X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ভুল সিগন্যালে ট্রেনের ধাক্কায় দুই কিমি গড়িয়ে গেলো ১০টি ওয়াগন

আপডেট : ১৭ জুলাই ২০২১, ১১:৫৭

যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া রেলস্টেশনের ২ নম্বর লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ১০টি ওয়াগনকে ধাক্কা দিয়েছে মালবাহী একটি ট্রেন। এতে মালবাহী ট্রেনের দুটি ওয়াগন লাইনচ্যুত এবং দাঁড়িয়ে থাকা ফ্লাই অ্যাশ বোঝাই ১০টি ওয়াগন প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে চলে যায়।

শনিবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে নওয়াপাড়া রেলস্টেশনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ঢাকা থেকে খুলনাগামী চিত্রা এক্সপ্রেস এবং চিলাহাটি থেকে খুলনাগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেন প্রায় তিন ঘণ্টা আটকে থাকে।

নওয়াপাড়া রেলস্টেশন সূত্র জানায়, ভোরে স্টেশনের সামনে দুই নম্বর লাইনে ভারত থেকে আসা ফ্লাই অ্যাশ বোঝাই ১০টি ওয়াগন দাঁড়িয়ে ছিল। ওয়াগনগুলোতে কোনও ইঞ্জিন সংযোগ ছিল না। এ সময় যশোর সদরের সিঙ্গিয়া থেকে একটি মালবাহী ট্রেন খুলনার দিকে যাচ্ছিল। ভুল সিগন্যালের কারণে মালবাহী ট্রেনটি দুই নম্বর লাইনে ঢুকে দাঁড়িয়ে থাকা ওয়াগনগুলোকে ধাক্কা দেয়।

এতে মালবাহী ট্রেনের দুটি ওয়াগন লাইনচ্যুত হয়ে ৩ নম্বর লাইনের ওপর গিয়ে পড়ে। একই সঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকা ওয়াগনগুলো চলতে শুরু করে। প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে উপজেলার তালতলায় গিয়ে ওয়াগনগুলো থেমে যায়। খুলনা থেকে রিলিফ ট্রেন এনে ওয়াগনগুলো স্টেশনে ফিরিয়ে আনতে এবং লাইনচ্যুত খালি ওয়াগন দুটি উদ্ধারের কাজ শুরু হয়। সকাল ৮টার দিকে স্টেশনের ৩ নম্বর লাইন স্বাভাবিক হয়।

নওয়াপাড়া রেলস্টেশনের মাস্টার বুলবুল আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,
দুর্ঘটনার কারণে খুলনাগামী দুটি ট্রেন আটকে ছিল। লাইন ক্লিয়ার করার পর সকাল ৮টার দিকে ট্রেন দুটি খুলনার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বর্তমানে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৮

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার দয়ারামদি গ্রামে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামী মনির হোসেন বাবুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের দয়ারামদি গ্রামের মৃত আলী আহমদের ছেলে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) দুপুরে জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক সালেহ আহমেদ এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডিত আসামি মনির হোসেন বাবুকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার নথি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১ মে কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের দয়ারামদি গ্রামের শ্বশুর বাড়ি থেকে গৃহবধূ নাজমা আক্তার ওরফে নাজুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে, ৩০ এপ্রিল দিবাগত রাতে আসামি তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। ওই দিন রাতে মনির হোসেন বাবু এলাকার স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে গিয়ে তার স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার করে। এরপর সেখান থেকে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই নিহতের বড় ভাই বাদী হয়ে বোনের স্বামীকে আসামি করে কবিরহাট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, তার বোনকে যৌতুকের দাবিতে হত্যা করা হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করে আসামি বাবুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কবিরহাট থানার এসআই মাসুদ আলম পাটোয়ারী। অভিযোগ পত্রে বলা হয়, যৌতুকের দাবিতে নয়, এক নারীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে আসামি মনির হোসেন বাবু তার স্ত্রীকে হত্যা করেন।

মামলা সূত্রে আরও জানা যায়, বিয়ের আগে থেকে বাবুর সঙ্গে একই এলাকার এক তরুণীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এর জের ধরেই স্ত্রী নাজমাকে হত্যা করেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন জেলা দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট গুলজার আহমেদ জুয়েল এবং আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন জুয়েল।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৬

কক্সবাজার সৈকতের সুগন্ধা সড়কের উত্তর পাশে আবারও অবৈধ স্থাপনা তৈরি করছে দখলদাররা। রাতারাতি পলিথিন ও বাঁশ দিয়ে নির্মাণ করেছে দোকানপাট। সেখানে দোকান বরাদ্দের নামে ইতোমধ্যে চক্রটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

দখলবাজির বিষয়টি জেলা প্রশাসনের নজরে আসলে অভিযানে নামে শক্তিশালী টিম। সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে সেখানে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজের নেতৃত্বে অভিযানকালে দখলদাররা পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, হাজী জসীম উদ্দিন সিদ্দিকী নামে এক ব্যক্তি এই দখলে নেতৃত্ব দেন। তার সিন্ডিকেটে রয়েছে আরও চল্লিশ জনের মতো। অর্ধশতাধিক শ্রমিক দিয়ে রাতারাতি তারা পলিথিন ও বাঁশ দিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। দোকান দেওয়ার কথা বলে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে দখলদার চক্রটি।

উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের নির্দেশে ২০২০ সালের ১৭ অক্টোবর কক্সবাজারের সুগন্ধা পয়েন্টে ৫২টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসনের যৌথ অভিযানকালে দখলদারদের সঙ্গে সংঘর্ষে পুলিশ, সাংবাদিকসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। এ ঘটনায় দখলদারদের বিরুদ্ধে মামলা করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-কউক। বছরের মাথায় আবারও সেই একই স্থানে দোকানপাট নির্মাণ শুরু করে চিহ্নিত চক্রটি।

সুগন্ধা পয়েন্টের ওই অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ২০১৮ সালের ১০ এপ্রিল নোটিশ দেয়। এরপর ব্যবসায়ীরা রিট করলে ২০১৮ সালের ১৬ এপ্রিল হাইকোর্ট রুল জারি করে উচ্ছেদে স্থগিতাদেশ দেন। এর বিরুদ্ধে ভূমি মন্ত্রণালয় ও রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করে।

পরে, গত বছরের ১ অক্টোবর ওই স্থাপনা উচ্ছেদে হাইকোর্টের দেওয়া রুল ও স্থগিতাদেশ খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ। ভূমি মন্ত্রণালয় ও রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ভার্চুয়াল আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন। ফলে ওই ৫২টি স্থাপনা উচ্ছেদে কোনও বাধা না থাকায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে সুগন্ধা পয়েন্টের এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১২

বঙ্গোপসাগরের সুন্দরবন উপকূলসংলগ্ন দুবলারচরে মাছ ও শুঁটকি আহরণ শুরু হচ্ছে। ঝড়-জলোচ্ছ্বাস, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও জলদস্যু আতঙ্ক মাথায় নিয়ে সোমবার দিবাগত রাত ১২টার পর মোংলার পশুর নদীর চিলা মোহনা থেকে জাল, নৌকা ও শুঁটকি তৈরির উপকরণ নিয়ে চরাঞ্চলে রওনা হবেন হাজারো জেলে। শুঁটকি মৌসুম ঘিরে এবছর দুবলারচরে ৩০ হাজার জেলে-ব্যবসায়ী ও শ্রমিকের সমাগম ঘটবে বলে আশা করছে বন বিভাগ।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এবার দুবলারচরের শুঁটকিসহ সুন্দরবন বিভাগ থেকে ছয় কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। মাছ আহরণ ও শুঁটকি তৈরির জন্য দুবলারচর, আলোরকোল, মেহের আলী এবং শ্যালারচরসহ কয়েকটি চর তারা নির্ধারণ করেছে।

২২ দিন ইলিশসহ সব ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ থাকায় এবার কিছুটা দেরিতে শুরু হচ্ছে মৎস্য আহরণ ও শুঁটকি প্রক্রিয়ার কাজ। আগামী চার মাস মোংলা, রামপাল, খুলনা, সাতক্ষীরা, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী ও বরিশালসহ সুন্দরবন উপকূলের হাজারো জেলে মাছ আহরণ ও শুঁটকি তৈরির জন্য সাগরপাড়ে অস্থায়ী বসতি গড়বেন। এ ছাড়া চট্টগ্রাম অঞ্চলের জেলে ও মৎস্যজীবীরাও যাবেন দুবলারচরে। 

মৌসুমের শুরুতেই রাজস্ব আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে বন বিভাগ। মোংলা থেকে নদীপথে দুবলারচরের জেলেপল্লির দূরত্ব প্রায় ১২০ কিলোমিটার। পল্লির সব কর্মকাণ্ড জেলে ও মৎস্যজীবীদের ঘিরে। সুন্দরবনের অভ্যন্তরে ১৩টি মৎস্য আহরণ, প্রক্রিয়াকরণ ও বাজারজাতকরণ কেন্দ্র নিয়ে গঠিত দুবলা জেলেপল্লি।

জেলেদের অভিযোগ, আগে দুবলারচরে যাওয়ার পথে এবং গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে গেলে দস্যুদের কবলে পড়ে সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসতে হতো। কিন্তু বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টায় এখন সুন্দরবন দস্যুমুক্ত হলেও ভিনদেশি জেলে ও দস্যুদের উৎপাত বেড়েছে। জেলেদের জিম্মি করে মুক্তিপণ কিংবা মারধর করে মাছ লুট করে নিয়ে যায় তারা।

গত ৪ অক্টোবর থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। বাংলাদেশি জেলেরা ইলিশ ধরা বন্ধ রাখলেও ভারতীয় জেলেরা চুরি করে ধরেছে। তারা ভারতীয় সীমানা পেরিয়ে বাংলাদেশের সীমানায় ঢুকে ট্রলার দিয়ে ইলিশ ধরে নিয়ে গেছে। চলতি মৌসুমে জেলেরা যাতে সাগরে নির্বিঘ্নে মাছ শিকার ও শুঁটকি তৈরি করতে পারেন সে জন্য প্রশাসনকে নজরদারি বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন জেলে ও মহাজনরা।

মৎস্যজীবীদের সংগঠন ‘দুবলা ফিশারম্যান গ্রুপে’র সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন বলেন, ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাস ও ভিনদেশি জেলেদের উৎপাতের শঙ্কা মাথায় নিয়ে উপকূলীয় অঞ্চলের জেলেরা মাছ ও শুঁটকি আহরণের জন্য সমুদ্রে যাত্রা করছেন। তাই তাদের নিরাপত্তা দিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে অনুরোধ জানাই।

কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের (মোংলা সদরদফতর) অপারেশন কর্মকর্তা লে. কমান্ডার শেখ মেজবাহ উদ্দিন আহাম্মেদ বলেন, সুন্দরবন এবং সাগর এলাকায় সবসময় দস্যু দমন বনসম্পদ ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে অভিযান অব্যাহত থাকে। তবে সাগরে শীতকালীন মৎস্য আহরণের জন্য যাত্রা করা জেলেরা যাতে নির্বিঘ্নে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারেন, সে জন্য মোংলা থেকে দুবলারচর পর্যন্ত কোস্টগার্ডের টহল অব্যাহত থাকবে। শুঁটকি প্রক্রিয়াকরণের জন্য জেলেদের বাড়তি নিরাপত্তা দেওয়া হবে।

প্রতিবছর শীত মৌসুমে সুন্দরবনের সাগর পাড়ের দুবলা, মেহের আলীর চর, আলোরকোল, অফিস কিল্লা, মাঝের কিল্লা, শেলার চর, নারিকেলবাড়িয়া, ছোট আমবাড়িয়া, বড় আমবাড়িয়া, মানিক খালী, কবরখালী, চাপড়াখালীর চর, কোকিলমনি ও হলদাখালীর চরে হাজার হাজার জেলে ও মৎস্যজীবী জড়ো হন। এসব চরে অবস্থান নিয়ে জেলেরা সমুদ্র মোহনায় মৎস্য আহরণ করেন। পাশাপাশি নিজেদের থাকা ও শুঁটকি তৈরির জন্য অস্থায়ী ঘর তৈরি করেন। জেলেরা বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করে শুঁটকি করার পর তা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এমনকি বিদেশেও পাঠান।

/এএম/

সম্পর্কিত

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৯

কুমিল্লার চান্দিনায় ট্রাকচাপায় মো. সালমান (৮) নামের এক মাদ্রাসাছাত্র নিহত হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া বাস স্টেশন এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহত সালমান চান্দিনা উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। সে বসন্তপুর খাদিজা (রা.) আদর্শ মাদ্রাসার ছাত্র ছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা জামাল জানান, সালমান তার চাচা তোফাজ্জলের সঙ্গে রাস্তা পার হচ্ছিলো। এ সময় দাঁড়িয়ে থাকা ছোট মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয় বালুবাহী একটি ট্রাক। ওই মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে ছিটকে পড়ে সালমান। তারপর বালুবাহী ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই সালমান নিহত হয়। আহত হন চাচা তোফাজ্জল হোসেনও। তাকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ ইলিয়টগঞ্জ ফাঁড়ির এসআই মো. শাকিল আহমেদ বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত মাইক্রো ও ট্রাক আটক করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

সিনহা হত্যা মামলা: এসআই আমিনুলসহ ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

‘জুড়ীতে সাফারি পার্ক হলে পাহাড়-জীববৈচিত্র্য রক্ষা পাবে’

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৪

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক স্থাপনের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা প্রতিবেদন অনুমোদন করেছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়।  

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ সংক্রান্ত সভায় রিপোর্টে কিছু পর্যবেক্ষণ অন্তর্ভুক্তি সাপেক্ষে অনুমোদন দেওয়া হয়। 

সভায় পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, সাফারি পার্কের প্রস্তাবিত এলাকায় অনেক জায়গা অবৈধ দখলে চলে গেছে। এখানে সাফারি পার্ক নির্মিত হলে আর কেউ অবৈধ অনুপ্রবেশ করতে পারবে না। ফলে এখানকার পাহাড় ও জীববৈচিত্র্য রক্ষা পাবে। বর্তমানে প্রস্তাবিত লাঠিটিলার জড়িছড়া ও লালছড়া গ্রামের ২৭০ একর সাফারি পার্ক এলাকায় অবৈধভাবে বসবাসকারী ৩৭টি পরিবারকে স্থানান্তরের জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। জাতির পিতার নামে নির্মিতব্য সাফারি পার্কের মহাপরিকল্পনা ও ডিপিপি প্রণয়নের কাজ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী, অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার ভৌমিক, অতিরিক্ত সচিব কেয়া খান, বন অধিদফতরের প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী এবং সম্ভাব্যতা যাচাই কমিটির প্রধান তপন কুমার দেসহ মন্ত্রণালয় ও বন অধিদফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

দুই মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ যুবকের

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

নড়াইলে অস্ত্র মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

বাঁশ কাটায় প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

বাঁশ কাটায় প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো দুই স্কুলছাত্রের

ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো দুই স্কুলছাত্রের

ভাইয়ের মৃত্যুর দোয়া অনুষ্ঠান শেষে ফেরা হলো না বোনের

ভাইয়ের মৃত্যুর দোয়া অনুষ্ঠান শেষে ফেরা হলো না বোনের

জানাজায় যাওয়ার পথে প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

জানাজায় যাওয়ার পথে প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

সর্বশেষ

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

প্রোগ্রামারের বিরুদ্ধে ফেসবুকের মামলা

প্রোগ্রামারের বিরুদ্ধে ফেসবুকের মামলা

‘কখনও শুনতে হয়নি, পাকিস্তান যাও’, সামির ট্রল নিয়ে ইরফান 

‘কখনও শুনতে হয়নি, পাকিস্তান যাও’, সামির ট্রল নিয়ে ইরফান 

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

© 2021 Bangla Tribune