‘বিশেষজ্ঞরা না বলা পর্যন্ত পদ্মা সেতু নিয়ে মন্তব্য করা যাচ্ছে না’

Send
মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:০৯, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২২, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০




রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজনপদ্মা সেতুতে ট্রেন চলাচল নিয়ে বিশেষজ্ঞরা কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, ত্রুটি ধরা পড়েছে, কিন্তু এখনও বলার সময় আসেনি। কারণ রেলের কাজ যেভাবে চলমান আছে, এতে সড়ক বিভাগ নতুন একটি শর্ত দিয়েছে। তবে সড়ক বিভাগের কাছে এখন পর্যন্ত কোনও ডিজাইন নেই। যেহেতু ইঞ্জিনিয়ারিং সমস্যা, সেহেতু সমাধানে বিশেষজ্ঞ আছে। এ বিষয়ে সড়ক বিভাগ ও রেলওয়ের কাছে ডিজাইন চাওয়া হয়েছে সমাধান করার জন্য। দুটি ডিজাইন মিললে একটা সমাধানে আসা যাবে। এটি কোনও সমস্যা কিনা, বিশেষজ্ঞরা কিছু না বলা পর্যন্ত মন্তব্য করা যাচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রেলমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সম্প্রতি পদ্মাসেতুর রেল লাইনের কাজে আপত্তি দেয় পদ্মাসেতু কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তে সরেজমিনে পরিদর্শন করেন রেলমন্ত্রী ও পরিকল্পনা মন্ত্রী।

জানা যায়, সেতুর দুই প্রান্তে রাস্তার ওপর দিয়ে টানা হচ্ছে রেললাইন। কিন্তু লাইনের উচ্চতা এত কম যে নিচের হেডরুম দিয়ে বেশি উচ্চতার যানবাহন সেতুতে ওঠানামা করতে না পারার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানপরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এম. এ. মান্নান বলছেন, এটি একটি জাতীয় প্রকল্প। জাতীয়ভাবে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। ত্রুটি শব্দের সঙ্গে আমরা একমত নই। ত্রুটি তখনই হবে, যখন চূড়ান্তভাবে পাওয়া যাবে। এটি প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে, কিছু সংশয় দেখা দিয়েছে। এত বড় প্রকল্পের পদে পদে সমস্যা হতে পারে। সেতু চালু হওয়ার আগেই এটি চিহ্নিত করা গেছে। এই বিষয়ে উচ্চতর পর্যায়ে আলোচনা হবে।

পদ্মাসেতুর প্রকল্প পরিচালক (পিডি) শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা চিঠি দিয়েছিলাম। এখন আলোচনা করে এর সমাধান করা হচ্ছে।

পদ্মাসেতু রেল প্রকল্পের মাওয়া কনস্ট্রাকশনের প্রজেক্টর বিগ্রেডিয়ার আহমেদ জামিল ইসলাম বলেন, প্র্যাকটিকাল সল্যুশনের দিকে যাচ্ছি না। বাংলাদেশ ব্রিজ কর্তৃপক্ষের ভার্টিক্যাল হেডরুম ৫.৭ মিটার রাখার জন্য বলেছে। যা পদ্মাসেতুর অংশে ৫.৭ মিটারের বেশি আছে। হরাইজন্টাল স্ট্যান্ডার্ড যতটুকু থাকার দরকার ততটুকু আছে। পদ্মাসেতু কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেই এসব বিষয় সমাধানের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

পরিদর্শনকালে পদ্মাসেতুর প্রকৌশলীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/টিটি/

লাইভ

টপ