X
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
১০ আশ্বিন ১৪২৯

পাহাড়ে বাড়ছে ম্যালেরিয়া রোগী, উৎকণ্ঠায় স্থানীয়রা

জিয়াউল হক, রাঙামাটি 
০৭ আগস্ট ২০২২, ২২:৩০আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ২২:৩০

দেশের ১৩টি জেলা ম্যালেরিয়াপ্রবণ এলাকা বলে পরিচিত। এর মধ্যে পার্বত্য তিন জেলায় প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি। তবে গত কয়েক বছর খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানে ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণে ছিল। এবার এ তিন জেলায় রোগীর সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। রাঙামাটির উপজেলাগুলোর মধ্যে জুরাছড়ি, বাঘাইছড়ি, বরকল ও বিলাইছড়িতে গত বছরের তুলনায় দ্বিগুণ রোগী পাওয়া গেছে। দীর্ঘ বর্ষা, মশারির কার্যকারিতা কমে যাওয়া ম্যালেরিয়ার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ বলে মনে করছেন জেলার সিভিল সার্জন বিপাশ খীসা।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, পাহাড়ে গত দুই মাস ধরে দ্রুত বাড়ছে ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্তের সংখ্যা। জেলা সদরের চেয়ে এ রোগের প্রকোপ উপজেলায় দুর্গম এলাকাগুলোতে সবচেয়ে বেশি। যা গত দুই মাসে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এতে স্থানীয়দের মধ্যে চরম উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা কাজ করছে। 

জেলার সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে আরও জানা যায়, এ বছর জুন মাসে জেলায় ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০৪ জন হলেও জুলাই মাসে তা বেড়ে ৭২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে জুরাছড়িতে সবচেয়ে বেশি রোগী। জুরাছড়িতে ২৬৩, বরকল ৮৫, বাঘাইছড়ি ১৩২, নানিয়াচর ২, লংগদু ১৪, কাউখালী ২, কাপ্তাই ২, রাজস্থলী ৬১, বিলাইছড়ি ১৫৮ ও রাঙামাটি সদরে ৫ জন রোগী পাওয়া গেছে।

রাঙামাটি বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক, জুরাছড়ির দুমদুম্যা, মৈদং, বিলাইছড়ি ও বরকলে এবার হানা দিয়েছে ম্যালেরিয়া। দুর্গম ও সীমান্তবর্তী হওয়ায় সরকারি চিকিৎসা সেবার অপ্রতুলতা ও সচেতনতার অভাবে ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। জুরাছড়িতে গত দু’মাসে বিভিন্ন স্থানের লোকজন জ্বর, কাঁশিসহ শারীরিক দুর্বলতার জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার স্বাস্থ্যকর্মীদের থেকে চিকিৎসা নিতে এসে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করালে তাদের শরীরে ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু পাওয়া যায়।

জুরাছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পাওয়া তথ্যানুসারে জুলাই মাসে ২৬৩ জনের দেহে ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু পাওয়া গেছে। জুন মাসে পাওয়া যায় ১২৩ জনের দেহে। এছাড়া বাঘাছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পাওয়া তথ্যানুসারে গত বছর জুনে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৪৯ জন, জুলাই মাসে ৪৭ জন যা এ বছর জুনে ১৩২ জন, জুলাই মাসে ১৩৬ জন রোগীর সন্ধান মিলেছে।

জুরাইছড়ি উপজেলার বিশেষ করে দুর্গম মৈদং ও দুমদুম্যা ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে ম্যালেরিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মৈদং ইউনিয়নে আমতলা, ভুয়াতলীছড়া, বাদলহাটছড়া, কাটালতলী, জামেরছড়ি। দুমদুম্যা ইউনিয়নে গবছড়ি, লাম্বাবাগছড়া, হরিণ হাট ছড়া, বড় ও ছোট করইদিয়া, ঘন্ডাছড়া, দুলুছড়ি, আদিয়াবছড়া, কান্দারাছড়া, এটছড়ি, কলাবনছড়া গ্রামের মানুষ ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

গত বছরের তুলনায় রোগী দ্বিগুণ
ব্র্যাক রাঙামাটি অফিসের তথ্যমতে, বাঘাইছড়ি উপজেলায় ২০২১ সালে জুন মাসে দুই হাজার ৫৪১ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হলে ৪৯ জনের ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু পাওয়া যায়। একই বছরের জুলাই মাসে তিন হাজার ৬০৫ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষায় ৪৭ জনের শরীরে ম্যালেরিয়ার জীবাণুর উপস্থিতি মিলে। তবে ২০২২ সালের জুন মাসে দুই হাজার ৫১১ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হলে ১৩২ জনের শরীরে ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু পাওয়া যায়। আর জুলাইয়ে তিন হাজার ১৯০ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষায় ১৩৬ জনের শরীরে ম্যালেরিয়ার উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়া গেছে।  

একইভাবে জুরাছড়ি উপজেলায় ২০২১ সালের জুন মাসে এক হাজার ৫৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৪ জন এবং জুলাইয়ে দুই হাজার ৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮২ জনের শরীরে ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু পাওয়া যায়। তবে ২০২২ সালের জুন মাসে মাসে দুই হাজার ২০০ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষায় ১৫৯ এবং জুলাইয়ে তিন হাজার ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৬৩ জনের ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য মিলেছে। 

রাঙামাটি জেলার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য আরও বলছে, ২০১৪ সালে ম্যালেরিয়া রোগে ১৭ হাজার ৪৫ জন, ২০১৮ সালে দুই হাজার ৯৯৩ জন, ২০১৯ সালে ছয় হাজার তিন জন, ২০২০ সালে এক হাজার ৩৭৭ জন, ২০২১ সালে এক হাজার ৬০০ জন আক্রান্ত হয়েছিল। 

অপ্রতুল চিকিৎসা সেবা ও সচেতনতার অভাবে বাড়ছে ম্যালেরিয়া রোগী
বাঘাইছড়ির উপজেলার সাজেক ইউপির চেয়ারম্যান অতু লাল চাকমা বলেন, পাহাড়ি জেলায় একসময় ম্যালেরিয়ার প্রকোপ বেশি থাকলেও সময়ের পরিক্রমায় সেটা কমে এসেছে। তবে এ বছর সাজেকে হঠাৎ করেই ম্যালেরিয়া রোগী বেড়ে গেছে। সরকারি-বেসরকারি হিসেবে রোগীর যে সংখ্যা দেখানো হচ্ছে প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। কারণ দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় ম্যালেরিয়া রোগীরা রক্ত পরীক্ষা করতে আসে না। জ্বরের লক্ষণ দেখে স্বজনরা বাজারে এসে ফার্মেসি থেকে ওষুধ নিয়ে যায় এবং এছাড়া তারা মশারিও ব্যবহার করে না। এসব কারণে ম্যালেরিয়ার প্রকোপ বেড়ে গেছে।

জুরাছড়ি উপজেলার দুমদুম্যা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাধন কুমার চাকমা বলেন, গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর আমাদের ইউনিয়নে ম্যালেরিয়া রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। স্থানীয়দের মধ্যে এক ধরনের ভীতি তৈরি হয়েছে। এনজিও ব্র্যাকের মাধ্যমে রোগীর রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে রোগী শনাক্তের পর চিকিৎসা কার্যক্রম চলমান আছে। তিনি আরও জানান, আমার ইউনিয়নে কলাবনছড়া, বরকলক ও বগাখালিতে ক্লিনিক আছে। আমি আরও ১৩টি ক্লিনিকের প্রস্তাব করেছি তাহলে দুর্গম এলাকার মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা যাবে। 

জুরাছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অনন্যা চাকমা বলেন, জুন-জুলাই মাসে দুর্গম পাহাড়ে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। এ রোগের প্রাদুর্ভাব অক্টোবর মাস পর্যন্ত পাহাড়ে কম-বেশি থাকে। তিনি বলেন, আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও রোগটি নিয়ে এখনই আতঙ্কিত হওয়ার মতো পরিস্থিতি হয়নি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, কমিউনিটি ক্লিনিকে পর্যাপ্ত ওষুধ সরবরাহ রয়েছে। তাছাড়া মাঠ পর্যায়ে দক্ষ সহকারী সার্জন ও স্বাস্থ্য কর্মীরা চিকিৎসা সেবা নিবেদিতভাবে দিয়ে যাচ্ছেন।

রাঙামাটির সিভিল সার্জন ডা. বিপাশ খীসা বলেন, ‘গত দুই বছরের তুলনায় ম্যালেরিয়ার প্রকোপ অনেক বেড়েছে। পাহাড়ে জুন থেকে আগস্ট পার্যন্ত ম্যালেরিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ে। তবে গত বছর যেখানে রোগী এক হাজার ৬০০ ছিল, সেখানে এবার জুন ও জুলাইতেই প্রায় দ্বিগুণ রোগী হয়ে গেছে। তবে মশারির ব্যবহার বাড়ানো এবং জ্বর দেখা দিলে রক্ত পরীক্ষার জন্য পাহাড়িদের উৎসাহিত করতে কাজ চলছে বলে জানান তিনি। 

/টিটি/
সম্পর্কিত
রোগীর পেটে কাঁচি রেখে সেলাই, হাসপাতাল মালিক কারাগারে
রোগীর পেটে কাঁচি রেখে সেলাই, হাসপাতাল মালিক কারাগারে
চট্টগ্রামে কেন বেড়েছে ডেঙ্গুর প্রকোপ? 
চট্টগ্রামে কেন বেড়েছে ডেঙ্গুর প্রকোপ? 
পারমাণবিক পদ্ধতিতে অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে নতুন প্রকল্প
পারমাণবিক পদ্ধতিতে অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে নতুন প্রকল্প
হাসপাতালে চিকিৎসকের মায়ের কাছ থেকে চাঁদা আদায়, দুজনকে অব্যাহতি
হাসপাতালে চিকিৎসকের মায়ের কাছ থেকে চাঁদা আদায়, দুজনকে অব্যাহতি
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
শুরুতে সাজঘরে সাব্বির-লিটন
শুরুতে সাজঘরে সাব্বির-লিটন
‘ডায়বেটিস আক্রান্তদের বছরে একবার রেটিনা পরীক্ষা দরকার'
‘ডায়বেটিস আক্রান্তদের বছরে একবার রেটিনা পরীক্ষা দরকার'
ইভিএমে রাতে ভোট দেওয়ার সুযোগ নেই: কমিশনার আলমগীর
ইভিএমে রাতে ভোট দেওয়ার সুযোগ নেই: কমিশনার আলমগীর
সেনাবাহিনীতে যুক্ত হলো দ্বিতীয় কাসা-সি ২৯৫ ডব্লিউ সামরিক বিমান
সেনাবাহিনীতে যুক্ত হলো দ্বিতীয় কাসা-সি ২৯৫ ডব্লিউ সামরিক বিমান
এ বিভাগের সর্বশেষ
রোগীর পেটে কাঁচি রেখে সেলাই, হাসপাতাল মালিক কারাগারে
রোগীর পেটে কাঁচি রেখে সেলাই, হাসপাতাল মালিক কারাগারে
চট্টগ্রামে কেন বেড়েছে ডেঙ্গুর প্রকোপ? 
চট্টগ্রামে কেন বেড়েছে ডেঙ্গুর প্রকোপ? 
হাসপাতালে চিকিৎসকের মায়ের কাছ থেকে চাঁদা আদায়, দুজনকে অব্যাহতি
হাসপাতালে চিকিৎসকের মায়ের কাছ থেকে চাঁদা আদায়, দুজনকে অব্যাহতি
মিয়ানমারের মাইনে পা হারিয়ে হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন বাংলাদেশি
মিয়ানমারের মাইনে পা হারিয়ে হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন বাংলাদেশি
পাবনা মানসিক হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু
পাবনা মানসিক হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু