস্থা? আক্রান্ত হলে কী করবেন?
এক ফ্রেমে গুঞ্জনের ইতি
এক ফ্রেমে গুঞ্জনের ইতি
সর্বাধিক পঠিত
সারা দেশে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসায় ছুটি ঘোষণা
সারা দেশে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসায় ছুটি ঘোষণা
সোনার দাম কমেছে, আজ থেকেই কার্যকর
সোনার দাম কমেছে, আজ থেকেই কার্যকর
মুখোমুখি ইরান-ইসরায়েল, পরীক্ষার মুখে মার্কিন সামরিক কৌশল
মুখোমুখি ইরান-ইসরায়েল, পরীক্ষার মুখে মার্কিন সামরিক কৌশল
ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট, হিন্দু মহাজোট ‘নেতা’ পুলিশ হেফাজতে
ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট, হিন্দু মহাজোট ‘নেতা’ পুলিশ হেফাজতে
জানা গেলো বেইলি রোডে আগুনের ‘আসল কারণ’
জানা গেলো বেইলি রোডে আগুনের ‘আসল কারণ’