X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বের হওয়ার সুযোগ দিয়ে আটকে রাখা যায়?

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৫৬

গত বছর করোনা সংক্রমণ শুরুর পরপরই সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অফিস, মার্কেট সব ছিল বন্ধ। মানুষ রাস্তায় নেমেছিল কম। পরবর্তীতে সংক্রমণ সহনীয় হয়ে আসায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়া সব খুলে দেওয়া হয়। এবছর মার্চে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসে ভয়াবহ হয়ে। এপ্রিলে ঊর্ধ্বগতিতে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আবারও সর্বাত্মক লকডাউন দেওয়া হয়। জীবন নাকি জীবিকার প্রশ্নে পুলিশের পক্ষ থেকে জরুরি প্রয়োজনে মুভমেন্ট পাসের ব্যবস্থা করা হয়। লাখ লাখ নগরবাসী এই পাস নেন। সংশ্লিস্টরা বলছেন, বাইরে বের হওয়ার সুযোগ করে দিয়ে মানুষকে ধরে রাখা প্রায় অসম্ভব।

লকডাউনের মধ্যেই রাস্তায় লোকজন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সোমবারের বুলেটিন অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশ একদিনে এত মৃত্যু আগে দেখেনি। করোনাতে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১০ হাজার ৪৯৭ জন।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর, আদাবর, শ্যামলী এলাকায় লকডাউন মানছেন না সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীরা।  বেলা ৩টার পর চলাচল পুরো বন্ধ হওয়ার কথা তখন থেকে বেচাকেনা চলছে বেশি। ইফতারের দোকান সাজানো, কেনাকাটা ও চলাচল তখন পুরোপুরি শুরু হচ্ছে।  সোমবার (১৯ এপ্রিল) সরেজমিন পরিদর্শনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

লকডাউনের মধ্যেও বাইরে লোকজন

আদাবরে করোনার সংক্রমণ বেশি হলেও সেখানে লকডাউনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলছে সব ধরনের কেনাকাটা। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি দেখা গেলে রাস্তা ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। তবে ম্যাজিস্ট্রেরেটের গাড়ি কিংবা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি না থাকলে ইচ্ছে মতোই চলছে সাধারণের চলাচল কেনাকাটা।

জনস্বাস্থ্য বিশেষণ লেলিন চৌধুরী বলেন, মানুষকে বের হওয়ার সুযোগ দিয়ে সর্বাত্মক লকডাউন নিশ্চিত করার কোনও সুযোগ নাই। অপ্রয়োজনে বের হওয়া যাবে না, প্রয়োজনে মুভমেন্ট পাস নিয়ে বের হওয়া যাবে। প্রয়োজন শব্দটি আপেক্ষিক। যিনি বের হতে চান তিনি যে কারণটি দেখাচ্ছেন সেটা তার প্রয়োজন। ফলে সংক্রমণের এই ঊর্ধ্বগতির সময়ে এই অপশন রাখার কোনও সুযোগ নেই।

লকডাউনের মধ্যেও বাইরে লোকজন

মুভমেন্ট পাস কনসেপ্ট কতোটা কাজে এসেছে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ বিভাগের এআইজি সোহেল রানা বলেন, ক‌রোনাকা‌লে অ‌হেতুক মুভ‌মেন্ট রো‌ধে নিঃস‌ন্দে‌হে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূ‌মিকা রাখ‌ছে মুভ‌মেন্ট পাস। এ পর্যন্ত ১৮ কো‌টিরও বে‌শি বার অনলাই‌নে ট্রাই করা হ‌য়ে‌ছে এই পা‌সের জন্য। প্রায় জনশূন্য রাস্তাঘাটও প্রমাণ ক‌রে জন চলাচল নিয়ন্ত্রণে এই পদ্ধতি কাজ লেগেছে। ত‌বে, প্রকৃ‌তিগতভা‌বেই নিয়ন্ত্রণ ও বি‌ধি‌নি‌ষেধ পছন্দ ক‌রে না মানুষ।

 

 

 

 

/ইউআই/এসটি/

সম্পর্কিত

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৮:০০

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ২৬৪ জন। এটি এখন পর্যন্ত দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। একই সময়ে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৭৪৪ জন।

এর আগে গত ২৭ জুলাই সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল ২৫৮ জন। এ নিয়ে করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত মারা গেলেন ২১ হাজার ৯০২ জন এবং শনাক্ত হয়েছেন ১৩ লাখ ২২ হাজার ৬৫৪ জন।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। এদিন সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৭৮৬ জন এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ ১১ লাখ ৫৬ হাজার ৯৪৩ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪৬ হাজার ৫২২টি,অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৬ হাজার ৯৯৫টি। এখন পর্যন্ত ৭৯ লাখ ৯৫ হাজার ৬৭৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়,শনাক্ত বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতি ১০০ নমুনায় ২৭ দশমিক ১২ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত ১৬ দশমিক ৫৪ শতাংশ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত বিবেচনায় প্রতি ১০০ জনে সুস্থ হয়েছে ৮৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ এবং মারা গেছেন ১ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ১৪০ জন পুরুষ এবং নারী ১২৪ জন। এখন পর্যন্ত পুরুষ ১৪ হাজার ৬৮৪ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন ৭ হাজার ২১৮ জন।

বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায় যায়, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ৩ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৫০ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৭৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫৯ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩১ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ এবং ০ থেকে ১০ বছরের মধ্যে ১ জন মারা গেছেন।

বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৮৭ জন, চট্টগ্রামে ৫৬ জন,রাজশাহীতে ১৯ জন, খুলনায় ৩৫ জন, বরিশালে ১৬ জন, সিলেটে ২৩ জন, রংপুরে ১৮ জন এবং ময়মনসিংহে ১০ জন মারা গেছেন। ২৪ ঘণ্টায় সরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ১৯০ জন, বেসরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ৫৫ জন এবং বাসায় মারা গেছেন ১৯ জন।

/এসও/এমএস/

সম্পর্কিত

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৭

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, আদর্শ ও জনকল্যাণে অবদানই রাজনীতির মূলমন্ত্র হওয়া উচিত। দুষ্টদের লালন-পালন ও পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়া রাজনীতি নয়। রাজনীতি হতে হবে পরিশীলিত, পরিমার্জিত। রাজনীতির প্রতিপক্ষকে কখনও শত্রু ভাবা ঠিক নয়। শত্রুকে নিধন করতে হবে, সশরীরে মেরে ফেলতে হবে, এটা রাজনীতি হতে পারে না। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে হবে। রাজনীতির মৌলিক সত্তার জায়গায় দল-মত নির্বিশেষে আমাদের এক হতে হবে।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পিরোজপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় রাজধানীর বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, একটি পরিশীলিত, পরিমার্জিত, রূচিবান ও সম্ভাবনাময় ব্যক্তিত্ব ছিলেন শেখ কামাল। যিনি এ দেশের ক্রীড়াঙ্গন, সাংস্কৃতিক অঙ্গন ও রাজনীতিতে অনন্য-সাধারণ অবদান রাখতে পারতেন। অথচ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পরিবারের সদস্যদের সাথে তাকেও নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়। তিনি ছিলেন বাংলাদেশে আধুনিক ক্রীড়ার জনক। অপরদিকে বাঙালি সংস্কৃতিকে পূর্ণতা দেওয়ার জন্য সংস্কৃতির বিভিন্ন ধারা তিনি লালন করতেন, চর্চা করতেন। অন্যদিকে রাজনীতি ছিল তার জন্মসূত্রে পাওয়া। রাজনীতিতে তিনি নিজের জায়গা দখলের জন্য কখনও ক্ষমতার অপব্যবহারের মানসিকতা দেখাননি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর শেখ কামাল সম্পর্কে বিরূপ কথা প্রচার করে বঙ্গবন্ধু পরিবারকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। এটা ছিল জঘন্য মিথ্যাচার।

শ ম রেজাউল করিম আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছেন, নিজের যা কিছু সামর্থ্য, যা কিছু ভালো তা উৎসর্গ করে দিয়ে দেশের কল্যাণে ও মানুষের উন্নয়নে নিজেকে নিবেদন করার নাম রাজনীতি। বঙ্গবন্ধু জীবনে কখনোই অনৈতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্তদের, কালো টাকার মালিকদের রাজনীতিতে এনে পৃষ্ঠপোষকতা দেননি। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা বলেন, নিজের বিত্ত-বৈভবের জন্য, প্রাচুর্যের জন্য রাজনীতি নয়। মানুষের পাশে দাঁড়ানো, তার দুঃখ-কষ্টের সাথী হওয়া, গোটা জাতির স্বপ্ন পূরণের মাধ্যমে দারিদ্র্য, অসহায়ত্ব ও বৈষম্য দূর করার নাম রাজনীতি।

পিরোজপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক চৌধুরী রওশন ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান ও পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার। পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোপাল বসু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গৌতম নারায়ণ চৌধুরীসহ পিরোজপুরের বিভিন্ন সরকারি দফতরের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

/জেইউ/এমএস/

সম্পর্কিত

শেখ হাসিনা বেঁচে থাকতে কেউ অনাহারে মারা যাবে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

শেখ হাসিনা বেঁচে থাকতে কেউ অনাহারে মারা যাবে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:৩৩

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল বাংলাদেশে ২ কোটি ২৯ লাখ টাকা মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট পরিশোধ করেছে। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) গত মে ও জুন মাসের ভ্যাটের রিটার্ন দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি সরকারি কোষাগারে এ টাকা জমা করেছে।

ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেট সূত্রে জানা গেছে, গত মে মাসের ভ্যাট রিটার্নের বিপরীতে ৫৫ লাখ ৭৭ হাজার ৭০৪ টাকা ভ্যাট দিয়েছে গুগল। আর জুন মাসের রিটার্নের বিপরীতে দিয়েছে ১ কোটি ৭৩ লাখ ৭৬ হাজার ৮৩২ টাকা। সিঙ্গাপুরের সিটি ব্যাংক-এনএ-এর শাখা থেকে ভ্যাটের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

গত ২৩ মে প্রথম অনাবাসী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গুগল ভ্যাটের নিবন্ধন নেয়। কিন্তু প্রস্তুতির জন্য মে ও জুন মাসের রিটার্ন জমার জন্য সময় চেয়েছিল গুগল। ভ্যাট বিভাগ সেই আবেদনে সাড়া দেয়। এখন ওই দুই মাসের রিটার্ন জমা দিলো গুগল।

ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার এস এম হুমায়ন কবির বলেন, ‘গুগলের কাছ থেকে মে ও জুন মাসের ভ্যাট রিটার্ন এসেছে।

এর আগে গত মাসে প্রথমবারের মতো কোনও অনাবাসী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ফেসবুক ভ্যাট রিটার্ন দিয়ে ২ কোটি ৪৪ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়।

/জিএম/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৫:৫৯

বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠপুত্র, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যমানের স্মারক ডাকটিকিট, ১০ টাকার উদ্বোধনী খাম ও ৫ টাকা মূল্যের ডাটাকার্ড অবমুক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এগুলো উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো. আফজাল হোসেন এবং ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

/পিএইচসি/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

হত্যার বিচার করেছি, ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা এখনও আবিষ্কার হয়নি: প্রধানমন্ত্রী

হত্যার বিচার করেছি, ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা এখনও আবিষ্কার হয়নি: প্রধানমন্ত্রী

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৬

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার আব্বা যেমন সারা জীবন এই দেশের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, সন্তান হিসেবে আমরাও। একদিকে যেমন পিতৃস্নেহ বঞ্চিত হয়েছি, কিন্তু আমরা কখনও সেটাকে কষ্ট মনে করিনি। আমার মা সেটা করতে দেননি। 

তিনি বলেন, কোনও হা-হুতাশ বা অতিরিক্ত চাওয়া- সেগুলো আমাদের ছিল না। খুব সাধারণভাবে জীবনযাপন করা, একটা আদর্শ নিয়ে চলা, দেশ ও দেশের মানুষকে ভালোবাসা এবং মানুষের কল্যাণে কাজ করা- এটাই আমাদের শিক্ষা। সেই শিক্ষাই কামাল সব সময় অনুসরণ করেছে। 

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) ‘ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন এবং শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরস্কার, ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭৪ সালের ১৬ ডিসেম্বর একটা চক্রান্ত করে কামালকে গুলি করা হয়। তাকে হত্যারও চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু সে যখন বেঁচে যায়, তখন তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার চালানো হয়। 

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের শেখ কামাল অডিটোরিয়ামে যুক্ত হন তিনি। 

শেখ হাসিনা বলেন, অথচ শেখ কামাল রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রীর ছেলে, জাতির পিতার ছেলে। অত্যন্ত সাদাসিধা জীবনযাপন করতো সে। কখনও বাবা প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতি সে জন্য অর্থ-সম্পদের দিকে তার কোনও দৃষ্টি ছিল না। ব্যবসা-বাণিজ্যের দিকেও তার কোনও দৃষ্টি ছিল না। 

তিনি বলেন, দেশকে গড়ে তোলা, দেশের মানুষের পাশে থাকা বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা সাংস্কৃতিক অঙ্গন; এসব কিছুই ছিল শেখ কামালের কাছে সব থেকে বড়। সে একজন সংস্কৃতিমনা, আবার রাজনীতিবিদ। কখনও বিলাস-ব্যসন- এসব দিকে তার দৃষ্টি ছিল না। এটা আমার বাবা-মায়ের শিক্ষা ছিল। তাছাড়া একটা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ, সেখানে তো বিলাসিতা করার সুযোগ নেই।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে জাতির জন্য আমার বাবা এত ত্যাগ স্বীকার করলেন, বছরের পর বছর জেল খাটলেন; সেখানে এই দেশের কিছু সংখ্যক মানুষই ষড়যন্ত্র করে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করলো। 

তিনি বলেন, নূর আর কামাল একসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন কর্নেল ওসমানীর এডিসি হিসেবে কাজ করেছে। যখন বাসা আক্রমণ করে, কামাল নিচের বারান্দায় চলে যায়। সে যখন দেখে নূর-হুদা একসঙ্গে ঢুকছে, তাদের তখন বলেছিল যে আপনারা এসে গেছেন? খুব ভালো হয়েছে। দেখেন বাসা কারা আক্রমণ করেছে। এই কথা শেষ করতে পারেনি, ওই নূরের হাতের অস্ত্রই গর্জে ওঠে। ওরা ওখানেই কামালকে নির্মমভাবে গুলি চালিয়ে হত্যা করে। 

শেখ হাসিনা বলেন, এত বড় বিশ্বাসঘাতকতা এই বাংলাদেশে ঘটে গেছে। ১৫ আগস্ট যদি আজকে বাঙালির জীবনে না ঘটতো তাহলে এই জাতি অনেক আগেই বিশ্বে একটা মর্যাদা নিয়ে চলতো। এই হত্যার পর বাংলাদেশকে ইসলামিক রিপাবলিক অফ বাংলাদেশ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিল। যদিও সেটা টিকেনি। কাজেই চক্রান্তটা কোথায়, কীভাবে ছিল সেটা নিশ্চয়ই দেশের মানুষ এত দিনে উপলব্ধি করতে পারেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আর রেহানা দুজনে বিদেশে ছিলাম, তাই বেঁচে গেছি। কিন্তু হারিয়েছি আমাদের সবাইকে। তবু দেশের মানুষের জন্য যদি কিছু করে যেতে পারি সেটাই হবে সব থেকে বড় পাওয়া। 

 

/পিএইচসি/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

সর্বশেষ

আফগানিস্তানের লাখো মানুষ যুদ্ধের কবলে, 'গভীর উদ্বেগ' জাতিসংঘের

আফগানিস্তানের লাখো মানুষ যুদ্ধের কবলে, 'গভীর উদ্বেগ' জাতিসংঘের

সিসিএবির মোবাইল ফোন ভিত্তিক সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ

সিসিএবির মোবাইল ফোন ভিত্তিক সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ

তথ্য প্রকাশে এনজিও’র চেয়ে সরকারি সংস্থা এগিয়ে: টিআইবি

তথ্য প্রকাশে এনজিও’র চেয়ে সরকারি সংস্থা এগিয়ে: টিআইবি

পরীমনির বাসায় নিয়মিত পার্টিতে মাদক সরবরাহ করতেন রাজ

পরীমনির বাসায় নিয়মিত পার্টিতে মাদক সরবরাহ করতেন রাজ

অক্সিজেনের অভাবে অক্সিজেন ব্যবসায়ীর মৃত্যু

অক্সিজেনের অভাবে অক্সিজেন ব্যবসায়ীর মৃত্যু

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

আকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

শেখ কামাল ক্রীড়া পুরস্কারআকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, মোট শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো 

করোনায় আরও ২৩৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৭৭৬

করোনায় আরও ২৩৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৭৭৬

দেশে পৌঁছেছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ছয় লাখ ডোজ টিকা

দেশে পৌঁছেছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ছয় লাখ ডোজ টিকা

মাস্ক নিশ্চিতে গ্রামে গ্রামে থাকবে কমিটি

মাস্ক নিশ্চিতে গ্রামে গ্রামে থাকবে কমিটি

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

বৈঠক মঙ্গলবার, বাড়তে পারে লকডাউন

বৈঠক মঙ্গলবার, বাড়তে পারে লকডাউন

© 2021 Bangla Tribune