X
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম বাড়ায় বিপাকে বাংলাদেশ

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪৫

আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছে বাংলাদেশ। দেশের অব্যাহত এলএনজি সরবরাহ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পেট্রোবাংলা। এরমধ্যে দেশের বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। সিএনজি স্টেশনে রেশনিংয়ের বিষয়ে আলোচনা চলছে।

পেট্রোবাংলা বলছে, এলএনজির দাম বৃদ্ধির কারণে আন্তর্জাতিক বাজারের স্পট মার্কেট থেকে আপাতত এলএনজি কিনবে না সরকার। এরপর দাম কমে এলে আবারও এলএনজি কেনা হবে।

মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, এখন প্রতি এমএমবিটিউ (প্রতি মিলিয়ন ব্রিটিশ থার্মাল ইউনিট) এলএনজি বিক্রি হচ্ছে ২০ ডলারে। গত কয়েক বছরের মধ্যে এটিই সর্বোচ্চ দাম। এখন এই দামে এলএনজি আমদানি করা হলে বিরাট অঙ্কের টাকা ভর্তুকি দিতে হবে। তবে দামের এই ঊর্ধ্বমুখী অবস্থা বেশি দিন থাকবে না। এটি কমে যাবে বলে তিনি আশা করেন। ফলে তখন আবার এলএনজি আমদানি করা হবে।

দেশে দৈনিক উৎপাদিত গ্যাসের সঙ্গে এলএনজি আমদানি করে চাহিদা সামাল দেয়া হয়। মহেশখালীর দুটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনালের মাধ্যমে প্রতিদিন এলএনজি রূপান্তর করে এক হাজার মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা সম্ভব। চাহিদা বাড়লে ৮৫০ থেকে ৯০০ মিলিয়ন ঘনফুট আমদানি করা এই গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হয়েছে। কিন্তু আজ ১৫ সেপ্টেম্বর ৬০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হচ্ছে।

প্রতিবার গ্রীষ্মেই দেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনে সর্বোচ্চ গ্যাস সরবরাহ করে সরকার। কিন্তু এবার গ্রীষ্মে সেটি উল্টো কমাতে হচ্ছে। এখন দেশের বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর দৈনিক গ্যাসের চাহিদা ২ হাজার ২৫২ মিলিয়ন ঘনফুট। এর বিপরীতে পেট্রোবাংলা ১৩০০ মিলিয়ন থেকে ১৪০০ মিলিয়ন ঘনফুট সরবরাহ করে। কিন্তু আজ এই সরবরাহের পরিমাণ ছিল এক হাজার ৮৭ মিলিয়ন ঘনফুট।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সরকার এখন চিন্তা করছে পিক আওয়ারে সিএনজি স্টেশন বন্ধ করে বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ করবে। দেশে এলএনজি আসার পর থেকে সিএনজি স্টেশনের গ্যাস রেশনিং তুলে দেওয়া হয়েছিল। বিপরীতে দেশের শিল্প কারখানাতে নতুন গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন আবার এসে রেশনিং করতে হচ্ছে সরকারকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জ্বালানি সচিব আনিছুর রহমান বলেন, একদিকে আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম বেড়েছে, অন্যদিকে বিদ্যুতের চাহিদাও অনেক বেড়ে গেছে। তাই দেশীয় গ্যাস দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে চাই। এজন্য গ্যাস রেশনিং করার চিন্তা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এ সমস্যা সাময়িক। স্থলভাগে এলএনজি টার্মিনাল স্থাপনের কাজ শুরু হবে। ফলে আগামী বছর এ সংকট কেটে যাবে।

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২১

ব্যাংকগুলো আগে ১০০ টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি করলে ৫০ পয়সা কমিশন পেত, এখন ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা। শুধু তা–ই নয়, একটি নিবন্ধনের বিপরীতে যত টাকার সঞ্চয়পত্রই বিক্রি করা হোক না কেন, কমিশন সর্বোচ্চ ৫০০ টাকার বেশি হবে না।

গত সপ্তাহে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ (আইআরডি) সঞ্চয়পত্র বিক্রির ওপর নতুন কমিশন হার নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। প্রজ্ঞাপনের কপি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক, অর্থ বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, ডাক অধিদফতর, জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনের তথ্য অনুযায়ী ডাকঘর ও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো এতদিন যে হারে কমিশন পেয়ে আসছিল, তার চেয়ে ৯ গুণ কমিয়েছে সরকার। অর্থাৎ ২০০৪ সাল থেকে কমিশনের হার ছিল দশমিক ৫০ শতাংশ। তা কমিয়ে নতুন হার করা হয়েছে দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। 

ডাকঘরকে কমিশন দেওয়া হলেও ডাকঘর আবার সরকারি কোষাগারেই কর বহির্ভূত রাজস্ব (এনটিআর) হিসেবে তা জমা দেয়। ফলে প্রজ্ঞাপনটি মূলত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর জন্যই প্রযোজ্য এবং এই কমিশন হারের সঙ্গে গ্রাহকদের সরাসরি কোনও সম্পর্ক নেই।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, পাঁচ ধরনের সঞ্চয়পত্র বিক্রির ওপর কমিশনের হার কমানো হয়েছে। সেগুলো হচ্ছে পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র, তিন মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্র, পেনশনার সঞ্চয়পত্র, পরিবার সঞ্চয়পত্র ও ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক মেয়াদী হিসাব।

বাংলাদেশ ব্যাংক, বাণিজ্যিক ব্যাংক, জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতর ও ডাকঘর সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে থাকে। তবে সঞ্চয় অধিদফতর নিজস্ব এই আর্থিক পণ্য বিক্রির বিপরীতে কোনও কমিশন পায় না। কারণ, সঞ্চয়পত্র বিক্রি করাই তার কাজ। আর বাংলাদেশ ব্যাংক কোনও কমিশন নেয় না।

অবশ্য যত সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়, তার সামান্য অংশই বিক্রি করে সঞ্চয় অধিদফতর ও বাংলাদেশ ব্যাংক। জানা গেছে, বাণিজ্যিক ব্যাংক ও ডাকঘরই বিক্রি করে অন্তত ৭০ শতাংশ সঞ্চয়পত্র। 

/জিএম/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সুদিন আসছে ডালে

সুদিন আসছে ডালে

খেলাপির সহযোগী প্রতিষ্ঠানে চলমান ঋণ বন্ধ না করার দাবি বিজিএমইএর

খেলাপির সহযোগী প্রতিষ্ঠানে চলমান ঋণ বন্ধ না করার দাবি বিজিএমইএর

পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক চায় বিজিএমইএ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক চায় বিজিএমইএ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

সুদিন আসছে ডালে

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০০

সরকার দেশের তিনটি জেলায় উচ্চ ফলনশীল ডাল উৎপাদন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একইসঙ্গে এ ধরনের ডালের জাত উদ্ভাবনে বাড়ানো হবে প্রযুক্তির ব্যবহার। দেশের একমাত্র ডাল গবেষণা কেন্দ্রের সক্ষমতা বাড়ানোর সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে ১৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

‘আঞ্চলিক ডাল গবেষণা কেন্দ্র, মাদারীপুরের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বৃহত্তর বরিশাল, ফরিদপুর অঞ্চলে ডাল ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে তিন বিভাগের ১৩ জেলার ৫২ উপজেলার কৃষক উপকৃত হবেন বলে সূত্র জানায়।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পটি ২০২১-২২ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প তালিকায় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। নিজস্ব তহবিল থেকে প্রকল্পের ১৬৮ কোটি টাকা যোগান দেবে সরকার।

পরিকল্পনা কমিশনের প্রস্তাব অনুযায়ী ২০২৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর নাগাদ প্রকল্পটি শতভাগ বাস্তবায়িত হওয়ার কথা রয়েছে। গত ৭ সেপ্টেম্বর এটি একনেকের অনুমোদন পেয়েছে।

পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্র জানায়, কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএআরআই) প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে প্রতিকূল পরিবেশ সহিষ্ণু, স্বল্প মেয়াদী, উচ্চফলনশীল, জলবায়ু অভিযোজনশীল ডাল বীজ ও ডালের উৎপাদন প্রযুক্তি কৃষক পর্যায়ে বিতরণ করা সম্ভব হবে। স্বাভাবিকভাবেই বাড়বে ফলন, কমবে আমদানি।

কৃষি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ প্রকল্পের আওতায় ডালের তিনটি উচ্চ ফলনশীল জাত এবং ১৫টি লাগসই উৎপাদন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা হবে। দেশ-বিদেশ থেকে ডালের ৭৫০টি জার্মপ্লাজম সংগ্রহ করা হবে ও ১৫০ মেট্রিক টন বীজ উৎপাদন করা হবে। প্রকল্প এলাকায় ৪ তলা ভিতসহ ৩ তলা ভবন ও ৭৮০ বর্গমিটারের ল্যাবরেটরি নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া একটি পানিশোধন প্লান্টও স্থাপন করা হবে। ৫ হাজার বর্গমিটারজুড়ে হবে অভ্যন্তরীণ রাস্তা। একটি কুলিং ইউনিটও করা হবে।

এ সবের জন্য ৩০ একর ভূমি অধিগ্রহণ ও ২ লাখ ৪০ লাখ ঘনমিটার ভূমি উন্নয়ন করা হবে বলে জানা গেছে।

উদ্ভাবিত জাত ও প্রযুক্তিগুলোর মাঠপর্যায়ের উপযোগিতা যাচাই করা হবে ফরিদপুর ও বরিশাল অঞ্চলের ১১টি জেলার ৫০টি উপজেলার প্রায় দেড় হাজার জমিতে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম জানিয়েছেন, ‘দেশের মানুষের আমিষের চাহিদা মেটাতে ডালের অবদান ব্যাপক। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ডালের উৎপাদন বাড়বে। মাদারীপুরের আঞ্চলিক ডাল গবেষণাগারের সক্ষমতাও বাড়বে। অর্থনীতিতে সরাসরি অবদান রাখবে এটি।’

/এফএ/

খেলাপির সহযোগী প্রতিষ্ঠানে চলমান ঋণ বন্ধ না করার দাবি বিজিএমইএর

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৬

কোনও ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা গ্রুপের যে কোনও একটি প্রতিষ্ঠানের ঋণ খেলাপির কারণে সহযোগী অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের চলমান ঋণ বন্ধ না করে ওই খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিলিকরণের সুযোগ দিয়ে ঋণ সুবিধা বহাল রাখার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়েছে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। 

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিজিএমইএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম মান্নান (কচি) এর নেতৃত্বে বিজিএমইএর একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এই সুযোগ চেয়েছেন।

বিজিএমইএ প্রতিনিধি দলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, ১ম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মো. শহিদউল্লাহ আজিম, সহ-সভাপতি (অর্থ) খন্দকার রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মো. নাসির উদ্দিন। এ সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমান, আবু ফরাহ মো. নাছের উপস্থিত ছিলেন। 

বিজিএমইএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, পোশাক শিল্প কোভিড-১৯ সৃষ্ট নজিরবিহীন সংকট এবং পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ার চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবিলা করে ঘুরে দাঁড়ানোর সংগ্রামে লিপ্ত রয়েছে। 

আলোচনাকালে বিজিএমইএ প্রতিনিধি দল বলেন, করোনা মহামারিতে পোশাক শিল্প একটি ক্রান্তিলগ্ন অতিক্রম করছে। এ অবস্থায় পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তারা অর্থনীতির চাকা সচল রাখা এবং প্রতিকূল পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। 

উদ্যোক্তারা মনে করেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে পোশাক শিল্প সংক্রান্ত ইস্যুগুলো সহজীকরণের উদ্যোগ নেওয়া হলে তা শিল্পকে ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা করবে।

বিজিএমইএ অন্যান্য দাবি গুলো হলো: সব প্রণোদনার জন্য ৩০ শতাংশ দেশীয় মূল্য সংযোজনের নিয়ম রেখে ২০ সেপ্টেম্বরের জারিকৃত সার্কুলার সংশোধন করতে হবে। কারণ, এ শর্তটি আরোপ করার ফলে ওভেন শিল্প বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং নীট শিল্পও কিছু ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। এ ছাড়া বর্তমান সংকটময় সময়ে তৈরি পোশাক রফতানি শিল্পকে টিকিয়ে রাখার নিমিত্তে শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য প্রদত্ত ঋণ পরিশোধের কিস্তির সংখ্যা ১৮টি’র পরিবর্তে ৩৬টি করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। করোনাভাইরাসের অতিমারি সময়ে রফতানিমুখী তৈরি পোশাকখাতকে টিকিয়ে রাখতে ইডিএফ ফান্ডের সুদের হার ২ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ১.৫ শতাংশ করতে হবে।

কোভিড-১৯ এর প্রভাবে রফতানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্পের যে সকল উদ্যোক্তা ব্যাংক ঋণের কিস্তি সময়মতো পরিশোধ করতে পারেননি তাদের জন্য আরোপিত-অনারোপিত সুদ ও কষ্ট অব ফান্ডসহ সকল প্রকার চার্জ মওকুফ করে অবশিষ্ট ঋণকে আগামী বছরের জানুয়ারির হিসাবকৃত স্থিতির ওপর ২ শতাংশ হারে ডাউন পেমেন্ট গ্রহণ করে দুই বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ দশ বছর মেয়াদে

ঋণ হিসাব পুনঃতফসিলীকরণের সুযোগ প্রদান। এবং এককালীন এক্সিট নিতে আগ্রহী উদ্যোক্তাদের এক বছর মেয়াদে ঋণ হিসাব অবসায়নের নিমিত্তে সুযোগ দেওয়া।

/জিএম/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

সুদিন আসছে ডালে

সুদিন আসছে ডালে

পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক চায় বিজিএমইএ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক চায় বিজিএমইএ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক চায় বিজিএমইএ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:২৩

বাংলাদেশ কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক-প্রাইমমুভার পণ্য পরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন আজ (২১ সেপ্টেম্বর) থেকে তিন দিনের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছে। এর ফলে পোশাক শিল্পে গভীর উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে বিজিএমইএ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম মান্নান (কচি) এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তারা শিল্পের সব কার্যক্রম অব্যাহত রাখার স্বার্থে অনতিবিলম্বে সড়কপথে পণ্য পরিবহন পরিস্থিতি স্বাভাবিককরণে উদ্যোগ নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানান।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিজিএমইএ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজিএমইএ’র প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন—সহ-সভাপতি শহিদউল্লাহ আজিম, সহ-সভাপতি (অর্থ) খন্দকার রফিকুল ইসলাম, মো. নাসির উদ্দিন এবং পরিচালক মো. খসরু চৌধুরী।

বিজিএমইএ’র প্রতিনিধি দল জানান, পোশাক শিল্পের প্রধান রফতানি বাজারগুলোতে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে গণহারে টিকাদান কার্যক্রম নেওয়ায় এসব দেশে দোকানপাট খুলছে। যার ফলশ্রুতিতে এখন পোশাক শিল্পে প্রচুর ক্রয়াদেশ আসছে। তারা বলেন, পোশাক শিল্প একটি টাইম বাউন্ড শিল্প। এ শিল্পের জন্য প্রতিটি ঘণ্টার মূল্য আছে এবং উদ্যোক্তাদের ক্রেতাদের শর্ত (স্বল্পতম সময়ের মধ্যে উৎপাদন) মেনে নিয়ে উৎপাদন ও রফতানি কার্যক্রম সম্পাদন করতে হয়। তাই, এই মুহূর্তে কর্মবিরতির কারণে সড়কপথে পণ্য পরিবহন বন্ধ হলে তা শিল্পকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। তারা সড়কপথে পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক রাখতে আশু পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ জানান। মন্ত্রী অতি দ্রুত পরিবহন নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধানের বিষয়ে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দকে আশ্বস্ত করেন।

বিজিএমইএ প্রতিনিধিদল আরও জানায়, মহামারির কারণে দোকান ফাঁকা বলে অনেক ক্রেতা এয়ার ফ্রেইটে পণ্য পাঠাতে বলেছে। ক্রেতাদের তুমুল চাহিদার কারণে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কনটেইনার কার্গোর জট সৃষ্টি হয়েছে। অথচ, রফতানি পণ্য তাৎক্ষণিক স্ক্যানিং

করার জন্য বিমান বন্দরে পর্যাপ্ত সংখ্যক মেশিন নেই। মন্ত্রী বিজিএমইএ প্রতিনিধি দলের বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে বিষয়টি সুরাহার আশ্বাস দেন।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

সুদিন আসছে ডালে

সুদিন আসছে ডালে

খেলাপির সহযোগী প্রতিষ্ঠানে চলমান ঋণ বন্ধ না করার দাবি বিজিএমইএর

খেলাপির সহযোগী প্রতিষ্ঠানে চলমান ঋণ বন্ধ না করার দাবি বিজিএমইএর

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৫৮

ব্যাংকে নিয়োজিত অডিট ফার্ম দিয়ে রফতানি ভর্তুকির আবেদনপত্র নিরীক্ষা করানো যাবে। প্রয়োজনে অতিরিক্ত অডিট ফার্ম নিয়োগ দেওয়া যাবে। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

এর আগে ব্যাংক ও রফতানি ভর্তুকি যাচাইয়ে আলাদা আলাদা অডিট ফার্ম নিয়োগের নির্দেশনা ছিল।

বাংলাদেশে কার্যরত সব অনুমোদিত ডিলারের কাছে পাঠানো নির্দেশনায় বলা হয়, নিরীক্ষার কাজ দ্রুত করার জন্য অতিরিক্ত ফার্ম নিয়োগের প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে যৌক্তিকতা ও প্রয়োজনীয় তথ্যসহ অডিট ফার্মের সংখ্যা উল্লেখপূর্বক বাংলাদেশ ব্যাংক বরাবর আবেদন করতে হবে।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

৪২ ধরনের পণ্য রফতানিতে মিলবে নগদ সহায়তা

৪২ ধরনের পণ্য রফতানিতে মিলবে নগদ সহায়তা

পুঁজিবাজার থেকে ওটিসি মার্কেট বাদ

পুঁজিবাজার থেকে ওটিসি মার্কেট বাদ

পদত্যাগে বাধ্য ব্যাংককর্মীদের চাকরি ফেরত দিতে নির্দেশ

পদত্যাগে বাধ্য ব্যাংককর্মীদের চাকরি ফেরত দিতে নির্দেশ

কৃষকের জন্য ৩ হাজার কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা

কৃষকের জন্য ৩ হাজার কোটি টাকার নতুন প্রণোদনা

সম্পর্কিত

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

সর্বশেষ

শেকলে বাঁধা অবস্থায় পুড়ে মৃত্যু 

শেকলে বাঁধা অবস্থায় পুড়ে মৃত্যু 

স্ত্রীকে হত্যার ৩ দিন পর ‌‌‘অনুতপ্ত’ স্বামীর আহাজারি

স্ত্রীকে হত্যার ৩ দিন পর ‌‌‘অনুতপ্ত’ স্বামীর আহাজারি

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

সঞ্চয়পত্র বিক্রির বিপরীতে ব্যাংকের কমিশন তলানিতে

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

জ্বালানি সংকটে পড়বে এলএনজিচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র!

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

প্রায় দ্বিগুণ দামে এলএনজি কিনছে সরকার

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

এলএনজি আমদানিতে তিন বছরে সর্বোচ্চ ভর্তুকি

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

সাগর উত্তাল: এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় গ্যাসের সংকট

© 2021 Bangla Tribune