আটাবের নির্বাচন শনিবার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:২০, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৬, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

আটাবঅ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশের (আটাব) কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন হবে শনিবার (১৪ ডিসেম্বর)। সংগঠনের তিনটি আঞ্চলিক কার্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একযোগে ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে। ভেন্যুগুলো হলো রাজধানীর আগারগাঁওস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র, চট্টগ্রামের পূর্ব নাসিরাবাদ ষোলশহর ২ নং গেটে অবস্থিত জিননুরাইন কনভেনশন সেন্টার ও সিলেটের জিন্দাবাজারের গ্যালারিয়া শপিং কমপ্লেক্স।
নির্বাচনে ২০১৯-২১ মেয়াদের জন্য ২৯ জন কার্যনির্বাহী সদস্যকে নির্বাচিত করবেন আটাবের আড়াই হাজারেরও বেশি ভোটার। কমিটিতে ঢাকার ১৭ জন আর চট্টগ্রাম ও সিলেটের ৬ জন করে থাকবেন। আটাব সম্মিলিত ফোরাম ও আটাব গণতান্ত্রিক ঐক্যফ্রন্ট নামের দুটি প্যানেলে মোট ৫৮ জন সদস্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নির্বাচনে।
মনসুর আহমদ কালামের নেতৃত্বাধীন আটাব সম্মিলিত ফোরামের প্রধান সমন্বয়কারী হাব সভাপতি এম. শাহাদাত হোসাইন তসলিম। অন্যদিকে জিন্নুর আহমেদ চৌধুরী দিপুর নেতৃত্বাধীন আটাব গণতান্ত্রিক ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়কারী আটাবের বিদায়ী সভাপতি এস এন মঞ্জুর মোর্শেদ মাহবুব।

তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। আটাব সদস্যদের অর্ধেকের বেশি হাবেরও সদস্য। হাবের বর্তমান সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম হাবের মহাসচিব থেকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত সভাপতি। আটাবের বিদায়ী সভাপতি টানা দুই মেয়াদে আটাবের দায়িত্ব পালন করেন। আটাব সদস্যদের মধ্যে তারও জনপ্রিয়তা রয়েছে। দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্যানেলে এই দু’জন নেতৃত্ব দেওয়ায় নির্বাচন অনেকটাই উভয়ের মর্যাদা রক্ষার লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট অনেকের মন্তব্য। দুটি সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় নয়াপল্টনে একই ভবনের একই ফ্লোরে মুখোমুখি অবস্থানে।

নির্বাচনের মেয়াদ অতিবাহিত হওয়া এবং এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে সময় বৃদ্ধি না হওয়ার পরও বর্তমান কমিটির অধীনে নির্বাচনকে প্রভাবিত করা হচ্ছে এমন অভিযোগে গত ১১ ডিসেম্বর আটাবের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তিন দিনের মধ্যে অভিযোগের ব্যাখ্যা প্রদান এবং অভিযোগ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন স্থগিত রাখার জন্য আটাব নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান, আটাব নির্বাচন আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান ও আটাব সভাপতির প্রতি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। এরপর প্রতিদ্বন্দ্বী দুটি প্যানেলকে নির্বাচনি কার্যক্রম বন্ধ রাখার কথা জানিয়েছিলেন সংগঠনটির নির্বাচনি বোর্ডের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী। ওইদিনই তিনি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে জবাব দেওয়ার কথা জানান।


তবে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে রিট করা হলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আদেশ স্থগিত করা হয়। আটাবের নির্বাচন কমিশন রাতে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে উচ্চ আদালত সিদ্ধান্তের বিষয়টি অবহিত করে ভোটগ্রহণের তারিখ ও ভেন্যু জানায়। 

/সিএ/জেএইচ/
টপ