X
বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২
২ ভাদ্র ১৪২৯

প্রতারণা: ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তাসহ ১১ বিদেশি গ্রেফতার

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২১ এপ্রিল ২০২২, ১৬:০০আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২২, ১৭:৫১

ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে পার্সেল পাঠিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে বাংলাদেশি এক নারীসহ ১১ বিদেশিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২০ এপ্রিল) রাজধানীর পল্লবী ও ভাটারা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) রাজধানীর মিন্টো রোডে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার।

গ্রেফতারকৃতরা হলো—ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তা চাঁদনী আক্তার, হেনরি ওসিতা ওকেচুকু, চিসম এন্থনি, ওকেকে পিটার, অবিনা সানডে, অনেকা এমবিএ, চিসম এমানুয়েল, ওকোয়ে আজুবিকে, অনূঢ়া ড্যানিয়েল, অনুরুকা জিনিকা ফ্রান্সিস, লুসি ও এলডোমাডো চিনেডু। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি ডলার ট্রিক মেশিন, সিলভার কাপড়ে মোড়ানো আঠারোটি বান্ডিল, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ১৭টি মোবাইল, দুটি ল্যাপটপ। প্রতারণা: ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তাসহ ১১ বিদেশি গ্রেফতার

এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, এই প্রতারক চক্রের প্রধান নাইজেরিয়ান নাগরিক হেনরি ওসিতা ওকেচুকু এবং চিসম এমানুয়েল। তারা দুজনই মূলত বাংলাদেশি নাগরিকদের সঙ্গে সক্রিয় যোগাযোগ, অ্যাকাউন্ট ম্যানেজারের সঙ্গে সমন্বয়, প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎকৃত টাকা গ্রহণ ও প্রতারক চক্রের মাধ্যমে বণ্টনের ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করে আসছিল। তারা কাস্টমস কর্মকর্তার কাজের জন্য বাংলাদেশি মহিলাদের সংগ্রহ করে প্রশিক্ষণ এবং প্রতারণার কাজে নিয়োজিত করার দায়িত্ব পালন করে আসছিল।

এছাড়া এ চক্রের অন্যান্য বিদেশি সদস্যরা বিভিন্ন সোশাল মিডিয়ায় বাংলাদেশি নাগরিকদের ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট এবং মেসেজ রিকুয়েস্ট পাঠিয়ে পরিকল্পিতভাবে আকর্ষণীয় কথোপকথনের মাধ্যমে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করেন। চক্রের হোতাদের মাধ্যমে সমন্বয় করে প্রতারণা করে আসছিল তারা। চক্রটি মূলত তিনটি উপায়ে এই প্রতারণার কাজ করে আসছিল। এগুলো হলো—উপহার বা পার্সেল পাঠানোর নামে প্রতারণা, ব্যবসায়িক পার্টনার ও বিনিয়োগের কথা বলে প্রতারণা এবং ডলার ট্রিক ডলার মেশিন দেখিয়ে প্রতারণা। প্রতারণা: ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তাসহ ১১ বিদেশি গ্রেফতার

বিশেষ করে আফ্রিকার নাগরিকরা ভিজিট ও বিজনেস ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে এসে পরে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করে। মাদকদ্রব্যের আন্তর্জাতিক চোরাচালানসহ মাদক সেবন, মাদক ব্যবসাসহ অন্যান্য অবৈধ দ্রব্য চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত তারা। অপরাধমূলক কার্যক্রমের টাকা তারা হুণ্ডির মাধ্যমে নিজ দেশে পাচার করে থাকে। অনেক বাড়ির মালিক বেশি ভাড়ার আশায় তাদের থাকতে দিলেও তারা বাসাভাড়া বকেয়া রেখে এক পর্যায়ে কৌশলে চলে যায়। তাছাড়া, এসব প্রতারক বাংলাদেশি বিভিন্ন নারীকে বিয়ের কথা বলে প্রতারণা শেষে আত্মগোপন করে।

/আরটি/এমএস/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
ইউক্রেন সফরে আসছেন এরদোয়ান ও গুতেরেস
ইউক্রেন সফরে আসছেন এরদোয়ান ও গুতেরেস
গ্রিস-তুরস্ক সীমান্তের নির্জন দ্বীপে ৩৮ অভিবাসী উদ্ধার
গ্রিস-তুরস্ক সীমান্তের নির্জন দ্বীপে ৩৮ অভিবাসী উদ্ধার
কেজিতে ৪০ টাকা কমলো কাঁচা মরিচের দাম 
কেজিতে ৪০ টাকা কমলো কাঁচা মরিচের দাম 
ভিয়েনায় জাতীয় শোক দিবস পালিত
ভিয়েনায় জাতীয় শোক দিবস পালিত
এ বিভাগের সর্বশেষ
চকবাজারে আগুন: রেস্তোরাঁ মালিক আটক
চকবাজারে আগুন: রেস্তোরাঁ মালিক আটক
‘অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা ঝুঁকি বেশি’
‘অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা ঝুঁকি বেশি’
জাতীয় শোক দিবসে যেসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে
জাতীয় শোক দিবসে যেসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে
পুলিশের তেল বরাদ্দ কমেছে
পুলিশের তেল বরাদ্দ কমেছে
রাজধানীতে বাড়ছে ছিনতাই, এক মাসে ঝরেছে ৪ প্রাণ
রাজধানীতে বাড়ছে ছিনতাই, এক মাসে ঝরেছে ৪ প্রাণ