ভারত পাম ওয়েল কেনা বন্ধ করলেও কাশ্মিরিদের পাশে থাকবেন মাহাথির

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৬:৪২, অক্টোবর ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৪৩, অক্টোবর ২৩, ২০১৯

ভারত মালয়েশিয়া থেকে পাম ওয়েল কেনা বন্ধ করে দিলেও কাশ্মির ইস্যুতে নিজের বক্তব্য থেকে সরে আসবেন না মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। সম্প্রতি জাতিসংঘ অধিবেশনে কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের তীব্র সমালোচনা করেন মাহাথির। ঘটনার জেরে সোমবার তার দেশ থেকে পাম ওয়েল আমদানি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীদের শীর্ষ একটি সংগঠন। তবে মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে মাহাথির জানিয়েছেন, তেল আমদানি বন্ধ রাখলেও কাশ্মিরের পাশেই থাকবে মালয়েশিয়া। ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানা গেছে।

সোমবার মালয়েশিয়া থেকে পাম ওয়েল কেনা বন্ধ করতে ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানিয়েছে ভারতের ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীদের সংগঠন এক্সট্রাক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া (এসইএআই)। কাশ্মির ইস্যুতে মালয়েশিয়া দিল্লির সমালোচনা করায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে মাহাথির বলেছিলেন, জাতিসংঘ সনদকে উপেক্ষা করে জম্মু-কাশ্মিরকে অধিগ্রহণ করা হয়েছে।

সেই বক্তব্যের ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, আমরা মনেকরি জাতিসংঘের প্রস্তাবের সুফল কাশ্মিরের মানুষ পেয়েছে। আর আমরা সবাই বলছি, কেবল ভারত বা পাকিস্তান নয়, এমনকি যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য দেশগুলোও এটা মেনে চলবো... না হলে জাতিসংঘ থেকে লাভ কী?

৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে দিল্লি শাসিত কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়। এই পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে কাশ্মিরজুড়ে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত সেনা। গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ভাষণে কাশ্মির প্রশ্নে ভারতের তীব্র সমালোচনা করেন মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। তবে কাশ্মির ইস্যুকে নিজেদের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে দাবি করে আসছে ভারত। দিল্লির সিদ্ধান্তের প্রতি সংহতি জানিয়ে মালয়েশিয়া থেকে পাম ওয়েল কেনা বন্ধ করেছে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা।

মানুষের পক্ষে কথা বলা থামাবেন না বলে মঙ্গলবার জানান মাহাথির মোহাম্মদ। তিনি বলেন, কোনও কোনও সময় আমরা যা বলি তা কেউ কেউ পছন্দ করে, আর অন্যরা পছন্দ করে না।

মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী জানান, মুম্বাইভিত্তিক এই আমদানিকারকদের বয়কটের প্রভাব পর্যালোচনা করে দেখা হবে এবং বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হবে। তিনি বলেন, এটি ভারত সরকারের সিদ্ধান্ত নয়। ফলে ওই ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগের উপায় আমাদের খুঁজতে হবে। কারণ বাণিজ্য দ্বিপক্ষীয় বিষয়, বাণিজ্যযুদ্ধ ক্ষতিকর।

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে মালয়েশিয়ার কাছ থেকে পাম ওয়েল কেনা নিয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

 

/জেজে/এএ/

লাইভ

টপ