X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

‘আমার মতো আর কোনও মেয়ের যেন এমন ক্ষতি না হয়’

আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৪৮

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের মামলায় ১৩ আসামিকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়ার রায়ে খুশি হননি ভুক্তভোগী গৃহবধূ।

তিনি বলেছেন, ‘অপরাধ অনুযায়ী তাদের সাজা কম হয়েছে। প্রধান আসামিসহ সবাইকে একই কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আমি এই রায়ে সন্তুষ্ট নই। হাইকোর্ট থেকে তারা যেকোনও সময় জামিন নিয়ে আসতে পারে। তখন আবারও আমাদের ওপর নির্যাতন চালাবে। অন্তত প্রধান আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া উচিত ছিল।’ 

মঙ্গলবার (১৪ ডিসেম্বর) দুপুর ১টার দিকে নোয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ।

তিনি বলেন, ‘আমি চাই—তাদের যেন যাবজ্জীবন সাজা হয়। যেন হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে বের হতে না পারে তারা। আদালত ও সরকারের কাছে এটাই আমার দাবি। আমার মতো আর কোনও মেয়ের যেন এমন ক্ষতি না হয়। এদের কঠোর সাজা দিলে ভবিষ্যতে কেউ এই ধরনের অপরাধ করার সাহস পেতো না। অথচ ১০ বছরের সাজা দেওয়া হলো। এরমধ্যে দুই বছর তো চলেই গেছে।’

ভবিষ্যতে নির্যাতনের আশঙ্কা করে গৃহবধূ আরও বলেন, ‘আমার ছোট ভাইবোন আছে, ছেলে আছে। আসামিরা কারাগার থেকে বেরিয়ে যদি আমাদের ক্ষতি করে তাহলে কে নেবে দায়িত্ব? আমরা কোথায় যাবো?।’

দণ্ডপ্রাপ্তদের আদালত থেকে কারাগারে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ

তবে রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি ও বাদীর আইনজীবী রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বাদীর আইনজীবী সরকারি কৌঁসুলি মামুনুর রশীদ লাভলু বলেন, ‘আমরা ৩০ কার্যদিবসে ৪০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণের মধ্য দিয়ে আসামিদের অপরাধ প্রমাণ করতে পেরেছি। আদালত যে রায় দিয়েছেন, তাতে আমি খুশি।’

আসামির আইনজীবী জসিম উদ্দিন বাদল বলেন, ‘এই রায়ে প্রত্যেক আসামিকে একই সাজা দেওয়া হয়েছে। রায়ে আমি সন্তুষ্ট নই। সব আসামি এই রায়ে ন্যায়বিচার পায়নি। আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করবো।’

এর আগে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে নোয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক জয়নাল আবেদীন এই মামলার রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে ১৩ আসামিকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো—দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলু, নুর হোসেন বাদল, আবদুর রহিম, আবুল কালাম, ইসরাফিল হোসেন মিয়া, মাঈন উদ্দিন সাজু, সামছুদ্দিন সুমন, নুর হোসেন রাসেল, আনোয়ার হোসেন সোহাগ, আবদুর রব চৌধুরী, মোস্তাফিজুর রহমান, জামাল উদ্দিন ও মিজানুর রহমান তারেক। তাদের মধ্যে রব চৌধুরী, মোস্তাফিজুর, জামাল ও তারেক পলাতক। অন্যদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

বেগমগঞ্জের একলাশপুরে ২০২০ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাতে ঘরে ঢুকে এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করে দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলুসহ ১৪-১৫ জন দুর্বৃত্ত। ৩২ দিন পর এই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

ওই সময় নয় জনের নামে দুটি মামলা করেন ভুক্তেভোগী গৃহবধূ। একটি নির্যাতনের এবং অন্যটি পর্নোগ্রাফি আইনে। পরে ধর্ষণের অভিযোগে আরেকটি মামলা করা হয়। ধর্ষণের মামলায় একই আদালত গত ৪ অক্টোবর দেলোয়ার ও তার সহযোগী আবুল কালামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। এ নিয়ে দুই মামলার রায় হলো।

 

/এএম/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
প্লে-অফে যেতে মোস্তাফিজদের হারের প্রার্থনায় কোহলিরা!
প্লে-অফে যেতে মোস্তাফিজদের হারের প্রার্থনায় কোহলিরা!
যুক্তরাষ্ট্রে গেছে ৪৫ কোটি টাকার সুরক্ষা সামগ্রী
যুক্তরাষ্ট্রে গেছে ৪৫ কোটি টাকার সুরক্ষা সামগ্রী
প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় মাউশি অধিদফতরের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল
প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় মাউশি অধিদফতরের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল
২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ সিটি ব্যাংকের
২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ সিটি ব্যাংকের
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
সাক্কু কোটিপতি, নগদ টাকা নেই রিফাতের
সাক্কু কোটিপতি, নগদ টাকা নেই রিফাতের
বঙ্গোপসাগর থেকে মালয়েশিয়াগামী ৩৩ রোহিঙ্গা আটক
বঙ্গোপসাগর থেকে মালয়েশিয়াগামী ৩৩ রোহিঙ্গা আটক
কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: দল ছাড়লেন মেয়র প্রার্থী কায়সার 
কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: দল ছাড়লেন মেয়র প্রার্থী কায়সার 
কুসিক নির্বাচন: ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা, একজনের স্থগিত
কুসিক নির্বাচন: ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা, একজনের স্থগিত
কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: দল ছাড়লেন সাক্কু ও কায়সার 
কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: দল ছাড়লেন সাক্কু ও কায়সার