X
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
৮ ফাল্গুন ১৪৩০
সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচন

‘খোকন-কাজলের নেতৃত্বে ব্যালট ছিনতাই ও ছিঁড়ে ফেলা হয়’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১৯ মার্চ ২০২৩, ১৯:৪৮আপডেট : ১৯ মার্চ ২০২৩, ১৯:৪৮

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক বলেছেন, ‘সন্ত্রাসী কায়দায় ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও রুহুল কুদ্দুস কাজল (দুজনেই বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ছিলেন) কনফারেন্স রুমে ঢুকে আহ্বায়ককে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। টেবিলের ওপরে থাকা ব্যালট পেপার ছিনতাই করে কিছু ছিঁড়ে ফেলেন এবং কিছু নিয়ে যান।’

রবিবার (১৯ মার্চ) সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

এ সময় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির, সম্পাদক আবদুন নূর দুলালসহ আওয়ামী লীগ সমর্থিত কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

হট্টগোল, হামলা, ভাঙচুর, মামলা, সাংবাদিক পেটানো, প্রধান বিচারপতির কাছে নালিশ ও ধাক্কাধাক্কির মধ্যে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী নির্বাচন ‘একতরফা হয়নি’ মন্তব্য করে লিখিত বক্তব্যে সমিতির সম্পাদক আবদুন নূর দুলাল বলেন, ‘আইনজীবীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছেন। আর বিএনপি সমর্থিতরা ভোট বর্জনের ঘোষণাও দেননি। সমিতির নির্বাচনে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য বিএনপির গণতন্ত্রবিরোধী, ভোটবিরোধী, নির্বাচনবিমুখ, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এবং বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মাহবুব উদ্দিন খোকন ও মো. রুহুল কুদ্দুসকে দায়ী।’

সম্পাদক বলেন, ‘প্রচলিত বিধান অনুযায়ী ১৪ মার্চ সন্ধ্যায় আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মনিরুজ্জামান এবং সম্পাদক মো. আবদুন নূর দুলাল সমিতির কনফারেন্স রুমে বসে ব্যালট পেপার সই করছিলেন। হঠাৎ দরজা ধাক্কা দিয়ে বহিরাগত লোকজনসহ সন্ত্রাসী কায়দায় এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও রুহুল কুদ্দুস কাজল কনফারেন্স রুমে ঢুকে আহ্বায়ককে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। টেবিলের ওপরে থাকা ব্যালট পেপার ছিনতাই করে কিছু ছিঁড়ে ফেলেন এবং কিছু নিয়ে যান। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ইতিহাসে এটি নজিরবিহীন ও ন্যক্কারজনক। এ ছাড়া ব্যালট পেপার তছনছ করেন এবং পায়ে মাড়িয়ে দলিত-মথিত করেন এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও রুহুল কুদ্দুস কাজল। ফলে নির্বাচনের আগের রাতেই আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে।’

নির্বাচনের দিন বিএনপিপন্থীরা ভাঙচুর চালিয়েছেন উল্লেখ করে সম্পাদক বলেন, ‘ভোট গ্রহণ শুরুর চেষ্টা করলে এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও রুহুল কুদ্দুস কাজলের নেতৃত্বে অনেক বহিরাগত সন্ত্রাসী প্যান্ডেলে ঢুকে পড়েন ও ব্যাপক ভাঙচুর চালান। অনেক আইনজীবীকে আহত করেন। তারা ভোট বর্জন করেছেন কি না সেটাও জানাননি। তাদের বিকল্প প্রস্তাব কী তা-ও জানাননি। তারা এক অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করেন। এতে ভোট গ্রহণ বিলম্বিত হতে থাকে এবং একটানা ভাঙচুর চলতে থাকে। এ অবস্থায় ভোট গ্রহণ শুরু ও সুষ্ঠু পরিবেশের জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাহায্য গ্রহণ ছাড়া বিকল্প ছিল না।’

আবদুন নূর বলেন, ‘এর আগে সব নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাহায্য নেওয়া হয়। বর্তমান নির্বাচনেও পদত্যাগকারী আহ্বায়ক মো. মুনসুরুল হক চৌধুরী সহায়তা চেয়ে চিঠি দেন। এমনকি প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দিয়ে তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আবেদন করেন।’

সাংবাদিকদের ওপর হামলার বিষয়ে সম্পাদক আবদুন নূর বলেন, ‘নির্বাচনের দুই দিন দায়িত্ব পালনকালে ঘটনার আকস্মিকতায় আপনারা কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির শিকার হয়ে থাকলে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করছে। এই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সামগ্রিক দায়ভার বিএনপির গণতন্ত্রবিরোধী, ভোটবিরোধী, নির্বাচনবিমুখ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। সামগ্রিক বিষয়ে আমরা সর্বোচ্চ সংযম, দায়িত্বশীলতা ও গণতন্ত্রের প্রতি অবিচল অঙ্গীকারের পরিচয় দিয়েছি।’

প্রসঙ্গত, এর আগে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দুই দিনব্যাপী নির্বাচনের শেষ দিন গত ১৬ মার্চ দিবাগত রাতে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে ১৪টি পদের সব কটিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেল জয়ী হয়েছে। যদিও নির্বাচনে ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিলেন বিএনপি সমর্থকরা। তবু ব্যালট গণনায় তাদের পক্ষে বেশ কিছু ভোট পড়েছে বলে ফলাফলে দেখা যায়।

/বিআই/এনএআর/
সম্পর্কিত
আদালতপাড়ায় নিরবচ্ছিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্ক নিশ্চিত করতে রিট
সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী
রমজানে ডিম-মুরগির দাম কমাতে ‘চাঁদাবাজি’ বন্ধের দাবি
সর্বশেষ খবর
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বিশেষ দিনগুলোতে ফুল বিক্রি কমে এসেছে
বিশেষ দিনগুলোতে ফুল বিক্রি কমে এসেছে
‘সুষম উন্নয়ন নিশ্চিতে ঐতিহ্যকে ধারণ করে এগোতে হবে’
‘সুষম উন্নয়ন নিশ্চিতে ঐতিহ্যকে ধারণ করে এগোতে হবে’
ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে নোয়াখালী প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে হট্টগোল-বিশৃঙ্খলা
ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে নোয়াখালী প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে হট্টগোল-বিশৃঙ্খলা
সর্বাধিক পঠিত
কেন বারবার অকেজো হয় মেট্রো স্টেশনের টিকিট মেশিন?
কেন বারবার অকেজো হয় মেট্রো স্টেশনের টিকিট মেশিন?
চার মাস কারও সঙ্গে দেখা করবেন না খন্দকার মোশাররফ
চার মাস কারও সঙ্গে দেখা করবেন না খন্দকার মোশাররফ
বঙ্গবন্ধুর ছবি মুছে ব্যঙ্গচিত্র, জাবি ছাত্র ইউনিয়নের দুই নেতাকে বহিষ্কার
বঙ্গবন্ধুর ছবি মুছে ব্যঙ্গচিত্র, জাবি ছাত্র ইউনিয়নের দুই নেতাকে বহিষ্কার
আত্মীয় হলেই চাকরি মেলে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে!
আত্মীয় হলেই চাকরি মেলে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে!
‘বড় শাস্তির ভয়ে’ কারাগারে প্রাণ দিলেন হত্যা মামলার আসামি
‘বড় শাস্তির ভয়ে’ কারাগারে প্রাণ দিলেন হত্যা মামলার আসামি