X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বাজেট আলোচনায় যা বললেন মেনন

আপডেট : ১৪ জুন ২০২১, ১৬:৫০

সংসদে প্রস্তাবিত ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন স্বাস্থ্য খাতের কঠোর সমালোচনা করেছেন।  দেশে করোনার টিকা আসার অনিশ্চয়তার কথাও বলেন এই বাম নেতা। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করলেও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়িত না হওয়ার অভিযোগ তোলেন। বাজেট আলোচনায় তিনি হেফাজতেরও কঠোর সমালোচনা করেন।

সোমবার (১৪ জুন) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে  রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘কোভিড ১৯ মোকাবিলায় জীবন ও জীবিকা রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী যে সাহসী পদক্ষেপ নিয়েছিলেন, তা বিশ্বে প্রশংসা কুড়িয়েছে।  কিন্তু  দেশে অতিধনী সামরিক-বেসামরিক আমলাগোষ্ঠী ও দুর্নীতিবাজদের পাকচক্রে প্রধানমন্ত্রীর সেই প্রয়াস অনেকখানিই নিষ্ফল হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মানুষের জীবন রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা স্বাস্থ্য খাতের অব্যবস্থাপনা, অদক্ষতা, আমলাতান্ত্রিক খবরদারিত্বে বাস্তবে রূপ নিতে পারেনি। করোনা রোধে স্বাস্থ্য খাত বিশেষজ্ঞদের পরিবর্তে আমলাতান্ত্রিক নির্দেশে পরিচালিত হওয়ায় কী ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল, তা আমরা দেখেছি।  চোখের সামনে দেখেছি মাস্ক,পিপিই, করোনা টেস্ট নিয়ে জাল-জালিয়াতি। একজন শাহেদ, একজন সাবরিনা গ্রেফতার হয়েছে, কিন্তু যারা সচিত্র চুক্তি সই করলো, কাজ দিলো তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে।’

মেনন বলেন, ‘বাংলাদেশ প্রথমেই টিকা সংগ্রহ করে সফলভাবে গণটিকা কার্যক্রম শুরু করেছিল। কিন্তু বেসরকারি প্রতিষ্ঠান দিয়ে টিকা সরবরাহের পরিণতি আমরা দেখছি।  টিকা নিয়ে আমরা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছি। আগামী মাসগুলোতে টিকা আসবে তার নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারে না। দেশের ১২ কোটি মানুষের জন্য টিকা ব্যবস্থা করতে না পারলে করোনা সংক্রমণ রোধ হবে না। এই টিকা সরকারকেই সংগ্রহ করতে হবে। কোও মধ্যস্বত্বভোগী অথবা বানিজীকরণের জায়গা নাই। দেশে টিকা উৎপাদনের যে সক্ষমতা আছে, তাকে কাজে লাগাতে হবে।’ অর্থমন্ত্রী বাজেটে টিকাদানের কোনও রোডম্যাপ দেননি বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সংসদ সদস্য মেনন বলেন, ‘করোনাকালে আড়াইকোটি মানুষ যারা দরিদ্র হয়ে গেলেন, বাজেট তাদের জন্য কিছু করেনি। করোনায় প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা প্রস্তাবের ৩৫% অর্থ বিতরণ হয়নি। যে গরিব মানুষের জন্য দুই দফায় ২৫০০ টাকা করে দেওয়া হয়েছে, তার এক তৃতীয়াংশ অব্যয়িত, তারা পায়নি।’

অর্থনীতির ড্রাইভিং সিটে ব্যক্তি খাতকে বসাবেন বলে যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা সংবিধানবিরোধী।  বাম নেতা রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘জিয়া-এরশাদ যা করতে পারেনি, অর্থমন্ত্রী সে কথাই জোরগলায় বললেন। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে অর্থনীতি সংবিধানের উল্টো পথে চলছে। তাহলে বরং খোলামেলাই ঘোষণা দিন— বঙ্গবন্ধু প্রবর্তিত এই সংবিধান অচল।’

মেনন বলেন, ‘করোনাকালে ভারতের বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ যেখানে ১৩৩% ভাগ বাড়ানো হয়েছে, আমাদের বাজেটে বাড়ান হয়েছে ১৩% ভাগ— যা জিডিপির ১% শতাংশের কিছু বেশি। দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় যেখানে বেশি, সেখানে মাথাপিছু স্বাস্থ্যব্যয়ে বাংলাদেশ পাকিস্তানেরও পেছনে। বর্তমান বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দের ৩৫% ব্যয় হয়নি।  গবেষণার ১০০ কোটি টাকা পুরোটাই রয়ে গেছে। স্বাস্থ্যক্রয়ে দুর্নীতির কথা বলে সংসদকে ভারাক্রান্ত করতে চাই না।’

মেনন তার বক্তব্যে বলেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেখানে ৫ লাখ ছেলেমেয়ের লেখাপড়া করাচ্ছে, তাদের ওপর ১৫% কর চাপানো হয়েছে, যা শেষ বিচারে শিক্ষার্থীদের ওপরে পরবে।’

তিনি বলেন, ‘সামাজিক নিরাপত্তা খাতের বর্ধিত বরাদ্দের একটা বড় অংশ সরকারি কর্মচারীদের পেনশন। বাজেটে আদিবাসী, দলিত, ভূমিহীন, প্রান্তিক চাষি উপেক্ষিত তাদের কথা নাই।’

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা হেফাজতের তাণ্ডব দেখেছি। দেখেছি কীভাবে তারা কওমি মাদ্রাসার ছাত্রদের ব্যবহার করে একটা অভ্যুত্থান ঘটাতে চেয়েছিল। তারা যে বিএনপির সমর্থন পেয়েছিল, এটা এখন দলের মহাসচিবের কথায় স্পষ্ট।’

তিনি বলেন, ‘‘কওমি মাদ্রাসাকে শিক্ষার মূল ধারায় নিয়ে আসার বিষয়ে সংসদে বলেছিলাম— আমাদের খেয়াল রাখতে হবে, আমরা ‘বিষবৃক্ষ’ লালন করছি কিনা। তার প্রতিক্রিয়ায় হেফাজত মিছিল করে আমার ফাঁসি চেয়েছে। এই সংসদে জাতীয় পার্টির এমপি আমি ‘ধান ভানতে শিবের গীত’ গেয়েছি বলে উপহাস করেছিলেন। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী হেফাজতের সমর্থনে তাদের ভারতের দেওবন্দের অনুসারী বলে বর্ণনা করেছিলেন। কিন্তু বাস্তবতা বলে— বাবুনগরী পাকিস্তানি মাদ্রাসার ছাত্র।  ইজাহার হুজির সদস্য ‘আফগান যুদ্ধ ফেরত তালেবান’ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তাণ্ডবের নায়ক সাজাদ্দুর রহমান, মোবারক মোল্লা সবাই তালেবান অনুসারী। আমরা বাংলাদেশে আরেকটি তালেবানি অভ্যুত্থান দেখতে চাই কিনা, সেটা দেখার বিষয়।’’

পররাষ্ট্রনীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মার্কিন অথবা অন্য কারও নেতৃত্বধীন জোটে যোগদান, আমাদের সংবিধান সমর্থন করে না। আর যুক্তরাষ্ট্র যার বন্ধু, তার শত্রুর প্রয়োজন নাই। বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে ইসরাইল ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিষয়টি প্যালেস্টইন সম্পর্কে বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু আমল থেকে অনুসৃত নীতির বিপরীত। ভুল বার্তা দেয়। পররাষ্ট্রনীতির ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কীভাবে সিদ্ধান্ত নেয়, সেই ব্যাখ্যা তাদের দিতে হবে। ওয়ার্কার্স পার্টির তরফ থেকে প্যালেস্টাইনের স্বাধীন অস্তিত্বের পক্ষে অবস্থান পুনরুক্তি করছি।’

‘গার্ড অব অনার’ নিয়ে নারী ইউএনওদের বিরোধিতার বিষয়ে  সংসদীয় কমিটির বিরোধিতার সমালোচনা করে মেনন বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সংসদীয় কমিটি মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার দেওয়ায় নারী কর্মকর্তাদের না রাখতে বলেছেন। এটা নাকি ধর্মবিরোধী কাজ। জানাজায় মাহিলারা অংশগ্রহণ করতে পারেন না বলে ফতোয়াও দিয়েছে। এই ফতোয়া দেওয়ার যোগ্যতা তারা রাখেন না। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীকে বলবো— এই বিষয়ে যেন কোনোরকম সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা না হয়। এটা হলে তা হবে মুক্তিযুদ্ধের অবমাননা এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাজ।’

/ইএইচএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অনলাইনে ভিসা সেবা দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৭

করোনা পরিস্থিতি শুরুর পর থেকেই ভিসা ও পাসপোর্ট সেবা দিতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ। কিন্তু সবক্ষেত্রে অনলাইন সেবা না চালু না থাকায় বিদেশি বিনিয়োগকারীসহ সেবা গ্রহণকারীরা নানামুখী জটিলতায় পড়ছিলেন। অবশেষে এসব ভিসা জটিলতা নিরসনে অনলাইন সেবা চালু করার বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সুরক্ষা সেবা বিভাগ। এ জন্য এ বিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়ে আগামী ২২ আগস্টের মধ্যে এ সেবা চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরইমধ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) সঙ্গে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা ছাড়পত্র অনলাইনে দেওয়া শুরু করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দ্বৈত নাগরিকত্ব, অন-অ্যারাইভাল ভিসা প্রদান, বিদেশে পাসপোর্ট পাঠানো, ভারতে চিকিৎসার জন্য যাওয়াসহ কোন কোন বিষয়ের আবেদন অনলাইনে নেওয়া সম্ভব সেটা যাচাই করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ জন্য মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের যুগ্ম-সচিব মো. যাহিদ হোসেন, উপ-সচিব মুহাম্মদ আবদুল হাই মিলটন, উপ-সচিব তরফদার মাহমুদুর রহমান এবং আইসিটি সেলের প্রোগ্রামার আইয়ুব হোসেনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামী ২২ আগস্টের মধ্যে এ অনলাইন সেবা চালু করার উদ্যোগ নিতে তাদের বলা হয়েছে।

অন অ্যারাইভাল ভিসা জটিলতা নিয়ে গত ৮ জুলাই বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। চিঠিতে করোনা পরিস্থিতির কারণে সুরক্ষা সেবা বিভাগ থেকে গত ১৬ জুন এক চিঠিতে শুধুমাত্র বিদেশি বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী ছাড়া সকল দেশের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে আগমনী (অন-অ্যারাইভাল) ভিসা প্রদান স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তাই, আগমনী ভিসা প্রদান স্থগিত রাখার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠান ও এয়ারলাইন্সকে জরুরি ভিত্তিতে অবহিত করার অনুরোধ জানানো হয়।

অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে নৌ বন্দরগুলো থেকে বাংলাদেশের এন্ট্রি ভিসা নিতে সমুদ্রগামী জাহাজের বিদেশি ক্যাপ্টেন, নাবিক ও ক্রুদের বেশ কিছু নির্দেশনা মেনে চলতে হয়। এ বিষয়েও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে সমুদ্রগামী জাহাজের নাবিকদের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত নির্দেশনায় বলা হয়, সমুদ্রগামী জাহাজের পাইলট ও নাবিক ও ক্রুরা 'নেক্সট এভেইলেবল ফ্লাইট' না পাওয়া পর্যন্ত জাহাজ থেকে সাইন অফ করে এন্ট্রি ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন। ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের নিয়ম অনুযায়ী ক্রুরা কোনও দেশে বিশেষ কারণে আটকা পড়লে তাদের হোটেল অথবা অন্য কোনও স্বাস্থ্যসম্মত জায়গায় থাকার ব্যবস্থা করা সেই দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরাপত্তা ও বহিরাগমন অনুবিভাগ) আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আজ হোক আর কাল হোক, সব সেবাই অনলাইনে চালু করতে হবে। সেজন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।এরইমধ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) সঙ্গে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের যে নিরাপত্তা ছাড়পত্র দিতে হয় সেটা অনলাইনে দেওয়া হচ্ছে। এই কার্যক্রম পুরোপুরিই অনলাইনে চলছে। আর অন্যগুলোর সেবা অনলাইনে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে কবে নাগাদ এ কার্যক্রম শেষ করা যাবে সেটা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

/এমআর/

সম্পর্কিত

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

‘পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা অস্বাভাবিক কিছু নয়’

‘পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা অস্বাভাবিক কিছু নয়’

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ০০:২০

কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় বাংলাদেশকে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা কোভিশিল্ড দেওয়ার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোতিগি তোশিমিতসুর কাছে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন তিনি।

শনিবার (২৪ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে আজ বিকালে ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকা নিয়ে ক্যাথে প্যাসিফিকের একটি ফ্লাইট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নাওকি ইতো এই টিকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের কাছে হস্তান্তর করেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চিঠিতে মন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশ ও জাপানের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করার জন্য দুদেশই কাজ করে যাচ্ছে। দুদেশের কমপ্রিহেনসিভ রিলেশনসকে উন্নততর স্ট্র্যাটেজিক স্তরে নেওয়ার জন্য কাজ চলছে।

চিঠিতে জাপানকে ‘প্রকৃত বন্ধু’ হিসেবে উল্লেখ করে আব্দুল মোমেন আশা করেন, কোভিড সহযোগিতা দুদেশের সম্পর্ককে আরো মজবুত ও গভীর করবে। তিনি টেকিওতে চলমান অলিম্পিক আসরের সর্বতো সাফল্য কামনাও করেন।

আরও পড়ুন:

দেশে পৌঁছালো জাপানের দেওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা 

/এসএসজেড/ইউএস/

সম্পর্কিত

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:০১

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এক কোটি ১ লাখ ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৭৬৮ ডোজ। এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন। শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়। এদিন মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার ২৯ ডোজ।

এখন পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ২ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন এসেছে। সেই অনুযায়ী এখন মাত্র কোভিশিল্ডের ৮১ হাজার ৮৮১ ডোজ ভ্যাকসিন অবশিষ্ট আছে। শনিবার কাউকেই কোভিশিল্ড দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, এখন পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো তথ্য থেকে আরও জানা যায়, প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছ সংকট। এদের সবাইকেই অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোন সিদ্ধান্ত দেয়নি। তবে দেশে আজ আড়াই লাখ ডোজ অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জাপান সরকার কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাঠিয়েছে।    

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১৩ জনকে আর এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৫০ হাজার ২১৭ জনকে।

এছাড়া ১১ লাখ ৭৭ হাজার ১৭১ ডোজ সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এখন পর্যন্ত। এর মধ্যে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১ লাখ ৭২ হাজার ৬২৪ জনকে আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ৫৪৭ জনকে।  

মডার্নার টিকা এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ৬ হাজার ১২৩ ডোজ, আর আজকে দেওয়া হয়েছে ৩৬ হাজার ৫৮৬ ডোজ।

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:৩৬

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় অত্যন্ত জরুরি ২০০ টন মেডিক্যাল অক্সিজেন আজ শনিবার (২৪ জুলাই) রাতেই দেশে প্রবেশ করছে। ভারত থেকে ১০টি কন্টেইনারে তরল অক্সিজেন নিয়ে একটি ট্রেনের আজ সকালে রওনা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. শরিফুল আলম।

শনিবার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেন, ভারতের ঝাড়খণ্ড প্রদেশের জামশেদপুর টাটানগর থেকে স্থানীয় সময় শনিবার সকাল ১০টায় ট্রেনটি বাংলাদেশের উদ্দেশে ছেড়ে এসেছে। আজ রাত ১০টার মধ্যে ট্রেনটি বেনাপোল স্টেশন হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে।

পরে আগামীকাল সকাল নাগাদ এটি বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতু পশ্চিম প্রান্তে পৌঁছানোর পরে এ অক্সিজেন খালাস করা হবে বলেও জানান শরিফুল আলম।

এর আগে ভারতীয় দূতাবাসের ফেসবুক পেজে এক পোস্টে বলা হয়, ‘কোভিড-১৯ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রচেষ্টায় সহায়তা হিসেবে ভারত সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের প্রথম আন্তঃসীমান্ত অক্সিজেন এক্সপ্রেসের মাধ্যমে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন ভারত থেকে আগামীকাল (২৫ জুলাই) বেনাপোল পৌঁছাবে।’

এর আগে ঈদের দিন বুধবার ভারত থেকে ১৮০ টন তরলীকৃত অক্সিজেন বেনাপোল বর্ডার দিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। করোনা পরিস্থিতিতে একটি গ্রিন করিডোর ব্যবহার করা হয়েছে এই আমদানির জন্য। দুই স্থলবন্দরের কর্মকর্তাদের সহায়তায় ঈদের দিন এই অক্সিজেন বাংলাদেশে এসেছিল।

/এসএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

‘পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা অস্বাভাবিক কিছু নয়’

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৯:৩০

‘পদ্মা সেতুর পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে এতে ফেরির আরও বড় ক্ষতি হতে পারতো। মানুষের প্রাণহানির সম্ভাবনাও ছিল। এ নিয়েই আমরা উদ্বিগ্ন। এতে পিলারের তেমন কোনও ক্ষতি হয়নি। যেটুকু হয়েছে তা কোনওভাবেই আশঙ্কাজনক নয়। এ ধরনের কয়েকগুণ শক্তিশালী ধাক্কা সামাল দেওয়ার সক্ষমতা প্রতিটি পিলারেরই রয়েছে। সেভাবেই তৈরি করা হয়েছে এ সেতুর প্রতিটি পিলার’—বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানান পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এত বড় নদীতে পানির স্রোত খুব বেশি। তাই হয়তো নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেরিটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগেছে। এতে ফেরিটির আরও বড় ক্ষতি হতে পারতো। ফেরিটি ডুবেও যেতে পারতো। এতে বহু মানুষের প্রাণহানিও ঘটতে পারতো। সম্পদের ক্ষতি হতে পারতো। এ বিষয়টি নিয়েই আমরা বেশি উদ্বিগ্ন ছিলাম। কারণ যে ধাক্কা লেগেছে, তা সহ্য করার কয়েকগুণ ক্ষমতা সেতুর প্রতিটি পিলারের রয়েছে। তবে ফেরিসহ নৌযানগুলোকে আরও সাবধানতা অবলম্বন করে সেতু এলাকা অতিক্রম করার অনুরোধ থাকবে চালকদের প্রতি।

আরও পড়ুন:
পদ্মা সেতুর পিলারে বার বার ফেরির ধাক্কা কেন?

পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা, থানায় জিডি

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে মন্ত্রণালয়ের একটি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত টিম। পরিদর্শন শেষে ঢাকায় ফিরে নৌ সচিব বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সাধারণ চোখে বড় কোনও ক্ষতি নজরে পড়েনি। সেতু কর্তৃপক্ষও এমন কোনও অভিযোগ করেনি। ফেরির ধাক্কায় সেতুর ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে সেতু কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমাদের কোনও আলাপ বা কথাবার্তা হয়নি।

তিনি জানিয়েছেন, ফেরির ধাক্কায় পিলারের ক্ষতি কতোটুকু গভীর তা সেতু কর্তৃপক্ষই বলতে পারবে। পরিদর্শনে গিয়ে আমরা যে বিষয়টি দেখেছি, সেটি হলো ফেরির সঙ্গে পিলারের ধাক্কা লাগার ঘটনাটিতে চালকের খামখেয়ালিপনা কতটুকু? প্রাথমিকভাবে তাতে আমাদের মনে হয়েছে—নিয়ন্ত্রণ হারিয়েই আসলে ফেরিটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগেছে। এটি অনিচ্ছাকৃত। আমরা চালকদেরকে আরও সতর্ক হয়ে ফেরি চালানোর পরামর্শ দিয়েছি। যদিও সংশ্লিষ্ট চালককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিআইডব্লিউটিএ। 

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সচিব জানিয়েছেন, সেতু এলাকা অতিক্রমকালে অন্যান্য নৌযান চালকদের পিলারের কাছাকাছি নির্দিষ্ট সীমানা ছেড়ে জাহাজ, ফেরি বা নৌযান চালাতে হবে কিনা তা সেতু কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট করবে। যদি করে তাহলে নৌ-যানের চালকরা তা অবশ্যই মানবেন। চালকদেরকে আরও সতর্কতার সঙ্গে ফেরি চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়ারও প্রয়োজন রয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বাংলাবাজার ঘাট থেকে ২৯টি যানবাহন নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে আসার পথে বিআইডব্লিউটিএ’র রো রো ফেরি শাহ জালাল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে আঘাত করে। এর মাত্র তিন দিন আগেও গত মঙ্গলবার রো রো ফেরি শাহ মখদুমও পদ্মা সেতুর ১৬ নম্বর পিলারে ধাক্কা দেয়।

শুক্রবার পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে  ফেরি ‘শাহজালাল’র ধাক্কার ঘটনায় মাদারীপুরের শিবচর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত ১০টার দিকে জিডিটি করেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মোহম্মদ আব্দুল কাদের।

জিডিতে বলা হয়েছে, ফেরি শাহজালাল’র ধাক্কায় পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের পাইল ক্যাপের ওপরের ভাগ ও সাইড ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর আগেও একাধিকবার বিআইডব্লিউটিসির ফেরি পদ্মা সেতুর পিলারে আঘাত হেনেছে। বিআইডব্লিউটিসিকে মৌখিক ও লিখিতভাবে সাবধানতার সঙ্গে ফেরি চালানোর অনুরোধ করেছিল সেতু কর্তৃপক্ষ।  ফেরিটির ফিটনেস ও চালকের যোগ্যতা বা দক্ষতা ছিল কিনা, তা তদন্ত করে দেখার অনুরোধ করা হয়।

পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের সঙ্গে শুক্রবার রো রো ফেরি শাহ্ জালালের ধাক্কার ঘটনায় নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শনিবার সকাল ১০টায় রো রো ফেরি শাহ্ পরানে চড়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী।

এ সময় বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক শাহীনুর রহমান ভূঁইয়া, বিআইডব্লিউটিসির এজিএম আহমেদ আলী, এজিএম রুবেলুজ্জামান ও পদ্মা সেতু বিভাগের সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনা ‘অসতর্কতা’ বলেই মনে করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি)। সংস্থাটি বলছে, পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোতের টানে অনেক সময় ফেরি নিয়ন্ত্রণে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়ে। এছাড়া এই রুটে অনেক পুরনো ফেরি চলছে যেগুলোর অনেক যন্ত্রাংশই বিভিন্ন সময় বিকল হয়ে পড়ে। এতে ফেরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।

এদিকে, পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা দেওয়ার ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বিআইডব্লিউটিসি। তদন্ত কমিটির সদস্য বিআইডব্লিউটিসির এজিএম (মেরিন) আহম্মেদ আলী জানান, অসতর্কতা ও স্রোতের কারণে ফেরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গিয়ে পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা দিতে পারে। তবে অধিকতর তদন্ত করলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের বলেন, ফেরির ধাক্কায় পিলারের কোনও ক্ষতি হয়নি।

/এমআর/

সর্বশেষ

সিরিয়ায় হামলায় তুর্কি সেনা নিহত, আঙ্কারার হুঁশিয়ারি

সিরিয়ায় হামলায় তুর্কি সেনা নিহত, আঙ্কারার হুঁশিয়ারি

লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল দেশে দেশে

লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল দেশে দেশে

ভূমধ্যসাগরে ৫৭৬ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার

ভূমধ্যসাগরে ৫৭৬ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

১৫৫ কিলোমিটার বেগে চীনে আঘাত হানছে টাইফুন 'ইন-ফা'

১৫৫ কিলোমিটার বেগে চীনে আঘাত হানছে টাইফুন 'ইন-ফা'

স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া, পিটিয়ে হত্যার পর ভাসিয়ে দিলেন লাশ

স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া, পিটিয়ে হত্যার পর ভাসিয়ে দিলেন লাশ

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

মাছটি বিক্রি হলো সাড়ে ৪ লাখ টাকায়

মাছটি বিক্রি হলো সাড়ে ৪ লাখ টাকায়

শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ৭০ বছরের বৃদ্ধ গ্রেফতার

শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ৭০ বছরের বৃদ্ধ গ্রেফতার

তালেবানের উত্থান, আফগানিস্তানে কারফিউ জারি

তালেবানের উত্থান, আফগানিস্তানে কারফিউ জারি

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

গণসংগীতের জন্য ফকির আলমগীর স্মরণীয় হয়ে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

গণসংগীতের জন্য ফকির আলমগীর স্মরণীয় হয়ে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

© 2021 Bangla Tribune