X
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২
১৬ আষাঢ় ১৪২৯

পথনাট্যে অব্যবস্থাপনা ও আর্তনাদের প্রতিচ্ছবি

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০২:২৮

নীল পলিথিনে ঢাকা নিথর দেহ। পাশেই বালুর তৈরি নিথর দেহের একটি ভাস্কর্য। চারদিকে সহপাঠীদের আর্তনাদ। হঠাৎ করেই পলিথিন সরিয়ে ট্রাকের দিকে দৌড়ালো আত্মা। যেই ট্রাক কিছুদিন আগেই কেড়ে নিয়েছে তার প্রাণ। একদৃষ্টিতে তাকিয়ে সেই ট্রাকের দিকে। আবার দৌড়ে গেলো ভাস্কর্যের কাছে। ভাস্কর্যের পাশেই ছিল নিজের তৈরি শিল্পকর্ম। দৌড়ে সেগুলো ধরতে গিয়েও ব্যর্থ হন তিনি।

মঙ্গলবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ট্রাকচাপায় নিহত শিক্ষার্থী মাহমুদ হাবিব হিমেলের স্মরণে দিনব্যাপী শিল্পকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থীরা। প্রদর্শনীর একপর্যায়ে শিক্ষার্থীরা পথনাট্য প্রদর্শন করেন। নাটকে হিমেলের মৃত্যুর পর তার আত্মার অবস্থা নিয়ে এমনই কল্পিত দৃশ্য ফুটিয়ে তোলেন শিক্ষার্থীরা।

চিত্রকর্ম প্রদর্শনীতে শিক্ষার্থীরা

নাটকের শেষ দৃশ্যে দেখা যায়, হিমেলের আত্মা বারংবার তার নিজের তৈরি শিল্পকর্মগুলোকে হাত দিয়ে স্পর্শ করতে চায়। কিন্তু পারে না। পরবর্তী সময়ে বন্ধুরা তাকে জোর করে সেই নীল পলিথিনে ঢেকে দেন। 

গত ১ ফেব্রুয়ারি হল থেকে ক্যাম্পাসে ফেরার পথে বিশ্ববিদ্যালয়ের হবিবুর রহমান হল সংলগ্ন স্থানে ট্রাকচাপায় নিহত হন চারুকলা অনুষদের গ্রাফিক ডিজাইন, কারুশিল্প ও শিল্পকলা ইতিহাসের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী হিমেল। এরপর থেকে চারুকলার শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে শিল্পকর্ম অঙ্কন, প্রদীপ প্রজ্বলন, বালু দিয়ে হিমেলের ভাস্কর্য, দুর্ঘটনা পরবর্তী পরিস্থিতি অঙ্কন করেন।

গত কয়েকদিনের আঁকা শিল্পকর্মগুলো নিয়ে মঙ্গলবার ঘটনাস্থলের পাশেই শিল্পকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করেন হিমেলের সহপাঠীরা। এতে শতাধিক শিল্পকর্ম প্রদর্শন করা হয়। যেখানে হিমেলে নিজের আঁকা ১৫টি শিল্পকর্ম রয়েছে। হিমেলের আঁকা চিত্রকর্মগুলোকে এক পাশে রেখে তার নাম দেওয়া হয় ‘হিমেল কর্নার’।

হিমেলের স্মরণে ব্যতিক্রমী আয়োজন

প্রদর্শনীর বিভিন্ন চিত্রকর্মে লেখা, ‘এরা মগজ ফেলে ভবন তুলে নাম দিয়েছে উন্নয়ন, মগজখেকো এই জোকেদের নামটা কিন্তু প্রশাসন!’, ‘রাস্তা-ঘাটে পিষে মরি, বাতাসে তোদের শ্বাস, সৃষ্টিকূলের ঘাতকেরা তোরা সাবধানে থাক’, ‘টায়ারের রং কালো কেন?’, ‘ঢাকা মেট্রো-ট, ২২-৭৮১৯’ ইত্যাদি।

শিল্পকর্ম প্রদর্শনীর বিষয়ে চারুকলা অনুষদের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ইমরান হোসেন বলেন, ‘এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে হিমেলের শিল্পকর্মগুলো দেখাতে চেয়েছি। সেই সঙ্গে আমরা গত কয়েকদিন থেকে দুর্ঘটনাস্থলে বসে যে চিত্রকর্মগুলো এঁকেছি সেগুলোও এখানে রাখা হয়েছে। এই প্রদর্শনীর  মাধ্যমে হিমেলকে যেমন স্মরণ করছি, একই সঙ্গে প্রশাসনের গাফিলতি তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

একই অনুষদের শিক্ষার্থী ও হিমেলে সহপাঠী মৌমিন সিদ্দিকী বলেন, ‘আজ বন্ধু-সহপাঠীরা সবাই মিলে এখানে এসছি শুধু হিমেলের স্মরণে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো একটা জায়গায় পড়তে এসে এই ধরনের মৃত্যু কখনও কাম্য নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক বড় বড় ভবন তৈরি হচ্ছে। কিন্তু ঠিকমতো নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে না। আমরা চাই বিশ্ববিদ্যালয়ের সড়কগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ হোক। যাতে হিমেলের মতো আর কোনও শিক্ষার্থীর এভাবে প্রাণ না যায়। হিমেল তার শিল্পকর্মের কাছে ফিরে যেতে চাচ্ছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা প্রতিবন্ধকতা তাকে ফিরে যেতে দিচ্ছে না। বাধা সৃষ্টি করছে।’

তিনি আরও বলেন, নাটকের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনিয়ন্ত্রিত যানবাহন, অনিরাপদ ক্যাম্পাস, প্রশাসনের উদাসীনতা, অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্বহীনতাকে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে। এটি অভিনয়ে আসলে হিমেলকে দিয়ে দেখানো হয়েছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্যেকটি শিক্ষার্থী অনেক প্রতিবন্ধকতা দ্বারা আবদ্ধ।’ 

/এএম/এলকে/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
ছাত্রীর কাছে হিরো সাজতে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা করে জিতু
ছাত্রীর কাছে হিরো সাজতে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা করে জিতু
ড্রোনের মাধ্যমে মশার উৎস শনাক্তে অভিযান শনিবার থেকে
ড্রোনের মাধ্যমে মশার উৎস শনাক্তে অভিযান শনিবার থেকে
টি-টোয়েন্টি দলে যুক্ত হলেন তাসকিন-মিরাজ
টি-টোয়েন্টি দলে যুক্ত হলেন তাসকিন-মিরাজ
শিক্ষককে হত্যার পর বন্ধুর বাসায় লুকিয়ে ছিল জিতু
শিক্ষককে হত্যার পর বন্ধুর বাসায় লুকিয়ে ছিল জিতু
এ বিভাগের সর্বশেষ
পিস্তল হাতে ভাইরালের ৬ মাস পর বায়েজিদ গ্রেফতার
পিস্তল হাতে ভাইরালের ৬ মাস পর বায়েজিদ গ্রেফতার
ছাত্রের আঘাতে নিহত শিক্ষক উৎপলের তৃতীয় বিবাহবার্ষিকী আজ
ছাত্রের আঘাতে নিহত শিক্ষক উৎপলের তৃতীয় বিবাহবার্ষিকী আজ
কান্না থামছে না শিক্ষক উৎপলের মায়ের 
কান্না থামছে না শিক্ষক উৎপলের মায়ের 
গরু কিনতে যাওয়ার পথে প্রাণ গেলো ব্যবসায়ীর
গরু কিনতে যাওয়ার পথে প্রাণ গেলো ব্যবসায়ীর
নিখোঁজের ২ দিন পরে ডোবা থেকে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার
নিখোঁজের ২ দিন পরে ডোবা থেকে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার