খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাজপথে থাকবে আ.লীগ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:৩৮, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৪২, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

আওয়ামী লীগবিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে অরাজকতার আশঙ্কায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) রাজপথে থাকবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এ ব্যাপারে দলের নেতাকর্মীদের আনুষ্ঠানিক-অনানুষ্ঠানিক বার্তা দেওয়া হয়েছে।
দলীয় সূত্রগুলো জানায়, এই বার্তার আলোকে হাইকোর্ট, মুক্তাঙ্গন, নূর হোসেন স্কয়ার, বঙ্গবন্ধু এভিনিউ, প্রেস ক্লাবসহ রাজধানীর উল্লেখযোগ্য স্থানগুলোতে সতর্ক নজর রাখবেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। পাশাপাশি আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে সহযোগিতা করবে তারা।
আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ দুই অংশের শীর্ষ নেতারা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, তারা বৃহস্পতিবার সর্তক অবস্থায় থাকবেন। নেতাকর্মীরা রাজপথে থাকবে। কোনও ধরনের অরাজকতা তৈরির চেষ্টা হলে আওয়ামী লীগ প্রতিরোধ করবে। প্রশাসনের পাশে থেকে সহযোগিতা করবে। জনগণের জানমাল রক্ষায় যা দরকার তা-ই করা হবে।
এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন স্বয়ং আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও। তিনি বুধবার (১১ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি ইস্যুকে কেন্দ্র করে বিএনপির যেকোনও ধরনের নৈরাজ্য ও তাণ্ডবের মোকাবিলা করতে আওয়ামী লীগ প্রস্তুত।
ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের দুই অংশের পাশাপাশি যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং কৃষক লীগও মাঠে থাকবে বলে সংগঠনগুলোর নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিতে আদালতে হাঙ্গামা ও নৈরাজ্যকর ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার নেতাকর্মীদের নিয়ে সকাল থেকে সর্তক অবস্থায় থাকবো। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কেউ নাশকতার চেষ্টা করলে কঠোরভাবে দমন করা হবে।’
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির বলেন, সকাল থেকে দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীরা অবস্থান নেবে। এছাড়াও থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীরাও সতর্ক অবস্থানে থাকবে।
মহানগর উত্তরের বুধবারের বর্ধিত সভায় এর সভাপতি শেখ বজলুর রহমান বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে কেন্দ্র করে আগের দিনের মতো বিএনপি রাজধানীতে সহিংসতা সৃষ্টি করতে পারে। আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। আমরা রাজনৈতিকভাবে তাদের প্রতিহত করবো। পাশাপাশি আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাকে সহযোগিতা করবো।’
সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত আবারও মাঠে নামার পাঁয়তারা করছে। কিন্তু তাদের কোনোভাবেই মাঠে নামতে দেওয়া হবে না। চারিদিকে নজর রাখতে হবে।’
জানতে চাইলে আওয়ামী স্বেচ্ছাবেক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, খালেদা জিয়ার মামলার শুনানিকে সামনে রেখে বিএনপি যদি কোনও নাশকতা করে, তা প্রতিহতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা মাঠে থাকবে।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করীম রেজা বলেন, ‘যুবলীগ সবসময় শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে আছে, আগামীতেও থাকবে। তবে বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে কেউ নৈরাজ্যকর ও নাশকতা সৃষ্টি করলে আমরা বসে থাকবো না।’
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান বলেন, ‘ছাত্রলীগ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বিশ্বাসী। তবে অহেতুকভাবে নগরবাসীর মনে কোনও ধরনের ভয়ভীতি সৃষ্টি করলে আমরা বসে থাকবো না।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি যদি খালেদা জিয়ার মামলার শুনানিকে কেন্দ্র করে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা বা নাশকতা ঘটাতে চায়, জনগণের জান-মালের নিরাপত্তার স্বার্থে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ তা প্রতিহত করবে।’

/এমএইচবি/এইচআই/

লাইভ

টপ