সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ইতিবাচক দিক ব্যবহারের আহ্বান

Send
রাসেল হাওলাদার
প্রকাশিত : ২১:০৮, জানুয়ারি ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৫, জানুয়ারি ০৮, ২০২০

সেমিনারসামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ইতিবাচক দিকগুলো বেশি বেশি ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন ‘তৃতীয় বাংলা‌দেশ ডি‌জিটাল ‌দিবস ২০২০ সম্মাননা’ প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সোশ্যাল মিডিয়ার ইতিবাচক ব্যবহার’ শীর্ষক সেমিনারে আগত বক্তারা। তাঁরা বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এখন আয়ের ভালো উৎস। এর অপব্যবহার না করে সঠিকভাবে উপস্থাপন করলে এ মাধ্যম থেকে সবাই উপকৃত হবেন।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জা‌তিক স‌ম্মেলন কে‌ন্দ্রে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। আয়োজন করে সরকারের সেমিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ (আইসিটি)।

সেমিনারে প্রবন্ধ উপস্থাপক করেন ন্যাশনাল টেলিকম মনিটরিং সেন্টারের প্রধান ব্রি. জেনারেল জিয়াউল আহসান। তিনি বলেন, আজকের প্রতিপাদ্য যে বিষয় সেটিকে যদি উল্টে দেই ‘যাচাই পরে, শেয়ার আগে, তাহলে অর্থ কিন্তু উল্টো হয়ে যায়।’ তিনি আরও বলেন, বর্তমান সময়ে ফোন, ইন্টারনেট, সোশ্যাল মিডিয়া, ল্যাপটপ, নোটপ্যাড ছাড়া কেউ চলতে পারি না। সারাক্ষণই এগুলোর মধ্যে ডুবে থাকি। কিন্তু এগুলো ইতিবাচকভাবে ব্যবহার করা যায়।

তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় যে যা-ই করুক, সবাইকে শনাক্ত করা সম্ভব। শুধু তা-ই নয়, আমাদের নেটওয়ার্কে সবাইকে শনাক্ত করা যায়। ফেক ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে কে কী করেন তা-ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক সামিয়া রহমানের সঞ্চালনায় সেমিনারে আলোচক ছিলেন কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম, একাত্তর টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল হক বাবু, শপ আপ’র প্রধান নির্বাহী সিফাত সারোয়ার ও স্পাইডার ডিজিটাল সিকিউরিটির প্রধান নির্বাহী কাজী মনিরুল কবির।

/এইচএএইচ/এমওএফ/এমওএফ/

লাইভ

টপ