হারানোর ১৭ বছর পর মাকে খুঁজে পেলো ছেলে

Send
পটুয়াখালী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:১১, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:০১, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

১৭ বছর পর মা বকুল বালাকে খুঁজে পেল তার ছেলে১৭ বছর পর মা বকুল বালাকে খুঁজে পেল তার ছেলে। ১৭ বছর আগে ছোট মেয়েকে খুঁজতে কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে চলে যান বকুল বালা। রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে পটুয়াখালী শহরের সবুজবাগ এলাকার তিতাস মোড় এলাকায় মাকে খুঁজে পান ছেলে ঠাকুর কৃষ্ণ হালদার। এ দৃশ্য দেখতে ওই এলাকায় ভিড় করেন উৎসুক জনতা। বকুল বালার বাড়ি পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামে।

নাতি রিপন চন্দ্র হালদার তিতাস মোড় এলাকায় বকুল বালাকে দেখে তার বাড়িতে খবর দেন। পরে ছেলে ঠাকুর কৃষ্ণ পটুয়াখালী এসে মাকে চিনতে পেরে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। ১৭ বছর আগে ছোট মেয়ে আলো রানিকে বাপের বাড়িতে ফেলে রেখে চলে যায় তার স্বামী। স্বামীকে খুঁজতে গিয়ে নিরুদ্দেশ হন আলো। তারপর মেয়েকে খুঁজতে গিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি মা বকুল বালা।

বকুল বালার ছেলে ঠাকুর কৃষ্ণ বলেন, মা নিখোঁজ হওয়ার পরে বিভিন্ন জায়গায় খুঁজেছি, কিন্তু পাইনি। আজ তাকে খুঁজে পেয়ে আমি খুব খুশি। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। স্থানীয় আবুল গাজী জানান, আমার দোকানের পাশেই একটি ছাপরায় থাকতেন তিনি। যে যা দিতো তাই খেতেন। আমিও তাকে মাঝে মাঝে খাবার দিতাম। তবে তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। আজ অনেক বছর পরে মা ও ছেলের দেখা হয়েছে।

৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজল বরণ দাস জানান, ৪ বছর আগে বৃষ্টির সময় তিতাস মোড় এলাকায় আসেন ওই বৃদ্ধা। তারপর আমরা সবাই মিলে একটি ছাপরা ঘর তুলে দেই। সেখানেই তিনি থাকতেন। পরে বৃদ্ধার জন্য বস্ত্র এবং কম্বলের ব্যবস্থা করা হয়। এলাকার লোকজন তাকে খাবার দিতো। দীর্ঘদিন পরে ছেলে তার মাকে পেয়ে অনেক খুশি। পাশাপাশি এলাকাবাসীও খুশি। বৃদ্ধাকে নিয়ে তার স্বজনেরা বাড়ি ফিরে গেছেন বলে জানান তিনি।

/এমআর/এমওএফ/

লাইভ

টপ