X
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২
১৯ আষাঢ় ১৪২৯

গুলশানের ফু ওয়াং বার এর ভ্যাট ফাঁকি ৪১ কোটি টাকা

আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৫

ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদফতর ফু ওয়াং বোলিং এন্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের ব্যবসায়িক কার্যক্রম তদন্ত করে প্রায় ৪১ দশমিক ৮ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন করেছে। ভ্যাট ফাঁকির প্রমাণ পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ভ্যাট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বারের মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার সংক্রান্ত মানিলন্ডারিং অপরাধ অনুসন্ধান করার জন্য শুল্ক গোয়েন্দাকে চিঠি দিয়েছে ভ্যাট গোয়েন্দা। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদফতর থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর থেকে লাইসেন্স নিয়ে বারে মদ ও মদ জাতীয় দ্রব্য বিক্রয় এবং রেস্টুরেন্টে খাবারের সেবা প্রদান করে।

অনুসন্ধানে প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট ব্যাংক হতে সি.এ. রিপোর্ট ও সংশ্লিষ্ট ভ্যাট সার্কেল অফিস থেকে মূসক সংক্রান্ত দলিলাদি সংগ্রহ করা হয়। উক্ত দলিলাদি আড়াআড়ি যাচাই করে প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। এতে দেখা যায়, ফু ওয়াং বার বিপুল পরিমাণ ভ্যাট ফাঁকির সাথে জড়িত হয়েছে।

অনুসন্ধানে ধারণা করা হচ্ছে বারে ব্যবহারকৃত মদজাতীয় পণ্য সংগ্রহ ও বিক্রয়ে ব্যাপক অনিয়ম সংঘটিত হয়েছে। এ বিষয়ে অধিকতর অনুসন্ধান করার জন্য এনবিআরের শুল্ক গোয়েন্দাকে অনুরোধ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে উদঘাটিত মূসকের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানকে বক্তব্য প্রদানের জন্য কয়েক দফায় সময় দেয়া হলেও প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ আত্মপক্ষ সমর্থনে বক্তব্য রাখেনি। প্রতিষ্ঠানটিতে একাধিকবার এ সংক্রান্ত নোটিশ ইস্যু করলেও চাহিদা মোতাবেক দলিলাদি দাখিল থেকে বিরত ছিল। নিজের প্রতিশ্রুত সময়সীমা নিজেই ভঙ্গ করে এবং শুধুমাত্র সময় প্রার্থনা করে তদন্তে কালক্ষেপণ করে।

২০১৫ সালের জুলাই থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত- এই ৫ বছর তদন্ত মেয়াদে প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক অডিট রিপোর্টে বিক্রয়মূল্য প্রদর্শন করা হয়েছে ১৬২ কোটি ৭৬ লাখ ৮১ হাজার ৩১৯ টাকা। উক্ত মূল্যকে মূসকসহ বিবেচনা করে ‍মূসক আরোপযোগ্য বিক্রয়মূল্য নির্ণয় করা হয় ১৪১ কোটি ৫৩ লাখ ৭৫ হাজার ৬০ টাকা। কিন্তু দাখিলপত্রে বিক্রয়মূল্য প্রদর্শন করা হয়েছে ২ কোটি ২৬ লাখ ৩৮ হাজার ৫৮২ টাকা। এক্ষেত্রে ফুওয়াং বারটি বিক্রয় তথ্য গোপন করেছে ১৩ ৯কোটি ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৭৮ টাকা। বিক্রয়মূল্য কম প্রদর্শন করায় অপরিশোধিত ভ্যাট বাবদ ২০ কোটি ৮৯ লাখ ১০ হাজার ৪৭২ টাকা উৎঘাটন করা হয়।

এই ফাঁকির উপরও ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক দুই শতাংশ হারে ১৫ কোটি ৭৫ লাখ ৩৩ হাজার ৭৯২ টাকা সুদ টাকা প্রযোজ্য।

এছাড়া, তদন্ত দেখা যায় উক্ত মেয়াদে প্রতিষ্ঠানটি উৎসে কর্তন খাতে কোন ভ্যাট পরিশোধ করেনি। উক্ত সময়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রদেয় ভ্যাটের পরিমাণ ছিল ২ কোটি ৩৮ লাখ ৩৩ হাজার ২৩১ টাকা। পূর্বে কোন ভ্যাট পরিশোধ না করায় প্রতিষ্ঠানটির নিকট হতে অপরিশোধিত ভ্যাট বাবদ ২ কোটি ৩৮ লাখ ৩৩ হাজার ২৩১ টাকা আদায়যোগ্য।

উৎসে কর্তন বাবদ এই ফাঁকির উপর ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক ২ শতাংশ হারে ১ কোটি ৩৬ লাখ ৪৭ হাজার ৯২২ টাকা সুদ টাকা প্রযোজ্য।

অপরদিকে, স্থান-স্থাপনা ভাড়ার বিপরীতে অপরিশোধিত মূসকের পরিমাণ ৪৩ লাখ ১১ হাজার ৫৮ টাকা উৎঘাটন করা হয়।

অফিস, স্থান-স্থাপনা ভাড়ার বিপরীতে এই ফাঁকির উপর ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক ২% হারে ২৫,৭১,৭৬৫ টাকা সুদ প্রযোজ্য।

প্রতিষ্ঠানটি সর্বমোট অপরিশোধিত ভ্যাটের পরিমাণ ২৩ কোটি ৭০ লাখ ৫৪ হাজার ৭৬১ টাকা এবং সুদ বাবদ ১৭ কোটি ৩৭ লাখ ৫৩ হাজার ৪৭৯ টাকাসহ সর্বমোট ৪১ কোটি ৮ লাখ ৮ হাজার ২৪০ টাকা সরকারি রাজস্ব পরিহারের তথ্য উদঘাটিত হয়।

ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের উপপরিচালক ফেরদৌসী মাহবুবের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল এই তদন্ত সম্পন্ন করেন।

 

/জিএম/এফএএন/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
রাজশাহীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত
রাজশাহীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত
ইতালিতে হিমবাহে ধস, নিহত ৫
ইতালিতে হিমবাহে ধস, নিহত ৫
ক্যারিবীয়দের রান উৎসবের দিনে হারও দেখলো বাংলাদেশ
ক্যারিবীয়দের রান উৎসবের দিনে হারও দেখলো বাংলাদেশ
পাত্রী দেখে ফেরার পথে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার নারী মেম্বার
পাত্রী দেখে ফেরার পথে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার নারী মেম্বার
এ বিভাগের সর্বশেষ
ভোজ্য তেলে ভ্যাটমুক্ত সুবিধার সময় বাড়লো
ভোজ্য তেলে ভ্যাটমুক্ত সুবিধার সময় বাড়লো
তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য ভ্যাটে ছাড় পাচ্ছে বন্ধু সোসাইটি
তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য ভ্যাটে ছাড় পাচ্ছে বন্ধু সোসাইটি
ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগে ঢাকা রিজেন্সির বিরুদ্ধে মামলা
ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগে ঢাকা রিজেন্সির বিরুদ্ধে মামলা
সয়াবিন তেলে ভ্যাট প্রত্যাহার হচ্ছে
সয়াবিন তেলে ভ্যাট প্রত্যাহার হচ্ছে
রিসাইকেলড ফাইবারে শুল্ক কর প্রত্যাহার চায় বিটিএমএ
রিসাইকেলড ফাইবারে শুল্ক কর প্রত্যাহার চায় বিটিএমএ