কোনও শক্তির কর্তৃত্ব চায় না বাংলাদেশে

Send
উদিসা ইসলাম
প্রকাশিত : ০৮:০০, আগস্ট ০৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৫৫, আগস্ট ০৯, ২০২০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ওই বছরের ৯ আগস্টের ঘটনা।)

১৯৭২ সালের ৯ আগস্ট তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এক অনুষ্ঠানে বলেন, বাংলাদেশের জনগণ নিজেদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে।যারা অপরের হস্তক্ষেপ ও শোষণের শিকারে পরিণত হয়েছে তারা শান্তির নীতি ছাড়া অন্য পথ বেছে নিতে পারে না। সুতরাং বাংলাদেশের প্রতি বন্ধুত্বের হাত সম্প্রসারণে যারা প্রস্তুত তাদের উদ্দেশে বঙ্গবন্ধুর শুভেচ্ছা ও বন্ধুত্বের নীতি দৈবাৎ ঘটনা নয়।বাংলাদেশ কোনও শক্তির কর্তৃত্ব চায় না উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, এ দেশে বিদেশি ঘাঁটির স্থান নেই।

ঢাকা রোটারি লায়ন্স ক্লাবের ওই সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বিদেশের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে আমাদের ঘোষিত চারটি জাতীয় আদর্শ অবশ্যই প্রতিফলিত হবে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতির বিভিন্ন দিক ব্যাখ্যা করেন তিনি। আব্দুস সামাদ বলেন, গণচীন বাংলাদেশের এক মহান প্রতিবেশী দেশ। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী। প্রতিবেশীর প্রতি বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি আমরা। আশা করি যে আমাদের এই আহ্বানে চীনা নেতৃবৃন্দ সাড়া দেবেন।

বঙ্গবন্ধু আগামী সপ্তাহে জেনেভা যাবেন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আগামী সপ্তাহের মাঝামাঝি সময়ে লন্ডন থেকে জেনেভা যাবেন। স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারের জন্য সেখানে তিনি ২ সপ্তাহ অবস্থান করবেন বলে জানানো হয়। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইমের সঙ্গে ৯ আগস্ট লন্ডন ক্লিনিকে বঙ্গবন্ধুর সাক্ষাৎ হয়। তিনি  বঙ্গবন্ধুকে জানান, জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভের জন্য বাংলাদেশের আবেদন ব্রিটেন সমর্থন করবে। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের অবস্থানে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন তিনি। এদিকে বঙ্গবন্ধু শারীরিকভাবে দ্রুত সেরে উঠছেন। তার আরোগ্য লাভ অগ্রগতি সন্তোষজনক বলে মন্তব্য করেন এডওয়ার্ড মুর। তিনি এইদিন সকালে তার সেলাই খুলে দেন।

এদিকে ব্রিটিশ মন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে প্রায় ত্রিশ মিনিট অবস্থান করেন। এরপর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বঙ্গবন্ধুর দ্রুত আরোগ্য লাভে তিনি আনন্দিত হয়েছেন। তারা বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ঘটনাবলি সম্পর্কে সাধারণ আলোচনা করেন। বাংলাদেশ হাইকমিশন সূত্রে বলা হয়, জেনেভা যাওয়ার সময় আগামী দুই দিনের মধ্যে ঠিক হবে। মন্ত্রী আবদুর রব সেরনিয়াবাতের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার সময় বেগম মুজিব জানান, বঙ্গবন্ধু স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারের জন্য সম্ভবত সুইজারল্যান্ডের একটি গ্রামে অবস্থান করবেন। সেখান থেকে বাংলাদেশ ফেরার আগে আবারও লন্ডন যাবেন। বেগম মুজিব জানান, বঙ্গবন্ধুর শরীর খুবই দুর্বল। পুরো সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত ক্লিনিক ত্যাগ না করার জন্য চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন।

শিশুখাদ্যে ভেজাল, ৪০ লক্ষ পুষ্টিহীন

দেশে ভেজাল খাবার খেয়ে প্রায় ৪০ লাখ শিশু পুষ্টিহীনতায় আক্রান্ত হয়েছে। একদিকে প্রয়োজনীয় শিশু খাদ্যের অভাব, অপরদিকে শিশুখাদ্যে ভেজালের কারণে দেশে প্রায় এক কোটি শিশু এখন সংকটময় ভবিষ্যতের সম্মুখীন হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা শঙ্কা প্রকাশ করে। খবরে বলা হয়, একশ্রেণির সমাজবিরোধী অসৎ ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে মাসের পর মাস লোকচক্ষুর অন্তরালে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গুদামজাত করে রাখার ফলে আমদানিকৃত শিশুখাদ্য যুক্তিসঙ্গত কারণে দূষিত হয়ে গেছে। শিশুখাদ্য খাওয়ার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়া অপর একশ্রেণির দুষ্কৃতকারী সংঘবদ্ধভাবে অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে আমদানিকৃত শিশুখাদ্যে ভেজাল মিশিয়ে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিচ্ছে। দেশ শত্রুমুক্ত হওয়ার মাত্র সাড়ে সাত মাসের মধ্যে এসব ভেজাল মিশ্রিত খাবার গ্রহণের ফলে বাংলাদেশে প্রায় ৪০ লাখ শিশু পুষ্টিহীন হয়ে পড়ে।

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ