X
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
১ আষাঢ় ১৪৩১

স্থূল আর অগভীর ভাবনার প্রচার-প্রসার দেখে হতাশ লাগে: বাপ্পা

বিনোদন রিপোর্ট
২৫ মে ২০২৪, ১৩:২৩আপডেট : ২৫ মে ২০২৪, ১৩:২৩

সংগীতজ্ঞের ঘরে জন্ম তার। বেড়ে উঠেছেন শাস্ত্রীয়সংগীতের চর্চা করতে করতে। তাই গানের শুদ্ধতম পথেই নিজেকে মেলে ধরেছেন বাপ্পা মজুমদার। দীর্ঘ তিন দশকের বেশি সময়ের ক্যারিয়ারে তিনি কাজের ক্ষেত্রে কখনও আপোষ করেননি। গানের মধ্যে মানের দিকটা মেনে চলেছেন শক্তভাবে।

কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার এই যুগে মানহীন চটুল কনটেন্টে সয়লাব চারদিক। গানের ক্ষেত্রেও শর্টকাট, বিতর্কিত পথ বেছে নিচ্ছে প্রজন্মের অনেকে। যা দেখে হতাশা এবং ভয় কাজ করে বাপ্পার মনে। শনিবার (২৫ মে) সোশ্যাল হ্যান্ডেলে দেওয়া এক বার্তায় এমনটাই জানালেন তিনি।

বাপ্পা মজুমদার জানান, তিনি শনিবার ভোরে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। সেখানে সন্ধ্যায় শো রয়েছে। যেতে যেতে এই সংগীতজ্ঞ বললেন, ‘যাত্রা পথে কানে হেডফোন গুঁজে নানা ধরনের ইন্সট্রুমেন্টাল শোনা আমার একটা বাতিক! কত কত ধারণা তৈরি হয়! কত কত ধরনের সাংগীতিক ভাবনা নিয়ে সারা বিশ্ব কাজ করে যাচ্ছে অনবরত; কী অসাধারণ সব সৃষ্টি! অথচ পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে দিনে দিনে স্থূল আর অগভীর ভাবনার প্রচার-প্রসারের এক বিপুল আয়োজন দেখে খুব হতাশ লাগে; সেই সাথে এক তীব্র ভীতি কাজ করে। কী শিখছে আমাদের সন্তানেরা! প্রচারেই প্রসার (অথবা পসার) আর কুপ্রচারে দ্রুত খ্যাতি? তাই কি?’

ব্যান্ড ও একক দুই ভূমিকায় সাফল্য পাওয়া বাপ্পার মতে, ‘আমি দৃঢ়ভাবে নিজেকে একজন আধুনিক এবং বিজ্ঞানমনস্ক মানুষ বলে মনে করি! সেই সঙ্গে এটাও বিশ্বাস করি, দীর্ঘ চর্চায় অর্জন করা যে কোনও শিল্পকর্মের প্রতিটি আঁচড়ে যে উপলব্ধি, বিশ্বাস, আস্থা আর সর্বোপরি আত্মসম্মানের বোধ তৈরি করে, তা এসব দ্রুত পেয়ে যাওয়া সোশ্যাল মিডিয়ার স্থূল খ্যাতির চেয়ে বহু বহু বহু গুণ বেশি শক্তিশালী! আমার বক্তব্য খুবই সোজা, আমি সোশ্যাল মিডিয়ার বিরোধী নই। কিন্তু এই জাতীয় কুইক ফিক্স আর শর্টকাটের ঘোর বিরোধী! একদম বিরোধী!’

বাপ্পা মজুমদার বাপ্পা মজুমদারের মত গুণী শিল্পীর মতামত, পরামর্শ অন্য অনেকের জন্যই শিক্ষণীয়, অনুপ্রেরণার। সে বিষয়ে একটি সুখবর দিলেন পোস্টের শেষে। তার ভাষ্যেই শোনা যাক সেটি, ‘আমার ধারণা, সংগীত নিয়ে কাজ করতে গিয়ে আমি অনেকখানি সময় পার করে এসেছি। আমার নিজের কিছু পার্সপেক্টিভ তৈরি হয়েছে। সেই ভাবনাগুলো নিয়ে আমি কিছু ছোট ছোট ভিডিও কনটেন্ট করতে চাই! কিছুই হয়তো না! তবে তাতে করে যদি কারও কোনও উপকার হয়, তাতে তো ক্ষতির কিছু নেই, তাই নয় কি? দিনশেষে সবই ইনফরমেশন অ্যান্ড ইনফরমেশন নিডস টু বি ট্রান্সফারড। আমি সেই কাজটাই করতে চাই!’

প্রসঙ্গত, বাপ্পা মজুমদার সম্প্রতি তার ব্যান্ড ‘দলছুট’ থেকে নতুন অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। যেটা ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা, সংগীতশিল্পী সঞ্জীব চৌধুরীর নামে, স্মরণে। অ্যালবামের নাম ‘সঞ্জীব’। এতে ১১টি গান রয়েছে। এগুলো এক এক করে প্রকাশ করা হচ্ছে বাপ্পার ইউটিউব চ্যানেলে।

/কেআই/
সম্পর্কিত
একযুগ পর দলছুট, সঙ্গে সঞ্জীব চৌধুরী
একযুগ পর দলছুট, সঙ্গে সঞ্জীব চৌধুরী
কৃষিবিদে আজ বাপ্পার দিন
কৃষিবিদে আজ বাপ্পার দিন
বায়ান্ন বছরের তরুণ, উপহারে একক কনসার্ট
শুভ জন্মদিনবায়ান্ন বছরের তরুণ, উপহারে একক কনসার্ট
এক গানে ১০ শিল্পী
এক গানে ১০ শিল্পী
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
ছাত্ররাজনীতি নিয়ে ঈদের নাটক
ছাত্ররাজনীতি নিয়ে ঈদের নাটক
আইটেম গার্ল হিসেবে শেষ পারফরম্যান্সে মিলা
আইটেম গার্ল হিসেবে শেষ পারফরম্যান্সে মিলা
অন্যভাবে গায়িকা ঐশীকে উপস্থাপন
অন্যভাবে গায়িকা ঐশীকে উপস্থাপন
গাইলেন নন্দিত নৃত্যজুটি শিবলী-নিপা!
গাইলেন নন্দিত নৃত্যজুটি শিবলী-নিপা!
সেই সুনেত্রা নেই
সেই সুনেত্রা নেই