X

সেকশনস

দিহান যৌনবর্ধক ও মাদক নিয়েছিল কিনা পরীক্ষার নির্দেশ

আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:১৬

রাজধানীর কলাবাগানে ‘ও’ লেভেলের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামি ইফতেখার ফারদিন দিহান যৌনবর্ধক ওষুধ ও মাদক সেবন করেছিল কিনা, তা পরীক্ষা করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসমিন আরা এ আদেশ দেন।

আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক স্বপন কুমার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এদিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কলাবাগান থানার পুলিশ পরিদর্শক আ ফ ম আসাদুজ্জামান আসামি দিহান ঘটনার সময় যৌনবর্ধক ওষুধ ও মাদক সেবন করেছিল কিনা, তা পরীক্ষা করার অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করেন। তার এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ৮ জানুয়ারি ইফতেখার ফারদিন দিহান ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত ৭ জানুয়ারি রাতে এ  ঘটনায়  কলাবাগান থানায় ওই শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ফারদিন ইফতেখার দিহান বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে বাদীর মেয়ে স্কুলছাত্রীকে প্রেমে প্রলুব্ধ করে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর ৬৩/৪, লেক সার্কাস ডলফিন গলি, পান্থপথ, কলাবাগানের ফাঁকা বাসায় মেয়েটিকে নিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় প্রচুর রক্তক্ষরণে মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়ে। তখন বিবাদী দিহান ধর্ষণের বিষয়টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য মেয়েটিকে নিয়ে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যায়। সেখানে ভিকটিমের মৃত্যু হয়। সংবাদ পেয়ে কলাবাগান থানার পুলিশের একটি দল দ্রুত হাসপাতালে যায়।

খবর পেয়ে মেয়েটির তিন বন্ধু হাসপাতালে গেলে পুলিশ তাদেরও আটক করে। পরে দিহানসহ চার জনকে কলাবাগান থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পুলিশ পরে স্কুলছাত্রীর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

পুলিশের এসি আবুল হাসান বলেন, ‘মেয়েটির শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিভিন্ন আলামত জব্দ করেছে।’

আরও পড়ুন- 

দিহানের বয়স নিয়ে বিভ্রান্তি কেন?

কে এই ফারদিন দিহান?

লজ্জিত দিহানের পরিবার, দেয়নি আইনজীবীও

ঘটনার পর ভাইকে ফোন করে যা বলেছিল দিহান

কলাবাগানে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা: দিহানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

ধর্ষণকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে মেয়েটিকে হাসপাতালে নেয় দিহান

কলাবাগানের ঘটনায় ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ এনে মামলা

কলাবাগানে কিশোরী হত্যা, গ্রেফতার ৩

রাজধানীতে জন্মদিনে ডেকে কিশোরীকে নির্যাতনের পর হত্যার অভিযোগ

 

/এমএইচজে/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

যা করতে এসেছিলাম, তার সবই করেছি: বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প

যা করতে এসেছিলাম, তার সবই করেছি: বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প

দেশি ওটিটি অ্যাপসে বাড়ছে কথা বলার খরচ

দেশি ওটিটি অ্যাপসে বাড়ছে কথা বলার খরচ

সবাইকে বিদ্যালয়ে আনতে শিশু জরিপ শুরু করছে সরকার

সবাইকে বিদ্যালয়ে আনতে শিশু জরিপ শুরু করছে সরকার

বাঙালির অনুভূতিতে একাত্ম হয়ে আছেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালির অনুভূতিতে একাত্ম হয়ে আছেন বঙ্গবন্ধু

‘চলতি মাসেই ভ্যাকসিন দেওয়ার আশা’

বাংলা ট্রিবিউনকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী‘চলতি মাসেই ভ্যাকসিন দেওয়ার আশা’

টিএসসি ভাঙা বন্ধে জনমত গড়বে স্থপতি ও সচেতন সমাজ

টিএসসি ভাঙা বন্ধে জনমত গড়বে স্থপতি ও সচেতন সমাজ

নামবিহীন ক্লিনিক সিলগালা, লাখ টাকা দণ্ড

নামবিহীন ক্লিনিক সিলগালা, লাখ টাকা দণ্ড

সর্বশেষ

মোস্তাফিজের সাফল্যের পর বৃষ্টির হানা

মোস্তাফিজের সাফল্যের পর বৃষ্টির হানা

‘তামিম’ যুগে হাসানের অভিষেক

‘তামিম’ যুগে হাসানের অভিষেক

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৯ কোটি ৬৬ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৯ কোটি ৬৬ লাখ ছাড়িয়েছে

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এক সপ্তাহে ৫ শতাধিক ঘর পুড়ে ছাই

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এক সপ্তাহে ৫ শতাধিক ঘর পুড়ে ছাই

যা করতে এসেছিলাম, তার সবই করেছি: বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প

যা করতে এসেছিলাম, তার সবই করেছি: বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

ট্রাম্পের বিদায়ে হামলা থেকে বেঁচে গেলো ইরান?

ট্রাম্পের বিদায়ে হামলা থেকে বেঁচে গেলো ইরান?

জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে সরকারি খালের ওপর বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ

জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে সরকারি খালের ওপর বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

কামরাঙ্গীরচরে পিকআপের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

পিকে হালদার কাণ্ডে সাবেক সচিবের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শিক্ষা খাত

সবাইকে বিদ্যালয়ে আনতে শিশু জরিপ শুরু করছে সরকার

সবাইকে বিদ্যালয়ে আনতে শিশু জরিপ শুরু করছে সরকার

টিএসসি ভাঙা বন্ধে জনমত গড়বে স্থপতি ও সচেতন সমাজ

টিএসসি ভাঙা বন্ধে জনমত গড়বে স্থপতি ও সচেতন সমাজ

৯০ ভরি সোনা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার মাদকের সহকারী পরিচালক রিমান্ডে

৯০ ভরি সোনা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার মাদকের সহকারী পরিচালক রিমান্ডে


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.