X
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯
রাজশাহীতে বিএনপির গণসমাবেশ

গল্প-ভোজ আর আড্ডায় নেতাকর্মীরা, আশা এক দফার আন্দোলনের

রাবি প্রতিনিধি
০২ ডিসেম্বর ২০২২, ২২:২৮আপডেট : ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ২২:৫৪

এ বছরের ১২ অক্টোবর চট্টগ্রাম থেকে শুরু হওয়া বিএনপির বিভাগীয় পর্যায়ের গণসমাবেশের প্রায় শেষ পর্যায়ে হচ্ছে রাজশাহীর কর্মসূচি। আগামীকাল শনিবার (৩ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠেয় এই গণসমাবেশে যোগ দিতে ইতিমধ্যে নগরীতে এসেছেন হাজার-হাজার অনুসারী, নেতাকর্মী। শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) জুমার নামাজের পর রাজশাহী শহরে প্রবেশ পথ আমচত্বর, কাশিয়াডাঙ্গা, বেলপুকুর দিয়ে রাজশাহী ও তার পার্শ্ববর্তী জেলার নেতাকর্মীরা একের পর এক মিছিল নিয়ে যোগ দিচ্ছেন সমাবেশস্থলঘেঁষা ঈদগাহ মাঠে। আশপাশের জেলাগুলো থেকে পায়ে হেঁটে, বিভিন্ন যানবাহনে ভেঙে-ভেঙে নেতাকর্মীরা এসেছেন সমাবেশের উদ্দেশ্য। 

বিকালে রাজশাহীর ঈদগাহ মাঠে সরেজমিনে দেখা গেছে, মাঠে তাঁবু টানিয়ে অবস্থান নিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। অনুসারীরা শুয়ে-বসে সময় পার করছেন। পাশেই গরু জবাই করা হচ্ছে নেতাকর্মীদের খাবারের জন্য। সমাবেশ কেন্দ্র করে আসা নেতাকর্মীরাও গল্প, আড্ডা আর বৈঠকি খেলায় মত্ত, অপেক্ষা শনিবারের সমাবেশ। মাঠজুড়ে সরকারবিরোধী ও বিএনপির দলীয় স্লোগানও চলছে সমানতালে।

সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে রাজশাহীতে পৌঁছে সরাসরি সমাবেশস্থলে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় তিনি উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশে গণসমাবেশ সফলের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশে অংশগ্রহণ করার জন্য অনুসারীদের আহ্বান জানান।

হুইল চেয়ারে এসেছেন এক কর্মী

বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে আলাপকালে নেতাকর্মীরা জানান, শনিবারের সমাবেশকে কেন্দ্র করে পরিবহন বন্ধ হওয়ায় সংকটে পড়েছেন তারা। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে আশপাশের জেলাগুলো থেকে অনেক নেতাকর্মী অটোরিকশা-ভ্যান ও লেগুনার মতো যানবাহনে চড়ে ভেঙে-ভেঙে রাজশাহীতে আসছেন। তাদের অভিযোগ, পথে পথে বাঁধার কারণে অনেককে ১০ থেকে ৩০ কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে শহরে আসতে হচ্ছে।

সমাবেশ স্থলে প্রবেশের অনুমতি না দেওয়া নেতাকর্মীরা পাশের ঈদগাহ মাঠে অবস্থান নিয়েছেন। গত দুদিন রাজশাহীর পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা মাঠে তাঁবু টানিয়ে রাত্রীযাপন করছেন। মাঠেই চলছে খাওয়া-দাওয়া। বিএনপি নেতাকর্মীরা বলছেন, ধর্মঘট ও পুলিশ বাধায় তারা সমাবেশে যোগ দিতে না পারার আশঙ্কায় দুই দিন আগে এসে তাঁবু টানিয়ে অবস্থান নিয়েছেন।

নওগাঁ থেকে আসা বিএনপি কর্মী রহিম আলী বলেন, ‘বৃহস্পতিবার এখানে আসছি, সমাবেশ সফল করতে। আজ দুদিন হলে তাবুতে শুয়ে-বসে সময় কাটাচ্ছি। তিন বেলা খাবার দিচ্ছে খাচ্ছি। মাঝে মাঝে অন্যরা তাস খেলে, সেটা দেখছি।’

সিরাজগঞ্জ থেকে আসা পঞ্চাশোর্ধ্ব বিএনপিকর্মী আবুল মান্নান বলেন, ‘আমরা সমাবেশকে সফল করতে দুদিন আগে থেকে এখানে আসছি। সবাই একসঙ্গে রান্নাবান্না করে খাচ্ছি, আড্ডা দিচ্ছি ভালোই লাগছে। তবে রাত্রি বেলা একটু শীত লাগে। সমাবেশ সফল করে কাল বাড়ি যাবো।’  

শেষ হয়নি মঞ্চ তৈরির কাজ

শনিবার দুপুর ১১টার দিকে রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে গণসমাবেশ করতে চায় বিএনপি। যদিও পুলিশ ২টা থেকে শুরুর অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু এখনও শেষ হয়নি মঞ্চ তৈরির কাজ। তবে মঞ্চ তৈরির দায়িত্বে থাকা নেতাদের দাবি রাতের মধ্যেই শেষ হবে মঞ্চ তৈরির কাজ।

চলছে মঞ্চ তৈরি কাজ

শুক্রবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে দেখা গেছে, মাঠের বিভিন্ন স্থানে মাইক লাগানোর কাজ চলছে। এ ছাড়া কয়েকজন শ্রমিক ট্রাক থেকে স্পিকার নামাচ্ছেন। মঞ্চ তৈরির কাজের দেখভাল করছেন কেন্দ্রীয় কৃষক দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন খান।

তিনি বলেন, ‘আমাদের মঞ্চ তৈরির কাজ ইতিমধ্যে ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে। পুলিশ গাড়ি ঢুকতে বাধা দেওয়ায় কাজে একটু বিঘ্ন ঘটেছে। তবে রাতের মধ্যে কাজ শেষ হবে।

তৃণমূলের নেতাকর্মীরা চায় ‘এক দফা আন্দোলন’

রাজশাহীর বিভাগীয় সমাবেশে আসা তৃণমূল নেতাকর্মীরা বলছেন, তারা এক দফা আন্দোলন চান। এসব সমাবেশ করে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে নামানো যাবে না। ক্ষমতা থেকে বর্তমান সরকারকে সরাতে আন্দোলনের বিকল্প নেই।

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ আসা যুবদল নেতা এফ এম শাহ আলম বলেন, ‘গত কয়েকটি বিভাগীয় সমাবেশের তুলনায় রাজশাহীতে সরকার বেশি বাধার সৃষ্টি করেছে। এখানে দুদিন আগে থেকে অঘোষিত হরতাল দিয়ে যানচলাচল বন্ধ করেছে। তারপরও বিএনপির নেতাকর্মীদের স্রোত আটকানো যায়নি। আমরা এই সমাবেশ থেকে এক দফা আন্দোলন চাই। রাজশাহীতে আওয়ামী লীগকে হলুদ কার্ড দেখানো হবে। এই সরকারকে আর কোনও সুযোগ দেওয়া যাবে না।’

bnp4

নাটোর জেলা শ্রমিক দলের সহ-প্রচার সম্পাদক আনিসুর রহমান বলেন, ‘বর্তমান সরকার সাধারণ মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। তারা গুম-খুনের রাজনীতি করছে। আমরা এই সরকার আর চাই না। আশা করি, আমাদের কেন্দ্রীয় নেতারা আগামীকালের সমাবেশ থেকে সরকার পতনের আন্দোলনের ডাক দেবেন।’

মৃত্যুর আগে শেষবার ভোটের অধিকার চান ছগীর উদ্দীন

বিএনপির ডাকা বিভাগীয় সমাবেশে যোগ দিতে বুধবার জয়পুরহাট থেকে রাজশাহী এসেছেন সত্তরোর্ধ্ব ছগীর উদ্দীন। গত দুদিন ঈদগাহ তাঁবু টানিয়ে অবস্থান করছেন। শুক্রবার বিকালে তার সঙ্গে এই প্রতিবেদকের কথা হয়।

সমাবেশে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার টেলিভিশনে বলে গণতন্ত্র ও গণভোটে বিশ্বাস করে। অথচ গত ১৫ বছর আমার ভোট আমি দিতে পারিনি। শেষ সময়ে এসে ভোট দিতে চাই। তাই শীতের মধ্যে কষ্ট করে এখানে এসেছি।’

/এফআর/
সর্বশেষ খবর
দুই শতাধিক মামলা প্রত্যাহারের দাবি হেফাজতের: কী করছে পুলিশ?
দুই শতাধিক মামলা প্রত্যাহারের দাবি হেফাজতের: কী করছে পুলিশ?
সৌদি সুপার থেকে বিদায় রোনালদোর
সৌদি সুপার থেকে বিদায় রোনালদোর
সাবেক এমপি মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
সাবেক এমপি মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
সর্বাধিক পঠিত
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস