ফিলিস্তিন ইস্যুতে ট্রাম্পকে মদত দিচ্ছে সৌদি: হামাস

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:০৬, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৯, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

ফিলিস্তিন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মদত দিচ্ছে সৌদি আরব। ফিলিস্তিনকে মানুষের মন থেকে মুছে ফেলতে ওয়াশিংটনের সঙ্গী হয়েছে রিয়াদ। এক বিবৃতিতে এমন মন্তব্য করেছেন হামাসের মুখপাত্র হাযিম কাসিম। সৌদি আরবের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রাম্পের ইসরায়েল ঘেঁষা মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনাকে ‘ইতিবাচক’ হিসেবে আখ্যায়িত করার পর হামাসের পক্ষ থেকে এমন প্রতিক্রিয়া এলো।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার সৌদি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আদেল আল জুবায়ের ফিলিস্তিন-ইসরায়েল ইস্যুতে ট্রাম্পের পরিকল্পনার প্রশংসা করেন। তুরস্ক ও কাতারসহ বিভিন্ন মুসলিম দেশ ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ নামে পরিচিত ট্রাম্পের ওই পরিকল্পনার বিরোধিতা করে আসছে। জেরুজালেম নগরীকে মুসলমানদের জন্য রেড লাইন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। এ শহরেই পবিত্র আল আকসা মসজিদ অবস্থিত। ট্রাম্পের পরিকল্পনায় জেরুজালেমে ইসরায়েলি দখলদারিত্বের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করা হয়েছে। তবে এ নিয়ে সমালোচনা সত্ত্বেও সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনায় আলোচনার জন্য ইতিবাচক উপাদান রয়েছে। রিয়াদ মনে করে, এটি ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে আলোচনার ভিত্তি হতে পারে।

ফিলিস্তিন ও দেশটির সক্রিয় সবগুলো গোষ্ঠী ইসরায়েলের পক্ষপাত ঘেঁষা এই পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছে। আরব লিগ ও অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি)-ও আনুষ্ঠানিকভাবে এটি প্রত্যাখ্যান করেছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক আইন ও ১৯৬৭ সালের নিরাপত্তা পরিষদের রেজ্যুলেশন অনুসারে তারা ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংকট নিরসনের পক্ষপাতী।

গত মাসে পরিকল্পনাটি উন্মোচন করার পর সৌদি আরবের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছিল, ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে বিস্তৃত শান্তি পরিকল্পনা প্রণয়নে যুক্তরাষ্ট্রের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানায় তারা। একই সঙ্গে বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে সংকট নিরসনে সরাসরি ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি আলোচনার প্রতি সমর্থন জানানো হয়।

হামাস মুখপাত্র হাযিম কাসিম বলেছেন, আরব দেশগুলো ট্রাম্পের পরিকল্পনার বিরদ্ধে যে অবস্থান নিয়েছে তার সঙ্গে সৌদি মন্ত্রীর বক্তব্যের কোনও মিল নেই। রিয়াদের এ ধরণের বক্তব্য দখলদার ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের অশুভ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। কথিত ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরির মাধ্যমে ফিলিস্তিনি জাতির যাবতীয় ন্যায়সঙ্গত অধিকার চিরতরে কেড়ে নিতে চায় ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্র।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৮ জানুয়ারি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু-কে সঙ্গে নিয়ে ফিলিস্তিন বিরোধী পরিকল্পনা ‘ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরি’ ঘোষণা করেন ট্রাম্প। ওই অনুষ্ঠানে সৌদি আরব সরাসরি অংশ না নিলেও দেশটির মিত্র হিসেবে পরিচিত সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান ও বাহরাইনের রাষ্ট্রদূতরা উপস্থিত ছিলেন।

/এমপি/

লাইভ

টপ