যুক্তরাষ্ট্রে নীনা আহমেদের নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশিরা

Send
শেখ শাহরিয়ার জামান
প্রকাশিত : ১৯:৫১, অক্টোবর ২৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৫, অক্টোবর ২৩, ২০২০

 

নীনা আহমেদবেশ কয়েক দশক ধরেই স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমাচ্ছেন বাংলাদেশিরা। বর্তমানে দেশটিতে মোট বৈধ বাংলাদেশির সংখ্যা পাঁচ লাখের মতো। অনেকদিন ধরে বাংলাদেশিরা সেখানে বসবাস করলেও, মার্কিন রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকারের উচ্চপর্যায়ে নির্বাচনের মাধ্যমে কোনও বাংলাদেশি এখন পর্যন্ত নির্বাচিত হননি। তবে এবার আশার আলো দেখাচ্ছেন বাংলাদেশি-আমেরিকান নীনা আহমেদ।

পেনসিলভেনিয়া রাজ্যের মর্যাদাপূর্ণ অডিটর জেনারেল পদে নির্বাচন করছেন তিনি। যা ৩ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পাশাপাশি একই দিন অনুষ্ঠিত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সমর্থন পাওয়া নীনা আহমেদের নির্বাচন পেনসিলভেনিয়া, নিউ ইয়র্ক, নিউ জার্সি, ওয়াশিংটন, ডেলোয়ারসহ অন্যান্য রাজ্যে অবস্থিত বাংলাদেশিদের মধ্যে ব্যপক আগ্রহের সৃষ্টি করছে এবং সবাই তাদের সাধ্যমতো নির্বাচনে সহায়তা করছে।

নীনা আহমেদের নির্বাচন ক্যাম্পেইন উপদেষ্টা ডা. নরুন্নবী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা তার জয়ের বিষয়ে আশাবাদী। গোটা পেনসিলভেনিয়ায় তিনি একজন পরিচিত ব্যক্তিত্ব এবং বাংলাদেশিসহ অন্য সংখ্যালঘুদের মধ্যে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয়।’

উল্লেখ্য, অডিটর জেনারেল পেনসিলভেনিয়া রাজ্যে তিন নম্বর গুরুত্বপূর্ণ পদ এবং এর উপরে রয়েছেন গভর্নর ও লে. গভর্নর এবং ২০১৬ সালে লে. গভর্নর নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছিলেন নীনা আহমেদ।

ডা. নরুন্নবী আরও বলেন, ‘ওই সময়ে গোটা রাজ্যজুড়ে তিনি একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করতে পেরেছিলেন, যা এখনও অটুট আছে।’

ফিলাডেলফিয়ায় ডেপুটি মেয়র, প্রেসিডেন্ট ওবামার উপদেষ্টা কমিশনের সদস্য এবং ফিলাডেলফিয়া ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর ওমেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন নীনা আহমেদ বাংলাদেশিদেরতো বটেই অন্যান্য সংখ্যালঘু যারা বিভিন্ন দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন, তাদেরও সমর্থন পাচ্ছেন। কারণ, তিনি ওইসব মানুষদের অধিকার নিয়ে কাজ করছেন।

নীনা আহমেদঅডিটর জেনারেল প্রাইমারি নির্বাচনে অত্যন্ত ভালো ফল অর্জন করা নীনা আহমেদ সম্পর্কে ডা. নরুন্নবী বলেন, ‘কয়েকটি কারণে আমরা আশাবাদী। প্রথমত, গোটা রাজ্যজুড়ে নীনা আহমেদের নেটওয়ার্ক, দ্বিতীয়ত সংখ্যালঘুদের মধ্যে জনপ্রিয়তা এবং তৃতীয়ত, ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন পেনসিলভেনিয়া রাজ্যে এগিয়ে আছেন। একই মতাদর্শের মানুষ হওয়ায় নীনাও সুবিধা পাবেন।’

পেনসিলভেনিয়া রাজ্য অভিবাসীদের জন্য অত্যন্ত উদার এবং এখানকার ভোটারদের মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য অংশ সংখ্যালঘু।

ডা. নরুন্নবী বলেন, সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি থাকেন নিউ ইয়র্ক ও আটলান্টায়। পরের অবস্থান হচ্ছে পেনসিলভেনিয়া।

এই রাজ্যের বাংলাদেশিদের পাশাপাশি, এর আশপাশের রাজ্যের বাংলাদেশিরাও নীনা আহমেদকে সমর্থন ও সহায়তা দিচ্ছেন বলে জানান নরুন্নবী।

৬১ বছর বয়সী নীনা ২২ বছর বয়সে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান এবং মর্যাদাপূর্ণ পেনসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন বিষয়ে পিএইডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

 

/টিটি/

লাইভ

টপ