X
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

ছাত্র ফেডারেশনের নেতাদের ‌‘পিটায়ে শোয়ায়ে’ দিতে বললেন সহকারী প্রক্টর

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:০৯

নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ‘লাশের মিছিল’ শীর্ষক কর্মসূচির আয়োজন করে মহানগর ও রাবি ছাত্র ফেডারেশন। বুধবার (১ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জোহা চত্বরে কর্মসূচিতে অংশ নেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

এ সময় ফেডারেশনের এক নেতার হাতে প্ল্যাকার্ড দেখে ক্ষিপ্ত হন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মুখলেছুর রহমান। প্ল্যাকার্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন যুবকের উদ্দেশে বলেন, ‘কী করো তোমরা? কীসের জন্য আসছো? শোয়ায়ে দিবা। এটা কি মগের মুল্লুক? পিটায়ে শোয়ায়ে দিবা এদের।’

ছাত্র ফেডারেশনের রাজশাহী মহানগরের আহ্বায়ক জিন্নাত আরা বলেন, সারাদেশে নিয়মিত সড়কে প্রাণ হারাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। এ অবস্থায় নিরাপদ সড়কের দাবি ও রামপুরায় শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে আমরা লাশের মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম। বেলা সাড়ে ১১টায় জোহা চত্বর থেকে মিছিল নিয়ে জিরো পয়েন্টে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কর্মসূচির শুরুতে সহকারী প্রক্টর এসে আমাদের প্ল্যাকার্ড নিয়ে যান। ফলে আমাদের কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ফেডারেশনের কর্মসূচি

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সহকারী প্রক্টর আমাদের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন যুবককে লক্ষ্য করে বলেন, ‘এই কী করো তোমরা? ক্যাম্পাসে কী করো? এদের পিটায়ে শোয়ায়ে দিবা’।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ সময় সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা যুবকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাব্বত হোসেন মিলন বলেন, সম্প্রতি ঢাকায় পরপর দুটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটলো। দুই শিক্ষার্থী মারা গেছে। এগুলো কাঠামোগত হত্যাকাণ্ড। আমরা মনে করি, সড়কে এই ধরনের হত্যাকাণ্ডের দায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই নিতে হবে। আমরা ছাত্র ফেডারেশন ভোটারবিহীন সরকারের পদত্যাগ দাবি করছি। নিরাপদ সড়কের মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা কায়েমের জন্য জনগণকে আহ্বান জানাই।

কর্মসূচি শুরুর কিছুক্ষণ পর সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা এসে প্ল্যাকার্ড নিয়ে নেন। এ সময় ছাত্র ফেডরেশনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে তাদের বাগবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে মোহাব্বত হোসেন মিলনকে প্রক্টর অফিসে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মুখলেছুর রহমান বলেন, আজ পহেলা ডিসেম্বর। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। এ ছাড়া জাতির পিতার জন্মশতবর্ষ চলছে। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে লেখা কটূক্তিমূলক প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে লাইভ করছিলেন ওই শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি দেখে আমি উপস্থিত সবার উদ্দেশে কথাটি বলেছি। শুধু ছাত্রলীগকে বলেছি বললে ভুল হবে।

/এসএইচ/
সম্পর্কিত
শাবিপ্রবির আন্দোলনের সমর্থনে জবি শিক্ষার্থীদের প্রতীকী অনশন, ছাত্রলীগের বাধা
শাবিপ্রবির আন্দোলনের সমর্থনে জবি শিক্ষার্থীদের প্রতীকী অনশন, ছাত্রলীগের বাধা
শিক্ষার্থীদের দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক: এমপি মোকাব্বির 
শিক্ষার্থীদের দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক: এমপি মোকাব্বির 
শাবিপ্রবি ভিসির অব্যাহতির দাবিতে ছাত্রদলের প্রতীকী অনশন
শাবিপ্রবি ভিসির অব্যাহতির দাবিতে ছাত্রদলের প্রতীকী অনশন
‘বাংলাদেশের কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তার কোনও পদে থাকা উচিত না’
‘বাংলাদেশের কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তার কোনও পদে থাকা উচিত না’
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
শাবিপ্রবির আন্দোলনের সমর্থনে জবি শিক্ষার্থীদের প্রতীকী অনশন, ছাত্রলীগের বাধা
শাবিপ্রবির আন্দোলনের সমর্থনে জবি শিক্ষার্থীদের প্রতীকী অনশন, ছাত্রলীগের বাধা
শিক্ষার্থীদের দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক: এমপি মোকাব্বির 
শিক্ষার্থীদের দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক: এমপি মোকাব্বির 
শাবিপ্রবি ভিসির অব্যাহতির দাবিতে ছাত্রদলের প্রতীকী অনশন
শাবিপ্রবি ভিসির অব্যাহতির দাবিতে ছাত্রদলের প্রতীকী অনশন
‘বাংলাদেশের কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তার কোনও পদে থাকা উচিত না’
‘বাংলাদেশের কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তার কোনও পদে থাকা উচিত না’
শাবি শিক্ষককে ফেনসিডিল দিতে গিয়ে নিরাপত্তাকর্মী আটক
শাবি শিক্ষককে ফেনসিডিল দিতে গিয়ে নিরাপত্তাকর্মী আটক
© 2022 Bangla Tribune