নৌকার চাহিদা অনেক, দামও বেশি

Send
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১০:০০, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৬, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় নৌকার কারিগররা বানাচ্ছেন নতুন নৌকা। (সাম্প্রতিক ছবি)

গোপালগঞ্জের নিম্নাঞ্চল হিসেবে পরিচিত কোটালীপাড়ায় বন্যা ও বর্ষণের ফলে দিন দিন বাড়ছে পানি। পানিতে টইটম্বুর পুরো উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম। বেশির ভাগ এলাকায় এখন যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে নৌকা। আর যে কারণে দিন দিন বাড়ছে নৌকার কদর। আর এ কারণে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে নৌকা বিক্রির ধুম পড়েছে। নৌকা নির্মাতারা তাই দিন রাত খেটে নৌকা তৈরিতেও ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। নৌকার বাজার এখন জমজমাট।

কোটালীপাড়া উপজেলার ঘাঘর, কালিগঞ্জ, রামনগর, ধারাবাশাইল, শুয়াগ্রাম, ভাঙ্গারহাট, পিড়ারবাড়িসহ প্রায় ১০/১৫টি ছোটবড় হাটে এখন নৌকা বিক্রি হয়ে থাকে। ছোটবড় মাঝারি নৌকা প্রকার ভেদে দাম কমবেশি হয়ে থাকে। প্রতিটি নৌকার দাম ৫ হাজার থেকে শুরু করে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

কালিগঞ্জ বাজারের নৌকা ব্যবসায়ী নীহার বাড়ৈ বলেন, এই বাজারে কড়াই কাঠের মাঝারি ধরনের নৌকা বেশি বিক্রি হচ্ছে। গত বছরের চেয়ে এ বছর নৌকার চাহিদা ও দাম দুটোই একটু বেশি। 

শুয়াগ্রামের বাসিন্দা নৌকা কারিগর হরবিলাস বাড়ৈ বলেন, এ বছর পানি বাড়ার কারণে নৌকার চাহিদা বেড়েছে। আর নৌকার চাহিদা বাড়লে দামও একটু বেড়ে যায়। তাছাড়া গত বছরের চেয়ে এ বছর লোহা ও কাঠের দাম বেশি। এজন্য এ বছর আমাদের একটু বেশি দামে নৌকা বিক্রি করতে হচ্ছে।

কলাবাড়ি ইউনিয়নের হিজলবাড়ি গ্রামে কৃষক তিনু হাজরা বলেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর নৌকার দাম বেশি। তিনি বলেন, কালিগঞ্জ বাজারে গত বছর যে নৌকাটি ৫ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে এ বছর সেই ধরনের একটি নৌকা ৭/৮ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কলাবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাইকেল ওঝা বলেন, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে শুধু কৃষক ও মৎস্যজীবীরা নৌকা ক্রয় করেন। কিন্তু, এ বছরের চিত্রটা একটু ভিন্ন। এ বছর বন্যা ও বর্ষার কারণে পানি বেড়ে নিম্ন এলাকার রাস্তাঘাট ডুবে গেছে। এ কারণে সাধারণ জনগণের হাটবাজার, অফিস আদালতে নৌকা নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। যার ফলে গত বছরের চেয়ে এ বছর নৌকা ক্রয়-বিক্রয় বেশি হচ্ছে। এসব কারণে গত বছরের তুলনায় এ বছর নৌকার দামও একটু বেশি বলে তিনি মন্তব্য করেন।

/টিএন/এমএমজে/

লাইভ

টপ
X