X
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২
২৩ আষাঢ় ১৪২৯

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ঈদযাত্রায় চরম দুর্ভোগের শঙ্কা

আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০২২, ১১:২৬

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ। বর্ষাকালে তীব্র স্রোত, শীতে ঘন কুয়াশা, সেই সঙ্গে সারাবছর রয়েছে ঘাট, ফেরি ও নদীতে নাব্য সংকট। এসব কারণে এই নৌপথে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়েন চালক ও যাত্রীরা। ঈদসহ বিভিন্ন উৎসবে সেই দুর্ভোগ বেড়ে যায় কয়েক গুণ।

মাগুরা থেকে আসা ঢাকাগামী ট্রাকচালক হামিদুর রহমান বলেন, ‘প্রতিবছর ঈদ আসলে ঘাটে নানারকম নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়। তীব্র যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে সিরিয়ালে আটকে থাকি। এবার শুনলাম ঈদের তিন দিন আগে ও তিন দিন পর মোট সাত দিন অপচনশীল ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে। যদি এগুলো সঠিকভাবে প্রশাসন বাস্তবায়ন করে তাহলে হয়তো ঈদের ছুটিতে মানুষ নির্বিঘ্নে ভোগান্তি ছাড়া বাড়ি ফিরতে পারবে।’

যাত্রীবাহী বাস রয়েল পরিবহনের চালক হায়দার আলী বলেন, ‘এই ঈদে দৌলতদিয়া ঘাটে যদি ফেরির সংখ্যা বাড়ানো যায়, তাহলে হয়তো সময়মতো নদী পার হয়ে গৌন্তব্যে পৌঁছাতে পারবো। ঘাটে ট্রফিক ব্যবস্থা ভালো রাখলে ও ঘাটের সংখ্যা বাড়ানো হলে সবাই ভোগান্তি থেকে রক্ষা পাবে।’

আরও পড়ুন: বাড়েনি লঞ্চ-ফেরি, বেড়েছে দুর্ভোগ

এসপি গোল্ডেন লাইন পরিবহনের যাত্রী মাহাবুব হোসেন বলেন, ‘ঈদ আসলেই ঘাটে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ বেড়ে যায়। কর্তৃপক্ষের উচিত ঘাটে ঈদের সামনে বেশি ফেরি যুক্ত করা এবং যে ঘাটগুলো অকেজো হয়ে পড়ে আছে সেগুলো সচল করা। আমরা যারা বাসে যাতায়াত করি তারা অধিকাংশ সময়ই ঘাটে এসে নদী পারের অপেক্ষায় সিরিয়ালে দীর্ঘক্ষণ আটকে থাকি। এতে আমাদের মতো যাত্রীদের সময় ও অর্থসহ নানারকম ক্ষতি হয়। কর্তৃপক্ষের উচিত ঈদসহ সারাবছরই ঘাটের দিকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া।’

ফেরি থেকে নেমে অত্যন্ত খাড়া ঢালু টপকে সড়কে উঠতে হয়

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিহন করপোরেশনের (বিআইডবিব্লউটিসি) আরিচা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ২০২০ ও ২০২১ সালে ১৬ থেকে ১৮টি ফেরি নিয়মিত চলাচল করতো। কিন্ত গত বছরের আগস্টে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে পদ্মা সেতুর সঙ্গে ফেরির ধাক্কা লাগায় ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। ওই নৌপথের অধিকাংশ যানবাহন নদী পাড়ি দিতে দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাট ব্যবহার শুরু করে। বর্তমানে এই নৌপথে ১৯টির মধ্যে সচল রয়েছে ১৭টি ফেরি। বাকি দুটি ফেরি পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা ডক ইয়ার্ড মধুমতিতে মেরামতের কাজ চলছে। 

এছাড়া দৌলতদিয়ার সাতটি ঘাটের মধ্যে সচল রয়েছে চারটি। বাকি তিনটির মধ্যে ১ ও ২ নম্বর ঘাট ২০১৯ সালের বর্ষার ভাঙনের কবলে পড়ে বিলীন হয়ে যায়। পরে ঘাট দুটি সংস্কার করলেও ব্যবহার উপযোগী হয়নি। ৬ নম্বর ঘাটের মিডওয়াটার লেবেল নেমে যাওয়ায় প্রায় আট মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। সচল থাকা ৩ ও ৪ নম্বর ঘাটেরও সবগুলো পকেটে ফেরি ভেড়ার উপায় নেই। 

৫ ও ৭ নম্বর ফেরিঘাট সম্পূর্ণ সচল থাকলেও নদীর নাব্য কমে যাওয়া পন্টুন সড়ক থেকে অনেকটা নিচু হয়ে গেছে। এতে যানবাহনগুলোকে ফেরি থেকে নেমে অত্যন্ত খাড়া ঢালু টপকে সড়কে উঠতে হয়। এতে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণ সময় লাগছে।

এদিকে শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় নৌরুটে কিছুটা নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। কর্তৃপক্ষ কৃত্রিম ভাবে খনন যন্ত্র দিয়ে ফেরি চলাচলে জন্য খনন কাজ করছে। খনন কাজে ব্যবহৃত পাইপসহ অন্যান্য যন্ত্রাংশের জন্যেও কিছুটা ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া নাব্য সংকটে ফেরিগুলোকে ধীরগতিতে চলাচল করতে হচ্ছে।

রাজবাড়ী জেলা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হাসান বলেন, ‘ঘাটে এবার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পর্যাপ্ত প্রশাসনের সদস্যরা মোতায়েন থাকবে। জেলা বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকেও নির্ধারিত পোশাকে নিজ নিজ কাউন্টারে পর্যাপ্ত শ্রমিক থাকবে। এছাড়া জেলার বাসগুলো যদি টার্মিনালে প্রবেশ করতে পারে, তাহলে আশা করছি ঘরমুখো মানুষের কোনও কষ্ট হবে না।’

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডবিউটিএ) আরিচা অঞ্চলের উপ-সহকারী প্রকৌশলী শাহ আলম বলেন, ‘দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট গত বছরেই ভেঙে শেষ। কোনোরকমে কিছু কিছু কাজ করে যাত্রী ওঠানামার ব্যবস্থা করেছি। বর্ষায় এখানে ঘাট রাখতে পারবো কিনা সেটা চিন্তার বিষয়। দৌলতদিয়া ঘাট আধুনিকায়নের বড় প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। ওই প্রকল্প থেকে স্থায়ীভাবে এখানে যা করার করে দেবো।’

নৌপথে সারা বছরই দুর্ভোগে পড়েন চালক ও যাত্রীরা

বিআইডব্লিউটিসি’র আরিচা কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ বলেন, ‘ঈদের আগেই সব ধরনের যানবাহনের চাপ বাড়বে। তখন ফেরির সংখ্যা বাড়িয়ে ২২টি করা হবে এবং ঘাট একটি বাড়িয়ে পাঁচটি করার পরিকল্পনা রয়েছে। একসঙ্গে ২২টি ফেরি ও পাঁচটি ঘাট সচল থাকলে ঈদে চাপ সামাল দেওয়া সম্ভব হবে।’

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট ম্যানেজার প্রফুল্ল চৌহান বলেন, ‘বর্তমানে ছোট-বড় ১৭টি ফেরি চলাচল করছে। দৌলতদিয়ায় প্রান্তে ঘাট, ফেরি ও নাব্য সংকটে স্বাভাবিকভাবে ফেরি চলাচল ব্যহত হচ্ছে। এছাড়া নদী পার হতে আসা গাড়ির চাপ বেশি থাকায় প্রতিদিনই দীর্ঘ সারি তৈরি হচ্ছে।’
 
বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) শিহাব উদ্দিন জানান, ঈদুল ফিতরে যানবাহন পারাপারে গতি আনতে দৌলতদিয়া ২ নম্বর ফেরিঘাটটি সচলের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রী ও বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান ঘাট পরিদর্শন করে এই নির্দেশনা দিয়েছেন। এছাড়া মেরামতে থাকা সকল ফেরি ঈদের আগেই বহরে যুক্ত হবে বলে আশা করছি।’

/এসএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
মোটরসাইকেল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত কার স্বার্থে?  
মোটরসাইকেল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত কার স্বার্থে?  
গরুর হাটে যাওয়ার পথে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
গরুর হাটে যাওয়ার পথে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
মানহীন শিক্ষায় ভবনই সার
মানহীন শিক্ষায় ভবনই সার
এ বিভাগের সর্বশেষ
মোটরসাইকেল পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে গিয়ে যুবক আটক
মোটরসাইকেল পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে গিয়ে যুবক আটক
চার লাখে কেনা ‘রংবাজ-বিন্দাসের’ দাম এখন ৩০ লাখ
চার লাখে কেনা ‘রংবাজ-বিন্দাসের’ দাম এখন ৩০ লাখ
বন্ধুদের নিয়ে বান্ধবীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৫
বন্ধুদের নিয়ে বান্ধবীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৫
২৭ গরু নিয়ে ডুবে গেলো ট্রলার
২৭ গরু নিয়ে ডুবে গেলো ট্রলার
ভাড়া নিয়ে বিরোধ, হেলপারের ধাক্কায় চাকার নিচে যাত্রী
ভাড়া নিয়ে বিরোধ, হেলপারের ধাক্কায় চাকার নিচে যাত্রী