X
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

সিরাজগঞ্জে ‘ট্রিপল মার্ডার’ মামলায় দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১৫:৪৮আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১৫:৪৮

সিরাজগঞ্জে দুই নারী ও এক শিশু (ট্রিপল মার্ডার) হত্যা মামলায় দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরের দিকে সিরাজগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ ফজলে খোদা মো. নাজির এই মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার চালা অফিস পাড়া মহল্লার আব্দুল মুন্নাফের ছেলে আলামিন (৩৬) ও জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানার পবাহার নয়াপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে রবিউল ইসলাম (২৭)।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আব্দুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘দণ্ডপ্রাপ্ত দুজন এই মামলায় জেল হাজতে রয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় তারা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় প্রদানের পরে তাদের আবার জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।’

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, আসামি আলামিন ২০০৭ সালে গাজীপুর জেলার মাওনা চৌরাস্তায় একটি কাপড়ের দোকানে চাকরি করতেন। এ সময় শ্রীপুর থানার টেংরা গ্রামের বাদল মণ্ডলের স্ত্রী  নাসরিন আক্তারের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরবর্তীতে তারা গোপনে বিয়ে করেন।

বিয়ের বিষয়টি জানাজানি হলে নাসরিন আক্তারের পরিবার ও স্বামী তাকে বুঝিয়ে আলামিনকে তালাক দেওয়ায়। এতে আলামিন নাসরিন আক্তারের ওপর ক্ষুব্ধ হন। পরে আলামিন পুনরায় নাসরিন আক্তারের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরির চেষ্টা করেন। দুজনের সম্পর্ক নিয়ে উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্য হয়।

এমতাবস্থায় আলামিন নাসরিন আক্তারকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা মোতাবেক ২০১৬ সালের ৩১ জুলাই আলামিন নাসরিন আক্তারকে মোবাইল ফোনে ডাকে। নাসরিন তার ফুপু মেহেরুন নেছা ও ভাগনি জাইমাকে (৫) সঙ্গে নিয়ে আলামিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তার দোকানে আসেন। দুপুরে আলামিন দোকান কর্মচারী নয়ন সরকার ও ড্রাইভার রবিউল ইসলাম মিলে দোকানের পেছনে বিশ্রাম রুমে নিয়ে একে একে বালিশ চাপা ও গলায় রশি পেঁচিয়ে তিন জনকে হত্যা করে।

পরে তাদের মরদেহ বস্তায় ভরে এনে সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানার খাঁজা ইউনুস আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পেছনে যমুনা নদীতে ফেলে দেয়। পরের দিন মরদেহ ভেসে উঠলে পুলিশ সেগুলো উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

নিহতের পরিচয় না পাওয়ায় এনায়েতপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আজগর আলী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ তিন জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

মামলা চলাকালে ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক আসামি আলামিন ও রফিকুল ইসলামকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। অন্য আসামি নয়ন সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেন।

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
যুবলীগ নেতা হত্যার দায়ে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ৮
জামিনে বেরিয়ে চাচাকে গলা কেটে হত্যা, ভাতিজার মৃত্যুদণ্ড
বাড়ির সীমানায় ময়লা ফেলা নিয়ে বিরোধ, প্রতিবেশীর লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বৃদ্ধের
সর্বশেষ খবর
ইসরায়েলের কাছ থেকে ১১৪ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ: নরওয়ে
ইসরায়েলের কাছ থেকে ১১৪ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ: নরওয়ে
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি: প্রতিকারের দায়িত্ব কার?
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি: প্রতিকারের দায়িত্ব কার?
ঋণের চাপে ‘আত্মহত্যা’, বাঁশঝাড়ে ঝুলছিল প্রধান শিক্ষকের মরদেহ
ঋণের চাপে ‘আত্মহত্যা’, বাঁশঝাড়ে ঝুলছিল প্রধান শিক্ষকের মরদেহ
ওয়ালটনের পণ্য কিনলে কোটি টাকার নিশ্চিত উপহার
ওয়ালটনের পণ্য কিনলে কোটি টাকার নিশ্চিত উপহার
সর্বাধিক পঠিত
ডাল খেলে গ্যাস্ট্রিক হচ্ছে? জেনে নিন ৫ টিপস
ডাল খেলে গ্যাস্ট্রিক হচ্ছে? জেনে নিন ৫ টিপস
বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন দল কত টাকা পাবে জানালো বিসিবি
বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন দল কত টাকা পাবে জানালো বিসিবি
গাজায় যুদ্ধবিরতি: কী বলছে হামাস, ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র
গাজায় যুদ্ধবিরতি: কী বলছে হামাস, ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র
বিদ্যুতের বর্ধিত দাম কার্যকর হবে ফেব্রুয়ারি থেকেই
বিদ্যুতের বর্ধিত দাম কার্যকর হবে ফেব্রুয়ারি থেকেই
কেন চালু হচ্ছে না ফাইভ-জি?
কেন চালু হচ্ছে না ফাইভ-জি?