X
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
১৪ মাঘ ১৪২৯

একসঙ্গে মাদক সেবন ও শারীরিক সম্পর্ক, এইডসের ঝুঁকিতে হিলি

হালিম আল রাজী, হিলি
৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৩০আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৩০

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে প্রতিদিন তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে আসে। এসব ট্রাকের সঙ্গে চার-পাঁচশ চালক-সহকারী দেশে আসেন। পণ্য খালাসে দেরি হলে এসব চালক-সহকারীকে ২০-২৫ দিন বন্দরে থাকতে হয়। ওই সময়ে যৌনকর্মী, হিজড়া ও মাদকসেবীদের সঙ্গে মেলামেশা করেন তারা। অথচ তাদের স্বাস্থ্য ও রক্ত পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই বন্দরে। এ অবস্থায় এইচআইভি-এইডস সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছেন হিলি স্থলবন্দর ও সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষজন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বন্দরের কয়েকজন ট্রাকচালক ও সহকারী জানিয়েছেন, আমদানিকৃত পণ্য নিয়ে প্রতিদিন তিন শতাধিক ভারতীয় ট্রাক বাংলাদেশে আসে। মাঝেমধ্যে পণ্য খালাসে দেরি হয়। ফলে চালক-সহকারীরা ২০-২৫ দিন অবস্থান করেন বন্দরে। এই সময়ে যৌনকর্মী ও হিজড়াদের সঙ্গে মেলামেশা করেন তারা। আবার সীমান্ত এলাকা হওয়ায় অনেক হিজড়া বাংলাদেশ থেকে ভারতে যান। আবার ভারত থেকে বাংলাদেশে আসেন। দুই দেশের চালক-সহকারীর সঙ্গে মেলামেশা করেন তারা। পাশাপাশি দুই দেশের চালক-সহকারীরা একসঙ্গে মাদক সেবন করেন। এক সিরিঞ্জ দিয়ে একাধিকজন মাদক নেন। ফলে এইচআইভি-এইডসে আক্রান্তদের মাধ্যমে অন্যরা আক্রান্ত হচ্ছেন।

এদিকে, এইচআইভি-এইডস সংক্রমণরোধে আগে পাঁচ-ছয়টি এনজিও সংস্থা কাজ করলেও বর্তমানে কাজ করছে দুটি। ফলে দিন দিন ঝুঁকি বাড়ছে। 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, ২০২১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে এইচআইভি-এইডসে আক্রান্তের সংখ্যা আট হাজার ৭৬১ জন। এর মধ্যে শুধুমাত্র ২০২১ সালে আক্রান্ত হয়েছেন ৭২৯ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৫৮৮ জনের। ২০২১ সালে মৃত্যু হয়েছে ১৮৮ জনের।

ভারত থেকে প্রতিদিন তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে আসে

হিলির বাসিন্দা আলম হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‌‌‘নানা দুঃখে-কষ্টে মাদক সেবন করি। এখানে সহজেই মাদক পাওয়া যায়। বিভিন্ন বাসাবাড়ি ও দোকানে বিক্রি হয়। আমার মতো অনেকে এখানে এসে মাদক নেয়। কেউ হেরোইন, কেউ গাঁজা, কেউবা ইয়াবা আবার কেউ ফেনসিডিল খায়। কেউ কেউ সিরিঞ্জ দিয়ে মাদক নেয়। মাঝেমধ্যে সবাই একসঙ্গে বসেও মাদক নেয়। এসব কথা সবাই জানে, পুলিশ প্রশাসনও জানে।’

ভারত থেকে পণ্য নিয়ে বাংলাদেশে আসা ট্রাকচালক সুনিল কুমার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ভারত থেকে পণ্য নিয়ে এলে খালাসে দেরি হওয়ায় অনেক সময় একমাসের মতো বন্দরে থাকতে হয়। এই সময়ে অলস বসে থাকায় অনেকে নানা কর্মকাণ্ডে জড়ায়। যার চাহিদা আছে সে বাইরের নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে জড়াবে। এক্ষেত্রে সে তো জানে না ওই নারী এইডসে আক্রান্ত কিনা। আবার সে নিজে এইডসে আক্রান্ত কিনা ওই নারীও জানে না। ফলে দুজনের দিক থেকেই এইডস ছড়াতে পারে। আবার একসঙ্গে মাদক সেবনের সময় একই সিরিঞ্জ ব্যবহারেও এইডস ছড়াতে পারে। তাদের কাছ থেকে অন্যদেরও এই রোগটা হতে পারে। এজন্য এইডসের পরীক্ষা করা জরুরি সবার।’

ভারতীয় আরেক ট্রাকচালক সুকুমার ঘোষ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি প্রায়ই ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য নিয়ে হিলি বন্দরে আসি। কিন্তু ভারতে এইডসের টেস্ট করা হয়নি বাংলাদেশেও টেস্টের ব্যবস্থা নেই। যেহেতু এখানে সবাইকে একসঙ্গে থাকতে হয়, কার কি অসুখ আছে তা আমার জানা নেই। ফলে ঝুঁকি তো আছেই। টেস্টের ব্যবস্থা থাকলে সবাই ঝুঁকিমুক্ত থাকতে পারতাম।’

ভারত থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাক ও চালকরা

বাংলাদেশি ট্রাকচালক ইব্রাহিম শেখ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রায়ই সময়ে বন্দরে পণ্য নিতে যেতে হয়। এই সময়ে ভারতীয় ট্রাকচালক-সহকারীদের সঙ্গে মিশতে হয়। কিন্তু অনেকে মেয়েদের সঙ্গে মেলামেশাসহ মাদক নেন। কার কি অসুখ আছে তা বোঝা যায় না। তবে সবার জন্য আলাদা থাকার ব্যবস্থা থাকলে ভালো হতো। পাশাপাশি মাদকসেবীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে কিংবা তাদের ঢুকতে না দিলে সবাই শঙ্কামুক্ত থাকতে পারতাম।’   

স্থানীয় এলাকাবাসী সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘ট্রাকচালক-সহকারীদের কোনও প্রকার পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা নেই। এখানে দুই দেশেরই চালক-সহকারী একসঙ্গে মাদক নেন। ফলে এইডস ছড়ানোর শঙ্কা রয়েছে। মাঝেমধ্যে প্রকাশ্যে সিরিঞ্জ দিয়ে মাদক নিতে দেখা যায় তাদের। তাই এখানে স্বাস্থ্য ও এইডস পরীক্ষার ব্যবস্থা করা জরুরি।’

হিলি স্থলবন্দরে এইচআইভি-এইডস প্রতিরোধে কাজ করছেন সেভ দ্য চিলড্রেনের আউটলেট ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘যেহেতু হিলি সীমান্তবর্তী এলাকা সেহেতু অনেক দেশের মানুষের যাতায়াত আছে। এছাড়া স্থলবন্দর হওয়ায় প্রতিদিন পণ্য নিয়ে ট্রাকচালকরা আসেন। এসব ট্রাকের চালক ও সহকারী স্থানীয় যৌনকর্মীদের সঙ্গে মেলামেশা করেন। ফলে এইচআইভি-এইডসের সংক্রমণের ঝুঁকি আছে। আমরা এইডস প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছি। বিশেষ করে যারা যৌনকর্মী রয়েছেন তাদের কনডম দিয়ে থাকি। পাশাপাশি যৌন রোগের চিকিৎসা দেওয়া হয়। তাদের এইচআইভি-এইডস পরীক্ষা করা হয়।’

‘আমাদের মতো আরও দুটি এনজিও সংস্থা রয়েছে। তারা হিজড়া জনগোষ্ঠী ও মাদকসেবীদের মাধ্যমে যাতে এই রোগ না ছড়ায় সে বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সংক্রমণরোধে সবার আগে নিজেকে সচেতন হতে হবে’ বলে উল্লেখ করেন মোস্তাফিজুর রহমান।

স্থলবন্দর ও পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত হওয়ায় নিঃসন্দেহে হিলির মানুষজন এইডস সংক্রমণের ঝুঁকিতে আছেন বলে জানিয়েছেন হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শ্যামল কুমার দাস।

পণ্য খালাসে দেরি হলে এসব চালক-সহকারীকে ২০-২৫ দিন বন্দরে থাকতে হয়

তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আলাদা কর্নার করা হয়েছে। যেখান থেকে এইডস প্রতিরোধে পরামর্শ ও চিকিৎসা দেওয়া হয়। পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের শনাক্ত করে এইচআইভি টেস্ট করা হয়। তবে ভারত থেকে আসা ট্রাকচালকদের পরীক্ষার আওতায় আনতে পারিনি। আশা করছি, আগামীতে তাদেরও পরীক্ষার আওতায় আনতে পারবো।’ তবে কবে নাগাদ পরীক্ষার আওতায় আনা যাবে তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেননি এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

হাকিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সায়েম মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযান চালাই। মাদকসেবীদের আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। তবে মাদকসহ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দেওয়া হয়।’

/এএম/
সর্বশেষ খবর
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার উলটে চালক নিহত
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার উলটে চালক নিহত
মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির টার্গেট ১৩ মুসলিম অধ্যুষিত আসন
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির টার্গেট ১৩ মুসলিম অধ্যুষিত আসন
সর্বাধিক পঠিত
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার