X
রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
২১ মাঘ ১৪২৯

রহিমা নিখোঁজের প্রথম ৯ দিনের অবস্থান খুঁজছে পিবিআই

খুলনা প্রতিনিধি
০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৭:৪১আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৮:১১

খুলনার মহেশ্বরপাশার বণিকপাড়া থেকে রহিমা বেগম নিখোঁজ হওয়ার পর প্রথম ৯ দিন কোথায় ছিলেন, সে বিষয়ে তদন্ত করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) সদস্যরা। গত ২৭ আগস্ট নিখোঁজের পর ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত, ৯ দিন তিনি কোথায় ছিলেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ জন্য রহিমার স্বামী বেল্লাল ঘটক ওরফে বেলাল হাওলাদারকে রিমান্ডের আবেদন করেছে পিবিআই।

পিবিআই খুলনার পুলিশ সুপার সৈয়দ মুশফিকুর রহমান বলেন, রহিমা নিখোঁজ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল মান্নানসহ দুই জন বান্দরবান তদন্তে গেছেন। তারা তদন্ত শেষে ৪ অক্টোবর ফিরে আসছেন। তদন্তকালে তারা জানতে পেরেছেন রহিমা বেগম ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ দিন বান্দরবানে ছিলেন। রহিমা বান্দরবান সদরের ইসলামপুরে আছিয়া বেগমের কাছে পাঁচ দিন ও মনি বেগমের কাছে ছয় দিন ছিলেন। এরপরই তিনি ফরিদপুরের সৈয়দপুরে কুদ্দুসের বাড়িতে আসেন। 

তিনি আরও বলেন, পিবিআই এখনও রহিমা নিখোঁজের প্রথম ৯ দিনের অবস্থান শনাক্ত করতে পারেনি। এ জন্য পিবিআই তৎপর রয়েছে। কারাগারে আটক বেল্লাল ঘটক রহিমার সহায়ক হতে পারে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। তাই তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। রিমান্ড শুনানি এখনও হয়নি।

উল্লেখ্য, ২৭ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে পানি আনতে বাড়ি থেকে নিচে নামেন রাহিমা বেগম (৫২)। ঘণ্টা পার হলেও তিনি বাসায় ফিরে আসেন না। পরে মায়ের খোঁজে সন্তানরা সেখানে গিয়ে মায়ের ব্যবহৃত স্যান্ডেল, গায়ের ওড়না ও কলস রাস্তার ওপর পড়ে থাকতে দেখেন। রাতে সম্ভাব্য সব স্থানে সন্ধান নেওয়ার পর মাকে পাননি সন্তানরা। এরপর থানায় সাধারণ ডায়েরি ও পরে কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়ন। মামলার তদন্তকালে পুলিশ ও  র‌্যাব ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারদের মধ্যে রয়েছেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) প্রধান প্রকৌশল কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম কিবরিয়া, নিখোঁজ গৃহবধূর দ্বিতীয় স্বামী বেল্লাল ঘটক ওরফে বেলাল হাওলাদার, দৌলতপুর মহেশ্বরপশা বণিকপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন, পলাশ ও জুয়েল এবং হেলাল শরীফ। 

পরে বাদীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বর আদালত মামলার তদন্তভার পিবিআইতে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে নথিপত্র ১৭ সেপ্টেম্বর বুঝে নেয় পিবিআই। এখন এ মামলার তদন্ত করছেন পিবিআই পরিদর্শক আব্দুল মান্নান। ২২ সেপ্টেম্বর রহিমার মেয়ে মরিয়ম আক্তার ওরফে মরিয়ম মান্নান দাবি করেন তার মায়ের লাশ তিনি পেয়েছেন। তিনি ২৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের ফুলপুরে দিনভর অবস্থান নেন। একই সঙ্গে সেখানে ১০ সেপ্টেম্বর উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত এক মহিলার লাশকে নিজের মা বলে শনাক্ত করেন। ডিএনএ প্রোফাইল করার জন্যও তিনি সম্মত হন। ২৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের আদালতে ডিএনএ প্রোফাইল করার আবেদন করা হয়। আদালত ২৫ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে ডিএনএ প্রোফাইল করার অনুমতি দেন। এদিকে ফরিদপুরের বোয়ালমারি উপজেলার সৈয়দপুর থেকে শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে রহিমা বেগমকে জীবিত উদ্ধার করে পুলিশ। ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে আদালতে সোপর্দ করা হলে রহিমা ২২ ধারার জবানবন্দিতে তিনি অপহরণ হয়েছিলেন বলে দাবি করেন। এরপর সন্ধ্যায় আদালত মামলার বাদী ও রহিমার মেয়ে আদুরীর জিম্মায় তাকে মুক্তি দেন। এরপর ওই রাতেই মেয়ে মরিয়ম ও আদুরী তাদের মাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যান। স্বজনরা জানিয়েছেন ঢাকায় রহিমার চিকিৎসা চলছে।

আরও পড়ুন:

বান্দরবা‌নে ভিক্ষা করেছেন র‌হিমা, ঠিকানা দিয়েছেন ভুয়া

রহিমার স্বামীকে সন্দেহ করছে পিবিআই

কুদ্দুসের বাড়িতে গল্প করছিলেন রহিমা, পুলিশ দেখে নির্বাক

বোয়ালমারী ইউপিতে জন্ম নিবন্ধন করতে যান রহিমা

খুলনা থেকে গোপালগঞ্জ-চট্টগ্রাম ঘুরে ফরিদপুরে যান রহিমা

জীবিত উদ্ধার রহিমা, বস্তাবন্দি লাশটা তাহলে কার?

এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?

 

/টিটি/
সর্বশেষ খবর
ভারতকে হারাতে চায় বাংলাদেশ
ভারতকে হারাতে চায় বাংলাদেশ
১১ ফেব্রুয়ারি সারাদেশের ইউনিয়নে বিএনপির পদযাত্রা
লংমার্চ দিয়ে পরাজিত করার ঘোষণা ফখরুলের১১ ফেব্রুয়ারি সারাদেশের ইউনিয়নে বিএনপির পদযাত্রা
গণজাগরণ মঞ্চের দশক পূর্তি আজ
গণজাগরণ মঞ্চের দশক পূর্তি আজ
বারবার বলেছি আর মারিস না, নেপথ্যে মোটরসাইকেলের মালিকানা
বারবার বলেছি আর মারিস না, নেপথ্যে মোটরসাইকেলের মালিকানা
সর্বাধিক পঠিত
দিনদুপুরে তালা ভেঙে ব্যাংক থেকে ৪ লাখ টাকা লুট
দিনদুপুরে তালা ভেঙে ব্যাংক থেকে ৪ লাখ টাকা লুট
শাকিব ও জোভান প্রসঙ্গে মুখ খুললেন পূজা!
শাকিব ও জোভান প্রসঙ্গে মুখ খুললেন পূজা!
ক্রাইম প্যাট্রল থেকে কৌশল শিখে ৫ কিশোরের এক রোমহর্ষক কিলিং মিশন
ক্রাইম প্যাট্রল থেকে কৌশল শিখে ৫ কিশোরের এক রোমহর্ষক কিলিং মিশন
রডের টন লাখ ছুঁই ছুঁই
রডের টন লাখ ছুঁই ছুঁই
‘পুরো ইউক্রেন পুড়বে’
‘পুরো ইউক্রেন পুড়বে’