X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

তালেবানের উত্থান, আফগানিস্তানে কারফিউ জারি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:১৬

আফগানিস্তানজুড়ে সশস্ত্র তালেবান গোষ্ঠীর সহিংসতা থামাতে কারফিউ জারি করেছে দেশটির সরকার। দেশের ৩৪টি জেলার ৩১টিতেই রাতে কারফিউর ঘোষণা এসেছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তালেবানের সন্ত্রাসী কার্যক্রম থামাতেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে কাবুল।

বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের শেষ দিকে একের পর এক এলাকা ও জেলা নিয়ন্ত্রণে নিচ্ছে তালেবান গোষ্ঠী। একই সঙ্গে হামলা চালিয়ে সীমান্তের গুরুত্বপূর্ণ ক্রসিং এবং বন্দর দখল নিচ্ছে। প্রতিদিনই তালেবান ও আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সংঘাতে রণক্ষেত্র দেশটি। এ অবস্থায় তালেবানের অগ্রযাত্রা থামাতে দেশের অধিকাংশ জায়গায় রাত্রিকালীন কারফিউ ঘোষণা করেছে আফগান সরকার। 

শনিবার এক বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশের ৩৪টি জেলার মধ্যে ৩১টিতেই রাত ১০টা  থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ বলবৎ থাকবে। তবে রাজধানী কাবুল, পাঞ্জসির ও নানগাহার প্রদেশ এর বাইরে থাকছে। 

দিনের বেলা তালেবান গোষ্ঠীকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলেও রাতে তাদের কার্যক্রম ব্যাহত করতেই কঠোর অবস্থানে আশরাফ ঘানির সরকার।

এ বিষয়ে কারদান বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান ফাহিম সাদাত সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে বলেন, ‘সরকার এক জেলা থেকে অন্য জেলায় মানুষের যাতায়াতে নজরদারি বা সীমাবদ্ধতা করতে চাচ্ছে। আর এই কারফিউর ঘোষণা সাধারণ মানুষের দরজায় যুদ্ধের বার্তা দেবে’। কারও মতে, কারফিউর মাধ্যমে সরকার অভিযান জোরালো করতে যাচ্ছে। কারণ, এই সময়ে সাধারণ মানুষ ঘরের মধ্যেই নিরাপদে থাকবে।

আফগানিস্তান থেকে ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র এবং ন্যাটোর ৯৫ শতাংশ সেনা প্রত্যাহার সম্পন্ন হয়েছে। তালেবানের দাবি, এখন পর্যন্ত আফগান ভূখণ্ডের ৮৫ শতাংশ এলাকা তাদের নিয়ন্ত্রণে। যদিও এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে দেশটির সরকার।

/এলকে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০০

বারবার মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আশ্বাস দিলেও তালেবান একটি মরদেহ রাস্তার মোড়ে ক্রেনে ঝুলিয়ে রাখে। আফগানিস্তানের হেরাত শহরের প্রধান মোড়ে এই মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীকে উদ্ধৃত করে শনিবার মার্কিন বার্তা সংস্থা এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, সুন্নি পশতুন যোদ্ধারা দেশটির তৃতীয় বৃহত্তম শহর হেরাতের প্রধান মোড়ে চারটি মরদেহ নিয়ে আসে। চারটির মধ্যে তিনটি মরদেহ অন্যান্য মোড়ে মানুষের দেখার জন ঝুলিয়ে রাখে।

ওয়াজির আহমদ সিদ্দিকী জানান, প্রধান মোড়ে মরদেহ আনার পর তালেবান ঘোষণা দেয় অপহরণের চেষ্টার সময় তাদের আটক করা হয় এবং পুলিশ হত্যা করেছে।

তালেবান এখনও প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও ঘোষণা দেয়নি। তবে তাদের আগের শাসনামলে শরিয়াহ আইন বাস্তবায়নে দায়িত্ব প্রাপ্ত মোল্লা নুরুদ্দিন তুরাবি এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, অঙ্গ কর্তন ও মৃত্যুদণ্ড ফিরিয়ে আনা হবে।

সম্প্রতি মার্কিন সংবাদ মাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টকে অপর এক তালেবান কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অপরাধীদের ইসলামি শাস্তি দেওয়া হবে। তিনি জানান, চোরের হাত কেটে ফেলা হবে, বেআইনি যৌন সম্পর্কে জড়িতদের পাথর নিক্ষেপ করা হবে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

/এএ/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:১১

আফগানিস্তানের তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকারের মনোনীত প্রতিনিধি জাতিসংঘের চলমান সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন না। তবে উৎখাত হওয়ার সরকারের মনোনীত আফগান দূত সোমবার ভাষণ দেবেন। শুক্রবার জাতিসংঘের এক মুখপাত্র এই তথ্য জানিয়েছেন।

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টেফানি দুজারিক বলেন, আপাতত আফগানিস্তানের প্রতনিধি হিসেবে গুলাম এম. ইসাকজাইয়ের নাম তালিকাভুক্ত রয়েছে।

তালেবান দ্বারা উৎখাত হওয়া আফগান সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে ইসাকজাই জাতিসংঘে নিযুক্ত ছিলেন।

তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি গত সোমবার জাতিসংঘে বিশ্বনেতাদের সামনে তাদের মনোনীত প্রার্থীকে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ দিতে আহ্বান জানান। এজন্য তালেবান তাদের দোহাভিত্তিক মুখপাত্র সুহাইল শাহীনকে আফগানিস্তানের জাতিসংঘ দূত হিসেবে মনোনয়ন দেয়।  

জাতিসংঘের অ্যাক্রিডিটেশন নয় সদস্যের একটি কমিটি দেখাশোনা করে। এতে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও রাশিয়া। সাধারণত এই কমিটি অক্টোবর বা নভেম্বরে বৈঠকে বসে। আগামী বৈঠকে জাতিসংঘের বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে মুত্তাকিকে ভাষণ দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে কিনা তা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সাধারণ অধিবেশনের নিয়ম অনুসারে, নতুন সিদ্ধান্তের আগ পর্যন্ত আফগানিস্তানের প্রতিনিধি হিসেবে ইসাকজাই বহাল থাকবেন।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৮

মিয়ানমারের অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে দেশটিতে দ্রুত গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি এবং সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত। শুক্রবার হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে পর যৌথ বিবৃতিতে আসিয়ানের পাঁচ দফা বাস্তবায়নেরও তাগিদ দেয় এই দুই দেশ।

বিবৃতিতে মিয়ানমারে যেকোনও মূল্যে সহিংসতা বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ওপর জোর দিয়েছেন মোদি ও বাইডেন। চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি ভোরে মিয়ানমারের সু চি সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখলে নেয় জান্তা সরকার। এরপরই মিয়ানমারের অধিকাংশ রাজনৈতিক নেতাদের গৃহবন্দি করে সামরিক সরকার। দেশজুড়ে অনর্দিষ্টকালের জন্য জারি করে জরুরি অবস্থা।

প্রতিবাদে রাজপথে আন্দোলন করে আসছে সাধারণ মানুষ। এতে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে এ পর্যন্ত এক হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। জান্তাবিরোধী আন্দোলনের কারণে আটক হয়েছেন সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষ।   

এদিকে, মিয়ানমারে শান্তি ফেরাতে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আসিয়ান দেশগুলোর বৈঠকে দেশটিতে রক্তপাত বন্ধে পাঁচ দফা ঘোষণা করে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ান।

/এলকে/

সম্পর্কিত

কমলা হ্যারিসে মুগ্ধ নরেন্দ্র মোদি

কমলা হ্যারিসে মুগ্ধ নরেন্দ্র মোদি

মোদি-কমলার বৈঠক, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের সমর্থন বন্ধ করা উচিত: কমলা

মোদি-কমলার বৈঠক, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের সমর্থন বন্ধ করা উচিত: কমলা

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:১৭

ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে এক বছরের সময় দিলেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। অন্যথায় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ১৯৬৭ সালের সীমানা মানবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

শুক্রবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে আব্বাস ইসরায়েলের বিরুদ্ধে বর্ণবৈষ্যম ও জাতিগত নির্মূলকরণেরও অভিযোগ আনেন। ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে না সড়ে গেলে রাষ্ট্রের স্বীকৃতিও প্রত্যাহারের হুমকি দেন তিনি।  

প্রেসিডেন্ট আব্বাস বলেন, এক বছরের মধ্যে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে ইসরাইলকে চলে যেতে হবে অন্যথায় ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ভূমি দখলের বৈধতা প্রশ্নে ফিলিস্তিনিরা আন্তর্জাতিক আদালতে যাবে। অধিকৃত ফিলিস্তিনের রামাল্লাহ শহর থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে মাহমুদ আব্বাস জাতিসংঘ অধিবেশনে তার ভাষণ তুলে ধরেন।

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট বলেন, আগামী এক বছরের মধ্যে পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম শহর এবং গাজা উপত্যকায় যদি দখলদারিত্বের অবসান না হয় তাহলে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ১৯৬৭ সালের সীমানা মানবে না। জাতিসংঘের প্রস্তাব অনুযায়ী ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের চূড়ান্ত মর্যাদা দেওয়া নিয়ে যে সমস্যা চলছে তা সমাধানে কাজ করতে প্রস্তুত ফিলিস্তিনিরা। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

বর্ণবাদবিরোধী সম্মেলনে জায়নবাদকে নিশ্চিহ্নের অঙ্গীকার ইরানের

বর্ণবাদবিরোধী সম্মেলনে জায়নবাদকে নিশ্চিহ্নের অঙ্গীকার ইরানের

ইয়েমেনে তুমুল লড়াইয়ে সরকারি বাহিনী ও হুথির ১৪০ যোদ্ধা নিহত

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:১৭

ইয়েমেনের সেনাবাহিনী ও সশস্ত্র হুথি বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘাতে ১৪০ জনের বেশি নিহত হয়েছেন। চলতি সপ্তাহে দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় কৌশলগত মারিব শহর সংঘর্ষের এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। শুক্রবার এমন খবর জানিয়েছে ইয়েমেনের সরকারি বাহিনী এবং স্বাস্থ্য দফতর।

পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের খবরে জানা গেছে, গত চারদিনের সংঘর্ষে সরকারি বাহিনীর অনুগত প্রায় ৪৭ সেনা প্রাণ হারান। উভয়পক্ষের যুদ্ধে ইরান সমর্থিত ৯৩ হুথি বিদ্রোহীও নিহত হন। সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় তারা নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

যদিও হুথি বিদ্রোহীদের পক্ষ তাদের সদস্য হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়নি। তেলসমৃদ্ধ অঞ্চল মারিবের আধিপত্য নিয়ন্ত্রণ রাখতে দীর্ঘদিন ধরেই লড়াই চালিয়ে আসছে সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহী গোষ্ঠী।

২০১৫ সালের মার্চে হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান পরিচালনা শুরু করে সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো। তারপর থেকে  এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। কয়েক লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। পুরো ইয়েমেন দুর্ভিক্ষের মুখে রয়েছে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলায় হতাহত ১৩, হামলাকারীর আত্মহত্যা

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলায় হতাহত ১৩, হামলাকারীর আত্মহত্যা

ইন্দোনেশিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি নেতা অভিযানে নিহত

ইন্দোনেশিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি নেতা অভিযানে নিহত

যুক্তরাজ্যে এক বাংলাদেশির ছুরিকাঘাতে আরেক বাংলাদেশি নিহত

যুক্তরাজ্যে এক বাংলাদেশির ছুরিকাঘাতে আরেক বাংলাদেশি নিহত

কাবুলে ড্রোন হামলাকে ‘মর্মান্তিক ভুল’ বললো যুক্তরাষ্ট্র

কাবুলে ড্রোন হামলাকে ‘মর্মান্তিক ভুল’ বললো যুক্তরাষ্ট্র

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

সর্বশেষ

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

করোনায় ঘরবন্দি সময় কাজে লাগিয়ে সফল উদ্যোক্তা এলিজা

করোনায় ঘরবন্দি সময় কাজে লাগিয়ে সফল উদ্যোক্তা এলিজা

আফগান নারীদের প্রতি একাত্মতা ও সংহতি জানিয়ে ঢাকায় সমাবেশ

আফগান নারীদের প্রতি একাত্মতা ও সংহতি জানিয়ে ঢাকায় সমাবেশ

আবারও বরিশালসহ ৩ বিভাগে করোনায় মৃত্যুহীন দিন

আবারও বরিশালসহ ৩ বিভাগে করোনায় মৃত্যুহীন দিন

বাসর রাতে বাঁশে ঝুলছিল বরের লাশ

বাসর রাতে বাঁশে ঝুলছিল বরের লাশ

© 2021 Bangla Tribune