X
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
১ বৈশাখ ১৪৩১
মিনিস্টার-মাই ওয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ রাজ্জাক খান রাজ

‘দেশে টেলিভিশনের বাজার ৫০০ কোটি টাকার’

হিটলার এ. হালিম
০৪ অক্টোবর ২০২৩, ১২:০০আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২৩, ১২:০০

দেশে টেলিভিশনের বাজার প্রায় ৫০০ কোটি টাকার মতো। এই বিশাল বাজারে দেশি-বিদেশি দুই ধরনের টেলিভিশনই আছে। তবে দেশীয় টিভির আধিপত্য বেশিই। দেশে বছরে প্রায় ১৮ লাখ টেলিভিশন বিক্রি হয় বলে জানালেন মিনিস্টার-মাই ওয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ রাজ্জাক খান রাজ। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন হিটলার এ. হালিম

বাংলা ট্রিবিউন: দেশে টিভির বর্তমান বাজার কেমন?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: বাংলাদেশের টিভির বাজার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। নানান জরিপের তথ্য অনুযায়ী, দেশে বছরে প্রায় ১৮ লাখ টেলিভিশন বিক্রি হয়। ২০২৩ সালের এক জরিপ বলছে, দেশে টিভির বাজারের আকার প্রায় ৫০০ কোটি টাকার কাছাকাছি। প্রতি বছর এই বাজারের আকার ১০ শতাংশ হারে বাড়ছে। বর্তমান সময়ে টিভি কেবল বিনোদনের উৎস হিসেবেই নয়, বরং শিক্ষা গ্রহণের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রভাব ফেলছে। যদিও মোবাইল সহজলভ্য হওয়ায় টিভির ব্যবহার অনেকে মনে করে যে কমে গেছে। কিন্তু পরিসংখ্যান বলছে ভিন্ন কথা। ফুটবল বিশ্বকাপ, ক্রিকেট বিশ্বকাপের মতো মেগা ইভেন্টে টেলিভিশনের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়।

বাংলা ট্রিবিউন: মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি এই বাজারে কেমন প্রভাব ফেলতে পেরেছে?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি বাংলাদেশের টিভি বাজারে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলেছে বলে আমি মনে করি। মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির দাম তুলনামূলক কম এবং দামের তুলনায় এর গুণগত মান অনেক বেশি হওয়ায় এটি ক্রেতাদের কাছে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। তবে আমাদের পণ্যের মূল্য কম হলেও গুণগত মানের ক্ষেত্রে আমরা কোনও আপস করি না। দামে কম, মানে ভালো পণ্য- এই নীতির কারণে ক্রেতাদের কাছে মিনিস্টার টিভি এখন খুব পছন্দের। বর্তমান সময়ে মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে বাংলাদেশের বাজারে বেশ ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে। যেহেতু মিনিস্টার টিভির দাম কম, মিনিস্টারের সঙ্গে পাল্লা দিতে অন্য ব্রান্ডগুলোও দাম কমিয়ে দিয়েছে। পাশাপাশি দেশীয় টিভির মান বেশ মান উন্নত হয়েছে। মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির কারণে বাংলাদেশের টিভি বাজার আরও প্রতিযোগিতামূলক হয়ে উঠেছে। এটি ক্রেতাদের জন্য ভালো। ক্রেতারা এখন আরও ভালো মানের টিভি কম দামে কিনতে পারছেন।

বাংলাদেশের টিভি বাজারের প্রায় ১৫ শতাংশ দখল করে আছে মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি (ছবি: সাজ্জাদ হোসেন)

বাংলা ট্রিবিউন:  দেশের টিভি বাজারের কত শতাংশ এখন মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির দখলে?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: চলতি বছরের হিসাব বলছে, বাংলাদেশের টিভি বাজারের প্রায় ১৫ শতাংশ দখল করে আছে মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি। তুলনামূলক কম দামে সর্বাধুনিক ফিচার সংবলিত মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির প্রতি ক্রেতার আগ্রহ দিন দিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বাংলা ট্রিবিউন:  বিদেশি কোম্পানির টিভির সঙ্গে মিনিস্টারের টেলিভিশনের প্রতিযোগিতা কেমন? মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি অন্যান্য কোম্পানির সঙ্গে কীভাবে পাল্লা দিচ্ছে?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: দেশের বাইরের কোম্পানির টেলিভিশনে যেসব সুযোগ সুবিধা আছে, মিনিস্টার টেলিভিশনে্র একাধিক মডেলের টেলিভিশনেও সে ধরনের ফিচার পাওয়া যাচ্ছে। বিদেশি একাধিক কোম্পানির থেকে প্রায় অর্ধেক দামে একই ধরনের সুবিধা দিচ্ছে দেশীয় ব্র্যান্ড মিনিস্টার। ফলে অনেক ক্রেতা বেশি দামে বাইরের ব্র্যান্ডের টিভি না কিনে দেশীয় পণ্য মিনিস্টার টেলিভিশন বেছে নিচ্ছেন।

মিনিস্টার-মাই ওয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ রাজ্জাক খান রাজ

বাংলা ট্রিবিউন: এত এত ব্র্যান্ড থাকতে ক্রেতারা কেন মিনিস্টার টিভি কিনবেন?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: আগেও বলেছি, দেশে বিভিন্ন দেশীয় ও বিদেশি ব্র্যান্ড থাকলেও মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভিই গ্রাহকদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে। এর কারণগুলো হচ্ছে- বাজারের যেকোনও ব্র্যান্ডের টিভির তুলনায় মিনিস্টার টেলিভিশনের দাম তুলনামূলকভাবে অনেক কম, গুণে-মানে সেরা এবং এর সর্বোচ্চ ওয়ারেন্টি-গ্যারান্টি। এগুলো ক্রেতাদের জন্য টিভি কেনার ক্ষেত্রে অনেক বড় বিবেচ্য বিষয়। উন্নতমানের ছবি, শব্দ এবং অন্যান্য ফিচার নিশ্চিত করার কারণে এই ব্র্যান্ডের প্রতি জনগণের আস্থা তৈরি হয়েছে।

রাজধানী ঢাকার বাইরেও আমাদের পণ্য গ্রাহকদের পছন্দের শীর্ষে। আমাদের প্রায় প্রতিটি জেলায় নিজস্ব শো-রুম রয়েছে। শুধু তাই নয়, দেশের মানুষ যেন চাইলেই মিনিস্টার পণ্য হাতের কাছে পান সেজন্য আমরা একটি শক্ত এবং সুশৃঙ্খল ডিলার চ্যানেল পরিচালনা করি। বাজারে পণ্যের সহজলভ্যতাও মিনিস্টার ব্র্যান্ড পছন্দ করার অন্যতম কারণ। দাম ও কোয়ালিটির পাশাপাশি মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভিতে রয়েছে ওয়ারেন্টি সুবিধা। আমরা সব টিভিতে ৭ বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি। এছাড়া প্যানেলের ক্ষেত্রে রয়েছে সর্বোচ্চ ৫ বছরের গ্যারান্টি। এসব কারণেই বর্তমানে মিনিস্টার টেলিভিশন ক্রেতাদের পছন্দ।

বাংলা ট্রিবিউন:  টিভি রফতানির কোনও পরিকল্পনা আছে?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি রফতানির জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। দেশের বাইরের ক্রেতাদের চাহিদা এবং রুচির কথা চিন্তা করে টিভির মান নিয়ে আমরা কাজ করছি। দেশে ও দেশের বাইরে দুই জায়গার মার্কেট ভিন্ন। চাহিদাও অঞ্চলভেদে ভিন্ন। বিদেশি বাজারে মিনিস্টার ব্র্যান্ডের বিপণন কার্যক্রম শিগগিরই জোরদার করবো।

মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি রফতানির জন্যও পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে (ছবি: সাজ্জাদ হোসেন)

বাংলা ট্রিবিউন: মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভি নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানতে চাই।

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: আমাদের লক্ষ্য হলো বাংলাদেশের টিভি বাজারে একদম শীর্ষ ব্র্যান্ড হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করা। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে অনেক দূর পর্যন্ত এগিয়েছিও। মূল লক্ষ্যে পৌঁছাতে আমরা বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ হাতে নিয়েছি। সেই লক্ষ্যে কাজও চলমান। আমরা সর্বদা চেষ্টা করি, গ্রাহকরা যেন কম মূল্যে ভালো কোয়ালিটির পণ্য পান। আমাদের ৫০ ইঞ্চি স্মার্ট টিভি বর্তমানে ৩৯ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এতো কম মূল্যে আমরাই শুধু এই ফিচারের টেলিভিশন বাজারে এনেছি।

বাংলা ট্রিবিউন: কী ধরনের টিভি তৈরি করছেন আপনারা?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: গ্রাহক চাহিদার কথা বিবেচনা করে আমরা নানান ডিজাইনের এবং মডেলের টেলিভিশন তৈরি করছি। মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির মধ্যে রয়েছে এলইডি, ইউএইচডি, কিউএলইডি, ফোরকে এবং স্মার্ট টিভি। এগুলোর মধ্যে বর্তমানে স্মার্ট টিভির চাহিদা সবচেয়ে বেশি।

বাংলা ট্রিবিউন: আপনাদের কারখানায় টিভির কত শতাংশ পার্টস তৈরি হচ্ছে?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: আমাদের কারখানায় মিনিস্টার ব্র্যান্ডের টিভির সিংহভাগ পার্টসই তৈরি হচ্ছে। তবে কিছু কিছু পার্টস এখনও বাইরে থেকে আমদানি করতে হয়। আমরা সবসময়ই চাই, আমাদের কারখানা টিভি তৈরিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে উঠুক। কারণ নিজেদের তৈরি পার্টস যত ব্যবহার করতে পারবো আমরা তত মূল্য কম রাখতে পারবো।

বাংলা ট্রিবিউন: সামনে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। এসময় টিভির চাহিদা বাড়বে। এ নিয়ে আপনাদের পরিকল্পনা কী?

এম এ রাজ্জাক খান রাজ: ক্রিকেট এ দেশের মানুষের একটা আবেগ। আমিও নিজে ক্রিকেটপ্রেমী একজন মানুষ। এবারের এশিয়া কাপের ম্যাচ দেখতে আমি নিজেও মাঠে উপস্থিত ছিলাম। এশিয়া কাপে মনমতো সাফল্য না পেলেও বিশ্বকাপে টাইগারদের সাপোর্ট বিন্দুমাত্র কমবে না। যেহেতু বিশ্বকাপ উপমহাদেশেই হচ্ছে এবার তাই দর্শকদের আগ্রহের মাত্রাটাও বেশি। তাই এই ইভেন্টটি বাংলাদেশের টিভি বাজারে একটি বড় সুযোগ তৈরি করেছে বলে আমি মনে করি। মিনিস্টার ব্র্যান্ডও এই সুযোগটি কাজে লাগাতে চায়। বিশ্বকাপ উপলক্ষে আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা বেশ কিছু নির্দিষ্ট মডেলের টেলিভিশনের ওপর অফার নিয়ে এসেছি।

/এফএস/ 
সম্পর্কিত
করারোপ নীতি শিক্ষা সম্প্রসারণকে বাধাগ্রস্ত করবে: সলিমুল্লাহ খান
আইসিটির ‘ট্যাক্স হলিডে’ নিয়ে কাজ করতে হবে: নিয়াজ মোর্শেদ এলিট
বাংলা ট্রিবিউনকে ওয়াসিকা আয়শা খান‘নারীরা যে শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ দিয়ে চলেছেন, এর নেপথ্যে শেখ হাসিনা’
সর্বশেষ খবর
ঈদের চতুর্থ দিন: টিভি পর্দায় যা থাকছে
ঈদের চতুর্থ দিন: টিভি পর্দায় যা থাকছে
বিএনপি দেশে সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা: কাদের
বিএনপি দেশে সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা: কাদের
গাজায় যুদ্ধবিরতির প্রধান দাবিতে অটল হামাস
গাজায় যুদ্ধবিরতির প্রধান দাবিতে অটল হামাস
‘সাম্প্রদায়িকতা, ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়িয়ে দিতে হবে’
‘সাম্প্রদায়িকতা, ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়িয়ে দিতে হবে’
সর্বাধিক পঠিত
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
আজ পহেলা বৈশাখ
আজ পহেলা বৈশাখ
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী