X
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪
৫ বৈশাখ ১৪৩১

ভালোবাসা দিবসের জন্যই পরম আদরে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে গোলাপগুলোকে

নাদিম হোসেন, সাভার
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪:০০আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪:১০

ঢাকার অদূরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের গোলাপ গ্রামজুড়েই  যেন গোলাপ বাগান। শত শত হেক্টর জমিতে ফুটে আছে ভালোবাসার লাল গোলাপ। অন্য রংয়ের গোলাপও আছে, তবে স্বল্প পরিসরে।

বেশ কিছুদিন ধরেই ভালোবাসা দিবসের জন্যই পরম আদরে এই গোলাপগুলোকে ফুটিয়ে তুলতে ঘাম ঝরাচ্ছেন চাষিরা। ১ ফাল্গুন আর ২১ ফ্রেব্রুয়ারিকেও টার্গেট করেছেন তারা। তবে ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে এখানে প্রতিটি গোলাপ পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা দরে।

আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বেশ ঘটা করেই পালিত হয় দিবসটি। আর লাল গোলাপ ছাড়া ভালোবাসা দিবস যেন কল্পনাই করা যায় না। তাই গোলাপ উৎপাদনে চেষ্টার কোনও কমতি ছিল না চাষিদের। 

ফুল হাতে গোলাপ চাষি

বিরুলিয়ার গোলাপ চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভালোবাসা দিবস ছাড়াও ১ ফাল্গুন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও ২৬ মার্চ উপলক্ষে ফুল বিক্রি বেশি হয়। সারা বছরের মধ্যে এই সময়েই গোলাপসহ সব ফুলের চাহিদা বেড়ে যায় কয়েক গুণ। চাষিরা তাই এই সময়টাকেই ফুল বিক্রির সেরা মৌসুম মনে করেন। যদিও গোলাপের চাহিদা সারা বছরই থাকে। তবে এই সময়কে প্রাধান্য দিয়েই বিশেষ করে গোলাপ বাগানে বাড়তি পরিচর্যা করেন চাষিরা। ফলে গ্রামের যেদিকে তাকাবেন, শুধু গোলাপ আর গোলাপ। বেশির ভাগই লাল গোলাপ।

পুরো গ্রামটাই যেন এক গোলাপ বাগান

গোলাপ চাষি ইমরান হোসেন বলেন,ফেব্রুয়ারির এই সময়টার জন্য অনেক দিন ধরেই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত গোলাপ বাগানে কাজ করেছি। আর এখন সারা দিন ফুল বিক্রি করতে হিমশিম খাচ্ছি। চুরি ঠেকাতে গভীর রাত পর্যন্ত বাগান পাহারা দিতে হচ্ছে। তবে আশার কথা হলো, চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় এবার ফুলের দাম একটু বেশি পাচ্ছি। এবার প্রতিটি গোলাপ বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকায়। এবার আমরা গত কয়েক বছরের লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবো বলে আশা করছি।  

আরেক গোলাপ চাষি আব্দুল ওহাব বলেন, ছত্রাক ও করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে এবার আমরা জোর চেষ্টা চালিয়েছি। এবছরও অনেকের বাগানে ছত্রাকের সংক্রমণ হয়েছে। ফুল পঁচে ঝড়ে পড়েছে। তবে বেশিরভাগ বাগানেই ফুলের ভাল ফলন হয়েছে। আমরা ভালবাসা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেকে টার্গেট করে ফুল বাগানের পরিচর্যা করেছি। বাজারও ভালো পাচ্ছি। গত কয়েকদিন যাবত ২৫-৩০ টাকায় গোলাপ বিক্রি করলেও আজ ৩০-৪০ টাকায় ফুল বিক্রি করা হচ্ছে। তবে বাজারে প্লাস্টিকের ফুলের সঙ্গে আমরা পারছি না। আমাদের পুরো বাজার নষ্ট করে দিচ্ছে প্লাস্টিকের ফুল। এসব ফুল আমদানি বন্ধ করা না হলে একসময় হুমকির মুখে পড়বে ফুল চাষিরা।  

গোলাপ বাগানে দর্শনার্থী

গাজীপুর থেকে পরিবার নিয়ে এই গ্রাম দেখতে এসেছেন সায়ন্তি। তিনি বলেন, এবার নিয়ে দুই বার এলাম গোলাপ গ্রামে। দুই বারই বাবা-মায়ের সাথে এসেছি। এটা যেন ঠিক একটা ফুলের রাজ্য। একসাথে এতো গোলাপ, এতো ফুল আর কখনোই, কোথাও দেখিনি। একবার এলে, তাই বারবার আসতে ইচ্ছে করে। শহরের কৃত্রিমতা ছেড়ে একবারের জন্য হলেও সবার এখানে আসা উচিত।

অপর দর্শনার্থী তাপসি বিন্তী বলেন, গোলাপের টানে এখানে অনেক দূর-দূরান্ত থেকে আসে মানুষ। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষের পদচারণায় মুখর থাকে এ গ্রাম। দর্শনার্থীদের মধ্যে বেশিরভাই নারী। অথচ এখানে তাদের জন্য নেই কোন ওয়াশরুম। তাই নারী দর্শনার্থীদের জন্য ভালো একটা ওয়াশরুমের ব্যবস্থা করা হলে, এখানে তারা অনেকটা সময় কাটাতে পারবে। এখানে নেই নিরাপত্তার কোন ব্যবস্থা। তবে এ গ্রামের মানুষ ভীষণ ভালো আর বন্ধুসুলভ।

ভালোবাসার লাল গোলাপ

রাজধানীর উত্তরা থেকে ফুল কিনতে এসেছেন ফুল ব্যবসায়ী জামাল। তিনি বলেন,উত্তরায় আমাদের ফুলের দোকান রয়েছে। দোকানের জন্য আজ ফুল কিনতে এসেছি। ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুলের দাম বাড়তি। আগে শাহবাগ থেকে ফুল কিনতাম। কিন্তু এখন কাছেই বাগানের তাজা ফুল পাচ্ছি। তাই সরাসরি বাগান থেকেই ফুল নিতে এসেছি। দামও তুলনামুলক কম। তবে গত বছরের তুলনায় এবার প্রতিটি ফুলের দাম প্রায় ১০ টাকা করে বেড়েছে।

শুধু গোলাপ নয়, অন্য ফুলও ফোটে

সাভার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শারমিন সুলতানা বলেন,গোলাপ চাষিদের নানাভাবে সাহায্য সহযোগিতা করে আসছে সাভার উপজেলা কৃষি বিভাগ।  ফুল উৎপাদন থেকে শুরু করে মাটি প্রস্তুত সব বিষয়ে চাষিদের পরামর্শ দেয়া হয়। এছাড়া চাষিদের সার, কীটনাশক দিয়েও সহযোগিতা করা হয়। তারা যে সমস্যা নিয়ে আসেন, সেই সমস্যা অনুযায়ীই পরামর্শ দেয়া হয়।

এবার ৩০৫ হেক্টর এলাকাজুড়ে গোলাপ চাষ হয়েছে বলে জানালেন তিনি। শারমিন বলেন, এ বছর বাম্পার ফলন হয়েছে। গোলাপ চাষিরা অত্যন্ত খুশি। ফুল বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। অথচ গত বছর ফুল বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২০ কোটি টাকা। এক বছর পরই লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

/এস/
সম্পর্কিত
চালক ও সহকারীর মৃত্যু যাত্রীদের মারধরে নয়, প্রতিযোগিতার কারণে: পুলিশ
বাড়তি ভাড়া চাওয়ায় যাত্রীদের মারধরে চালক-হেলপারের মৃত্যু
সাভার ৫ গাড়িতে আগুন: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪
সর্বশেষ খবর
ব্যাংকের একীভূত প্রক্রিয়া কি আলোর মুখ দেখবে?
ব্যাংকের একীভূত প্রক্রিয়া কি আলোর মুখ দেখবে?
চট্টগ্রামে জব্বারের বলী খেলা ২৫ এপ্রিল থেকে
চট্টগ্রামে জব্বারের বলী খেলা ২৫ এপ্রিল থেকে
যে কারণে ১৫ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপান ছাড়তে উৎসাহী হবে
যে কারণে ১৫ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপান ছাড়তে উৎসাহী হবে
বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত হলো কলকাতায়
বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত হলো কলকাতায়
সর্বাধিক পঠিত
এএসপি বললেন ‌‘মদ নয়, রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলাম’
রেস্তোরাঁয় ‘মদ না পেয়ে’ হামলার অভিযোগএএসপি বললেন ‌‘মদ নয়, রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলাম’
মেট্রোরেল চলাচলে আসতে পারে নতুন সূচি
মেট্রোরেল চলাচলে আসতে পারে নতুন সূচি
‘আমি এএসপির বউ, মদ না দিলে রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেবো’ বলে হামলা, আহত ৫
‘আমি এএসপির বউ, মদ না দিলে রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেবো’ বলে হামলা, আহত ৫
রাজধানীকে ঝুঁকিমুক্ত করতে নতুন উদ্যোগ রাজউকের
রাজধানীকে ঝুঁকিমুক্ত করতে নতুন উদ্যোগ রাজউকের
তৃতীয় ধাপে যেসব উপজেলায় ভোট
তৃতীয় ধাপে যেসব উপজেলায় ভোট