X
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

টেন্ডার ছাড়াই গোপনে ৩ কোটি টাকার কাজ শেষ

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ২২:৩৯

টেন্ডার আহ্বান না করেই গোপনে প্রায় তিন কোটি টাকার আটটি প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করেছে রংপুর সিটি করপোরেশন। সবগুলো প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার পরও আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। লোক দেখানো এই টেন্ডার আহ্বানের বিষয়টি জানাজানি হলে তোলপাড় শুরু হয়।

বিষয়টি সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রকৌশল বিভাগ ও সংশ্লিষ্টরা জানলেও এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। এ নিয়ে মন্তব্য করলে সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার রোষানলে পড়তে হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

এদিকে, গোপনে যেসব প্রকল্পের কাজ করা হয়েছে সেখানে সাংবাদিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন না সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, মেয়রের বিরুদ্ধে কথা বললে চাকরি থাকবে না।

সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, সিটি করপোরেশনের চিকলী বিনোদন পার্ক, বিভিন্ন অফিস সংস্কার, মাটি ভরাট ও রাস্তা নির্মাণসহ অন্তত ২০ প্রকল্পের কাজ দেখিয়ে ২৬ কোটি ৬০ লাখ ৬৭৯ টাকার দরপত্র আহ্বান করেন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা।

গত ১৩ নভেম্বর মেয়র স্বাক্ষরিত টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সেখানে উল্লেখ করা টেন্ডার সিডিউল বিক্রির শেষ তারিখ ৮ ডিসেম্বর এবং টেন্ডার দাখিলের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর। সিটি করপোরেশনের স্মারক নম্বর ১৪৭২, তারিখ ৩ নভেম্বর ২০২১। টেন্ডার নোটিশ নম্বর ৯৬/২০২১-২০২২। টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ হয়। এরপর টেন্ডার আহ্বান না করে প্রায় তিন কোটি টাকার আট প্রকল্পের কাজ করার বিষয়টি জানাজানি হয়। 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আহ্বান করা টেন্ডারের কাজ পছন্দের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে অনেক আগেই দেওয়া হয়েছে। ওসব প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে গেছে। 

সরেজমিনে নগরীর চিকলী বিনোদন পার্কে গিয়ে দেখা যায়, গোপনে মাটি ভরাট ও আর সিসি রাস্তার নির্মাণকাজ চলছে। কাজ এখন শেষপর্যায়ে। সাংবাদিক পরিচয় জেনে ভেতরে ঢুকতে দেননি কর্তব্যরত কর্মচারী। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, মেয়রের অনুমতি ছাড়া ভেতরে ঢোকা যাওয়া যাবে না। কোনও ছবি তোলা যাবে না।

একইভাবে হনুমানতলা মহল্লা দিয়ে পার্কে ঢোকার প্রধান ফটক বন্ধ করে সেখানে পাহারাদার বসানো হয়েছে। সিসি ক্যামেরা বসিয়ে ভেতরে যাতে কোনও সাংবাদিক প্রবেশ করতে না পারেন, সে জন্য মনিটরিং করা হচ্ছে। সেদিক দিয়েও এই সাংবাদিককে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, আগামী ৯ ডিসেম্বর টেন্ডার দাখিলের শেষদিন বলে যেসব প্রকল্পের টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে, এর মধ্যে আট প্রকল্পের কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। 

প্রকল্পগুলো হলো চিকলী বিনোদন পার্ক; যার মাটিভরাট কাজের মূল্য ৮৫ লাখ ৬১ হাজার ৮৩১ টাকা, সিটি করপোরেশনের রাধাবল্লভ ল্যাবরেটরি অফিস সংস্কার ও পানি সরবরাহ অফিসের ভবন সংস্কার কাজ; যার কাজের মূল্য ১৪ লাখ ৮৭ হাজার ৩০০ টাকা, চিকলী পার্কের আরসিসি রাস্তা নির্মাণ; যার কাজের মূল্য ৬১ লাখ ৮৫ হাজার ২৭৮ টাকা, সাগরপাড়া ও হনুমানতলা প্রবেশপথে দুটি গেট এবং অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণ; কাজের মূল্য ৪৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭১৯ টাকা, কলাবাড়ি ডাম্পিং স্টেশনের পাশে তিন রুমের গেস্টহাউস নির্মাণ; কাজের মূল্য ১১ লাখ ৭৪ হাজার ৮১ টাকা, কলাবাড়ি ডাম্পিং স্টেশনের পাশের নির্মাণসামগ্রী রাখার ঘর নির্মাণ; কাজের মূল্য ১৭ লাখ আট হাজার ৫০৯ টাকা এবং আঙ্গুরমিয়া কেডি ক্যানালের সেতু সংলগ্ন উত্তর পাশে ফুটপাতের রাস্তা নির্মাণসহ মাটি ভরাট; কাজের মূল্য ২৬ লাখ ৩৪ হাজার ৬৫৭ টাকা। প্রায় তিন কোটি টাকার এই আট প্রকল্পের কাজ টেন্ডার আহ্বানের আগেই সম্পন্ন করা হয়েছে। মূলত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিল দেওয়ার জন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল বিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, সাধারণত যেকোনও কাজের জন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়। ঠিকাদার নির্বাচিত হওয়ার পর কার্যাদেশ দেওয়া হলে সেসব কাজ তদারকি করতে যান প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা। যে আটটি কাজ টেন্ডার ছাড়াই করা হয়েছে সেখানে যাননি তারা। কোনও তদারকি ছিল না। তবে বিষয়টি তারা জানতেন। কাজের মান এবং কতটুকু কাজ হয়েছে তা জানা নেই তাদের। সবমিলে টেন্ডার ছাড়া কাজ করে সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল বিভাগের সুনাম নষ্ট করা হয়েছে। এর দায় মেয়রের।

রংপুর গণপূর্ত অধিদফতরের অবসরপ্রাপ্ত একজন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, চাকরি জীবনে কখনও শুনিনি টেন্ডার আহ্বানের আগেই কাজ শেষ করে ফেলা হয়েছে। এটি পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইনের লঙ্ঘন। সংশ্লিষ্ট টেন্ডার আহ্বানকারী এর দায় এড়াতে পারেন না।

এ ব্যাপারে রংপুর জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর হোসেন বলেন, টেন্ডার আহ্বানের আগে ঠিকাদার নির্বাচন এবং কাজ শেষ করা প্রকিউরমেন্ট বিধিমালার (পিপিআর) সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এটি অপরাধ।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মিয়া বলেন, আমার চেম্বারে ওসব প্রকল্পের টেন্ডার আহ্বান করা হয়নি। ওসব প্রকল্পের কাজের বিষয়ে আমার কিছুই জানা নেই। 

জানতে চাইলে সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আজম ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন জানান, মেয়রের অনুমতি ছাড়া ওসব প্রকল্পের কাজের বিষয়ে আমরা কোনও কথা বলতে চাই না। আপনি মেয়রের সঙ্গে কথা বলেন।

এ ব্যাপারে জানতে সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি। পরে এসএমএস করে এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে মোবাইল বন্ধ করে রাখেন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান।

/এএম/
সম্পর্কিত
ছেলের গোয়ালঘরে বৃদ্ধা মায়ের বসবাস 
ছেলের গোয়ালঘরে বৃদ্ধা মায়ের বসবাস 
কারমাইকেলে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ
কারমাইকেলে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ
দিনাজপুরে সূর্যের লুকোচুরি, বেড়েছে তাপমাত্রা  
দিনাজপুরে সূর্যের লুকোচুরি, বেড়েছে তাপমাত্রা  
হিমেল হাওয়ায় কাবু পঞ্চগড়বাসী, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়
হিমেল হাওয়ায় কাবু পঞ্চগড়বাসী, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
ছেলের গোয়ালঘরে বৃদ্ধা মায়ের বসবাস 
ছেলের গোয়ালঘরে বৃদ্ধা মায়ের বসবাস 
কারমাইকেলে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ
কারমাইকেলে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ
দিনাজপুরে সূর্যের লুকোচুরি, বেড়েছে তাপমাত্রা  
দিনাজপুরে সূর্যের লুকোচুরি, বেড়েছে তাপমাত্রা  
হিমেল হাওয়ায় কাবু পঞ্চগড়বাসী, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়
হিমেল হাওয়ায় কাবু পঞ্চগড়বাসী, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়
বগুড়া আ’লীগের প্রাথমিক সদস্যও নন রূপা
বগুড়া আ’লীগের প্রাথমিক সদস্যও নন রূপা
© 2022 Bangla Tribune