ভ্রমণে করোনা আক্রান্ত হলে ৩ হাজার ডলার করে পাবেন পর্যটকরা!

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:২৫, জুন ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৫৬, জুন ২৭, ২০২০

উজবেকিস্তানসারাবিশ্ব দীর্ঘ লকডাউনের পর পর্যটনের জন্য ধীরে ধীরে উন্মুক্ত হচ্ছে। পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে প্রতিটি দেশ বিভিন্ন উদ্যোগ নিচ্ছে। এর মধ্যে কিছু আয়োজন বেশ অন্যরকম। তাই সেগুলো উঠে আসছে খবরের শিরোনামে।

উজবেকিস্তান পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য ব্যতিক্রম সুযোগ দিচ্ছে। দেশটিতে ভ্রমণের সময় যদি কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়, তাহলে তিনি পাবেন তিন হাজার ডলার (২ লাখ ৬০ হাজার টাকা)! উজবেক সরকার আত্মবিশ্বাসী, বেড়াতে এসে কেউ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হবে না। তাই এমন বড় অঙ্কের অফার দিচ্ছে।

উজবেকিস্তানউজবেকিস্তান ইতোমধ্যে ‘সেফ ট্রাভেল গ্যারান্টিড’ (নিরাপদ ভ্রমণের নিশ্চয়তা) শীর্ষক প্রচারণা শুরু করেছে। মূলত এর আওতায় কোনও বিদেশি ভ্রমণকালে কোভিড-১৯ রোগে ভুগলে তিন হাজার ডলার দেওয়া হবে। গত ২৩ জুন উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্ট শাভকাত মিরজায়োইয়েভ এ সংক্রান্ত একটি আদেশে স্বাক্ষর করেছেন।

চিকিৎসা ব্যয়ের কথা ভেবে টাকার অঙ্ক নির্ধারণ করেছে উজবেক সরকার। সেখানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা করাতে তিন হাজার ডলার লাগে।

যুক্তরাজ্যে উজবেকিস্তানের পর্যটন দূত সোফি ইবোটসন বলেন, ‘উজবেকিস্তানে ভ্রমণের ব্যাপারে আমরা পর্যটকদের আশ্বস্ত করতে চাই। সরকার আত্মবিশ্বাসী, পর্যটন খাতে কার্যকর হওয়া নতুন সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যবিধির সুবাদে করোনা ঝুঁকি এড়ানো যাবে। তাই প্রেসিডেন্ট কথা দিয়েছেন, কেউ কোভিড-১৯ রোগে ভুগলে তাকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।’
উজবেকিস্তানের শহর কিভাতবে এই সুবিধা পেতে কয়েকটি বিষয় অবশ্যই জেনে রাখা দরকার:

১. তিন হাজার ডলার পেতে অবশ্যই উজবেকিস্তানের স্থানীয় ট্যুর গাইড নিয়ে ভ্রমণ করতে হবে।

২. গাইড, হোটেল ও পর্যটন স্পটগুলোর স্থানীয় সরকারের কাছ থেকে পাওয়া সনদ থাকতে হবে। তারা সামাজিক দূরত্বসহ সব ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা মেনে চলার কথা উল্লেখ থাকবে এতে। কোনও প্রতিষ্ঠান স্বাস্থ্যবিধি না মানলে কিংবা জীবাণু সংক্রমণের উৎস প্রমাণিত হলে পর্যটকদের চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে হবে তাদের। 

৩. উজবেকিস্তান শুধু কম ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর পর্যটকদের বেড়ানোর সুযোগ দিচ্ছে। এর মধ্যে আছে চীন, ইসরায়েল, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া।

৪. যুক্তরাজ্য ও ইউরোপ থেকে যাওয়া সবাইকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

উজবেকিস্তানের শহর কিভা

গত মার্চের মাঝামাঝি দ্রুত লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল উজবেকিস্তান। কাজেও এসেছে তা। যেসব দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা কম, উজবেকিস্তান এর মধ্যে অন্যতম। সেখানকার মোট জনসংখ্যা ৩ কোটি ৩০ লাখ। এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৭ হাজার ৩২০ জন। এর মধ্যে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে।
নানান নকশার টাইলস সমৃদ্ধ সিল্ক রোড স্থাপত্যের জন্য উজবেকিস্তান বিখ্যাত। গত কয়েক বছরে সেখানে পর্যটক সমাগম বিপুল পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে। এর মূল কৃতিত্ব ৮০টিরও বেশি দেশের পর্যটকদের জন্য ভিসা-মুক্ত পদ্ধতি।

তথ্যসূত্র: টেলিগ্রাফ
আরও পড়ুন-

ছবিগুলো উজবেকিস্তানের, গল্প ইতিহাস-ঐতিহ্যের

 

/জেএইচ/
টপ