X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

এবার গজনি দখলের পথে তালেবান

আপডেট : ১২ জুলাই ২০২১, ২০:২৮

আফগানিস্তানের মধ্যাঞ্চলীয় শহর গজনি দখলের পথে রয়েছে তালেবান। সরকারি বাহিনীর হাত থেকে শহরটির নিয়ন্ত্রণ নিতে এরইমধ্যে চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলেছে তালেবান সদস্যরা। সোমবার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ের জন্য সাধারণ মানুষের বাড়িঘরে ঢুকে পড়েছে বিদ্রোহীরা।

মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনী আফগানিস্তান ছাড়তে শুরু করায় দেশটিতে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছে তালেবান। ইতোমধ্যে দেশের প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র কান্দাহারের দখল নিয়েছে দলটি। ৯ জুলাই শুক্রবার তালেবান জানিয়েছে, আফগানিস্তানের ৮৫ শতাংশ এলাকা এখন তাদের নিয়ন্ত্রণে। একের পর এক এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে তারা। তালেবানের ভয়ে অনেক জায়গায় বিনা প্রতিরোধে মাঠ ছাড়ছে সেনা সদস্যরা। শুধু তাই নয়, অনেকে আবার এলাকা, এমনকি দেশ ছেড়েও পালিয়ে যাচ্ছে। গত ৫ জুলাই সোমবার একদিনেই পালিয়ে প্রতিবেশী তাজিকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছে সহস্রাধিক আফগান সেনা। তাজিকিস্তান ও ইরানের সঙ্গে দুটি সীমান্ত ক্রসিংয়েরও নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান।

একের পর এক এলাকা দখলের ধারাবাহিকতায় এখন গজনির নিয়ন্ত্রণ নিতে চায় দলটি। গজনি প্রাদেশিক কাউন্সিলের একজন সদস্য হাসসান রেজায়ি। তিনি বলেন, গজনি শহরের পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটজনক। তালেবান বেসামরিক লোকজনের ঘরবাড়ি ব্যবহার করছে। তারা নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর গুলিবর্ষণ করছে। এমন পরিস্থিতিতে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষে তালেবানের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা কঠিন হয়ে পড়েছে। সূত্র: রয়টার্স।

/এমপি/এমওএফ/

সম্পর্কিত

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০৫

রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে এগিয়ে রয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দল ইউনাইটেড রাশিয়া। আলেক্সি নাভালনির নেতৃত্বাধীন বিরোধীদের কঠোর হাতে দমনের পর রবিবার তিন দিনব্যাপী নির্বাচনের চূড়ান্ত পর্যায়ের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার বাকি থাকলেও ৬৮ বছরের পুতিনের দলের বিজয় এখন সময়ের অপেক্ষা মাত্র বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

দীর্ঘদিন ধরেই মস্কোর ক্ষমতার মসনদে ইউনাইটেড রাশিয়া। তবে দলটির শাসনামলে রুশ নাগরিকদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন নিয়ে নানা প্রশ্ন রয়েছে। তবে পার্লামেন্ট নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের সম্ভাব্য জয়কে পুতিনের প্রতি জনসমর্থনের প্রমাণ হিসেবে হাজির করা হতে পারে।

৪৫০ আসনের রুশ পার্লামেন্টের প্রায় তিন চতুর্থাংশই ইউনাইটেড রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে। ২০২০ সালে এই সংখ্যাগরিষ্ঠতার বলেই সংবিধানে একটি নতুন সংস্কার আনা হয়। এতে ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও দুই মেয়াদে অর্থাৎ, ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ রাখা হয়। সমালোচকদের মতে, ওই সংস্কার ছিল পুতিনকে আমৃত্যু ক্ষমতায় রাখার একটি অপকৌশল মাত্র।

/এমপি/

সম্পর্কিত

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে চড়া মূল্য দিয়েছে পাকিস্তান: ইমরান খান

যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে চড়া মূল্য দিয়েছে পাকিস্তান: ইমরান খান

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৯

কান্দাহার প্রদেশে তালেবানের পুণ্যের প্রচার ও পাপ দমন কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করা মৌলভী মোহাম্মদ শেবানি জানিয়েছেন, কীভাবে তাদের নৈতিকতা পুলিশ কাজ করবে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন।

নৈতিকতা পুলিশ বাহিনী গঠনের পর অনেকেই আশঙ্কা করছেন তালেবানের প্রথম শাসনামলের অন্ধকার যুগ ফিরে আসার। তবে শেবানি বলছেন তারা, মানুষকে উৎসাহিত করবেন নীতি মানতে, সহিংসতা নয়। তার ভাষায়, আগে আমাদের কোনও লিখিত হ্যান্ডবুক ছিল না, এখন আছে।

সাক্ষাৎকারে শেবানি এই পুলিশবাহিনীর কাঠামো ও কীভাবে কাজ করবে তা তুলে ধরেছেন। তিনি জানান, গত বছর এই বিষয়ে তাদের একটি পকেট হ্যান্ডবুক প্রকাশ করা হয়েছে। এতে পুলিশ সদস্যদের জন্য গাইডলাইন রয়েছে।

হ্যান্ডবুকে যে কোনও আইনভঙ্গের ঘটনায় একাধিক পদক্ষেপ ও প্রক্রিয়ার কথা বলা হয়েছে। প্রথমত তাদের বিষয়টি বোঝানো, পরে আচরণ বদলাতে উৎসাহিত করা। এরপরও তারা যদিনা পাল্টায় তাহলে শক্তি প্রদর্শন একটি উপায় হতে পারে।

গাইডলাইনে চতুর্থ পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, এরপরও কোনও ব্যক্তি নিজের আচরণ না পাল্টায় এবং এতে যদি বড় ধরনের সমস্যা সৃষ্টির আশঙ্কা থাকে তাহলে তাকে হাত দিয়ে থামানো যেতে পারে।

তবে ১৯৯০ দশকে তালেবান শাসনের কয়েকটি কঠোর আইন পুনর্বহাল রাখা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে, নারীদের বাড়ির বাইরে যেতে অবশ্যই একজন পুরুষ অভিভাবক সঙ্গে রাখা, নামাজ আদায় বাধ্যতামূলক এবং পুরুষদের দাড়ির দৈর্ঘ্যের শর্ত।

শিবানি জানান, মার্কিন ও আফগান বাহিনীর সঙ্গে দীর্ঘ লড়াইয়ের সময় তারা একটি পুলিশ ব্যবস্থা গড়ে তুলেছেন। এতে করে নৈতিকতা পুলিশ সদস্যরা নিয়মিত পুলিশ স্টেশনে একীভূত হবে। গ্রামীণ কান্দাহারে ১৮টি জেলা রয়েছে। প্রতিটিতে তার কমিশনের পাঁচ সদস্য রয়েছে।

তিনি বলেন, প্রতিটি এলাকায় প্রধান চারটি চেক পয়েন্ট রয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে প্রতিটিতে একজন করে কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তারা মুজাহিদিন ও মোল্লাদের সঙ্গে কাজ করছেন।

শেবানি বলেন, মানুষ কী করছে তা তারা পর্যবেক্ষণ করছে। মানুষ বেআইনি কিছু করছে কিনা তা আমরা এভাবে জানতে পারব। স্থানীয়দেরও অভিযোগ জানাতে উৎসাহিত করা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আমাদের নম্বর প্রকাশ করা হয়েছে। রেডিওতে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে অপরাধমূলক যে কোনও বিষয়ে আমাদের দ্রুত অবহিত করার জন্য।

তিনি জানান, আপাতত তালেবানের ভয়ঙ্কর টহল দল রাস্তায় নামছে না। তার কথায়, কোনও টহল থাকবে না। আমরা জোর দিয়ে বলতে চাই যে, আমরা কারও বাড়িতে বা সমাবেশে প্রবেশ করব না। তাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা ব্যবহার করব না।

মন্ত্রণালয়ের গাইডলাইনে কারও বাড়িতে পুলিশ সদস্যদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার কথা বলা হয়েছে। কোথাও আইনের লঙ্ঘন হলেও এটি না করতে বলা হয়েছে। গাইডলাইন অনুসারে, কোনও বাড়ি থেকে যদি সংগীত, টেলিভিশন ও বাজনার শব্দ আসে তাহলে তা থামানো উচিত। কিন্তু এটি করার জন্য বাড়িতে প্রবেশ করা যাবে না।

হ্যান্ডবুকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি দান-খয়রাতে উৎসাহিত করার কথা বলা হয়েছে। এমনকি নারীদের অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা, জোর করে বিয়ে ও বিবাহ বিচ্ছেদে নিষেধাজ্ঞার কথা উল্লেখ আছে। তবে এতে যুক্ত করা হয়েছে, কোনও নারী পরিবারের ঘনিষ্ঠজন ছাড়া কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে না এবং তাদের একা বাড়ির বাইরে যাওয়া উচিত না।

এতে বলা হয়েছে, ধৈর্য্যের সঙ্গে হিজাব ও পুরুষ অভিভাবক ছাড়া নারীদের বাইরে বের হওয়া ঠেকাতে হবে।

/এএ/

সম্পর্কিত

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

উচ্চতা কমছে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা জাতির

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৩৮

বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা জাতির দেশ নেদারল্যান্ডস। কিন্ত গত কয়েক দশকে ডাচদের উচ্চতা কমছে। গবেষকরা বলছেন, ১৯৮০ সালে জন্ম নেওয়া ডাচদের চেয়ে ২০০১ সালে জন্ম নেওয়া ডাচরা গড়ে ১ সেন্টিমিটার খাটো হচ্ছে। একই সময়ে মেয়েদের ক্ষেত্রে ১.৪ সেন্টিমিটার কম। এই গবেষণার জন্য নেদারল্যান্ডসের ১৯ থেকে ৬০ বছর বয়সী ৭ লাখ ১৯ হাজার ব্যক্তির তথ্য বিশ্লেষণ করা হয়।

নেদারল্যান্ডসের পরিসংখ্যান দপ্তরের তথ্যমতে, নাগরিকদের গড় উচ্চতা গত শতাব্দীতে পর্যাক্রমে বাড়লেও ১৯৮০ সালের দিকে তা বন্ধ হয়ে যায়। মূলত ২০০০ হাজার সালের পর থেকে ডাচদের গড় উচ্চতা কমতে শুরু করে।

উচ্চতা কমার পেছনে অভিবাসন ও অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসকে দায়ী করা হচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেও এমনটা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইম্পেরিয়াল কলেজের গ্লোবাল এনভায়রনমেন্ট হেলথের প্রধান অধ্যাপক মাজিদ বলেছেন, ডাচদের উচ্চতা সত্যিই কমছে কি না, তা নিশ্চিত হতে আরও কয়েক বছর লেগে যাবে। তিনি বলেন, সত্যই যদি ডাচরা খাটো হতে থাকে, তাহলে এর প্রধান কারণ পুষ্টি

তবে উচ্চতা কমার বিষয়টি সামনে আসলেও, এখনও বিশ্বের উঁচু জাতির তালিকায় ডাচদের নামই রয়েছে। 

 

/এলকে/

সম্পর্কিত

পশ্চিম ইউরোপে নজিরবিহীন বন্যা, মৃত্যু বেড়ে ১৭০

পশ্চিম ইউরোপে নজিরবিহীন বন্যা, মৃত্যু বেড়ে ১৭০

নেদারল্যান্ডসের প্রখ্যাত সাংবাদিককে গুলি, অবস্থা সংকটাপন্ন

নেদারল্যান্ডসের প্রখ্যাত সাংবাদিককে গুলি, অবস্থা সংকটাপন্ন

রানওয়ে ছেড়ে ভবনে ধাক্কা খেলো এফ-১৬ যুদ্ধবিমান

রানওয়ে ছেড়ে ভবনে ধাক্কা খেলো এফ-১৬ যুদ্ধবিমান

১৬ কোটি টাকা ভাতা নিতে অস্বীকৃতি ডাচ রাজকুমারীর

১৬ কোটি টাকা ভাতা নিতে অস্বীকৃতি ডাচ রাজকুমারীর

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:১৫

তালেবান নেতা মৌলভী মোহাম্মদ শেবানি সরকারিভাবে কান্দাহারের নৈতিকতা পুলিশের দায়িত্বে রয়েছেন। এটিই তালেবানের সবচেয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি ও জন্মস্থান। তিনিই হলেন প্রদেশটির পুণ্যের প্রচার ও পাপ দমন কার্যালয়ের প্রধান। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি সংস্থার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেছেন।

তালেবান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় বিলুপ্ত করে এই পাপ-পুণ্য মন্ত্রণালয় গড়ে তুলেছে। এই মন্ত্রণালয় তাদের আগের শাসনামলে কঠোর ধর্মীয় বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের দায়িত্বে ছিল। ফলে অনেকেই তালেবানের সেই সময়কার শাসন ফিরে আসার আশঙ্কা করছেন।

শেবানি জানান, তালেবান পুলিশবাহিনী, মসজিদ ও মাদ্রাসার সঙ্গে তাদের নেটওয়ার্ক রয়েছে। এছাড়া তাদের অভিযান পরিচালনার নির্দিষ্ট বিধি আছে, যা ইতোমধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি বলেন, আগের সময়ের সঙ্গে এখনকার পার্থক্য হলো আগে আমাদের নীতিবিষয়ক কোনও নির্দিষ্ট বই ছিল না। তখন কোনও লিখিত নীতি ছাড়াই মুজাহিদিনরা কাজ করেছেন।

তিনি আশ্বাস দিয়েছেন, তার বাহিনীর সদস্যরা আইন মানতে মানুষকে উৎসাহিত করবে, সহিংসতা নয়।

শেবানি বলেন, অনেকে মনে করে আমরা চরমপন্থী। কিন্তু আমরা তা নই। ইসলাম হলো আধুনিকতার ধর্ম, কিন্তু খুব বেশি বা কম না, সঠিকমাত্রায়। মিডিয়াগুলো আমাদের সম্পর্কে নেতিবাচক খবর প্রকাশ করছে। তাদেরকে সত্য জানতে দিন।

তার কথায়, শুরুতে আমরা নীতির বিষয়ে মানুষকে অবগত করতে চাই। অনেক ছোট বিষয় রয়েছে যেগুলো নিয়ে আমরা কিছু বলছি না। কারণ আমরা চাই না মানুষ আতঙ্কে থাকুক।

/এএ/

সম্পর্কিত

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে চড়া মূল্য দিয়েছে পাকিস্তান: ইমরান খান

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৩৩

আফগানিস্তান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে পাকিস্তানকে চড়া মূল্য দিতে হয়েছে। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম আরটি-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তিনি বলেন, ‘আফগানিস্তান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রকে সমর্থন দেওয়া ছিল পাকিস্তানের জন্য একটি বড় ধরনের ভুল সিদ্ধান্ত। এ জন্য আমাদের চড়া মূল্য দিতে হয়েছে।‌‌’

২০২১ সালের ১৫ আগস্ট প্রায় বিনা বাধায় কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিমানভর্তি অর্থ নিয়ে দেশ ছেড়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পালিয়ে যান তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী আশরাফ গণি। এর কিছু দিনের মাথায় দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে নিজ দেশের সেনাদের ফিরিয়ে নেয় যুক্তরাষ্ট্র।

অভিযোগ রয়েছে, তালেবানের এমন উত্থানে সহায়তা দিয়েছে পাকিস্তান। সম্প্রতি মার্কিন সিনেটেও দেশটির ব্যাপারে এমন অভিযোগ উঠে। এ প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেন, ‘আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের পরাজয়ের দায় পাকিস্তানের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এটি অত্যন্ত পীড়াদায়ক। একজন পাকিস্তানি হিসেবে মার্কিন সিনেটরদের বক্তব্য আমার ভালো লাগেনি। আমি গভীরভাবে মর্মাহত।’

ইমরান খান বলেন, আফগানিস্তান ইস্যুতে তার দেশ যুক্তরাষ্ট্রকে দুই দফায় সহায়তা করেছে। প্রথমে আশির দশকে, যখন তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন আফগানিস্তানে আগ্রাসন চালিয়েছিল। ওই সময় যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে সোভিয়েতবিরোধী লড়াইয়ের জন্য মুজাহিদিনদের প্রশিক্ষণ দেয় পাকিস্তান।

২০০১ সালে আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযানের সময় পাকিস্তানের ক্ষমতায় ছিলেন জেনারেল পারভেজ মোশাররফ। সদ্য ক্ষমতা দখল করা ওই সেনা শাসকের জন্য মার্কিন সমর্থন অপরিহার্য ছিল। আফগানিস্তানে অভিযান সফল করতে যুক্তরাষ্ট্রেরও ইসলামাবাদকে প্রয়োজন ছিল।

ইমরান খান বলেন, ‘সবচেয়ে বড় মুশকিলটা বাধে এখানেই। যে মুজাহিদিনদের আইএসআই প্রশিক্ষণ দিয়েছিল, একটা সময়ে এসে তাদেরই ফের একই আইএসআই-এর তরফ থেকে বলা হলো, যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধের মানে হচ্ছে সন্ত্রাসবাদ। মুজাহিদিনরা তখন ইসলামাবাদ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়। তারা পাকিস্তানকেও যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগী হিসেবে বিবেচনা করতে আরম্ভ করে। এখানে আমেরিকাকে সহায়তা করতে গিয়ে পাকিস্তান নিজে বিপদে পড়েছে। এর জন্য ইসলামাবাদকে এখনও ভুগতে হচ্ছে।‌‌’

/এমপি/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

যেভাবে ‘পুণ্যের প্রচার ও পাপ ঠেকাবে’ তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে চড়া মূল্য দিয়েছে পাকিস্তান: ইমরান খান

যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থাকতে গিয়ে চড়া মূল্য দিয়েছে পাকিস্তান: ইমরান খান

মেয়েদের স্কুলে যেতে না দেওয়ায় পাল্টা বার্তা দিলো শিশুরা

মেয়েদের স্কুলে যেতে না দেওয়ায় পাল্টা বার্তা দিলো শিশুরা

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

‘কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্যালেসে বারাদারকে ঘুসি মেরেছিলেন হাক্কানি’

‘কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্যালেসে বারাদারকে ঘুসি মেরেছিলেন হাক্কানি’

আফগান মেয়েদের স্কুল থেকে বাদ দেওয়া উচিত না: ইউনিসেফ

আফগান মেয়েদের স্কুল থেকে বাদ দেওয়া উচিত না: ইউনিসেফ

সর্বশেষ

না ফেরার দেশে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী তারকা

না ফেরার দেশে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী তারকা

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

রাশিয়ার নির্বাচনে এগিয়ে পুতিনের দল

আজ থেকে প্রতিদিন ৪ ঘণ্টা সিএনজি স্টেশন বন্ধ

আজ থেকে প্রতিদিন ৪ ঘণ্টা সিএনজি স্টেশন বন্ধ

আইসিটি আইনের মামলায় বিএনপি সমর্থিত ১১ আইনজীবীর জামিন

আইসিটি আইনের মামলায় বিএনপি সমর্থিত ১১ আইনজীবীর জামিন

বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বিমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট চার্জ ফ্রি

বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বিমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট চার্জ ফ্রি

© 2021 Bangla Tribune