X
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪
১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

মোস্তাফিজের অনাপত্তিপত্র ইস্যুতে দুই মেরুতে বিসিবি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট 
১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:৫৮আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:৫৮

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) মোস্তাফিজুর রহমানের অনাপত্তিপত্র ইস্যুতে ক্রিকেট বোর্ড দুই ভাগে বিভক্ত। একই ইস্যু নিয়ে গত কিছুদিন ধরে বিসিবির পরিচালকরা ভিন্ন ভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়েছেন। কেউ বলছেন আইপিএলে খেলে শেখার কিছু নেই, কেউ বলছেন জাতীয় দলের থেকে মোস্তাফিজের আইপিএল খেলাটাই জরুরি বেশি। সবকিছু মিলিয়ে ক্রিকেট বোর্ডই মোস্তাফিজ ইস্যুতে দুই মেরুতে অবস্থান করছে।

ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ বলা হয় আইপিএলকে। এই লিগে খেলার স্বপ্ন থাকে প্রত্যেকে ক্রিকেটারেরই। আর্থিক দিক থেকে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি একই ড্রেসিংরুম শেয়ার করার সুযোগ মেলায় দারুণ সব অভিজ্ঞতাও অর্জন করা সম্ভব হয়। ২০১৬ সালে আইপিএলে প্রথমবার খেলার সুযোগ পান মোস্তাফিজ। এবার খেলছেন চেন্নাইয়ের হয়ে। কিন্তু ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্ট ও জাতীয় দলের ব্যস্ত সূচির কারণে পুরো মৌসুমের জন্য অনাপত্তিপত্র পাননি তিনি।  চেন্নাইয়ের চাওয়াতে বাঁহাতি এই পেসারের অনাপত্তিপত্রের মেয়াদ একদিন বাড়ানো হয়েছে। এর অর্থ গ্রুপ পর্বের শেষ ৪টি ম্যাচে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না বাঁহাতি এই পেসার।

পুরো মৌসুমে মোস্তাফিজকে আইপিএলে ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে কথা বলেছিলেন বিসিবির পরিচালক ও সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান।  তিনি মনে করেন, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলার চেয়ে মোস্তাফিজের আইপিএলে খেলা ভালো। তার মতে, ‘মোস্তাফিজকে ব্যবহার করলে শতভাগ বেনিফিট হবেন। যা ধোনি ঠিকঠাক করতে পারছে। আমার মনে হয় চেন্নাইয়ের হয়ে যত ম্যাচ খেলবে, সে (মোস্তাফিজ) অনেক বেনিফিটেড হবে। সাথে বাংলাদেশও অনেক বেনিফিটেড হবে। জিম্বাবুয়ের সাথে খেলার চেয়ে আইপিএলে খেললে আমার মনে হয় সে অনেক কিছু শিখবে। ড্রেসিংরুম আছে, বড় প্লেয়ারদের সাথে খেলবে। বিভিন্ন টাইপের প্লেয়ারদের সাথে খেলছে। আমার মনে হয় এই সুযোগটা ওর পাওয়া উচিত।’

আকরামের বক্তব্যের দুইদিন পরই ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস মোস্তাফিজের অনাপত্তিপত্র ইস্যুতে কথা বলেছেন। আকরাম খান আইপিএল থেকে মোস্তাফিজের শেখার অনেক কিছু দেখলেও জালাল ইউনুস শেখার কিছুই দেখেন না, ‘মোস্তাফিজের এখন আইপিএলে খেলে শেখার কিছু নেই। লার্নিং প্রসেস ইজ ওভার। বরং মোস্তাফিজের থেকে শিখতে পারে আইপিএলের অনেক খেলোয়াড়। এতে বাংলাদেশের কোনও বেনিফিট হবে না।’

জালাল ইউনুসের এই কথা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যানের এমন বক্তব্য নিয়ে হাসি ঠাট্টা করেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রাইম ব্যাংকের কোচ লিখেছেন, ‘এর চেয়ে ভালো কিছু আশা করিনি। দুর্দান্ত চিন্তাভাবনা।’ সঙ্গে কয়েকটি হাসির ইমোজিও যুক্ত করে দেন তিনি। এরপর আরও লিখেছেন, ‘এখন পর্যন্ত শোনা সেরা জোকস। আল্লাহ মাফ করো।’

সবমিলিয়ে মোস্তাফিজের আইপিএলের খেলা না খেলা নিয়ে জমে উঠেছে কথার লড়াই। এই লড়াইয়ে বৃহস্পতিবার যুক্ত হয়েছেন আবাহনীর কোচ, সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবির পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনও। তিনি অবশ্য ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যানের সঙ্গে একই সুরে কথা বলেছেন। যদিও কিছু বিষয়ে আবার ভিন্ন সুরেও কথা বলেছেন তিনি। 

শুরুতেই কূটনৈতিক চালে জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘দেশ তো সবার আগে। সবসময়ই বলি এটা। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার চেয়ে আনন্দের কিছু নেই। তবে পরিস্থিতি কী চায়, উনারা (জালাল ইউনুস, আকরাম খান) কীভাবে চিন্তা করেছেন... আমি এখন জাতীয় দলের সেটআপে নেই বলতে গেলে। অপারেশন্সের ভাইস-চেয়ারম্যান থাকলেও, আমি সেভাবে মিটিংগুলোয় যাচ্ছি না আবাহনীর খেলার কারণে। নিশ্চিতভাবেই জালাল ভাই একটা চিন্তা থেকেই মন্তব্যটা করেছেন। আমি মনে করি, চেয়ারম্যান হিসেবে উনি ক্রিকেট অপারেশন্সের অভিভাবক। উনি যেটা বলেছেন, আমাকে সেটাই মানতে হবে যে, উনার কথাই ঠিক। এটাই আমার ধরে নিয়ে যেতে হবে।’

এরপরই জালাল ইউনুসের বলা ‘আইপিএল থেকে মোস্তাফিজের শেখার কিছুই নেই’-এই কথার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন সুজন, ‘শেখার সুযোগ সবখানেই আছে। প্রিমিয়ার লিগ খেলেও শেখার আছে। আজকের একটা সিনারিও শেখার হতে পারে। সেটা নিয়ে সংশয় নেই। হয়তোবা উনি (জালাল ইউনুস) এটা সেভাবে বোঝাননি। উনি বলেছেন, মোস্তাফিজ এত বছর ধরে ওখানে খেলছে। সেতো আর তানজিম সাকিবের মতো না। ও এখন মোস্তাফিজ। মোস্তাফিজ এখন অনেক বড় নাম বিশ্ব ক্রিকেটে। হয়তোবা জালাল ভাই ওই এঙ্গেল থেকেই বলেছেন যে, মোস্তাফিজের অভিজ্ঞতা যেটা আছে, ভারতের তরুণ পেসাররা ওর থেকে কাটার বা এরকম জিনিস শিখতে পারে। উনি কথাটা এটাই বলেছেন।’

সুজন আরও যোগ করেছেন, ‘দিন শেষে আমি মনে করি, দেশ সবার আগে। এটা মাথায় রাখতে হবে। মোস্তাফিজ যদি আইপিএল খেলতে পারতো, আমিও খুশি হতাম। দেশের খেলা না থাকলে হয়তো সমস্যা হতো না। অনেকে হয়তো বলবে, নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা আইপিএল খেলছে। কিন্তু আমাদের তো দশটা মোস্তাফিজ নেই। এটাও চিন্তা করতে হবে।’

৩০ এপ্রিল পর্যন্ত মোস্তাফিজের আইপিএলের অনাপত্তিপত্র থাকলেও চেন্নাইয়ের আবদনের প্রেক্ষিতে তাতে একদিন বাড়ানো হয়েছে ছুটি। ১ মে চেন্নাইয়ের হয়ে মোস্তাফিজ শেষ ম্যাচ খেলে দেশে ফিরে আসবেন। জিম্বাবুয়ের সিরিজের জন্য ক্যাম্পে যোগ দেবেন তার পর। আইপিএল ছেড়ে দেশে ফিরিয়ে আনলেও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শুরুর ম্যাচগুলোতে তাকে খেলানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ! বিশ্বকাপের আগে তাকে সতেজ রাখতেই বিসিবির এমন সিদ্ধান্ত। এই ব্যাপারে জালাল ইউনুস বলেছিলেন, ‘আপনারা জানেন, ২০২১ সালে দুজন খেলোয়াড় আইপিএল খেলে কিন্তু বিশ্বকাপে জয়েন করেছিল। ওখানে তারা এক্সজসটেড ছিল। আমরা ওরকম কোনও পরিস্থিতি তৈরি করতে চাই না। মোস্তাফিজকে দেশে ফিরে আনার মানেই যে জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলাবো তা না। তাকে আমরা ওয়ার্কলোড দেবো, প্রেসার কমাবো। দলের সঙ্গে থাকবে আবার আন্ডারস্ট্যান্ডিংও থাকবে। একটা বিশ্বকাপ, একটা বড় ইভেন্টে যাচ্ছে।’

ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যানের এই কথার সাথে অবশ্য একমত হয়েছেন সুজন, ‘মোস্তাফিজকে আনা হচ্ছে মানেই যে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে খেলানো হবে ব্যাপারটা এমন না। তার ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্টের কথাও জালাল ভাই বলেছেন। মোস্তাফিজ হয়তো প্রথম দুই ম্যাচ নাও খেলতে পারে। তবে সেট-আপের সঙ্গে থাকাটা, দল একটা বিশ্বকাপে যাচ্ছে, বন্ডিংয়ের ব্যাপারটাও আছে। এগুলো সব কিছু মিলিয়েই হয়তো তারা এটা চিন্তা করেছেন।’

সবকিছু মিলিয়ে দেশের ক্রিকেটাঙ্গন এখন মোস্তাফিজের অনাপত্তিপত্র নিয়ে আলোচনায় মত্ত। তার মধ্যে বোর্ড পরিচালকদের এক ইস্যুতে ভিন্ন ভিন্ন মতবাদে জাতীয় দলে স্বস্তির চেয়ে অস্বস্তিই বাড়ছে। সেই অস্বস্তিটা সবচেয়ে বেশি হবে বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজের।

/আরআই/এফআইআর/
সম্পর্কিত
কোহলিদের বিদায় করে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে রাজস্থান 
হায়দরাবাদকে উড়িয়ে ফাইনালে কলকাতা
বৃষ্টিতে ভেসে গেলো ম্যাচ, এলিমিনেটরে রাজস্থান 
সর্বশেষ খবর
পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের
পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের
কোন সেই সাদা চামড়া, বলতে হবে: মান্না
কোন সেই সাদা চামড়া, বলতে হবে: মান্না
স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল
স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল
নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তাল সাগর, চট্টগ্রাম বন্দরে অ্যালার্ট
নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তাল সাগর, চট্টগ্রাম বন্দরে অ্যালার্ট
সর্বাধিক পঠিত
শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড
শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!