X
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে খুলনায় আমন চাষ ব্যাহত

হেদায়েৎ হোসেন, খুলনা
০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫১আপডেট : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৭

আষাঢ়-শ্রাবণ চলে গেছে। ভাদ্রও শেষের পথে। এই সময়েও পর্যাপ্ত বৃষ্টির দেখা নেই। এতে খুলনায় রোপা আমন চাষাবাদে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। আমন চাষাবাদের ভরা মৌসুমে কৃষকরা ধানের চারা রোপণ করতে পারছেন না। ফলে আমন চাষ দেড় মাস পিছিয়ে গেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে অনাবৃষ্টির কারণে আমনের পাশাপাশি শীতকালীন শাক-সবজি উৎপাদনেও ভাটা পড়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে সৃষ্ট আম্পান ও ইয়াসসহ বিভিন্ন প্রকৃতিক দুর্যোগের ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পারেননি খুলনার কৃষকরা। চলতি বছরের মে মাসে বোরোর ন্যায্যমূল্য পাননি। অমাবস্যার জোয়ারের ধাক্কায় কয়রা উপজেলার বেদকাশীতে কৃষি অর্থনীতিতে বড় ক্ষতি হয়েছে। জুন মাস থেকে অনাবৃষ্টির কারণে আমন, পাট ও শীতকালীন শাক-সবজি উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর বর্ষা মৌসূমে ৯৩ হাজার ১৭০ হেক্টর জমিতে আমন আবাদে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল। কিন্তু ১৫ ভাদ্র পর্যন্ত মাত্র ১৬ হাজার ৪৫৫ হেক্টর জমিতে আবাদ করা সম্ভব হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার ১৭ শতাংশ। কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি না হওয়ায় আবাদ দেড়মাস পিছিয়েছে। খুলনা জেলায় তিন হাজার ৬৩০ হেক্টর জমিতে আউশ, এক হাজার ৩১৬ হেক্টর জমিতে পাট, ৩৫ হেক্টর জমিতে গ্রীষ্মকালীন টমেটো, ২৭৩ হেক্টর জমিতে তরমুজ, ২৯৫ হেক্টর জমিতে শিম, আট হাজার ২৬৫ হেক্টর জমিতে শীতকালীন শাক-সবজির আবাদ হয়েছে। অধিকাংশ ফসলে সেচ দিতে হচ্ছে।

সেচ দিয়ে চাষাবাদে হিমশিম খাচ্ছে কৃষক

জানা গেছে, ২০২১ সালের জুনের ৩৮৮ দশমিক ৮৯ মিলিমিটার, জুলাইয়ে ৫০৬ মিলিমিটার ও আগস্টে ২১৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। এ বছরের জুনে ৯৪ দশমিক ৩৬ মিলিমিটার, জুলাইয়ে ৯১ দশমিক ২৭ মিলিমিটার এবং ২৩ আগস্ট পর্যন্ত ১৬১ দশমিক ১৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

ডুমুরিয়া উপজেলার খর্ণিয়া গ্রামের চাষি আবু হানিফ মোড়ল বলেন, ‘ঘেরের আইলের পাশে দশ বিঘা জমিতে শিম আবাদ করেছি। কলসে করে বয়ে এনে পানি দিয়ে আবাদ বাঁচাতে হচ্ছে। পানির অভাবে খর্ণিয়া ইউনিয়নের অর্ধেকের বেশি জমিতে আমনের আবাদ হয়েছে। ভদ্রা নদীর পানি দিয়ে টিপনা, বামনদিয়া, পাঁচপোতা পাথুরিয়া, গোনালী, খর্ণিয়া ও ভদ্রদিয়া গ্রামের চাষিরা আমনের আবাদ করছে। এতে উৎপাদন খরচ বাড়বে।’

ডুমুরিয়া সদরের কৃষক আবদুল মোবিন বলেন, ‘সেই যুবক বয়স থেকে চাষ করে আসছি। কৃষক হিসেবেই ৫০ বছর বছর পার করলাম। কিন্তু এবারের মতো কম বৃষ্টি আগে দেখিনি।’

পাইকগাছার কৃষক আলম সরদার বলেন, ‘গত বর্ষায় কম বৃষ্টি হলেও শরতে বৃষ্টি ছিল প্রচুর। খুলনায় আগে বৃষ্টির কারণে বিল-মাঠ ডুবে থাকতো। জলাবদ্ধতা দূর করতে বিভিন্ন স্থানের বাঁধ কাটতে হয়েছে। এখন বর্ষাকালেও খাল-বিল শুকিয়ে থাকছে। সেচ দেওয়ার মতো পানি পাওয়া যাচ্ছে না।’

পাইকগাছা উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি না হওয়ায় আমন রোপণের অগ্রগতি কম। রোপণের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। এ পর্যন্ত ৪০ শতাংশ জমিতে আমন আবাদ হয়েছে। সাড়ে চারশ’ একর জমির উৎপাদিত পাট নদীর জোয়ারের পানিতে, আবার অন্য কোথাও গর্ত করে পলিথিন বিছিয়ে মাটি চাপা দিয়ে পচানো হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সহায়তায় সেচ দিতে কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।’

দাকোপ উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, অনাবৃষ্টির কারণে আমনের বীজতলা এবার তৈরিতে দেরি হয়েছে। আমন আবাদ দেড় মাস পিছিয়ে গেছে। তার কর্মস্থল পানখালী ইউনিয়নে তরমুজ ও সবজির উৎপাদন কমে গেছে। 

অনাবৃষ্টির কারণে আমন, পাট ও শীতকালীন শাক-সবজি উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে

খুলনা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেরেদ আজাদ বলেন, ‘শুধু আষাঢ়-শ্রাবণই নয়, ভাদ্র মাসেরও ১৩ দিন পার হতে যাচ্ছে, কিন্তু প্রয়োজনীয় বৃষ্টির দেখা নেই। প্রতি ৩-৪ বছর পর এমন অবস্থা সৃষ্টি হয়। এর আগে ২০১৯ সালে এমন পরিস্থিতি হয়েছিল। আর এবারও সেই একই পরিস্থিতি হলো। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে হালকা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই মাসেই একটি মৌসুমি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। সেটা হলে খুলনা অঞ্চলে বৃষ্টি হবে।’

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর খুলনার উপ-পরিচালক হাফিজুর রহমান বলেন, ‘ফুলতলা, তেরখাদা, রূপসা, বটিয়াঘাটা, ডুমুরিয়া, দিঘলিয়া ও দাকোপ উপজেলায় নদী থেকে পানি উত্তোলন করে আমন আবাদ করা হচ্ছে। পাইকগাছা ও কয়রা উপজেলার নদীর পানি এখনও নোনা। এ কারণে এই দুই উপজেলায় নদীর পানি ব্যবহার করা যাচ্ছে না। ইতোমধ্যে বীজতলা একশ’ শতাংশ সম্পন্ন হলেও আমন উৎপাদন কম হবে।’

/এসএইচ/
রিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
ইসলামী ব্যাংকের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণরিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
করোনা টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়ার পরিকল্পনা
করোনা টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়ার পরিকল্পনা
বৃদ্ধ দম্পতির রহস্যজনক মৃত্যু
বৃদ্ধ দম্পতির রহস্যজনক মৃত্যু
পান ব্যবসায়ীর ৩৪ লাখ টাকা লুট, মূলহোতা গ্রেফতার
পান ব্যবসায়ীর ৩৪ লাখ টাকা লুট, মূলহোতা গ্রেফতার
সর্বাধিক পঠিত
আ.লীগ নেত্রীর বাসায় নৈশভোজে মার্কিন রাষ্ট্রদূত
আ.লীগ নেত্রীর বাসায় নৈশভোজে মার্কিন রাষ্ট্রদূত
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত বিএনপির
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত বিএনপির
বিএনপিকে ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি: ডিএমপি
বিএনপিকে ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি: ডিএমপি
বাংলাদেশের অংশগ্রহণ নিয়ে ধোঁয়াশা
চায়না-ইন্ডিয়ান ওশান ফোরাম অনুষ্ঠানবাংলাদেশের অংশগ্রহণ নিয়ে ধোঁয়াশা
ফিফার মান বাঁচালেন ‘বিটিএস’ জাংকুক!
ফিফার মান বাঁচালেন ‘বিটিএস’ জাংকুক!