X
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
২১ মাঘ ১৪২৯

রহিমা বেগম অপহরণ মামলায় গ্রেফতার ৪ জন জামিনে মুক্ত

খুলনা প্রতিনিধি
০৪ অক্টোবর ২০২২, ২২:৩৮আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২২:৪০

খুলনার মহেশ্বরপাশা বণিকপাড়া থেকে রহিমা বেগম অপহরণ মামলায় গ্রেফতার ছয় জনের মধ্যে চার জন জামিনে ‍মুক্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কারাগার থেকে তারা মুক্তি পেয়েছেন। এরআগে দুপুরে তারা খুলনা মহানগর দায়রা জজ মাহমুদা খানমের আদালত থেকে জামিন পান।

খুলনা জেলা কারাগারের জেলার তরিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আলোচিত চার জনের জামিন আদেশ কারাগারে আসার পরই সন্ধ্যায় তাদের মুক্তি দেওয়া হয়। এরা হলেন কুয়েট সহকারী প্রকৌশলী গোলাম কিবরিয়া, তার ভাই মো. মহিউদ্দিন, প্রতিবেশী রফিকুল আলম পলাশ ও মো. জুয়েল।

উল্লেখ্য, ২৭ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে পানি আনতে বাড়ি থেকে নিচে নামেন রাহিমা বেগম (৫২)। ঘণ্টা পার হলেও তিনি বাসায় ফিরে আসেন না। পরে মায়ের খোঁজে সন্তানরা সেখানে গিয়ে মায়ের ব্যবহৃত স্যান্ডেল, গায়ের ওড়না ও কলস রাস্তার ওপর পড়ে থাকতে দেখেন। রাতে সম্ভাব্য সব স্থানে সন্ধান নেওয়ার পর মাকে পাননি সন্তানরা। এরপর থানায় সাধারণ ডায়েরি ও পরে কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়ন। মামলার তদন্তকালে পুলিশ ও  র‌্যাব ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারদের মধ্যে রয়েছেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) প্রধান প্রকৌশল কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম কিবরিয়া, নিখোঁজ গৃহবধূর দ্বিতীয় স্বামী বেল্লাল ঘটক ওরফে বেলাল হাওলাদার, দৌলতপুর মহেশ্বরপশা বণিকপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন, পলাশ ও জুয়েল এবং হেলাল শরীফ। 

পরে বাদীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বর আদালত মামলার তদন্তভার পিবিআইতে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে নথিপত্র ১৭ সেপ্টেম্বর বুঝে নেয় পিবিআই। এখন এ মামলার তদন্ত করছেন পিবিআই পরিদর্শক আব্দুল মান্নান। ২২ সেপ্টেম্বর রহিমার মেয়ে মরিয়ম আক্তার ওরফে মরিয়ম মান্নান দাবি করেন তার মায়ের লাশ তিনি পেয়েছেন। তিনি ২৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের ফুলপুরে দিনভর অবস্থান নেন। একই সঙ্গে সেখানে ১০ সেপ্টেম্বর উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত এক মহিলার লাশকে নিজের মা বলে শনাক্ত করেন। ডিএনএ প্রোফাইল করার জন্যও তিনি সম্মত হন। ২৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের আদালতে ডিএনএ প্রোফাইল করার আবেদন করা হয়। আদালত ২৫ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে ডিএনএ প্রোফাইল করার অনুমতি দেন। এদিকে ফরিদপুরের বোয়ালমারি উপজেলার সৈয়দপুর থেকে শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে রহিমা বেগমকে জীবিত উদ্ধার করে পুলিশ। ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে আদালতে সোপর্দ করা হলে রহিমা ২২ ধারার জবানবন্দিতে তিনি অপহরণ হয়েছিলেন বলে দাবি করেন। এরপর সন্ধ্যায় আদালত মামলার বাদী ও রহিমার মেয়ে আদুরীর জিম্মায় তাকে মুক্তি দেন। এরপর ওই রাতেই মেয়ে মরিয়ম ও আদুরী তাদের মাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যান। স্বজনরা জানিয়েছেন ঢাকায় রহিমার চিকিৎসা চলছে।

আরও পড়ুন:

রহিমা নিখোঁজের প্রথম ৯ দিনের অবস্থান খুঁজছে পিবিআই

বান্দরবা‌নে ভিক্ষা করেছেন র‌হিমা, ঠিকানা দিয়েছেন ভুয়া

রহিমার স্বামীকে সন্দেহ করছে পিবিআই

কুদ্দুসের বাড়িতে গল্প করছিলেন রহিমা, পুলিশ দেখে নির্বাক

বোয়ালমারী ইউপিতে জন্ম নিবন্ধন করতে যান রহিমা

খুলনা থেকে গোপালগঞ্জ-চট্টগ্রাম ঘুরে ফরিদপুরে যান রহিমা

জীবিত উদ্ধার রহিমা, বস্তাবন্দি লাশটা তাহলে কার?

এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?

/টিটি/
সর্বশেষ খবর
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটরিয়াম উদ্বোধনের আগেই ভাড়া
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটরিয়াম উদ্বোধনের আগেই ভাড়া
শোক সংবাদে শুরু, নবীন শিল্পীদের অপূর্ব পরিবেশনায় শেষ
‘কর্মশালা ও সংগীতে নবীনবরণ’শোক সংবাদে শুরু, নবীন শিল্পীদের অপূর্ব পরিবেশনায় শেষ
‘১৪ বছরে মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুরসহ ২৫ দেশকে পেছনে ফেলেছি আমরা’
‘১৪ বছরে মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুরসহ ২৫ দেশকে পেছনে ফেলেছি আমরা’
‘প্রতিদিন বাড়ছে জিনিসের দাম, জনগণের পরোয়া করে না সরকার’
‘প্রতিদিন বাড়ছে জিনিসের দাম, জনগণের পরোয়া করে না সরকার’
সর্বাধিক পঠিত
দিনদুপুরে তালা ভেঙে ব্যাংক থেকে ৪ লাখ টাকা লুট
দিনদুপুরে তালা ভেঙে ব্যাংক থেকে ৪ লাখ টাকা লুট
ক্রাইম প্যাট্রল থেকে কৌশল শিখে ৫ কিশোরের এক রোমহর্ষক কিলিং মিশন
ক্রাইম প্যাট্রল থেকে কৌশল শিখে ৫ কিশোরের এক রোমহর্ষক কিলিং মিশন
শাকিব ও জোভান প্রসঙ্গে মুখ খুললেন পূজা!
শাকিব ও জোভান প্রসঙ্গে মুখ খুললেন পূজা!
রডের টন লাখ ছুঁই ছুঁই
রডের টন লাখ ছুঁই ছুঁই
সড়কে লাশ হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী
সড়কে লাশ হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী