সেকশনস

ঘুষের মামলায় কারাগারে স্যামসাং সাম্রাজ্যের উত্তরাধিকারী লি জে ইয়ং

আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৩৫

স্যামসাং সাম্রাজ্যের উত্তরাধিকারী লি জে ইয়ং-কে ঘুষের মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার একটি আদালত। ঘুষ দেওয়ার দায়ে সোমবার তাকে আড়াই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

এই ঘুষের মামলাটি আরেকটি দুর্নীতি মামলার সূত্র ধরে হয়েছে যেটিতে দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হে-কে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

২০১৪ সাল থেকেই কার্যত স্যামসাং-এর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন লি জে ইয়ং। তার কারাদণ্ডের খবর প্রকাশিত হওয়ার পর বাজারে স্যামসাং-এর শেয়ারের দাম চার শতাংশ পড়ে গেছে। এখন আদালতের রায় কোম্পানিতে তার ভবিষ্যৎ ভূমিকার ব্যাপারে প্রভাব ফেলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অন্তত সাময়িকভাবে তাকে কোম্পানির বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে দেওয়া না-ও হতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লি-র কারাদণ্ডের ফলে তার প্রতিষ্ঠানে নেতৃত্ব শূন্যতা তৈরি হবে যার প্রভাব পড়বে বড় বড় বিনিয়োগ প্রকল্পের ওপর। দক্ষিণ কোরিয়ার পুরো জিডিপি-র এক পঞ্চমাংশ আসে স্যামসাং থেকে। সেজং ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক কিম দে জং বলেন, ‘স্যামসাং-এর জন্য এই রায় এটা একটা বড় ধরনের ধাক্কা।’

লি জে ইয়ং-এর বাবা স্যামসাং মালিক লি কুন হি ২০১৪ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তিনি গত বছর মারা যান। তার মৃত্যুর পর মনে করা হচ্ছিল স্যামসাং কোম্পানির শীর্ষ পর্যায়ে বড় ধরনের রদবদল ঘটবে এবং করের বিপুল বোঝা সামাল দিতে লি কুন হি-র ছেলেমেয়েরা কোম্পানির সম্পদ এবং মুনাফার কিছু অংশ বিক্রি করতে বাধ্য হবে।

একের পর এক অপরাধ করে চলেছেন

আদালতের দলিল থেকে জানা যাচ্ছে, লি জে ইয়ং নিজে ঘুষ দিয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার তৎকালীন প্রেসিডেন্টকে আভাস দিয়েছেন, তিনি যাতে স্যামসাং-এর নতুন প্রধান হতে পারেন তার জন্য প্রেসিডেন্ট যেন তাকে সাহায্য করেন।

ঘুষ প্রদান, অর্থ আত্মসাৎ এবং বেআইনিভাবে আয় করা প্রায় ৭৮ লাখ ডলার লুকিয়ে রাখার দায়ে সোমবার আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। তার কৌঁসুলিরা বলছেন, আদালতের এই রায়ে তারা হতাশ। তবে তার কারাদণ্ডের মেয়াদ কিছুটা কমে যাবে। কারণ মামলা শুরুর পর থেকেই তিনি আটক রয়েছেন। তাকে এখন মোট ১৮ মাস জেল খাটতে হবে।

যেভাবে হয়েছিল ঘুষ লেনদেন

লি জে ইয়ং যখন স্যামসাং-এর নতুন প্রধান হওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিলেন তখন থেকেই তার সমস্যা শুরু হয়। তাকে প্রথমবারের মতো গ্রেফতার করা হয় ২০১৭ সালে এক দুর্নীতি কেলেঙ্কারি মামলায়। সে সময় স্যামসাং-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল যে তারা প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হে-র ঘনিষ্ঠ বন্ধু চোই সুন-সিল-এর দুইটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠানকে দুই কোটি ৬৭ লাখ ডলার ঘুষ দিয়েছিল। এর বদলে স্যামসাং শাসক দলের আনুকূল্য চেয়েছিল।

সেই সময়টাতে স্যামসাং-এর ভেতরে দুইটি কোম্পানির একত্রীকরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়; যা ছিল একটি বিতর্কিত ঘটনা। সেটা সম্পন্ন করতে গেলে সরকারি পেনশন ফান্ডের সমর্থনের প্রয়োজন হতো। সেই উদ্যোগ সফল হলে স্যামসাং-এর নতুন প্রধানের পদটি আনুষ্ঠানিকভাবেই লি জে ইয়ং-এর হতো। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

প্রতিবেশীদের উদ্যোগকে সন্দেহ করছেন মিয়ানমারের বিক্ষোভকারীরা

প্রতিবেশীদের উদ্যোগকে সন্দেহ করছেন মিয়ানমারের বিক্ষোভকারীরা

নিজের নামে স্টেডিয়ামের নাম বদলে দিলেন মোদি

নিজের নামে স্টেডিয়ামের নাম বদলে দিলেন মোদি

পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বাংলাদেশি আটক

পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বাংলাদেশি আটক

পশ্চিমবঙ্গকে স্বাধীন রাষ্ট্র করার দাবিতে মমতাকে চিঠি

পশ্চিমবঙ্গকে স্বাধীন রাষ্ট্র করার দাবিতে মমতাকে চিঠি

পদত্যাগ নয়, আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে চান নেপালের প্রধানমন্ত্রী

পদত্যাগ নয়, আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে চান নেপালের প্রধানমন্ত্রী

ইইউ-কে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে আবার ব্যর্থ হচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা?

ইইউ-কে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে আবার ব্যর্থ হচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা?

মোদির পরিণতি ট্রাম্পের চেয়ে খারাপ হবে: মমতা

মোদির পরিণতি ট্রাম্পের চেয়ে খারাপ হবে: মমতা

শুরু হলো কোভ্যাক্স কর্মসূচির টিকা সরবরাহ

শুরু হলো কোভ্যাক্স কর্মসূচির টিকা সরবরাহ

জেল থেকে মাদক সাম্রাজ্য পরিচালনায় সহায়তা করেছিলেন এল চপোর স্ত্রী!

জেল থেকে মাদক সাম্রাজ্য পরিচালনায় সহায়তা করেছিলেন এল চপোর স্ত্রী!

সর্বশেষ

বেগমগঞ্জে অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি: আটক দুজন জেল হাজতে 

বেগমগঞ্জে অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি: আটক দুজন জেল হাজতে 

চবি ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের দায়ে যুবক আটক

চবি ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের দায়ে যুবক আটক

ভিকারুননিসাকে সতর্কতামূলক ৭ নির্দেশনা প্রতিযোগিতা কমিশনের

ভিকারুননিসাকে সতর্কতামূলক ৭ নির্দেশনা প্রতিযোগিতা কমিশনের

‘আহমদ শরীফের মাঝে সত্য বলার ক্ষমতা ছিল প্রবল’

জন্মশত বার্ষিকী অনুষ্ঠানে বক্তারা‘আহমদ শরীফের মাঝে সত্য বলার ক্ষমতা ছিল প্রবল’

রাবির স্টিয়ারিং কমিটির নির্বাচনে ভিসি বিরোধীদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা

রাবির স্টিয়ারিং কমিটির নির্বাচনে ভিসি বিরোধীদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা

নদী সংলাপে পরিবেশের সুরক্ষা নিশ্চিতের আহ্বান

নদী সংলাপে পরিবেশের সুরক্ষা নিশ্চিতের আহ্বান

হাফিজের প্রত্যাখ্যান, পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে কারা?

হাফিজের প্রত্যাখ্যান, পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে কারা?

১০ এপ্রিলকে ‘প্রজাতন্ত্র দিবস’ ঘোষণার দাবি রবের

১০ এপ্রিলকে ‘প্রজাতন্ত্র দিবস’ ঘোষণার দাবি রবের

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

রাজধানীতে নিজ বাসায় কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ

রাজধানীতে নিজ বাসায় কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ

দিনাজপুরের হত্যা মামলার আসামি ঢাকায় গ্রেফতার

দিনাজপুরের হত্যা মামলার আসামি ঢাকায় গ্রেফতার

শ্যামপুরে পানির ট্যাংক থেকে উদ্ধার শিশুর পরিচয় মিলেছে

শ্যামপুরে পানির ট্যাংক থেকে উদ্ধার শিশুর পরিচয় মিলেছে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

মোজাম্বিক উপকূলে শতাধিক ডলফিনের মৃত্যু

প্রতিবেশীদের উদ্যোগকে সন্দেহ করছেন মিয়ানমারের বিক্ষোভকারীরা

প্রতিবেশীদের উদ্যোগকে সন্দেহ করছেন মিয়ানমারের বিক্ষোভকারীরা

নিজের নামে স্টেডিয়ামের নাম বদলে দিলেন মোদি

নিজের নামে স্টেডিয়ামের নাম বদলে দিলেন মোদি

পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বাংলাদেশি আটক

পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় বাংলাদেশি আটক

পশ্চিমবঙ্গকে স্বাধীন রাষ্ট্র করার দাবিতে মমতাকে চিঠি

পশ্চিমবঙ্গকে স্বাধীন রাষ্ট্র করার দাবিতে মমতাকে চিঠি

পদত্যাগ নয়, আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে চান নেপালের প্রধানমন্ত্রী

পদত্যাগ নয়, আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে চান নেপালের প্রধানমন্ত্রী

ইইউ-কে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে আবার ব্যর্থ হচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা?

ইইউ-কে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে আবার ব্যর্থ হচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা?

মোদির পরিণতি ট্রাম্পের চেয়ে খারাপ হবে: মমতা

মোদির পরিণতি ট্রাম্পের চেয়ে খারাপ হবে: মমতা


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.