X
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
২৩ মাঘ ১৪২৯

রামপালের ১৭৪ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার

আবুল হাসান, মোংলা
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৯:৫২আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ২০:১১

বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় মোট ২২৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এরমধ্যে ১৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনও শহীদ মিনার নেই। ভাষা আন্দোলনের ৭০ বছর পরও এত প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকার বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের চরম দায়িত্বহীনতার পরিচয় বলে দাবি স্থানীয়দের।

জানা গেছে, উপজেলার ২২৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে তিনটি কলেজ, পাঁচটি ডিগ্রি মানের মাদ্রাসা, দুটি আলিম মাদ্রাসা, ৩৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১১টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১২৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ২০টি ইবতেদায়ি মাদ্রাসা রয়েছে। ১২৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ২১টিতে শহীদ মিনার আছে। ১০৬টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নেই। 

২০টি ইবতেদায়ি মাদ্রাসার একটিতেও শহীদ মিনার নেই। তিনটি সরকারি কলেজের মধ্যে রামপাল সরকারি কলেজে শহীদ মিনার থাকলেও সেটা রয়েছে অযত্ন ও অবহেলায়। ৩৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ১৪টিতে শহীদ মিনার আছে। বাকি ২০টিতে নেই। আলিম মাদ্রাসার দুটির কোনোটাতেই শহীদ মিনার নেই। দাখিলের ১০টির মাদ্রাসার মধ্যে কোনোটায় নেই শহীদ মিনার। পাঁচটি ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা একটিতেও শহীদ মিনার নেই।

ফয়লাহাট কামাল উদ্দিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক বলেন, ভাষা আন্দোলনের ৭০ বছর ও স্বাধীনতার ৫০ বছরেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ না হওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এটা সংশ্লিষ্টদের চরম গাফিলতি ছাড়া কিছু নয়।  

উপজেলা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন শেখ বলেন, ‘আমরা হতাশ। আমাদের মাতৃভাষাকে বিশ্ববাসী স্বীকৃতি দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার মর্যাদা দিয়েছে। কিন্তু কেন এতে বছরও শহীদ মিনার নিয়ে কথা বলতে হবে? শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দ্রুত সময়ের মধ্যে শহীদ মিনার নির্মাণের দাবি জানাই।’

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দ্রুত সময়ের মধ্যে শহীদ মিনার নির্মাণের দাবি

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জিয়াউর রহমান বলেন, ‘শহীদ মিনার নির্মাণ না হওয়ায় আমাদের নতুন প্রজন্ম বাংলা ভাষা তথা মাতৃভাষার চর্চা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।’

রামপাল উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘শহীদ মিনার না থাকার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। আমরা এ বিষয়ে দ্রুত উদ্যোগ নিয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করবো। এ নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সবকিছু করা হবে।’

এ বিষয়ে রামপাল উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মতিউর রহমান বলেন, ‌‘আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য পাঠিয়েছি।’

/এসএইচ/এমওএফ/
সর্বশেষ খবর
ভাষাসৈনিকদের নাম জানলেও শহীদ মিনার চেনে না শিশু শিক্ষার্থীরা
ভাষাসৈনিকদের নাম জানলেও শহীদ মিনার চেনে না শিশু শিক্ষার্থীরা
বগুড়ার সাবেক নারী ইউপি সদস্যের মরদেহ উদ্ধার
বগুড়ার সাবেক নারী ইউপি সদস্যের মরদেহ উদ্ধার
বাংলাদেশে প্রযুক্তি খাতে সহযোগিতার আগ্রহ সৌদির
বাংলাদেশে প্রযুক্তি খাতে সহযোগিতার আগ্রহ সৌদির
সারা দেশ নিপাহ ভাইরাসের ঝুঁকিতে: আইইডিসিআর
সারা দেশ নিপাহ ভাইরাসের ঝুঁকিতে: আইইডিসিআর
সর্বাধিক পঠিত
ব্যাংকের আমানতকারীদের জন্য সুখবর আসছে
ব্যাংকের আমানতকারীদের জন্য সুখবর আসছে
এখনও আক্রমণের শিকার হন সেই স্লোগানকন্যা
গণজাগরণ মঞ্চের ১০ বছরএখনও আক্রমণের শিকার হন সেই স্লোগানকন্যা
বরগুনার ‘মিন্নি’র পর দিনাজপুরের ‘ইয়াসমিন’ হচ্ছেন মিম
বরগুনার ‘মিন্নি’র পর দিনাজপুরের ‘ইয়াসমিন’ হচ্ছেন মিম
কে হচ্ছে শ্রীলংকা? বাংলাদেশ না পাকিস্তান? 
কে হচ্ছে শ্রীলংকা? বাংলাদেশ না পাকিস্তান? 
একাধিক পদে চাকরি দিচ্ছে আড়ং
একাধিক পদে চাকরি দিচ্ছে আড়ং