X
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ট্রেনের ভেতর কোমর পানিতে আটকা পড়লেন যাত্রীরা

আপডেট : ২১ জুলাই ২০২১, ০১:৫৯

চীনের একটি সাবওয়ে ট্রেনে কোমর উচ্চতার পানিতে আটকা পড়া যাত্রীদের উদ্ধারে অভিযান চলছে। মঙ্গলবার এই যাত্রীরা মধ্যাঞ্চলীয় হেনান প্রদেশের ঝেংঝু যাচ্ছিলেন ট্রেনে। পথে ক্রমশ বাড়তে থাকা বন্যার পানিতে ট্রেনটিসহ যাত্রীরা আটকা পড়েন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে।

সম্প্রতি ভারী বৃষ্টিপাতে বন্যা দেখা দিয়েছে হেনান প্রদেশে। বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে অনেক শহর। রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, অন্তত একজনের মৃত্যু ও দুজন নিখোঁজ রয়েছেন। মঙ্গলবার ঝেংঝু শহরের পুরো সাবওয়ে ব্যবস্থা করতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে, ট্রেনের সিটে যাত্রীরা উঠে দাঁড়িয়ে চেষ্টা করছেন পানির ওপরে থাকার জন্য। ধারণা করা হচ্ছে, বৃষ্টির পানি ভূগর্ভস্থ টানেল ও ট্রেনে প্রবেশ করেছে।

জরুরি সেবার কর্মীরা স্থানীয় সময় সাড়ে আটটার (১২টা ৩৫ জিএমটি) সময় ঘটনাস্থলে হাজির হন এবং এক এক করে যাত্রীদের উদ্ধার করেন।

কতজন যাত্রী আটকা পড়েছেন তা জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে প্রায় ৩০০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ওয়েইবোতে শিয়াওপেই নামের এক ব্যক্তি সহযোগিতার অনুরোধ জানিয়ে লিখেছেন, বগির পানি আমার বুক পর্যন্ত উঠে এসেছে। আমি এখন আর কথা বলতে পারছি না। 

হেনানের দমকল বিভাগ নিশ্চিত করেছে এই ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, পানির উচ্চতা কমে গেছে। 

শহরের কয়েকটি সাবওয়ে স্টেশনে পানি দেখা গেছে।

হেনান প্রদেশে ৯ কোটির বেশি মানুষের বসবাস। এবার সেখানে অস্বাভাবিক বৃষ্টির মওসুম দেখা দিয়েছে। ১৬ জুলাই হতে এখন পর্যন্ত ১০ হাজারের বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

/এএ/

সম্পর্কিত

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০৬:১৮
image

দুই সপ্তাহ আগে নিজ বাড়িতে খুন হওয়া হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোইসির শেষকৃত্যে অনুষ্ঠানে বিঘ্ন ঘটিয়েছে গুলির শব্দ। গুলির শব্দ শোনার পর আগেভাগেই অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য প্রতিনিধিরা। প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যে অন্যান্যের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার স্ত্রী এবং তিন সন্তান। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ক্যারিবীয় দেশ হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোইসি নিজ বাড়িতে খুন হন। দেশটির অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী ক্লদে জোসেফ জানান, ভোর রাতে একদল ঘাতক প্রেসিডেন্টের বেসরকারি বাসভবনে গুলি করে তাকে হত্যা করে। হামলায় গুরুতর আহত ফার্স্টলেডিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালে চিকিৎসা নেন তিনি।

জোভেনেল মোইসির শেষকৃত্যে তার স্ত্রী বলেন, ‘বিচার চাই। প্রতিশোধ চাই না আমরা বিচার চাই।’ প্রেসিডেন্টের কফিন বহন করে সামরিক বাহিনীর পোশাক পরিহিত ব্যক্তিরা। সাদা ফুলে সজ্জিত কফিন মোড়ানো হয় হাইতির জাতীয় পতাকা দিয়ে। একজন রোমান ক্যাথলিক যাজক শেষকৃত্য পরিচালনা করেন। তবে হাইতিতে চলে আসা অস্থিরতা থেকে বাদ যায়নি এই শেষকৃত্য অনুষ্ঠানও।

শেষকৃত্য অনুষ্ঠানস্থলের বাইরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিক্ষোভকারীরা। অনুষ্ঠানস্থলেও পাওয়া গেছে টিয়ার গ্যাসের গন্ধ। তবে কেউ আহত হয়নি বলেও জানা গেছে। বিক্ষোভকারীদের ক্ষোভের মুখে পড়েন বেশ কয়েক জন কর্মকর্তা। পুলিশ প্রধান লিওন চার্লসকে হত্যাকারী আখ্যা দেন বিক্ষোভকারীরা।

জোভেনেল মোইসিকে হত্যার জন্য একটি গ্রুপকে দায়ী করেছে হাইতির পুলিশ। এই গ্রুপে ২৬ জন কলম্বিয়ার নাগরিক এবং দুই জন হাইতির বংশোদ্ভূত আমেরিকান নাগরিক রয়েছে। এর মধ্যে অন্তত ২০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে তিন জন আর এখনও পলাতক রয়েছে আরও পাঁচজন।

২০১৭ সাল থেকে হাইতির প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছিলেন জোভেনেল মোইসি। দুর্নীতিতে অভিযুক্ত এই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

আমিরাতের এজেন্ট হয়ে কাজের অভিযোগে ট্রাম্প উপদেষ্টা গ্রেফতার

আমিরাতের এজেন্ট হয়ে কাজের অভিযোগে ট্রাম্প উপদেষ্টা গ্রেফতার

‘সবচেয়ে সেরা দিন’, মহাকাশ ঘুরে জেফ বেজোস

‘সবচেয়ে সেরা দিন’, মহাকাশ ঘুরে জেফ বেজোস

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০৪:৩৮
image

গত সপ্তাহের প্রবল বন্যায় কবলিত একটি গ্রামে রিপোর্টিংয়ের সময় পোশাকে লাগা কাঁদার গন্ধ শুঁকার সময় ভিডিওতে ধরা পড়ার পর ক্ষমা চেয়েছেন এক জার্মান উপস্থাপক। ওই শহর থেকে পরিষ্কার কাপড়ে রিপোর্টিংয়ের জন্য লজ্জা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন সুসানা ওহেলান (৩৯) নামের এই সাংবাদিক। সম্প্রচারমাধ্যম আরটিএল জানিয়েছে, ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ার পর স্টান্ডার্ড ভঙ্গ করায় এই সাংবাদিককে বরখাস্ত করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাতে জার্মানির নর্থ রাইন-ওয়েস্টফালিয়ার ব্যাড মানস্ট্রিফিলে ভয়াবহ বন্যায় বহু বাড়িঘর বিধ্বস্ত এবং অনেকে নিহত হয়। ওই এলাকায় রিপোর্টিংয়ে যান সুসানা ওহেলান। তিনি দাবি করেছেন, গত সোমবার আরটিএল এর গুড মর্নিং জার্মানি অনুষ্ঠান ধারণের আগে উদ্ধার তৎপরতায় সহায়তা করেছেন। তবে সরাসরি সম্প্রচারে যাওয়ার আগে পোশাকে লেগে যাওয়া কাঁদায় বিরক্ত হয়ে গন্ধ শোঁকেন তিনি। সুসেলান ওহেলান জানিয়েছেন কোনও চিন্তা ছাড়াই এই কাজ করে তিনি লজ্জিত।

পোশাকে লাগা কাঁদা হাতে লেগে যাওয়ার পর তা নিয়ে বিরক্ত হতে দেখে এক প্রত্যক্ষদর্শী ভিডিও ধারণ করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওটি প্রকাশ করার পর তা দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়।

নিজের কর্মকাণ্ডের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে এক বিবৃতিতে সুসান ওহেলান বলেছেন তার মাধ্যমে এটা ঘটা উচিত হয়নি। আরটিএল জানিয়েছে, ভিডিওটি মনোযোগ আকর্ষণ করার পর ওহেলানকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আর কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা তা এখনও জানায়নি সম্প্রচারমাধ্যমটি।

গত কয়েক দশকের মধ্যে জার্মানিতে ভয়াবহ বন্যায় ১৭০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতি হয়েছে শত শত কোটি ডলারের। উদ্ধার তৎপরতা এখনও চললেও নিখোঁজ রয়েছে আরও বহু মানুষ। ভয়াবহ এই বন্যার জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করেছেন ইউরোপীয় নেতারা। জার্মানি ছাড়াও নেদারল্যান্ডস, লুক্সেমবার্গ এবং সুইজারল্যান্ডেও বন্যা হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

প্রবল বর্ষণে মহারাষ্ট্রে মৃত বেড়ে ১১০

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০২:৪২
image

প্রবল বর্ষণে ভূমিধস ও বন্যায় ভারতের মহারাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১০ জনে দাঁড়িয়েছে। ভারি বৃষ্টিতে রাজ্যটির শত শত গ্রাম প্লাবিত হয়ে পড়েছে। উদ্ধারকারীরা বেঁচে থাকাদের সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে গেলেও এখনও বহু মানুষ নিখোঁজ রয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেনাবাহিনী উদ্ধার তৎপরতায় সহায়তা করলেও কঠিন পরিস্থিতিতে তা ব্যাহত হচ্ছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মৌসুমি বৃষ্টিপাতে নাকাল ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্য। এরমধ্যে পশ্চিমাঞ্চলীয় মহারাষ্ট্রে টানা বৃষ্টিপাতে বন্যা দেখা দিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই চরম আবহাওয়া বেশি নিয়মিত ঘটনা হয়ে উঠছে।

শুক্রবার ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভূমিধস ও বন্যায় বেশিরভাগ মৃত্যুই ঘটেছে মহারাষ্ট্রের দুইটি জেলায়। ভারতের আর্থিক রাজধানী মুম্বাইয়ের দক্ষিণ-পূর্বের একটি ছোট গ্রামে ভূমিধসে নিহত হয়েছে ৩৮ জন।

জরুরি বৈঠক করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে। আক্রান্তদের দ্রুত সহায়তা পাঠাতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। যেসব বাঁধ উপচে পড়ছে সেগুলো খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে আক্রান্তদের সরিয়ে নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

দুর্গম এলাকায় উদ্ধার অভিযান চালাতে পাঠানো হয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী ও দুর্যোগ মোকাবিলা দল। সেতু ও মোবাইল টাওয়ার বিধ্বস্ত হয়ে যাওয়ায় সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে একটি উপকূলীয় জেলা। আটকে পড়া বাসিন্দাদের শনাক্তের সুবিধার্থে বাড়ির ছাড়ে উঠে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে শুক্রবার মুম্বাইয়ে একটি ভবন ধসে পড়ে দুই জন নিহত এবং আরও দশ জন আহত হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে ট্রেন যাত্রা। শহরের নিম্নাঞ্চল বন্যা কবলিত এলাকায় পরিণত হয়েছে।

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন আগাম পাঁচদিন ভারি বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে। মুম্বাইয়ে ভারি বৃষ্টিপাত অস্বাভাবিক নয়। মৌসুমি বৃষ্টিপাতের সময় শহরটিতে প্রতিবছরই বন্যা হয় তবে বিগত কয়েক বছরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বেড়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০১:২১
image

জলবায়ু সংকট সংক্রান্ত সমস্যা মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ দিয়েছে গ্রিসের রাজধানী এথেন্স কর্তৃপক্ষ। তাপপ্রবাহ, ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রা বৃদ্ধি এবং চরম আবহাওয়া থেকে মানুষকে সুরক্ষা দিতে শুক্রবার এই নিয়োগ দিয়েছেন এথেন্সের মেয়র। ইউরোপে এই ধরনের নিয়োগ এটাই প্রথম। এর আগে বিশ্বের প্রথম হিসেবে এই বছরের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার মিয়ামি-দাদে কাউন্টিতে এই কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এথেন্সের মেয়র হিসেবে কোসটাস বাকোয়ান্নিস মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ দিয়েছেন। এই নিয়োগ পেয়েছেন এলেনি মাইরিভিলি। তিনি বলেন, আমরা বৈশ্বিক উষ্ণতা নিয়ে বিগত কয়েক দশক ধরে কথা বলে আসছি, তবে তাপ নিয়ে খুব বেশি কথা হয়নি।’

মুখ্য হিট অফিসার হিসেবে মাইরিভিলির কাজ হবে ভবনে এয়ার কন্ডিশনের বাইরে এথেন্সকে শীতল রাখার উপায় বের করা করা। গাছ লাগানো, সবুজ এলাকা তৈরি করা আর ভবন নির্মাণের উপকরণ পরীক্ষা ছাড়াও সড়ক ও ভবনের পুনরায় নকশা তৈরি করা।

সবুজ অঞ্চল ও শেড নির্মাণে বেশ কিছু পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে এথেন্স কর্তৃপক্ষ। বেশি ঘনত্বের ভবন যেসব এলাকায় রয়েছে সেসব এলাকার মধ্য দিয়ে শীতল রাস্তা তৈরিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া ইতোমধ্যেই শহরটির বাসিন্দা এ পর্যটকদের আবহাওয়া সম্পর্কে সতর্ক করতে একটি স্মার্টফোন অ্যাপ ব্যবহার করা হচ্ছে।

এই বছর জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক প্রভাব প্রত্যক্ষ করেছে বিশ্ব। ইউরোপের বহু অংশে রেকর্ড ভাঙা তাপমাত্রা দেখা গেছে। জার্মানি ও বেলজিয়ামে ব্যাপক বন্যা হয়েছে। বন্যা আঘাত হেনেছে চীনেও। কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল এলাকা জুড়ে দাবানলও দেখা গেছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

১ মাস ‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন’ থাকার পরীক্ষা চালালো রাশিয়া

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ফোন নম্বর পাল্টালেন ম্যাক্রোঁ

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

ঘুষখোর পুলিশ কর্মকর্তার অট্টালিকায় সোনার টয়লেট

ডেল্টার দাপট অস্ট্রেলিয়ায়, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০০:০৪

করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বগতিতে বেসামাল অস্ট্রেলিয়া। নিউ সাউথ ওয়েলেস রাজ্যে স্থানীয়ভাবে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে নতুন করে ১৩৬ জন সংক্রমিত হয়েছেন। লকডাউন থাকা সত্বেও করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে রাজ্যটিতে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

শুক্রবার স্থানীয়ভাবে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত নতুন ১৩৬ জন শনাক্তের কথা জানিয়েছে নিউ সাউথ ওয়েলস। সেখানে সুপারমার্কেট ও ফার্মেসিসহ জরুরি সেবার কর্মীদের মধ্যে কমিউনিটি সংক্রমণ অব্যাহত রয়েছে।

করোনার প্রকোপের শুরুর পর নিউ সাউথ ওয়েলসে এখন দৈনিক রেকর্ড পরিমাণ শনাক্ত হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যে এবং দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় এক কোটি ৩০ লাখের বেশি মানুষ লকডাউনে রয়েছে, যা দেশটির জনসংখ্যার অর্ধেক।

অতিসংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট এখন স্থানীয়ভাবে ছড়াচ্ছে। সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সিডনির কিছু অংশ দ্রুত গণ টিকাদান চালুর আহ্বান জানিয়েছেন নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের প্রিমিয়ার গ্লাডেস বেরেজিক্লিয়ান। কর্তৃপক্ষ বলছে, রেস্টোরেন্ট, পানশালা, স্কুল, দোকান বন্ধ রয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত ঘর থেকে বের হওয়া নিষেধ সত্বেও সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এই প্রিমিয়ার আরও বলেন সুপারমার্কেট, ফার্মেসির কর্মীদের তিনদিন পর পর বাধ্যতামূলক কোভিড পরীক্ষার পরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না।

অস্ট্রেলিয়ায় মাত্র ১২ শতাংশ মানুষকে দুই ডোজ টিকার আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। যা বিশ্বের অনেক উন্নত দেশের তুলায় কম। বর্তমানে করোনার প্রতিষেধক ফাইজারের টিকা ৪০-এর নিচের বয়সীদের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ রয়েছে। বাজারে অন্যান্য ভ্যাকিসন দেশটিতে পর্যাপ্ত সরবরাহ না থাকায় সরকারের তীব্র সমালোচনা করছেন অনেকে।

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, ‘সম্ভব হলে এনএসডব্লিউ রাজ্যে ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে।আমরা সারাদেশে টিকাদান কর্মসূচি ব্যাহত করবো না’। এদিকে ভিক্টোরিয়াতে ২৪ ঘণ্টায় স্থানীয়ভাবে ১৪ জন ডেল্টায় ভ্যারিয়েন্টে শনাক্ত হন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

করোনারোধী পোশাক বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়ে বড় অংকের জরিমানা

করোনারোধী পোশাক বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়ে বড় অংকের জরিমানা

ডেল্টার বিরুদ্ধে ফাইজার-অক্সফোর্ড কার্যকর, দিতে হবে দুই ডোজ

ডেল্টার বিরুদ্ধে ফাইজার-অক্সফোর্ড কার্যকর, দিতে হবে দুই ডোজ

প্রথম দেশ হিসেবে দুটি ভিন্ন টিকার ডোজ প্রয়োগের ঘোষণা থাইল্যান্ডের

প্রথম দেশ হিসেবে দুটি ভিন্ন টিকার ডোজ প্রয়োগের ঘোষণা থাইল্যান্ডের

১২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ স্বাস্থ্য সংকটে সিডনি

১২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ স্বাস্থ্য সংকটে সিডনি

সম্পর্কিত

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

আফগান সীমান্তের ৯০ শতাংশ তালেবানের দখলে: মুখপাত্র

আফগান সীমান্তের ৯০ শতাংশ তালেবানের দখলে: মুখপাত্র

সর্বশেষ

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

শহীদ মিনারে ফকির আলমগীরকে জানানো হবে শেষ শ্রদ্ধা 

শহীদ মিনারে ফকির আলমগীরকে জানানো হবে শেষ শ্রদ্ধা 

প্রবল বর্ষণে মহারাষ্ট্রে মৃত বেড়ে ১১০

প্রবল বর্ষণে মহারাষ্ট্রে মৃত বেড়ে ১১০

লকডাউনে বগুড়া থেকে হিলিতে চকলেট কিনতে যাওয়ায় জরিমানা

লকডাউনে বগুড়া থেকে হিলিতে চকলেট কিনতে যাওয়ায় জরিমানা

শেষ জন্মদিনে যে কথা দিয়েছিলেন অসহায়দের...

স্মরণে ফকির আলমগীরশেষ জন্মদিনে যে কথা দিয়েছিলেন অসহায়দের...

শনিবার তালতলা কবরস্থানে সমাহিত হবেন ফকির আলমগীর

শনিবার তালতলা কবরস্থানে সমাহিত হবেন ফকির আলমগীর

সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে গরু বিক্রির ১৫ লাখ টাকা লুট

সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে গরু বিক্রির ১৫ লাখ টাকা লুট

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় মুখ্য হিট অফিসার নিয়োগ

আ. লীগ বলছে জোট অটুট, শরিকরা বলছে অকার্যকর

আ. লীগ বলছে জোট অটুট, শরিকরা বলছে অকার্যকর

তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে যুবকের গলায় জুতার মালা

তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে যুবকের গলায় জুতার মালা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

© 2021 Bangla Tribune