চামড়া ডাস্টবিনে, হতাশ মাদ্রাসা ও এতিমখানা কর্তৃপক্ষ

Send
মাগুরা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:৩১, আগস্ট ০২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩৬, আগস্ট ০২, ২০২০

 

মাগুরার আড়তে ছাগলের চামড়ার যাচাই-বাছাই চলছে

মাগুরায় কোরবানির পশুর চামড়া ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। চামড়ার সঠিক দাম না পাওয়া ও মৌসুমি ব্যবসায়ীরা চামড়া সংগ্রহ না করায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। এদিকে চামড়ার সঠিক দাম না পেয়ে চরম হতাশ বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিমখানা কর্তৃপক্ষ। 

প্রতি বছর কোরবানির ঈদে চামড়া সংগ্রহে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের তৎপরতা থাকলেও এবারের চিত্র ভিন্ন। জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে মাদ্রাসা ও এতিমখানার লোকজন চামড়া সংগ্রহ করেছিলেন। ঈদের দ্বিতীয় দিনেও শহরের নতুন বাজার চামড়ার গোডাউনে আসতে থাকে গরু-ছাগলের চামড়া। তবে এবার দৃশ্য অন্য রকম। ভিড় নেই চামড়ার গুদামে, বিক্রেতাদের গলায় হতাশার সুর। ভালো দাম না পাওয়ার অভিযোগও রয়েছে। তবে সঠিক দামেই চামড়া কেনা হচ্ছে বলে দাবি আড়তদারদের।

মাগুরার দারুল উলুম মাদ্রাসা ও এতিমখানার পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান বলেন, আমরা সারাবছর অপেক্ষায় থাকি কখন কোরবানির ঈদ আসবে। এসময় আমরা চামড়া ও চামড়ার টাকা সংগ্রহ করি। এ টাকা দিয়ে সারা বছর এতিমদের ব্যয়ভারের বড় অংশ নির্বাহ করা হয়। তবে এ বছর আমরা যে চামড়া ও টাকা পেয়েছি তা অন্যবারের তুলনায় দশ ভাগের একভাগও নয়।

শহরের দোয়ারপাড় এলাকায় অবস্থিত একটি এতিমখানার পরিচালক মাওলানা মো. লিয়াকত আলী বলেন, এ বছর এতিমখানায় ১৫টি ছাগলের চামড়া পেয়েছি। কিন্তু চামড়া ব্যবসায়ীরা না থাকায় তা বিক্রি করে তেমন কোনও লাভ হয়নি।

মাগুরা শহরের ইসলামপুর এলাকার বাসিন্দা জুলফিকার আলী বলেন, আমি একটি গরু কিনেছি এক লাখ টাকায়। কোরবানির পর সেই গরুর চামড়ার দাম মাত্র ১৫০ টাকা। প্রতি বছর আমি চামড়ার টাকা মাদ্রাসা ও এতিমখানায় দান করি। এবছর তা সম্ভব হলো না।

শহরের খান পাড়ার মহিউদ্দিন বলেন, আমার কোরবানির ছাগলের চামড়া এবার কেউ নিতে আসেনি। সন্ধ্যায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছিলো, তাই বাধ্য হয়েছি ডাস্টবিনে ফেলে দিতে।

নতুন বাজার এলাকার আড়তদার নিখিল কুমার দাস বলেন, এ বছর আমরা গরুর চামড়া ১৫০-৪০০ টাকায় পর্যন্ত কিনেছি। সেক্ষেত্রে ছাগলের চামড়ার দাম আকার ও আকৃতিভেদে সর্বোচ্চ ৫০ টাকা থেকে সর্বনিম্ন ৫ টাকা পর্যন্ত কেনা হচ্ছে। তবে এ বছর চামড়ার দাম একটু কম।

মাগুরা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান বলেন, চামড়ার দাম সরকার নির্ধারণ করে দিয়েছে। দাম নিয়ে কোনও ঝামেলা হওয়ার কথা নয়। তবে করোনার কারণে এবার চামড়া বেচাকেনায় একটা সমস্যা থাকতে পারে।

 

আরও পড়ুন:
দাম না পেয়ে কোরবানির পশুর চামড়া ফেলা হলো পদ্মায়!

 

/টিটি/

লাইভ

টপ