আগামী দিনের আ.লীগে কালো মেঘ দেখছেন নাসিম

Send
নাটোর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:০০, অক্টোবর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৬, অক্টোবর ১৯, ২০১৯

বক্তব্য রাখছেন মোহাম্মদ নাসিম (ছবি– প্রতিনিধি)

আগামী দিনে দেশ থেকে আওয়ামী লীগ নিশ্চিহ্ন হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র এবং খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের ঐতিহ্যবাহী আওয়ামী লীগ দলে যেভাবে অনুপ্রবেশকারীদের মূল্যায়ন এবং ত্যাগী-নিবেদিতপ্রাণ নেতাকর্মীদের অবজ্ঞা করা হচ্ছে; তাতে আমি আগামী দিনের আওয়ামী লীগে কালো মেঘ দেখতে পাচ্ছি।’

শনিবার (১৯ অক্টোবর) বিকালে নাটোর নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা কলেজ অডিটোরিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘অনুপ্রবেশকারীদের মূল্যায়ন ও ত্যাগী-নিবেদিতপ্রাণ নেতাকর্মীদের অবজ্ঞা চলতে থাকলে ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপি-জামায়াত মাথাচাড়া দেবে। তখন আগের মতোই বিএনপি-জামায়াতের তাণ্ডব শুরু হবে। আর এটা হলে দেশ থেকে আওয়ামী লীগ নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। তাই নিজের ও দলের স্বার্থে প্রকৃত আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মূল্যায়নের কোনও বিকল্প নেই। পাশাপাশি সব দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে এখনই ঐক্যবদ্ধ ও সুশৃঙ্খল আওয়ামী লীগ কমিটি গঠন করতে হবে।’

বিগত দিনে কারা নৌকার বিপক্ষে কাজ করেছে, কার স্বার্থে কাজ করেছে, কে কাকে কীভাবে অবজ্ঞা করেছে, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হোক—জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন প্রশ্ন ও দাবি এবং উত্তেজিত অবস্থার মধ্যে বক্তব্য দিতে গিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘যারা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করবে, তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযোগ প্রমাণ হলে তারা অবশ্যই দলে গুরুত্বপূর্ণ পদ পাবে না। তবে সবাইকেই সম্মানের সঙ্গে অন্যের সমালোচনা তুলে ধরতে হবে। অসম্মানজনকভাবে সমালোচনায় নিজ দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাশাপাশি দলে অনুপ্রবেশকারী ও শত্রুপক্ষের ষড়যন্ত্রকারীদের সুযোগ সৃষ্টি হবে।’

বিএনপি-জামায়াত একসময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অমানুষিক নির্যাতন করেছে মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, ‘মাঠে-ঘাটে, জমিতে, রাজপথে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ভয়ানক মারপিট-জখম করেছে। দেশ স্বাধীনের পর সাধারণ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করতে গিয়ে দেশ যখন উন্নতির চরম শিখরে যাচ্ছিল, ঠিক তখনই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে প্রায় সপরিবারে হত্যা করা হয়। আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক দূরদর্শিতায় দেশের উন্নয়ন বিশ্বে প্রশংসিত। দেশকে উন্নতির চরম শিখরে ওঠানোয় দেশের সব মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন হয়েছে। একইসঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের বিচার করা হয়েছে। এর বাইরে আওয়ামী লীগকর্মীদের বড় সন্তুষ্টির আর কিছু থাকতে পারে না।’ যারা দীর্ঘদিন নির্যাতিত হয়েও আওয়ামী লীগ করে আসছেন, তারা নিজের জীবনের চেয়েও আওয়ামী লীগকে বেশি ভালোবাসেন দাবি করে ওই ত্যাগীদের মূল্যায়নের আহ্বান জানান সাবেক মন্ত্রী।

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ সদস্য নূরুল ইসলাম ঠান্ডু ও এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন উপস্থিত ছিলেন।

/এমএ/এমএমজে/

লাইভ

টপ