X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ১০১ বার পানিতে চুবানোয় মৃত্যু

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৯:৪৭

কবিরাজের নির্দেশমতে লিপি আক্তার (২৬) নামের এক মানসিক প্রতিবন্ধীকে দৈনিক ১০১ বার পানিতে চুবানোয় তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সৎ পিতা আজহার মিয়া ও ভাই আল-আমিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকালে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়েরপাড় এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। শুক্রবার (৩০ জুলাই) নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় এ ঘটনায় একটি মামলা করা হয়। তবে অভিযুক্ত কবিরাজ সেলিম মিয়া পলাতক আছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও তরুণীর স্বজনরা জানায়, লিপি আক্তার মানসিক প্রতিবন্ধী ছিলেন। তাকে সুস্থ করার জন্য কবিরাজ সেলিম মিয়ার কাছে নিয়ে যান তার সৎ বাবা আজহার আলী ও আপন ভাই আল-আমিন। ওই সময় কবিরাজ সেলিম মিয়া লিপি আক্তারকে পানিতে কয়েকদিন ১০১ বার করে ডুব দিতে বলেন। পানিতে ডুব দিলেই লিপি সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে জানান কবিরাজ। তাই কবিরাজের কথায় কয়েকদিন ধরে পানিতে চুবাতে থাকেন সৎ বাবা ও ভাই।

বৃহস্পতিবার লিপি আক্তার নিজে যেতে না চাইলে তাকে জোর করে পানিতে নিয়ে চুবাতে শুরু করেন তারা। এক পর্যায়ে লিপি আক্তার মারা যান। পরে ঘটনাটি স্থানীয়দের মধ্যে জানাজানি হলে সৎ বাবা ও ছেলে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লিপি আক্তারের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। অভিযান চালিয়ে ওই এলাকা থেকে সৎ বাবা ও ছেলেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ জামান ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় ওই তরুণীর সৎ পিতা ও ভাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই তরুণীর মামাতো ভাই তাওলাদ হোসেন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত কবিরাজ সেলিম মিয়াকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম নেওয়া সিংহ-শাবক মারা গেছে

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম নেওয়া সিংহ-শাবক মারা গেছে

‘১৭ হাজার কোটি টাকার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ২০২৬ সালে চালু’

‘১৭ হাজার কোটি টাকার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ২০২৬ সালে চালু’

পদ্মার ১২ কেজির চিতল ১৯ হাজারে বিক্রি

পদ্মার ১২ কেজির চিতল ১৯ হাজারে বিক্রি

নিকলী হাওরে নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার

নিকলী হাওরে নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার

ভারতে গেলো আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১৬

তৃতীয় দিনে ভারতে আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠানো হয়েছে। শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে চার হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ প্রতিবেশী দেশটিতে রফতানির অনুমতি দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এরই অংশ হিসেবে তিন দিনে ভারতে গেলো মোট ৪৯৮ মেট্রিক টন ইলিশ।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা পর্যন্ত ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশের জন্য গেট পাস নিয়েছে। গত বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ১০৩ ও বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ২০৯ মেট্রিক ইলিশ দেশটিতে যায়।

শার্শা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান জানান, ইলিশ রফতানি নিষিদ্ধ হলেও দুর্গাপূজা উপলক্ষে এবার ৪০ মেট্রিক টন করে ১১৫টি প্রতিষ্ঠানকে চার হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ভারতে রফতানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। এর মধ্যে ২০ সেপ্টেম্বর ৫২টি প্রতিষ্ঠানকে দুই হাজার ৮০ ও ২৩ সেপ্টেম্বর ৬৩টি প্রতিষ্ঠানকে দুই হাজার ৫২০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে পাঠানোর অনুমতি দেওয়া হয়। আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে সব ইলিশ রফতানির নির্দেশনা রয়েছে।

ইলিশ মাছ রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান অর্পিতা ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মালিক বিশুদানন্দা আচার্জী বলেন, ‘এবার ভারতে চার হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানি করা হবে। প্রতি কেজি ইলিশের রফতানিমূল্য ১০ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রতি কেজি ৮৫০ টাকা। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করানো হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘১০ অক্টোবরের মধ্যে রফতানির নির্দেশনা থাকলেও সরকার ৪ অক্টোবর থেকে ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। ফলে রফতানিকারকরা কীভাবে এত ইলিশ এ সময়ের মধ্যে রফতানি করবে সেটাই ভাবনার বিষয়।’

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, ইলিশ রফতানির তৃতীয় চালান বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে গেছে। তিন চালানে ৪৯৮ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে গেলো। দ্রুত রফতানির জন্য কাস্টমসের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

অগ্রসর হচ্ছে নিম্নচাপ ‘গুলাব’, সতর্ক অবস্থানে স্বেচ্ছাসেবকরা

অগ্রসর হচ্ছে নিম্নচাপ ‘গুলাব’, সতর্ক অবস্থানে স্বেচ্ছাসেবকরা

ব্রেক করলেই উঠে যাচ্ছে ৩২১ কোটি টাকার সড়কের কার্পেটিং

ব্রেক করলেই উঠে যাচ্ছে ৩২১ কোটি টাকার সড়কের কার্পেটিং

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

তাবলিগে আসা ১৩ মুসল্লি অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১৪

পটুয়াখালীতে তাবলিগে আসা ১৩ মুসল্লিকে মসজিদে অচেতন অবস্থায় পাওয়া গেছে। তারা বর্তমানে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। তাদের মধ্যে তিন জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। শনিবার (২৫ সেপ্টম্বর) সকালে শহরের কলাতলা এলাকার বটতলা জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, চেতনানাশক খাইয়ে তাদের অজ্ঞান করা হয়েছে।  

জানা গেছে, শনিবার ফজরের সময় তাবলিগের দুই সদস্য ঘুম থেকে উঠলেও বাকি ১৩ জন উঠতে পারেননি। পরে অচেতন অবস্থায় ১৩ জনকে উদ্ধার করে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন মসজিদে আসা মুসল্লিরা।

ওই মুসল্লিদের একজন মো. রাসেল বলেন, ‘বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, টাঙ্গাইলের বিভিন্ন এলাকার ১৫ জন মুসুল্লি তিন চিল্লার জন্য পটুয়াখালী আসি। মারকাজ মসজিদ কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত শুক্রবার আমরা শহরের কলাতলা এলাকার বটতলা জামে মসজিদে উঠি। এরপর আমরা নিয়ম অনুযায়ী যে-যার কাজ করি। পরে রাতের খাবার শেষ করে যার যার মতো ঘুমাতে যাই। এ সময় আমাদের একজন সাথি মো. জুবায়ের আমাকে বলেন, তার শরীরটা ভালো লাগছে না। এরপর আমরা আমাদের আমির সাহেবেকে জানিয়ে, মসজিদ থেকে একটু সামনের দিকে ঘুরতে যাই। বের হওয়ার পরে জুবায়ের আরও বেশি অসুস্থতা অনুভব করেন। পরে আমাদের অবস্থা আরও খারাপ হতে শুরু করে। আমারা রাস্তায় হাঁটতে পারছিলাম না। অনেক কষ্ট করে আমরা মসজিদে ফিরে এসে কোনও কিছু ঠিক না করেই ঘুমিয়ে যাই।’

পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডা. মো. মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘অচেতন ১৩ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। শারীরিক পরীক্ষার রিপোর্ট পেলে বলা যাবে তাদের অচেতন হওয়ার কারণ।’

বটতলা মসজিদের ইমাম কলিমুল্লাহ বলেন, ‘তিনি ফজরের নামাজের আগে মসজিদের মোয়াজ্জেম আবদুস সোবাহানের ফোন পেয়ে মসজিদে এসে দেখতে পান সদস্যরা সবাই ঘুমাচ্ছেন। অনেক ডাকার পরেও সদস্যরা কেউ ঘুম থেকে না উঠলে মসজিদ কমিটির সভাপতিকে বিষয়টি জানাই।’

বটতলা মসজিদ কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. হারুন অর রশিদ বলেন, ‘ফজরের দিকে আমাকে মসজিদের ইমাম সাহেব ফোন করে বিষয়টি জানালে আমি তারাতারি মসজিদে চলে যাই। মুসল্লিদের অবস্থা দেখে আমি স্থানীয় মারকাস মসজিদের ইমাম ও ওসি সাহবকে জানাই এবং তাদের হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করি। তবে কারও কোনও টাকাপয়সা হারানোর ব্যাপারে আমি শুনিনি।’

পটুয়াখালী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার মোরশেদ বলেন, ‘ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠিয়েছি। অসুস্থ মুসল্লিদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

বাসর রাতে বাঁশে ঝুলছিল বরের লাশ

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫৩

বিয়ের রাতেই মো. বাবুল হোসেন (১৯) নামের বরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের চরতিস্তাপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। বাবুল ওই গ্রামের মো. সফিজুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, শুক্রবার রাতে জেলার বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়নের এক তরুণীর সঙ্গে দেবীগঞ্জের চিলাহাটি ইউনিয়নের বাবুলের বিয়ে হয়। শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে ছিল বৌভাত। কিন্তু রাতে বাড়ির রান্নাঘরের বাঁশের সরের সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় পরিবারের লোকজন। লাশ দেখে তারা চিৎকার চেঁচামেচি করেন। বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করা হলেও পুলিশ আসার আগেই এলাকাবাসী ঝুলন্ত লাশটি নামিয়ে আনেন।

পরিবারের লোকজন জানান, বাসর রাতে ঘরে থাকা নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বাবুলের মনোমালিন্য হয়েছিল। তাদের ধারণা, এতে রাতে কোনও এক সময় বাবুল রান্নাঘরে এসে ফাঁস দেন।

দেবীগঞ্জ থানার ওসি জামাল হোসেন ও এসআই মো. শাকিলুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে ফাঁসের স্থানে ক্রুটি দেখতে পেয়ে লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

ওসি জামাল হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে সুরতহাল ও বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত ছেলে বা মেয়ে পক্ষের কেউ কোনও অভিযোগ দাখিল করেননি। তবে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

আসামির ছুরিকাঘাতে আহত পুলিশ কর্মকর্তার হাসপাতালে মৃত্যু

আসামির ছুরিকাঘাতে আহত পুলিশ কর্মকর্তার হাসপাতালে মৃত্যু

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচাতে প্রাণ গেলো মায়েরও

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচাতে প্রাণ গেলো মায়েরও

জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ভাষণে মুগ্ধ মার্কিন রাষ্ট্রদূত

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২৫

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ভাষণে মুগ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের প্রশিক্ষণকেন্দ্র এবং টিবি রোগ নিরাময়কেন্দ্র উদ্বোধন ও পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মহিউদ্দিনের, উপ-পরিচালক সাজেদা খাতুন, আইইডিসিআর কর্মকর্তা ও আমেরিকান দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

রাষ্ট্রদূত জলবায়ু পরিবর্তন এবং কোভিড-১৯ পরবর্তী অর্থনীতি পুনরুদ্ধার, খাদ্য নিরাপত্তা, সমতা ও টেকসই উন্নয়নসহ ভাষণে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য তুলে ধরায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ সরকার দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এগিয়ে আছে।’

এদিকে, বেলা ১১টায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. মনিরুল হক সাক্কুর সঙ্গে এক ঘণ্টা বৈঠক করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

হাসপাতাল পরিদর্শনে মার্কিন রাষ্ট্রদূত

বৈঠক শেষে মেয়র বলেন, ‘কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের জলাবদ্ধতা দূর করতে ও কীভাবে ময়লা-আবর্জনার বিকল্প ব্যবহার করা যায়, তা নিয়ে কথা হয়েছে। মার্কিন রাষ্ট্রদূত গুরুত্বসহকারে কথা শুনেছেন। পাশাপাশি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের সমস্যা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- আমেরিকান চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক আফতাবুল ইসলাম মঞ্জু, অতিরিক্ত প্রশাসক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. সফিকুল ইসলাম, জেলা সিভিল সার্জন মীর মোবারক হোসেন, দৈনিক কুমিল্লার কাগজের সম্পাদক আবুল কাশেম হৃদয় প্রমুখ।

এরপর মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার কুমিল্লা লাকসাম উপজেলার পশ্চিমগাঁও অবস্থিত নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানীর বাড়ি পরিদর্শন করেন। তখন লাকসাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ স্থানীয় রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিকাল ৫টায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত ব্র্যাকের একটি কর্মসূচিতে যোগদানের কথা রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

ছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

ক্যাম্পের পাহাড়ি ছড়ায় আরও এক বুনো হাতির মৃতদেহ

ক্যাম্পের পাহাড়ি ছড়ায় আরও এক বুনো হাতির মৃতদেহ

‘মিটারগেজ রেলপথকে ব্রডগেজে রূপান্তর করা হবে’

‘মিটারগেজ রেলপথকে ব্রডগেজে রূপান্তর করা হবে’

অগ্রসর হচ্ছে নিম্নচাপ ‘গুলাব’, সতর্ক অবস্থানে স্বেচ্ছাসেবকরা

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২২

উপকূলে ধেয়ে আসছে গভীর নিম্নচাপ গুলাব মোকাবিলায় খুলনা জেলা প্রশাসন প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। বিভিন্ন উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবকরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন। জেলা প্রশাসন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির মিটিং করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

খুলনা জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার জানান, খুলনার উপকূলে যেকোনও ধরনের দুর্যোগ মোকাবিলায় দুর্যোগ প্রস্তুতি কমিটি ও স্বেচ্ছাসেবকরা সতর্ক অবস্থায় থাকেন। খুলনা সব সময় দুর্যোগপ্রবণ এলাকা। এ কারণে খুলনা জেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সব সময়ই থাকে। সতর্কতায় কোনও ঘাটতি নেই। আশ্রয় কেন্দ্রগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও সক্রিয় অবস্থায় রাখা হয়। স্বেচ্ছাসেবকরা এগুলো সার্বক্ষণিক দেখভাল করে থাকেন। গভীর নিম্নচাপ গুলাব এগিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবকরা প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। জেলা প্রশাসন থেকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির মিটিং ডেকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেওয়া হবে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, খুলনার ৩৪৯টি আশ্রয় কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে– সরকারি (সাধারণ) ২৫০টি, সরকারি (মাল্টিপারপাস) ২৪টি, বেসরকারি ৭৫টি। এ সব আশ্রয় কেন্দ্রের মধ্যে দাকোপ উপজেলায় ৮৯টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৬২ হাজার ২৫০ জন, বটিয়াঘাটা উপজেলায় সাতাশটি আশ্রয় কেন্দ্রে ১৫ হাজার জন, পাইকগাছা উপজেলায় ৩২টি আশ্রয় কেন্দ্রে ২৬ হাজার ২৫০ জন, কয়রা উপজেলায় ১২১টি আশ্রয় কেন্দ্রে ৮৭ হাজার, ডুমুরিয়া উপজেলায় ২৯টি আশ্রয়কেন্দ্রে ১২ হাজার ৭৫০ জন, রূপসা উপজেলায় ২৯টি আশ্রয় কেন্দ্রে ২০ হাজার ৩০০ জন এবং তেরখাদা উপজেলায় ২২টি আশ্রয় কেন্দ্রে ১৫ হাজার ৪০০ জন অবস্থান নিতে পারবে। এ সব উপজেলার মধ্যে দাকোপে এক হাজার ৩৬৫ জন এবং কয়রায় এক হাজার ৯৫ জন স্বেচ্ছাসেবক সজাগ দৃষ্টি রেখেছেন। আরও এক হাজার ১০০ স্বেচ্ছাসেবক তৎপর রয়েছেন।

শনিবার বেলা ২টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় তৈরি গভীর নিম্নচাপটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বর্তমানে এটি উত্তর মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও ঘনীভূত হয়ে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর নাগাদ ভারতের মধ্যে উড়িষ্যা উপকূল অতিক্রম করতে পারে। মধ্য বঙ্গোপসাগর উত্তাল রয়েছে এবং উত্তর বঙ্গোপসাগর উত্তাল হতে চলেছে। এ সময় সাগর ভ্রমণে যাওয়া একেবারে নিরাপদ নয়। তাই সতর্ক থাকার জন্য বলা হয়েছে।

এ নিম্নচাপের প্রভাবে ইতোমধ্যে ঢাকা, টাঙ্গাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, গাজীপুর, মুন্সীগঞ্জ, কুমিল্লা ও কুড়িগ্রামের কিছু স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে বা হতে চলেছে। পরবর্তী সময়ে ধীরে ধীরে দেশে বৃষ্টিপাতের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ব্রেক করলেই উঠে যাচ্ছে ৩২১ কোটি টাকার সড়কের কার্পেটিং

ব্রেক করলেই উঠে যাচ্ছে ৩২১ কোটি টাকার সড়কের কার্পেটিং

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম নেওয়া সিংহ-শাবক মারা গেছে

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম নেওয়া সিংহ-শাবক মারা গেছে

‘১৭ হাজার কোটি টাকার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ২০২৬ সালে চালু’

‘১৭ হাজার কোটি টাকার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ২০২৬ সালে চালু’

পদ্মার ১২ কেজির চিতল ১৯ হাজারে বিক্রি

পদ্মার ১২ কেজির চিতল ১৯ হাজারে বিক্রি

নিকলী হাওরে নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার

নিকলী হাওরে নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার

নিকলীর হাওরে গোসল নেমে ২ পর্যটক নিখোঁজ

নিকলীর হাওরে গোসল নেমে ২ পর্যটক নিখোঁজ

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

একই ব্যানারে গাজীপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ

একই ব্যানারে গাজীপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ

টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধরের ৮ দিন পর ছাত্রলীগকর্মীর মৃত্যু

টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধরের ৮ দিন পর ছাত্রলীগকর্মীর মৃত্যু

গাজীপুরের মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুরের মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

সর্বশেষ

২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

ভারতে গেলো আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

তাবলিগে আসা ১৩ মুসল্লি অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে

তাবলিগে আসা ১৩ মুসল্লি অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে

নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন করবে কে, প্রশ্ন মির্জা ফখরুলের

নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন করবে কে, প্রশ্ন মির্জা ফখরুলের

নতুন করে আইনজীবী হলেন ৫৯৭২ জন

নতুন করে আইনজীবী হলেন ৫৯৭২ জন

© 2021 Bangla Tribune